স্বরব্যাঞ্জো

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
স্বরব্যাঞ্জো
স্বরব্যাঞ্জো লোগো.jpg
স্বরব্যাঞ্জো'র আনুষ্ঠানিক লোগো
প্রাথমিক তথ্য
উদ্ভবরাজশাহী, বাংলাদেশ
ধরন
কার্যকাল২০১৪-বর্তমান
লেবেল

স্বরব্যাঞ্জো ২০১৪ সালে গঠিত রাজশাহী ভিত্তিক বাংলা 'ফোক-ফিউশন' সঙ্গীত দল।[১] সাধারণত লোক ধারার সঙ্গীত উপস্থাপন, স্বকীয় সংগীতভাবনা, সঙ্গীতায়োজনে দেশীয় বাদ্যযন্ত্রের ব্যবহার ও জনবহুল সরাসরি পরিবেশনার জন্য ব্যান্ডটি জনপ্রিয়তা অর্জন করে। ২০১৪ সালে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ইয়ামিন ইস্ক্রা রহমান[টীকা ১], মাইশা, রাগীব নিয়াজ রাফি ও আসিফ হাসান নিলয়ের সমন্বয়ে স্বরব্যাঞ্জো একটি সঙ্গীত দল হিসেবে পরিবেশনা শুরু করে। দলটি সদস্যতার জন্য সর্বদা উম্মুক্ত। ২০১৫ সালে দলটি তাদের প্রথম এ্যালবাম 'গান বাজনা' প্রকাশ করে। পরবর্তীতে 'হাওয়ার চিঠি'(২০১৬) এবং বেশ কিছু একক গান প্রকাশ করেছে।[৩] দলটি তাদের গান বাণিজ্যিকভাবে প্রকাশের বদলে বিনামূল্যে বিতরণের জন্য পরিচিত।[৪]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

স্বরব্যাঞ্জোর গঠনের মূল উদ্বোক্তা ইয়ামিন ইস্ক্রা রহমান, ছোটবেলা থেকেই সঙ্গীত চর্চা করতেন। ২০১৪ সালে তিনি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগে অধ্যায়নের পাশাপাশি তিনি পিয়ানো তবলাহাওয়াই গিটারের চর্চা করতেন। সেসময় সাহিত্যিক সাদাত হোসাইনের তার ফেসবুকে একটি 'লাস্ট বেঞ্চের ছেলেটা' শিরোনামের গীতি লিখে সুরের জন্য উম্মুক্ত করে দেন। ইস্ক্রা, রাফি এর গীতির সুর করেন এবং নিলয়ের কন্ঠে ধারণ করেন। এই গানের মাধ্যমে তারা একটি সঙ্গীত দল হিসেবে পরিবেশনা শুরু করেন। দলটি প্রথমে নিখিল বাংলা ইউকুলেলে সংঘ নামে বিশ্ববিদ্যালয় ও বিভিন্ন জনবহুল সরাসরি পরিবেশনা করে। পরবর্তীতে ব্যান্ডের নাম বদল করে একটি জুতসই নামের খোঁজ করা হয়। প্রাক্তন সদস্য রওনক হাসান রনো'র[৫] পরামর্শে সর্বসম্মতিক্রমে দলটি স্বরব্যাঞ্জো নাম ধারণ করে।[৩] দল গঠনের পর হতে স্বরব্যাঞ্জো ২০১৫ সালে 'গান বাজনা' শিরোনামে তাদের প্রথম স্টুডিও এ্যালবাম প্রকাশ করে। তাদের দ্বিতীয় এ্যালবাম 'হাওয়ার চিঠি' আসে ২০১৬ সালে।[৩] ২০১৮ সালে দলটি ঢাকা আন্তর্জাতিক লোকসংগীত উৎসব-এ পরিবেশনা করে, যা দলটির প্রথম আন্তর্জাতিক পরিবেশনা।[৬][৭][৮]

বৈশিষ্ট্য[সম্পাদনা]

