সিলভার লাইনিংস প্লেবুক

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সিলভার লাইনিংস প্লেবুক
সিলভার লাইনিংস প্লেবুকের পোস্টার.jpg
প্রেক্ষাগৃহে মুক্তির পোস্টার
Silver Linings Playbook
পরিচালকডেভিড ও. রাসেল
প্রযোজক
চিত্রনাট্যকারডেভিড ও. রাসেল
উৎসম্যাথু কুইক কর্তৃক 
দ্য সিলভার লাইনিংস প্লেবুক
শ্রেষ্ঠাংশে
সুরকারড্যানি এলফম্যান
চিত্রগ্রাহকমাসানোবু টাকায়ানাজি
সম্পাদক
প্রযোজনা
কোম্পানি
পরিবেশকদ্য ওয়েনস্টেইন কোম্পানি
মুক্তি
  • ৮ সেপ্টেম্বর ২০১২ (2012-09-08) (টরন্টো)
  • ১৬ নভেম্বর ২০১২ (2012-11-16) (মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র)
দৈর্ঘ্য১২২ মিনিট[১]
দেশমার্কিন যুক্তরাষ্ট্র
ভাষাইংরেজি
নির্মাণব্যয়$২১ মিলিয়ন[২]
আয়$২৩৫.৪ মিলিয়ন[২]

সিলভার লাইনিংস প্লেবুক ডেভিড ও. রাসেল রচিত ও পরিচালিত ২০১২ সালের মার্কিন প্রণয়ধর্মী হাস্যরসাত্মক-নাট্য চলচ্চিত্র। এটি ম্যাথু কুইকের ২০০৮ সালের উপন্যাস দ্য সিলভার লাইনিংস প্লেবুক অবলম্বনে নির্মিত। চলচ্চিত্রটিতে শ্রেষ্ঠাংশে অভিনয় করেছেন ব্র্যাডলি কুপারজেনিফার লরেন্স এবং পার্শ্ব চরিত্রে অভিনয় করেছেন রবার্ট ডি নিরো, জ্যাকি উইভার, ক্রিস টাকার, অনুপম খেরজুলিয়া স্টাইলস

কুপার বাইপোলার ব্যাধিতে আক্রান্ত প্যাট্রিজিও "প্যাট" সোলিটানো জুনিয়র চরিত্রে অভিনয় করেন, যিনি সবেমাত্র মানসিক হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেয়েছেন এবং তার পিতামাতার (ডি নিরো ও উইভার) নিকট ফিরে আসেন। প্যাট তার থেকে আলাদা হয়ে যাওয়া স্ত্রীকে ফিরিয়ে আনতে দৃঢ়-সংকল্প হন। এসময়ে তিনি টিফানি ম্যাক্সওয়েল (লরেন্স) নামে এক তরুণী বিধবার সাথে পরিচিত হন, যিনি তার সাথে একটি নাচের প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণের বিনিময়ে তার স্ত্রীকে ফিরিয়ে এনে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেন। নাচের তালিম নিতে নিতে তারা দুজন খুবই ঘনিষ্ঠ হয়ে পড়েন এবং প্যাট, তার পিতা ও টিফানি নিজেদের মধ্যে গড়ে ওঠা সম্পর্ক ও তাদের মধ্যকার ব্যক্তিগত বিষয়াদি নিয়ে সমঝোতার বিষয়টি ইতিবাচক রূপ নিতে শুরু করেন।

সিলভার লাইনিংস প্লেবুক চলচ্চিত্রটির উদ্বোধনী প্রদর্শনী হয় ২০১২ সালের ৮ সেপ্টেম্বর টরন্টো আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে এবং ২০১২ সালের ১৬ নভেম্বর মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে মুক্তি পায়। চলচ্চিত্রটি সমালোচকদের নিকট থেকে ভূয়সী প্রশংসা অর্জন করে এবং একাধিক পুরস্কার লাভ করে। এটি শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র, শ্রেষ্ঠ পরিচালনাশ্রেষ্ঠ উপযোগকৃত চিত্রনাট্যসহ আটটি বিভাগে একাডেমি পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করে। এটি ১৯৮১ সালের রেডস চলচ্চিত্রের পর অভিনয়ের চারটি বিভাগেই মনোনয়নপ্রাপ্ত চলচ্চিত্র এবং ২০০৪ সালের মিলিয়ন ডলার বেবি চলচ্চিত্রের পর প্রধান পাঁচটি বিভাগে মনোনয়নপ্রাপ্ত চলচ্চিত্র।[৩] জেনিফার লরেন্স এই চলচ্চিত্রে অভিনয়ের জন্য শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী বিভাগে একাডেমি পুরস্কার অর্জন করেন।[৪] চলচ্চিত্রটি চারটি বিভাগে গোল্ডেন গ্লোব পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করে, তন্মধ্যে লরেন্স সেরা সঙ্গীতধর্মী বা হাস্যরসাত্মক চলচ্চিত্র অভিনেত্রী বিভাগে পুরস্কৃত হন।[৫] এছাড়া এটি তিনটি বিভাগে বাফটা পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করে, তন্মধ্যে রাসেল শ্রেষ্ঠ উপযোগকৃত চিত্রনাট্য বিভাগে পুরস্কৃত হন।[৬] এছাড়া চলচ্চিত্রটি চারটি স্ক্রিন অ্যাক্টরস গিল্ড পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করে এবং পাঁচটি ইন্ডিপেন্ডেন্ট স্পিরিট পুরস্কারের মনোনয়ন থেকে শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্রসহ চারটি বিভাগে পুরস্কৃত হয়। চলচ্চিত্রটি বক্স অফিসেও সফলতা অর্জন করে, এবং বিশ্বব্যাপী $২৩৬ মিলিয়ন আয় করে, যা এর নির্মাণব্যয়ের ১১ গুণের অধিক।

কাহিনি সংক্ষেপ[সম্পাদনা]

