খ্রিস্ট ধর্ম

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
(Christianity থেকে পুনর্নির্দেশিত)
Jump to navigation Jump to search

খ্রিস্টধর্ম একটি অব্রাহামীয় একেশ্বরবাদী ধর্ম। অনুসারীর সংখ্যা অনুযায়ী এটি বিশ্বের প্রধান ধর্মগুলির একটি। এই ধর্মের অনুসারীদের খ্রিস্টান বলা হয়। খ্রিস্টধর্ম একটি একেশ্বরবাদী ধর্ম, অর্থাৎ খ্রিস্টানরা কেবল এক ঈশ্বরের উপাসনা করেন।[১] যিশুখ্রিস্টের জীবন ও শিক্ষার ওপর ভিত্তি করে খ্রিস্টীয় ১ম শতকে ধর্মটির উৎপত্তি হয়। "খ্রিস্ট" অর্থ "ঈশ্বরের নির্বাচিত"।

ঐতিহাসিকভাবে নাসরতের যিশু প্রাচীন রোমান সাম্রাজ্যের প্রদেশ জুদেয়াতে বসবাসকারী একজন ধর্মপ্রচারক ও নৈতিক শিক্ষক ছিলেন। কিংবদন্তি অনুসারে তিনি দুরারোগ্য ব্যাধি সারাতে পারতেন, এমনকি মৃত মানুষকে পুনরুজ্জীবিত করতে পারতেন। যিশুর পালক বাবা যোসেফ ছিলেন একজন কাঠমিস্ত্রী। কিন্তু যিশুর অনুসারীরা অর্থাৎ খ্রিস্টানেরা বিশ্বাস করেন যে যিশু স্বয়ং ঈশ্বরের একমাত্র সন্তান। স্থানীয় রোমান প্রশাসক পোন্তিউস পিলাতের আদেশে যিশুকে ক্রুশবিদ্ধ করে তাঁর মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়। [২] যিশুর জীবন ও তাঁর অনুসারীদের কাহিনী নতুন নিয়ম নামক পুস্তকমালায় লিপিবদ্ধ আছে। এই নতুন পুস্তকটি খ্রিস্টানদের পবিত্র ধর্মপুস্তক বাইবেলের একটি অংশ। বাইবেল নতুন নিয়ম ও পুরাতন নিয়ম উভয় নিয়ে গঠিত।[৩] নতুন নিয়মের প্রথম চারটি পুস্তককে একত্রে সুসমাচার নামে ডাকা হয়; এগুলিতে যিশুর জীবন, তাঁর মৃত্যু এবং মৃত অবস্থা থেকে তাঁর পুনরুত্থানের কাহিনী বর্ণিত হয়েছে।

বর্তমানে খ্রিস্টধর্ম বেশ কিছু শাখায় বিভক্ত। এদের মধ্যে বৃহত্তম দলগুলি হল রোমান ক্যাথলিক গির্জার অনুসারীগণ, পূর্বী প্রথানুবর্তী গির্জার অনুসারীগণ, প্রতিবাদী গির্জাসমূহের অনুসারীগণ। এদের বাইরেও বিশ্বের সর্বত্র ভিন্ন ভিন্ন মতের অনেক গির্জা রয়েছে।

খিস্টীয় ৪র্থ শতকে নিকায়েয়ার প্রথম সম্মেলনে বাইবেলে বর্ণিত ঈশ্বর-পিতা, ঈশ্বর-পুত্র ও পবিত্র আত্মা এই তিন সত্তাই যে একই ঈশ্বরের তিন রূপ, এই ত্রিত্ববাদ ধারণাটি গৃহীত হয়। বর্তমানে সিংহভাগ খ্রিস্টান গির্জা ত্রিত্ববাদে বিশ্বাসী; তবে মূলধারার বাইরে অনেক ছোট ছোট গির্জা এতে বিশ্বাস করে না।

