আন্তর্জাতিক কন্টেনার ট্রান্স-শিপমেন্ট টার্মিনাল, কোচি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
Jump to navigation Jump to search
কোচি কন্টেইনার টার্মিনাল
Vallarpadam Container Terminal.JPG
বিস্তারিত
চালু ২০১১[১]
পরিচালনা করে দুবাই পোর্ট ওয়াল্ড
মালিক জাহাজ মন্ত্রক,ভারত সরকার
উপলব্ধ নোঙরের স্থান
গভীরতা ১৪.৫ মিটার (৪৮ ফু)
পরিসংখ্যান
বার্ষিক কন্টেইনারের আয়তন ৩,৬৫,০০০ টিএসইউ (২০১৪--২০১৫)

স্থানীয়ভাবে ভাল্লারপাদাম টার্মিনাল হিসাবে পরিচিত কোচি আন্তর্জাতিক কনটেইনার ট্রান্সশিপমেন্ট টার্মিনাল (আইসিটিটি), ভারতে প্রথম ট্রান্স-শিপমেন্ট টার্মিনাল এবং একটি এসইজেড-এর মধ্যে পরিচালনা প্রথম কন্টেইনার টার্মিনাল হয়। [২][৩] এটি ভারতের কেরালা রাজ্যের কোচি বন্দরের অংশ।

প্রথম পর্যায়ে ৩,২০০ কোটি টাকা ব্যয়ে ভারত ও দুবাই পোর্ট ওয়ার্ল্ডের যৌথ সহযোগিতায় এটি নির্মিত হয়৷ কেরালার কোচিতে নির্মিত এই আন্তর্জাতিক কন্টেনার ট্রান্সশিপমেন্ট টার্মিনাল সংক্ষেপে আইসিটিটি হবে দেশের বৃহত্তম সিঙ্গল-অপারেটর কন্টেনার বন্দর৷ জাহাজে কন্টেনার বোঝাই ও খালাসের ক্ষেত্রে এই নতুন বন্দর হবে এক প্রাণকেন্দ্র৷ এর ফলে সমুদ্রপথে ভারতের আমদানি-রপ্তানি বাণিজ্যের জন্য সিঙ্গাপুর ও কলম্বো বন্দরের ওপর নির্ভরশীলতা অনেক কমবে৷ সময় কম লাগবে খরচ কম পড়বে৷ প্রথম পর্যায়ে ১০ লক্ষ কন্টেনার হ্যান্ডল করতে পারবে এই টার্মিনাল৷ পরে তা বেড়ে হবে ৪০ লক্ষ কন্টেনার৷ সরকারি ও বেসরকারি সহযোগিতায় দুবাই পোর্ট ওয়ার্ল্ড (ডিপিডবল্যু) এটি নির্মাণ করে এবং ৩০ বছর তা চালাবে৷ এজন্য ডিপিবল্যু দিয়েছে ১,৬০০কোটি টাকা আর ভারত সরকার দিয়েছে ১,৬৫০ কোটি টাকা৷

ইতিহাস[সম্পাদনা]

১৬ ফেব্রুয়ারী ২০০৫ সালে, দুবাই পোর্টস ওয়ার্ল্ড ঘোষণা দেয় যে, একটি আন্তর্জাতিক কনটেইনার ট্রান্সশিপমেন্ট টার্মিনাল (আইসিটিটি) - একটি ইন্ডিয়া গেটওয়ে টার্মিনাল নির্মাণ, উন্নয়ন এবং পরিচালনা করার জন্য কোচিন পোর্ট ট্রাস্ট (কোপটি)-এর সাথে একটি চুক্তিতে স্বাক্ষর করেছে যা ভাল্লারপাদামে আবস্থিত।

প্রকল্পটি ভারতবর্ষের প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংয়ের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন দ্বারা আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হয়েছিল। অনুষ্ঠানে কোচিন পোর্ট ট্রাস্টের চেয়ারম্যান ডাঃ জ্যাকব থমাস, ও ডিপি ওয়ার্ল্ড এক্সিকিউটিভ চেয়ারম্যান সুলতান আহমেদ বিন সুলায়ম কেরালার গভর্নর আর.এল. ভাটিয়া, ভারত সরকারের নৌমন্ত্রী টি.আর. বাল্য, ও কেরালার মুখ্যমন্ত্রী ওমেন চণ্ডী উপস্থিত ছিলেন।

চুক্তির অনুমোদন ভারত সরকারের অর্থনৈতিক বিষয়ক মন্ত্রিসভা কমিটি, অর্থ মন্ত্রণালয় এবং এ সময় ডিপি ওয়ার্ল্ড পরিচালনা করবে এবং পরবর্তীতে কোচিন বন্দরের রাজীব গান্ধী কনটেইনার টার্মিনালনকে একটি নতুন টার্মিনাল হিসাবে পরিচালনা করা হবে। সমাপ্তির। ডিপি ওয়ার্ল্ডকে টার্মিনালটির একচেটিয়া পরিচালনা এবং ব্যবস্থাপনার জন্য ৩৮-বছরের ছাড় দেওয়া হয়েছে।

সংক্ষিপ্ত বিবরণ[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "ভারতের অন্যতম বৃহৎ কন্টেনার বন্দরের উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী"। সংগ্রহের তারিখ ০৪-১২-২০১১৬  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |সংগ্রহের-তারিখ= (সাহায্য)
  2. "DP World Kochi poised to grow its capacity"Gulf News। ২০১৬-০২-০৮। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-১০-১৬ 
  3. "Tenders for consultants for Colachel port by March"India Today। ২০১৬-০২-১৭। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-১০-১৬ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]