বাইপোলার ব্যাধিতে আক্রান্ত হওয়ার পর আটমাস মানসিক হাসপাতালে চিকিৎসা গ্রহণের পর প্যাট্রিজিও "প্যাট" সোলিটানো জুনিয়র (ব্র্যাডলি কুপার) তার পিতা প্যাট্রিজিও সিনিয়র (রবার্ট ডি নিরো) ও মাতা ডোলোরেসের (জ্যাকি উইভার) নিকট পেনসিলভেনিয়ার আপার ডার্বিতে তার শৈশবের বাড়িতে ফিরে আসেন। তার প্রধান উদ্দেশ্য তার প্রাক্তন স্ত্রী নিকিকে (ব্রিয়া বি) ফিরিয়ে আনা। প্যাট নিকিকে অন্য একজনের গোসলখানায় পাওয়ার পর তাকে মারধোরের কারণে নিকি তার কাছ থেকে চলে যায় এবং আদালত তাকে সংযত থাকার নির্দেশ দেয়। মানসিক হাসপাতালে থাকাকালীন ড্যানি ম্যাকড্যানিয়েলসের (ক্রিস টাকার) সাথে প্যাটের বন্ধুত্ব হয়। প্যাটের চিকিৎসক ড. প্যাটেল (অনুপম খের) তাকে ঔষধ খাওয়াতে তার সর্বোচ্চ চেষ্টা চালিয়ে যান যাতে তার সহিংস আচরণ হ্রাস পায় ও তিনি হাসপাতাল থেকে ছাড়া পান। কিন্তু প্যাট তাকে বলে যে তার জীবনের নতুন দৃষ্টিভঙ্গি রয়েছে, তিনি যে কোন মূল্যে ভালো কিছু বা 'সিলভার লাইনিং' দেখতে চায়। সিলভার লাইনিং হল খারাপ কোন কিছু যার ভালো দিক রয়েছে। প্যাট এই নতুন আশাবাদী দৃষ্টিভঙ্গির মন্ত্র হিসেবে লাতিন শব্দ "এক্সেলসিওর" ব্যবহার করেন, যার অর্থ "সর্বদা উচ্চতর"। ইতোমধ্যে, প্যাটের নতুন জীবনে বেশ কিছু উদ্বেগ দেখা যায়, যেমন আর্নেস্ট হেমিংওয়ের আ ফেয়ারওয়েল টু আর্মস উঠানে ছুড়ে ফেলে দেওয়া ও তার শয়নকক্ষের জানালা ভেঙ্গে ফেলার মত সহিংস প্রতিক্রিয়া।

প্যাট তার বন্ধু রনি (জন অর্টিজ) ও বন্ধুপত্নী ভেরোনিকার (জুলিয়া স্টাইলস) সাথে রাতের খাবারের নিমন্ত্রণে গিয়ে ভেরোনিকার বোন টিফানি ম্যাক্সওয়েলের (জেনিফার লরেন্স) সাথে পরিচিত হন। টিফানি সদ্য বিধবা তরুণী যার অজ্ঞাত ব্যাধি রয়েছে।। তারা খাবার খাওয়ার ফাঁকে তাদের মানসিক অসুস্থতা নিয়ন্ত্রণের জন্য নেওয়া বিভিন্ন ঔষধ সম্পর্কে আলাপ করেন। টিফানি প্যাটকে আকস্মিক শারীরিক মিলনের প্রস্তাব দেন, কিন্তু প্যাট নিকিকে ফিরিয়ে আনার প্রতি সংকল্পবদ্ধ থাকেন। টিফানি প্যাটের সাথে ঘনিষ্ঠ হতে চান এবং আসন্ন একটি নৃত্য প্রতিযোগিতায় তার সঙ্গী হওয়ার বদলে নিকিকে একটি চিঠি পাঠানোতে সাহায্য করার প্রস্তাব দেন। প্যাট এতে সম্মত হন এবং পরের সপ্তাহ থেকে তারা কঠোর অনুশীলন শুরু করেন। ড্যানিও তাকে সাহায্য করতে আসে, কিন্তু সে সাহায্য করতে এলে প্যাট হিংসাপরায়ণ হন এবং টিফানির প্রতি দুর্বল হন। তবে তিনি তার আবেগকে দূরে রাখার চেষ্টা করেন। প্যাট মনে করেন এই প্রতিযোগিতার মাধ্যমে তিনি নিকিকে দেখাতে পারবেন যে তার মধ্যে পরিবর্তন এসেছে এবং তিনি আরও ভালো মানুষ হয়েছেন।

প্যাট্রিজিও সিনিয়র রেস্তোরাঁ খোলার ইচ্ছাপোষণ করেন এবং অবৈধ বুকমেকিং বা বাজি ধরায় ফিরে যান। ফিলাডেলফিয়া ইগলসের খেলায় তার সকল অর্থ বাজি ধরে তিনি প্যাটকে তার সৌভাগ্যের প্রতীক হিসেবে খেলা দেখতে আমন্ত্রণ জানান। প্যাট খেলা দেখার জন্য টিফানির কাছ থেকে ছুটি চান। টিফানি তাকে নিকির কাছ থেকে পাওয়া একটি উত্তর দিয়েছিল, তাই তিনি আন্দাজ করেন হয়ত তাদের মধ্যে বনিবনার সুযোগ রয়েছে। স্টেডিয়ামের যাওয়ার আগে কয়েকজন বর্ণবাদী ভক্ত ভারতীয় ভক্তদের একটি দলকে বিরক্ত করে, সেই দলে প্যাটের চিকিৎসক ড. প্যাটেলও ছিলেন। এতে প্যাট ও তার ভাই জেক (শিয়া হুইগহাম) দ্বন্দ্বে জড়িয়ে পড়েন। ইগলস খেলাটি হেরে যায় এবং প্যাট্রিজিও এতে ক্ষুব্ধ হন। টিফানি তাদের বাড়িতে আসেন এবং রাশিফল পড়ার মত করে বলেন তিনি ও প্যাট একত্রে থাকলে ফিলাডেলফিয়া দল ভালো করবে। এতে আশ্বস্ত হয়ে প্যাট্রিজিও তার জুয়াখেলার বন্ধু র‍্যান্ডির সাথে পারলে বা দ্বৈত বাজি ধরেন যদি ইগলস পরের খেলায় জিতে এবং টিফানি ও প্যাট তাদের নৃত্য প্রতিযোগিতায় ১০-এ ৫ স্কোর পায়, তবে তিনি প্রথম বাজিতে হেরে যাওয়া অর্থের দ্বিগুণ পাবেন। প্যাট এতে অনিচ্ছুক; কিন্তু টিফানি, ডোলোরেস, ও প্যাট্রিজিও মিলে তাকে মিথ্যা আশা দেন যে এই প্রতিযোগিতায় নিকি থাকবে। ফলে তার পিতামাতার প্যাটের সাথে টিফানির বন্ধুত্বকে গোপনভাবে সমর্থনের আভাস পাওয়া যায়। প্যাট দেখেন নিকির কাছ থেকে আসা চিঠিতেও রাশিফল পড়ার উল্লেখ রয়েছে এবং বুঝতে পারেন টিফানিই এটি লিখেছেন।