খ্রিস্টানেরা বিশ্বাস করে যে ঈশ্বর বিশ্ব সৃষ্টি করেছেন। যিশু হলেন কুমারী মরিয়মের মানব সন্তান এবং একই সাথে ঈশ্বরের স্বর্গীয় সন্তান। তারা মনে করে যে যিশু মানবজাতিকে পাপ থেকে মুক্তি দিতে কষ্টস্বীকার করেন ও মৃত্যুবরণ করেন[৪] এবং পরবর্তীতে মৃত অবস্থা থেকে পুনরুজ্জীবিত হয়ে ফেরত আসেন। এরপর তিনি স্বর্গে আরোহণ করেন। সময়ের যখন সমাপ্তি হবে, তখন যিশু আবার পৃথিবীতে ফেরত আসবেন এবং শেষ বিচারে সমস্ত মানবজাতির (মৃত বা জীবিত) বিচার করবেন। যারা যিশুতে বিশ্বাস এনেছে, তারা চিরজীবন লাভ করবে। পবিত্র আত্মা হল ঈশ্বরের আত্মা যা বিভিন্ন নবী বা ধর্মপ্রচারকদের মাধ্যমে মানবজাতির সাথে যোগাযোগ করেছে। পুরাতন নিয়মের পুস্তকগুলিতে যে মসিহ বা ত্রাণকর্তার কথা উল্লেখ করা হয়েছে, খ্রিস্টানরা বিশ্বাস করে যে যিশুই সেই ত্রাণকর্তা। তারা যিশুকে একজন নৈতিক শিক্ষক, অনুকরণীয় আদর্শ এবং প্রকৃত ঈশ্বরকে উদ্ঘাটনকারী ব্যক্তি হিসেবে গণ্য করে।

খ্রিস্টধর্ম প্রথমে পূর্ব ভূমধ্যসাগরীয় অঞ্চলগুলিতে ইহুদিধর্মের একটি উপ-সম্প্রদায় হিসেবে যাত্রা শুরু করে।[৫][৬] কয়েক দশকের মধ্যে খ্রিস্টে বিশ্বাসী অনুসারীদের সংখ্যা ব্যাপকভাবে বৃদ্ধি পায়। ৪র্থ শতকে এসে এটি সমগ্র রোমান সাম্রাজ্যের প্রধান ধর্মে পরিণত হয়। ইথিওপিয়ার আকসুম সাম্রাজ্য প্রথম সাম্রাজ্য হিসেবে খ্রিস্টধর্মকে রাষ্ট্রধর্ম হিসেবে গ্রহণ করে। মধ্যযুগে এসে ইউরোপের বাকি অংশগুলিরও খ্রিস্টধর্মায়ন ঘটে। সে সময় খ্রিস্টানরা মধ্যপ্রাচ্য, উত্তর আফ্রিকা এবং ভারতের অংশবিশেষেও সংখ্যালঘু সম্প্রদায় হিসেবে বাস করত।[৭] আবিষ্কারের যুগের পরে উপনিবেশ স্থাপন ও জোরালো ধর্মপ্রচারণার সুবাদে খ্রিস্টধর্ম সাহারা-নিম্ন আফ্রিকা, উত্তর ও দক্ষিণ আমেরিকা, অস্ট্রেলিয়া এবং বিশ্বের অন্যত্র (যেমন পূর্ব এশিয়া বিশেষত ফিলিপাইন) ছড়িয়ে পড়ে। বর্তমানে খ্রিস্টধর্ম বিশ্বের সবচেয়ে বেশি বিস্তৃত অঞ্চলব্যাপী বিরাজমান প্রধান ধর্ম।

২১শ শতকের প্রারম্ভে বিশ্বে ২২০ কোটি খ্রিস্টধর্মের অনুসারী ছিল, যা তৎকালীন বিশ্ব জনসংখ্যার (৬৭০ কোটি) ৩৩.২ শতাংশ।[৮][৯]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Monotheism"Catholic Encyclopedia। সংগ্রহের তারিখ ২০০৮-১০-০১ 
  2. Tacitus tells about this in his Annales: Perseus-Project: Annales 15,44 In the passage, Tacitus talks about the burning of Rome, which Nero attributed to the Christians: Christus, from whom the name had its origin, suffered the extreme penalty during the reign of Tiberius at the hands of one of our procurators, Pontius Pilatus, and a most mischievous superstition, thus checked for the moment, again broke out not only in Judaea, the first source of the evil, but even in Rome, where all things hideous and shameful from every part of the world find their centre and become popular.
  3. "BBC - Religion & Ethics - 566, Christianity"BBC। সংগ্রহের তারিখ ২০০৮-১০-০১ 
  4. McGrath, Christianity: An Introduction, p. 4-6.
  5. Robinson, Essential Judaism: A Complete Guide to Beliefs, Customs and Rituals, p. 229.
  6. Esler. The Early Christian World. p. 157f.
  7. McManners, Oxford Illustrated History of Christianity, p. 301-303.
  8. "Major Religions Ranked by Size"। সংগ্রহের তারিখ ২০০৮-১০-০১ 
  9. "World"। CIA world facts।