স্বরব্যাঞ্জো দলটি সঙ্গীত পরিবেশনায় সকীয়তা ধরে রাখারা পাশাপাশি দলগতভাবে অভিনব।দলের সদস্যতার জন্য যে কোন প্রকার আনুষ্ঠানিকতা নেই।[৩] দলটি তাদের এ্যালবাম গুলি বাণিজ্যিক প্রকাশের বদলে ক্রিয়েটিভ কমন্সের আওতায় স্বীকৃতি প্রদান পূর্বক উপভোগের জন্য বিনামূল্যে বিতরণ করে থাকে।[৪][৯]

সদস্য[সম্পাদনা]

২০১৬ সালে স্বরব্যাঞ্জো

স্বরব্যাঞ্জো দলের সদস্যতা উম্মুক্ত, তথাপি কিছু সদস্য দলের হয়ে নিয়মিত পরিবেশনা করে থাকেন। ২০২০ সালে মূল ও উল্লেখযোগ্য সদস্যদের তালিকা নিম্নরূপঃ

  • ইয়ামিন ইস্ক্রা রহমান - ব্যাঞ্জো, ইউকেলে, পিয়ানো, বেজ গিটার, সুরকার।
  • রিপন কুমার সরকার (বগা তালেব) - কন্ঠ, গীতিকার, সুরকার
  • আসিফ হাসান তালুকদার নিলয়- কন্ঠ, গিটার।
  • রুপক আহমেদ -কন্ঠ, মেলোডিকা।
  • তানভির আল আজাদ - বেজ গিটার, কন্ঠ, গীতিকার।
  • সঞ্জয় - ঢোল, কাহন।
  • রিপন সোনাই - বাঁশি
  • রাগীব নিয়াজ রাফি - সাউন্ড ইঞ্জিনিয়ার, গীতিকার।
  • বনরত্ন তঞ্চঙ্গ্যা - গিটার।

ডিস্কোগ্রাফি[সম্পাদনা]

স্টুডিও এ্যালবাম[সম্পাদনা]

  • গান বাজনা (২০১৫)
  • হাওয়ার চিঠি (২০১৬)

টীকা[সম্পাদনা]

  1. ইস্ক্রা ব্যান্ড গঠনের মূল উদ্বোক্তা ছিলেন। ব্যান্ড গঠনের সময় তিনি আইন বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী ছিলেন[২]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "দ্বিতীয় দিনে দর্শক মাতাবেন যারা"একুশে টিভি। ২০১৮-১১-১৬। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৯-২৫ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  2. "ক্যাম্পাসে দল বেঁধে গাই গান"প্রথম আলো। ২০১৭-০৪-১৫। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৯-২৬ 
  3. "স্বাগত স্বরব্যাঞ্জো"দৈনিক কালের কণ্ঠ। ২০১৮-১১-২৯। ২০১৯-০৪-১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৯-২৫ 
  4. "দ্বিতীয় দিনের ফোক ফেস্ট শুরু হলো সরব্যাঞ্জোর গানে"জাগো নিউজ। ২০১৮-১১-১৬। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৯-২৫ 
  5. "আমাদের সবার বড় দিদি, স্বরব্যাঞ্জো'র গায়েন রওনক হাসান রনো দি'র আজ জন্মদিন"স্বরব্যাঞ্জো। ২০১৫-১০-০৪। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১০-২৫ফেসবুক-এর মাধ্যমে। 
  6. "মমতাজময় দ্বিতীয় রজনী"দৈনিক দেশ রুপান্তর। ২০১৮-১১-১৭। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৯-২৬ 
  7. "সুরের দোলা ঘুচিয়ে দিল ভাষার ভিন্নতা"দৈনিক ইত্তেফাক। ২০১৮-১১-১৭। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৯-২৬ 
  8. "Swarobanjo defies expectations at DIFF 2018"দ্য ডেইলি স্টার (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৮-১১-১৭। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৯-২৬ 
  9. "মহারাজাকে 'সেলাম' দিয়ে শুরু লোক সংগীতের দ্বিতীয় দিন"সারা বাংলা। ২০১৮-১১-১৬। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৯-২৬ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]