টিফানি, প্যাট এবং তার বন্ধুগণ ও পরিবার ইগলসের ফুটবল খেলার রাতে প্রতিযোগিতার মঞ্চে পৌঁছান। রনি ও ভেরোনিকার নিমন্ত্রণে নিকি প্রতিযোগিতা দেখতে আসেন। সত্যই দর্শক সারিতে নিকিকে দেখে টিফানি নিরাশ হন। টিফানি পানশালায় চলে যান এবং পান করতে শুরু করেন। প্যাট তাকে তাদের নাচের আগ মুহূর্তে খুঁজে পান এবং তাকে নাচের মঞ্চে নিয়ে আসেন। ইগলস ডালাস কাউবয়েজকে পরাজিত করেছে এবং তারা তাদের কাজ শুরু করেন। টিফানি ও প্যাট গড়ে ঠিক ৫.০ পয়েন্টই অর্জন করেন। বন্ধুগণ ও পরিবারের উল্লাস দেখে বাকিরা অবাক হন, প্যাট নিকির কাছে যান এবং তার কানে কানে কিছু বলেন। টিফানি এটা দেখে দৌড়ে চলে যান। অল্প সময়ের আলাপের পর প্যাট নিকিকে রেখে চলে যান এবং টিফানির পিছু নেন। তিনি টিফানির হাতে একটি চিঠি ধরিয়ে দেন এবং বলে তিনি জানতেন যে টিফানি নিকির চিঠি নিয়ে জালিয়াতি করেছে এবং স্বীকার করেন তিনি তাদের পরিচয়ের প্রথম থেকেই তাকে ভালোবাসতেন কিন্তু এটা বুঝতে তার বেশি সময় লেগে গেছে। তারা একে অপরকে চুম্বন করেন। প্যাট্রিজিও বাজিতে জেতা অর্থ দিয়ে একটি রেস্তোরাঁ চালু করেন, ড্যানি সোলিটানো পরিবারের সাথে আরও ঘনিষ্ঠ হন, এবং প্যাট ও টিফানির মধ্য সম্পর্ক গড়ে ওঠে, তবে এখনো তাদের বাগদান সম্পন্ন হয়নি।

কুশীলব[সম্পাদনা]

  • ব্র্যাডলি কুপার - প্যাট্রিজিও "প্যাট" সোলিটানো জুনিয়র, প্রাক্তন শিক্ষক ও সাম্প্রতিকালে বিচ্ছেদপ্রাপ্ত[৭][৮][৯]
  • জেনিফার লরেন্স - টিফানি ম্যাক্সওয়েল, তরুণী বিধবা[১০]
  • রবার্ট ডি নিরো - প্যাট্রিজিও "প্যাট" সোলিটানো সিনিয়র, প্যাট ও জেকের পিতা[৮]
  • জ্যাকি উইভার - ডোলোরেস সোলিটানো, প্যাট ও জেকের মাতা[১১]
  • অনুপম খের - ড. ক্লিফ প্যাটেল, প্যাটের ডাক্তার ও বন্ধু[১২]
  • ক্রিস টাকার - ড্যানি ম্যাকড্যানিয়েলস, মানসিক হাসপাতালে প্যাটের ভালো বন্ধু
  • জুলিয়া স্টাইলস - ভেরোনিকা ম্যাক্সওয়েল, টিফানির বোন[১৩]
  • শিয়া হুইগহাম - জেক সোলিটানো, প্যাটের ভাই
  • জন অর্টিজ - রনি, ভেরোনিকার স্বামী ও টিফানির ভগ্নীপতি, এবং প্যাটের ঘনিষ্ঠ বন্ধু
  • ব্রিয়া বি - নিকি সোলিটানো, প্যাটের সাবেক স্ত্রী
  • শেরিল উইলিয়ামস - টিফানি ও ভেরোনিকার মাতা
  • প্যাট্রিক ম্যাকডেড - টিফানি ও ভেরোনিকার পিতা
  • ড্যাশ মিহক - অফিসার কোফ
  • ম্যাথু রাসেল - রিকি ডিঅ্যাঞ্জেলো
  • পল হারম্যান - র‍্যান্ডি
  • প্যাটসি মেক - ন্যান্সি, প্যাট ও নিকির বিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ
  • ফিলিপ শোরবা - জর্ডি, টিফানির সাবেক প্রেমিক[১৪]

নির্মাণ[সম্পাদনা]

উন্নয়ন[সম্পাদনা]

দ্য ওয়েনস্টেইন কোম্পানির নির্বাহী রেনে উইট হার্ভি ওয়েনস্টেইনকে দ্য সিলভার লাইনিংস প্লেবুক বইটি প্রকাশ হওয়ার পূর্বেই এই বইটি নিয়ে কাজ করতে রাজি করান।[১৫][১৬] সিডনি পোলাক এরপর ডেভিড ও. রাসেলকে এই চলচ্চিত্রটি পরিচালনার জন্য প্রস্তুত করেন।[১৫] পোলাক রাসেলকে বলেন গল্পের অস্বস্তিকর অনুভূতি, হাস্যরস ও প্রণয়ের জন্য এই চলচ্চিত্র উপযোগকরণটি চাতুর্যপূর্ণ হবে। রাসেল পাঁচ বছরে ২০ বারের অধিক পাণ্ডুলিপিটির পুনর্লিখন করেন। রাসেল এই গল্পের প্রতি আকৃষ্ট হন কারণ তিনি তার বাইপোলার ব্যাধিঅত্যধিক-অমোঘ ব্যাধি আক্রান্ত সন্তানের প্রতি তার পারিবারিক সম্পর্ক ও সংযোগের বিষয়টি অনুধাবন করেন।[১৭][১৮]

চলচ্চিত্রটির দৃশ্যধারণ করতে সময় লাগে ৩৩ দিন। নৃত্যের দৃশ্যগুলোর অন্ধকারাচ্ছন্ন ও আরও চরমমাত্রার সংস্করণ ধারণ করা হয়েছিল এবং রবার্ট ডি নিরোর চরিত্রের দৃশ্যগুলোর আরও রূঢ় ও স্নেহপ্রবণসহ একাধিক সংস্করণ ধারণ করা হয়েছিল। রাসেল চলচ্চিত্র সম্পাদক জে ক্যাসিডিকে নিয়ে তারা যেমন ভারসম্য চেয়েছিলেন সেভাবে কাজ করেন।[১৭]

এই চলচ্চিত্রের দৃশ্যগুলো ধারণ করা হয় পেন্সিলভেনিয়া অঙ্গরাজ্যের ফিলাডেলফিয়ার বাইরের আপার ডার্বি, রিডলি পার্ক ও ল্যান্সডাউন এলাকায়। চলচ্চিত্রে উল্লেখ না করা হলেও শেষে রিডলি পার্কের নাম উল্লেখ করা হয় এবং একজন পুলিশ কর্মকর্তাকে "আরপিপিডি" লেখা উর্দি পরিহিত অবস্থায় দেখা যায়।[১৯]

চলচ্চিত্রটি ২০০৮ এনএফএল ফুটবল মৌসুমের দ্বিতীয়ার্ধ্বে ধারণ করা হয়,[২০] যেখানে এনএফসি চ্যাম্পিয়নশিপ খেলায় ফিলাডেলফিয়া ইগলসকে এগিয়ে থাকতে দেখা যায়। কয়েকটি খেলার উল্লেখ করা হয়, যেমন সিয়াটল ও সান ফ্রান্সিস্কোর সাথে ইগলসের জয়, তাদের এনএফসি ইস্ট প্রতিদ্বন্দ্বী ওয়াশিংটন রেডস্কিন্স[২১] ও নিউ ইয়র্ক জায়ান্টসের সাথে তাদের পরাজয় (দ্বিতীয় খেলাটিতে প্যাট দ্বন্দ্বে জড়িয়ে পড়েছিল), এবং নিয়মিত মৌসুমের চূড়ান্ত খেলায় ডালাসের সাথে তাদের জয়।

অভিনয়শিল্পী নির্বাচন[সম্পাদনা]

রাসেল শুরুতে ভিন্স ভনজোই দেশানেলকে নিয়ে এই চলচ্চিত্রটি নির্মাণ করতে চেয়েছিলেন, কিন্তু এর পরিবর্তে তিনি দ্য ফাইটার চলচ্চিত্রটি নির্মাণে ব্যস্ত হয়ে পড়েন।[১৭][১৮][২২] মার্ক ওয়ালবার্গ এই চলচ্চিত্রে চতুর্থবারের মত রাসেলের পরিচালনায় কাজের জন্য প্রস্তুত হন, কিন্তু সময়সূচি সংক্রান্ত জটিলতার কারণে নির্মাণকাজ পিছিয়ে গেলে কাজটি বাদ দেন।[২৩]

রাসেল মূলত ব্র্যাডলি কুপারের ওয়েডিং ক্র্যাশার্স চলচ্চিত্র দেখে মুগ্ধ হয়ে তাকে নিয়ে প্রাইড অ্যান্ড প্রেজুডিস অ্যান্ড জম্বিস অবলম্বনে চলচ্চিত্র নির্মাণের পরিকল্পনা করেছিলেন। তিনি এই চলচ্চিত্রে কুপারের "ভালো মন্দ-ব্যক্তিত্বের ক্ষমতা" ও অপ্রত্যাশিত অভিনয়ের জন্য তাকে নির্বাচন উপযুক্ত বলে বিবেচনা করেন।[২৪] কুপার রাসেলকে বলেন তিনি এই চরিত্রে অভিনয়ের জন্য আরও ভারিক্কী, রাগান্বিত ও ভীত ছিলেন এবং এই কাজের জন্যই এই অনুভূতিগুলো নিজের মধ্যে গড়েছেন। রাসেল কুপারের সেই গুণাবলি প্যাট সোলিটানো চরিত্রে ফুটিয়ে তুলতে উচ্ছ্বসিত ছিলেন।[১৭][১৮]

অ্যান হ্যাথাওয়েকে টিফানি ম্যাক্সওয়েল চরিত্রের জন্য নির্বাচন করা হয়, কিন্তু দ্য ডার্ক নাইট রাইজেস চলচ্চিত্রের সাথে সময়সূচি সংক্রান্ত জটিলতা এবং রাসেলের সাথে তার সৃষ্টিশীলতার পার্থক্যের জন্য তাকে বাদ দেওয়া হয়।[৭][২৫][২৬] এই ভূমিকার জন্য বিবেচিত বাকি অভিনেত্রীরা হলেন এলিজাবেথ ব্যাঙ্কস, কিয়ার্স্টন ডান্‌স্ট, অ্যাঞ্জেলিনা জোলি, ব্লেক লাইভলি, রুনি মেয়ারা, র‍্যাচেল ম্যাকঅ্যাডামস, অ্যান্ড্রেয়া রাইজবরাঅলিভিয়া ওয়াইল্ড[১৮][২২][২৩][২৭][২৮]

শুরুতে রাসেল মনে করেছিলেন লরেন্সের বয়স এই চরিত্রের জন্য উপযুক্ত নয়।[১৮][২২] তিনি ভেবেছিলেন ৩৭ বছর বয়সী কুপারের বিপরীতে ২১ বছর বয়সী লরেন্স খুবই অল্প বয়সী, কিন্তু অডিশনে তার পারদর্শিতা দেখে তিনি তার সিদ্ধান্ত বদলান এবং স্বীকার করেন তার চোখে ও মুখমণ্ডলের অনুভূতি বয়সের ঊর্ধ্বে।[১৬][২৯] টিফানি চরিত্রটি কয়েকবার পুনরাবৃত্তির মধ্যে দিয়ে যায় এবং শুরুতে এটি গথ ধারার করার পরিকল্পনা ছিল। লরেন্স তার চুলে কালো রং করেন এবং ভারী গথ রূপসজ্জা নিয়ে কয়েকটি পরীক্ষামূলক দৃশ্যধারণ করেন, কিন্তু ওয়েনস্টেইন এতে অনুমোদন দেননি। তার চরিত্রটির চূড়ান্ত রূপটি তালগোল পাকানো, অল্প গথ ধারা তথা কালো চুল ও ক্রস পরিহিত ছিল, তদুপরি আত্মবিশ্বাসী ছিল।[১৬] এই চরিত্রের জন্য রাসেল লরেন্সকে ওজন বাড়াতে বলেন[৩০] এবং নিম্ন স্বরে কথা বলতে বলেন।[১৬]

এন্টারটেইনমেন্ট উইকলির প্রতিবেদন অনুসারে, লরেন্স বলে টিফানি চরিত্রটিকে তিনি প্রথমে ধরতে পারেননি, যে কারণে তিনি এই চরিত্রের জন্য উচ্ছ্বসিত ছিলেন। তিনি বলেন, "সে এমন একটি চরিত্র যার এক ভাগও আমি বুঝতে পারিনি... সে অনেকটা এমন ছিল, 'আমি বিধ্বস্ত, আমি বাকিদের মত নই, আমার বিভিন্ন সমস্যা রয়েছে। আমি নিজেকে পছন্দ করি'।"[৩১]

লরেন্স ও কুপারের নাচের পূর্ব অভিজ্ঞতা ছিল না। "সো ইউ থিঙ্ক ইউ ক্যান ড্যান্স" গানের জন্য নৃত্য পরিচালক ম্যান্ডি মুর এক মাসের কম সময়ে তাদের নাচের দৃশ্যগুলো শিখিয়ে দেন। মুর বলেন কুপারের মধ্যে "কিছুটা সহজাত নাচের প্রতিভা" রয়েছে।[৩২][৩৩] চরমসীমায় পৌঁছানো বলরুম নৃত্য সম্পর্কে লরেন্স বলেন, "কোন কিছুই তাৎক্ষণিকভাবে করা হয়নি, একেবারেই না। আমি খুবই বাজে নৃত্যশিল্পী, ফলে আমার পক্ষে এমন করা সম্ভব নয়। যখন এই দৃশ্যটি একত্রীত করা হয়, দৃশ্যটি যেমন অনুভূত হয়েছে, কেবল তেমন আনন্দদায়ক ছিল।"[৩২]

মুক্তি[সম্পাদনা]

২০১২ সালের ৮ই সেপ্টেম্বর টরন্টো আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে চলচ্চিত্রটির উদ্বোধনী প্রদর্শনী হয়,[৩৪] এবং সেখানে এটি পিপলস চয়েস অ্যাওয়ার্ডস অর্জন করে।[৩৫] এটি ২০১২ সালের ১৮ই অক্টোবর মুম্বই চলচ্চিত্র উৎসবে প্রদর্শিত হয়,[৩৬][৩৭] এবং ২০১২ সালের ১৬ই নভেম্বর মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে সীমিত পরিসরে মুক্তির পর এই সপ্তাহের শেষদিকে বৃহৎ পরিসরে মুক্তি পায়।[৩৪]

দ্য ওয়েনস্টেইন কোম্পানি শুরুতে সিলভার লাইনিংস প্লেবুক চলচ্চিত্রটিকে বৃহৎ পরিসরে দেশব্যাপী প্রায় ২,০০০ প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি দেওয়ার পরিকল্পনা করে। তারা চলচ্চিত্রটির ইতিবাচক পর্যালোচনার কারণে বেশ উৎসাহী ছিল এবং থ্যাংকসগিভিং উৎসবকে কেন্দ্র করে অধিক ব্যবসা করার আশা করেছিল। এর পরিবর্তে তারা ধীর কৌশল গ্রহণ করে অল্প প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি দেয় এবং মুখে মুখে ছড়িয়ে পড়ার মধ্য দিয়ে ধীরে ধীরে প্রেক্ষাগৃহের সংখ্যা বাড়াতে থাকে।[৩৮][৩৯][৪০] এই ধীরগতিতে মুক্তির মধ্য দিয়ে ২৫শে ডিসেম্বর নাগাদ চলচ্চিত্রটির প্রেক্ষাগৃহের সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়ে দাঁড়ায় ৭০০।[৪১]

হোম মিডিয়া[সম্পাদনা]

সিলভার লাইনিংস প্লেবুক চলচ্চিত্রটি ২০১৩ সালের ১লা এপ্রিল যুক্তরাজ্যে এবং ২০১৩ সালের ৩০শে এপ্রিল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ডিভিডিব্লু-রে আকারে মুক্তি দেওয়া হয়।[৪২]

মূল্যায়ন[সম্পাদনা]

সমালোচকদের প্রতিক্রিয়া[সম্পাদনা]

পেশাদারী মূল্যায়ন
সমষ্টিগত স্কোর
উৎসমূল্যায়ন
মেটাক্রিটিক৮১/১০০[৪৩]
রটেন টম্যাটোস৯২%[৪৪]
পর্যালোচনা স্কোর
উৎসমূল্যায়ন
অলমুভি৪.৫/৫ তারকা[৪৫]
আইএমডিবি৭.৭/১০ তারকা[৪৬]
আলোসিনে৩.৫/৫ তারকা[৪৭]
এম্পায়ার৩/৫ তারকা[৪৮]
দ্য গার্ডিয়ান৩/৫ তারকা[৪৯]
রজারইবার্ট.কম৩.৫/৫ তারকা[৫০]

সিলভার লাইনিংস প্লেবুক ২০১২ টরন্টো আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে প্রদর্শিত হয় এবং সমালোচকদের কাছে প্রশংসিত হয়। ৮.১৭/১০ গড় রেটিঙে ২৪৯টি পর্যালোচনার ভিত্তিতে রটেন টম্যাটোসে এই চলচ্চিত্রটির গ্রহণযোগ্যতার রেটিং ৯২%। ওয়েবসাইটির সমালোচনামূলক জরিপে বলা হচ্ছে, "সিলভার লাইনিংস প্লেবুক চাতুর্যময় বিষয়বস্তুর মধ্য দিয়ে প্রবাহিত হয়েছে, কিন্তু ডেভিড ও. রাসেলের সুচতুর পরিচালনা এবং প্রতিভাধর অভিনয়শিল্পীদের সূক্ষ্ম কাজ একে সত্যিকারের ভারসাম্য এনে দিয়েছে।"[৪৪] মেটাক্রিটিকে মূলধারার সমালোচকদের ১০০টি পর্যালোচনার ভিত্তিতে চলচ্চিত্রটির গড় স্কোর ৮১, যা নির্দেশ দেয় যে চলচ্চিত্রটি "সর্বজনীনভাবে সমাদৃত"।[৪৩]

ব্র্যাডলি কুপার তার অভিনয়ের জন্য তার প্রথম শ্রেষ্ঠ অভিনেতা বিভাগে একাডেমি পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেন।

কুপার ও লরেন্স তাদের কাজের জন্য প্রশংসিত হন।[৫১][৫২][৫৩][৫৪][৫৫][৫৬] দ্য প্লেলিস্ট-এর কেভিন জ্যাগারনথ চলচ্চিত্রটিকে এর "বিপুল বিনোদন, দর্শকদের আনন্দ প্রদানে বিজয়ী" বলে প্রশংসা করেন এবং উল্লেখ করে যে দুই প্রধান অভিনয়শিল্পীর কাজ "সতর্কতার সাথে সম্পন্ন হয়েছে এবং সঠিকভাবে গড়ে ওঠেছে", যার জন্য তারা পুরস্কার পাওয়ার যোগ্য।[৫৭] দ্য হলিউড রিপোর্টার-এর ডেভিড রুনি বলেন "কুপার ও লরেন্সের মধ্যকার রসায়নের জন্য তাদের কাজ দেখতে পুলকিত করে" এবং তাদের কাজ বাকি অভিনয়শিল্পীদের ছোট চরিত্রেও ভালো কাজ করতে অনুপ্রাণিত করে। এছাড়া রুনি নৃত্য পরিচালনার "তেজদ্দীপ্তভাবে তালগোল পাকানো" ও "সন্ত্রস্ত শক্তি"র ব্যাপারে মন্তব্য করেন।[৫৮] টাইম ম্যাগাজিনের রিচার্ড করলিস প্রধান অভিনয়শিল্পীদের কাজের প্রশংসা করেন, বিশেষ করে লরেন্সের। তিনি বলেন পুরো চলচ্চিত্র দেখতে বসে থাকার প্রধান কারণই হল তার অভিনয় এবং তিনি তার পরিপক্কতার প্রশংসা করেন।[৫৯]

রাসেলের পরিচালনাও বিপুল প্রশংসিত হয়। ভ্যারাইটির জাস্টিন চ্যাং লিখেন, "হাস্যরসের ভিন্ন উৎস থেকে কেউ লজ্জিত হয়ে দূরে চলে যায়নি, ডেভিড ও. রাসেল মানসিক অসুস্থতা, বৈবাহিক ব্যর্থতা ও ফুটবলের সুস্থ্য করার ক্ষমতা দিয়ে এসব কিছুকে মোকাবেলা করে সূক্ষ্ম ও সন্তোষজনক ফলাফল বইয়ে এনেছেন।"[৬০] ইন্ডিওয়্যার-এর এরিক কোন চলচ্চিত্রটিকে "এ-" গ্রেড প্রদান করেন, এবং কুপার ও লরেন্সের অভিনয় এবং রাসেলের পরিচালনার প্রশংসা করে বলেন, "রাসেল একক চিত্রনাট্যকার ও পরিচালক হয়েও অপ্রত্যাশিতরকম আকর্ষণীয় প্রণয়ধর্মী হাস্যরসাত্মকের জন্য ছোট কিন্তু বুদ্বুদপূর্ণ অভিনয়শিল্পী দলকে একত্রীত করেছেন, যা কোন কোন স্থানে নৈরাশ্যবাদ ও তিক্ততার মধ্যেও প্রায়ই উদ্দীপিত করে ইতিবাচক ফলাফল নিয়ে এসেছে।"[৬১] দ্য ওয়াশিংটন পোস্ট-এর অ্যান হর্নাডে রাসেলের দক্ষতার উল্লেখ করে বলেন, "অন্য কোন হাতে ম্যাথু কুইকের উপন্যাসের উপযোগকরণ হয়ত গতানুগতিক প্রণয়ধর্মী হাস্যরসাত্মকের পণ্ড প্রচেষ্টা হত, সম্ভবত মুদ্রাদোষসুলভ ইন্ডি ছাঁচের মত আরও বাজেও হতে পারত।"[৬২]

রজার ইবার্ট চলচ্চিত্রটিকে চার তারকার মধ্যে সাড়ে তিন তারকা প্রদান করেন এবং বলেন, "চলচ্চিত্রটি খুবই ভালো, এটি ভীষণ রকমের পুরনো ধ্রুপদী চলচ্চিত্রের মত হতে পারত" এবং চূড়ান্ত বাজিতে পিতা ও পুত্রকে গুরুত্ব প্রদানের জন্য রাসেলের চিত্রনাট্যকে "বিচক্ষণ" বলে উল্লেখ করেন।[৫০] লস অ্যাঞ্জেলেস টাইমস-এর কেনেথ টুরান চলচ্চিত্রটিকে "পূর্ণাঙ্গভাবে সফল" এবং ক্রিস্ট টাকারের "অপ্রতিরোধ্য" পার্শ্ব অভিনয়সহ সকল অভিনয়শিল্পীদের অভিনয় "অসাধারণ" বলে অভিহিত করেন।[৬৩] দ্য ফিলাডেলফিয়া ইনকোয়েরার-এর স্টিভেন রে চলচ্চিত্রটিকে "এর উল্লসিত দক্ষ চিত্রনাট্য থেকে শুরু করে... প্রধান দুই অভিনয়শিল্পীর অপ্রত্যাশিত ও স্পর্শকাতর কাজের জন্য সবকিছুকে ছাপিয়ে যাওয়ার প্রচেষ্টা" বলে বর্ণনা করেন।[৬৪] দ্য ডেনভার পোস্ট-এর রিকার্ডো বাকা চলচ্চিত্রটি যেভাবে "ট্রেইলার থেকে শুরু করে পুরো চলচ্চিত্রে হাস্যরস, পরিশীলিত উদ্বেগ ও স্নেহপ্রবণ উত্থান-পতন ধরে রেখেছে" তার প্রশংসা করেছেন।[৬৫] রোলিং স্টোন-এর পিটার ট্র্যাভার্স এটিকে "এই বছরের অন্যতম সেরা চলচ্চিত্র" বলে উল্লেখ করেন।[৬৬]

দ্য নিউ ইয়র্কার-এর সমালোচক ডেভিড ডেনবি চলচ্চিত্রটির নেতিবাচক পর্যালোচনা প্রদান করে বলেন, "শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত এতে ভুল হিসাব করা হয়েছে" এবং কুপারের চরিত্রটিকে "ক্লান্তিকর" বলে মনে করেন;[৬৭] এবং একই ম্যাগাজিনের রিচার্ড ব্রডি একে "সম্ভবত এই বছরের সবচেয়ে কৃত্রিম চলচ্চিত্র" বলে অভিহিত করে বলেন, "গল্পটি একেবারেই হাস্যকর।"[৬৮] ম্যাগাজিনটির নিয়মিত অনুশীলনের বাইরে গিয়ে ব্রডি পুনরায় চলচ্চিত্রটি নিয়ে আলোচনা করেন এবং একটি অতিরিক্ত পর্যালোচনা লিখেন। সেখানেও তিনি এতে "কোন চরিত্র নয়, বরং কয়েকটি সংযোগ রয়েছে, যেগুলোর একাধিক বিকল্প রয়েছে এবং সবকয়টি সঠিক পথে আসার জন্য অপেক্ষা করছে।"[৬৯] দুজন সমালোচকই লরেন্সের অস্কার জয়ী অভিনয়কে "অবিশ্বাসজনক" বলে মনে করেন।[৬৭][৬৮] ডেনবি লিখেন, "যখন সে দুঃখ নিয়ে বলে সে 'তার অফিসের সকলের সাথে যৌনমিলনে লিপ্ত হয়েছে', তখন আমরা এক সেকেন্ডের জন্যও টিফানিকে বিশ্বাস করি না।"[৬৭] ব্রডি লরেন্স সম্পর্কে বলেন তিনি "আত্মনিষ্ঠ ও মার্জিত" যার এই চরিত্রের জন্য যেমন বন্যতা প্রয়োজন তা নেই এবং এই বন্যতার অভাব চলচ্চিত্রটির সফলতার একটি অন্যতম কারণ।[৬৯]

দ্য ডেইলি টেলিগ্রাফ-এর রবি কলিন লিখেন "এই গুরুতর বিশৃঙ্খলয় ক্লান্তিকর বিফলতা রয়েছে" এবং প্রধান চরিত্রগুলো অসংলগ্ন, তবে লরেন্সকে এই চলচ্চিত্রের "একমাত্র সিলভার লাইনিং" বলে উল্লেখ করেন।[৭০] দ্য গ্লোব অ্যান্ড মেইল-এর প্রধান চলচ্চিত্র সমালোচক লিয়াম ল্যাসি চলচ্চিত্রটিকে চার তারকার মধ্যে তিন তারকা প্রদান করেন, তবে "আপনি যে কোন সানড্যান্স-ঘরানার চলচ্চিত্রে সহজেই সিলভার লাইনিংস প্লেবুক-এর আরও ভালো অভিনীত সংস্করণ দেখতে পারবেন।"[৭১]

মার্কিন ফুটবল লিগ এনএফএল এই চলচ্চিত্রে জুয়াখেলা নিয়ে সমালোচনা করেন এবং থ্যাংকসগিভিং-এর সময়ে ব্র্যাডলি কুপারক্রিস টাকারের একটি সাক্ষাৎকার প্রচার করা থেকে বিরত থাকে।[৭২]

বক্স অফিস[সম্পাদনা]

চলচ্চিত্রটি প্রথম সপ্তাহে স্কাইফললিংকন চলচ্চিত্রের সাথে তীব্র প্রতিযোগিতার করে ১৬টি প্রেক্ষাগৃহে থেকে $৪৪৫,০০৩ আয় করে।[৭৩] দ্বিতীয় সপ্তাহে ৩৬৭টি প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি দেওয়ার পর $৪.৪ মিলিয়ন আয় করে এটি সেই বছরের নবম শীর্ষ আয়কারী চলচ্চিত্রের স্থান অধিকার করে।[৭৪] ৩০শে ডিসেম্বরের মধ্যে এটি ৭৪৫টি প্রেক্ষাগৃহে প্রদর্শিত হয় এবং $২৭.৩ মিলিয়ন আয় করে।[৭৫] ২০১৩ সালের ১৮ই জানুয়ারি এটি ২,৫২৩টি প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি দেওয়ার পর $১২.৭ মিলিয়ন আয় করে এবং মোট আয় দাঁড়ায় $৫৬.৭ মিলিয়নে।[৭৬] পরের সপ্তাহে ২৫০০ এর অধিক প্রেক্ষাগৃহে প্রদর্শনীর পরও এর বিক্রি ১২.২% কমে যায়। গিতেশ পাণ্ড্য বলেন এটি $১০০ মিলিয়ন মাইলফলক স্পর্শ করে এবং সপ্তাহব্যাপী প্রদর্শিত হলে আরও অধিক আয় করতে পারবে।[৭৭]

রে সুবার্স অনুমান করেছিলেন যে চলচ্চিত্রটি $১০০ মিলিয়ন আয় করবে এবং প্রত্যাশা করেছিলেন চলচ্চিত্রটির শুরু ধীর গতিতে হলেও ডিসেম্বর জুড়ে চলতে থাকবে ও প্রচুর দর্শক টানবে, বিশেষত লরেন্সের দ্য হাঙ্গার গেমস ও কুপারের দ্য হ্যাংওভার ফ্র্যাঞ্চাইজির দর্শকদের টানবে।[৭৮] চলচ্চিত্রটি ২০১৩ সালের ১৯শে ফেব্রুয়ারি উত্তর আমেরিকাতে $১০০ মিলিয়নের মাইলফলক ছাড়ায়।[৭৯] ১১ই মে, ২০১৩ এর হিসাব অনুযায়ী চলচ্চিত্রটি এর নির্মাণব্যয়ের ১১ গুণের অধিক আয় করে স্লিপার বক্স অফিস হিট তকমা লাভ করে।

পুরস্কার[সম্পাদনা]

চলচ্চিত্রটি আটটি বিভাগে একাডেমি পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করে, সেগুলো হল শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র, শ্রেষ্ঠ পরিচালনা বিভাগে রাসেল, শ্রেষ্ঠ উপযোগকৃত চিত্রনাট্য, শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র সম্পাদনা, শ্রেষ্ঠ অভিনেতা বিভাগে কুপার, শ্রেষ্ঠ পার্শ্ব অভিনেতা বিভাগে ডি নিরো, শ্রেষ্ঠ পার্শ্ব অভিনেত্রী বিভাগে উইভার। জেনিফার লরেন্স তার অভিনয়ের জন্য শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী বিভাগে পুরস্কৃত হন, এবং এর ফলে তিনি চিলড্রেন অব আ লেসার গড চলচ্চিত্রের জন্য পুরস্কার বিজয়ী মার্লি ম্যাটলিনের পর দ্বিতীয় সর্বকনিষ্ঠ অভিনেত্রী হিসেবে এই বিভাগে পুরস্কার অর্জন করেন।[৮০]

শীর্ষ দশ তালিকা[সম্পাদনা]

  • সিনেমাব্লেন্ড চলচ্চিত্রটিকে বর্ষসেরা ১০ তালিকায় ৮ম স্থান প্রদান করে।[৮১]
  • দ্য গার্ডিয়ান-এর সমালোচক ক্যাথরিন শোয়ার্ড চলচ্চিত্রটিকে বর্ষসেরা ১০ তালিকায় ৪র্থ স্থান প্রদান করে।[৮২]

সঙ্গীত[সম্পাদনা]

সাউন্ডট্র্যাক[সম্পাদনা]

সিলভার লাইনিংস প্লেবুক: মৌলিক চলচ্চিত্র সাউন্ডট্র্যাক
বিভিন্ন শিল্পী কর্তৃক সাউন্ডট্র্যাক অ্যালবাম
মুক্তির তারিখ১৬ নভেম্বর ২০১২ (2012-11-16)
(ডিজিটাল ডাউনলোড)
ঘরানাসাউন্ডট্র্যাক
দৈর্ঘ্য৪৫:৩৬
সঙ্গীত প্রকাশনীসনি / ইএএন
সিলভার লাইনিংস প্লেবুক: মৌলিক চলচ্চিত্র সাউন্ডট্র্যাক থেকে একক গান
  1. "সিলভার লাইনিং (ক্রেজি 'বাউট ইউ)"
    মুক্তির তারিখ: ১৬ নভেম্বর ২০১২
পেশাদারী মূল্যায়ন
পর্যালোচনা স্কোর
উৎসমূল্যায়ন
অলমিউজিক৪/৫ তারকা[৮৩]

সিলভার লাইনিংস প্লেবুক: মৌলিক চলচ্চিত্র সাউন্ডট্র্যাক সনি মিউজিক এন্টারটেইনমেন্ট কর্তৃক ২০১২ সালের ১৬ নভেম্বর মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ডিজিটাল ডাউনলোডের জন্য উন্মুক্ত করা হয়।[৮৪]

এই সাউন্ডট্র্যাকের প্রধান একক গান "সিলভার লাইনিং (ক্রেজি 'বাউট ইউ)" ইউকে সিঙ্গলসে #১০০ স্থান দখল করে।[৮৫] এই সাউন্ডট্র্যাকে স্টিভি ওয়ান্ডার, ডেভ ব্রুবেক কোয়ার্টেট, অল্ট-জে, ইগলস অব ডেথ মেটাল, জেসি জের গান রয়েছে এবং ড্যানি এলফম্যান কর্তৃক সুরারোপিত দুটি গান রয়েছে।

চলচ্চিত্রের শেষে নামের তালিকা দেখানোর শুরুতে বেজে ওঠা নিনা সিমোনের গাওয়া "ওয়াইল্ড ইজ দ্য উইন্ড" গানটি এবং নৃত্য প্রতিযোগিতায় প্যাট ও টিফানি যখন জানতে পারে তারা গড়ে ৫.০ পেয়েছে তখন বেজে ওঠা জনি ম্যাথিসের গাওয়া "মিস্টি" গানটি এই সাউন্ডট্র্যাকে যুক্ত করা হয়নি। এছাড়াও লেড জেপেলিনের "হোয়াট ইজ অ্যান্ড হোয়াট শুড নেভার বি", দ্য হোয়াইট স্ট্রাইপসের "হ্যালো অপারেটর", প্যাট ও টিফানির নাচের দৃশ্যের শুরুর স্টিভি ওয়ান্ডারের "ডোন্ট ইউ ওরি 'বাউট আ থিং", এবং দ্য হোয়াইট স্ট্রাইপসের "ফেল ইন লাভ উইথ আ গার্ল" গানগুলোও এই সাউন্ডট্র্যাকে যোগ করা হয়নি।

নং.শিরোনামকণ্ঠশিল্পীদৈর্ঘ্য
১."সিলভার লাইনিং"ড্যানি এলফম্যান৩:১২
২."মাই চেরি আমুর"স্টিভি ওয়ান্ডার২:৫২
৩."অলওয়েজ অলরাইট"অ্যালাবামা শেকস৪:০৪
৪."আনস্কয়ার ড্যান্স"ডেভ ব্রুবেক কোয়ার্টেট২:০১
৫."বাফালো"অল্ট-জে ফিচারিং মাউন্টেন ম্যান৩:১৫
৬."দ্য মুন অব মানাকুরা"লে পল অ্যান্ড ম্যারি ফোর্ড২:৪৬
৭."মনস্টার ম্যাশ"ক্র্যাবকর্পস৩:৩৬
৮."গুডনাইট মুন"অ্যামব্রোসিয়া পার্সলি ও দ্য এলিগ্যান্ট টু৪:০২
৯."নাউ আ'ম আ ফুল"ইগলস অব ডেথ মেটাল৩:৪২
১০."ওয়াকিং হোম"ড্যানি এলফম্যান১:০৪
১১."গার্ল ফ্রম দ্য নর্থ কান্ট্রি"বব ডিলানজনি ক্যাশ৩:৪০
১২."সিলভার লাইনিং (ক্রেজি 'বাউট ইউ)"জেসি জে৩:২৪
১৩."হেই বিগ ব্রাদার"রেয়ার আর্থ৪:৪৫
১৪."মারিয়া" (বার্নস্টেইন প্লেস ব্রুবেক প্লেস বার্নস্টেইন)ডেভ ব্রুবেক কোয়ার্টেট৩:২০
মোট দৈর্ঘ্য:৪৫:৩৬

সুর[সম্পাদনা]

সিলভার লাইনিংস প্লেবুক
ড্যানি এলফম্যান কর্তৃক চলচ্চিত্র স্কোর
মুক্তির তারিখ১৬ নভেম্বর ২০১২
ঘরানাচলচ্চিত্রের সুর
দৈর্ঘ্য২০:২৭
সঙ্গীত প্রকাশনীসনি মিউজিক
ড্যানি এলফম্যান কালক্রম
ফ্র্যাঙ্কেনউইনি
(২০১২)
সিলভার লাইনিংস প্লেবুক
(২০১২)
হিচকক
(২০১২)

চলচ্চিত্রের গানের অ্যালবামের সাথেই ড্যানি এলফম্যানের চলচ্চিত্রের সুর সনি মিউজিক এন্টারটেইনমেন্ট কর্তৃক ডিজিটাল ডাউনলোডের জন্য উন্মুক্ত করা হয়। "গুফ ট্র্যাক" চলচ্চিত্রে শোনা যায়নি।

নং.শিরোনামদৈর্ঘ্য
১."সিলভার লাইনিং"৩:১১
২."রানিং অফ"২:০১
৩."সিম্পল"১:৫৫
৪."উইথ আ বিট"২:১৭
৫."টাইনি গিটার"১:০১
৬."ওয়াকিং হোম"১:০৪
৭."সিলভার লাইনিং ওয়াইল্ড-ট্র্যাক"২:৫৭
৮."দ্য বুক"০:৪১
৯."হ্যাপি এন্ডিং"৩:৫২
১০."গুফ ট্র্যাক"১:২৮
মোট দৈর্ঘ্য:২০:২৭

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Silver Linings Playbook"ব্রিটিশ বোর্ড অব ফিল্ম ক্লাসিফিকেশন (ইংরেজি ভাষায়)। নভেম্বর ১১, ২০১২। নভেম্বর ৯, ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৪ অক্টোবর ২০২০ 
  2. "Silver Linings Playbook"বক্স অফিস মোজো (ইংরেজি ভাষায়)। আইএমডিবি। ২০১২। ৩ মার্চ ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৪ অক্টোবর ২০২০ 
  3. "Oscars: Silver Linings surprise contender, while Lincoln dominates"বিবিসি নিউজ (ইংরেজি ভাষায়)। জানুয়ারি ১০, ২০১৩। সেপ্টেম্বর ১৩, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৪ অক্টোবর ২০২০ 
  4. পালভার, অ্যান্ড্রু (ফেব্রুয়ারি ২৫, ২০১৩)। "Jennifer Lawrence wins best actress Oscar for Silver Linings Playbook" (ইংরেজি ভাষায়)। লন্ডন: দ্য গার্ডিয়ান। ফেব্রুয়ারি ১৭, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৪ অক্টোবর ২০২০ 
  5. হর্ম, জন (১৩ জানুয়ারি ২০১৩)। "Golden Globes 2013: Wins for Jennifer Lawrence, Anne Hathaway"লস অ্যাঞ্জেলেস টাইমস (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ৪ অক্টোবর ২০২০ 
  6. "Silver Linings Playbook takes Bafta for Adapted Screenplay"আইটিভি নিউজ (ইংরেজি ভাষায়)। ১০ ফেব্রুয়ারি ২০১৩। ২০১৩-০৮-১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৪ অক্টোবর ২০২০ 
  7. ওয়েলস, জর্জ (আগস্ট ২, ২০১১)। "Bradley Cooper joining the Silver Linings Playbook?"টোটাল ফিল্ম (ইংরেজি ভাষায়)। জানুয়ারি ১২, ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৪ অক্টোবর ২০২০ 
  8. অ্যান্ডারটন, ইথান (আগস্ট ২, ২০১১)। "Bradley Cooper Back on Silver Linings Playbook with Robert De Niro"ফার্স্ট শোইং (ইংরেজি ভাষায়)। সেপ্টেম্বর ১৭, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৪ অক্টোবর ২০২০ 
  9. ফ্লেমিং জুনিয়র, মাইক (আগস্ট ১, ২০১১)। "Bradley Cooper Back In Silver Linings Playbook Talks, Robert DeNiro Too"ডেডলাইন হলিউড (ইংরেজি ভাষায়)। জুন ১৬, ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৪ অক্টোবর ২০২০ 
  10. "Jennifer Lawrence to Star in the Silver Linings Playbook"জিম্বিও (ইংরেজি ভাষায়)। নভেম্বর ২১, ২০১১। ডিসেম্বর ২, ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৪ অক্টোবর ২০২০ 
  11. কিট, বরিস (সেপ্টেম্বর ২৬, ২০১১)। "Oscar-Nominated 'Animal Kingdom' Actress in Talks to Join 'Silver Lining Playbook'"দ্য হলিউড রিপোর্টার (ইংরেজি ভাষায়)। সেপ্টেম্বর ১৭, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৪ অক্টোবর ২০২০ 
  12. ক্লিন, মাইকেল (অক্টোবর ২৩, ২০১১)। "Bollywood star steps out at Tashan"ফিলি (ইংরেজি ভাষায়)। মার্চ ৪, ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৪ অক্টোবর ২০২০ 
  13. ডিউ, ব্লেক (অক্টোবর ৬, ২০১১)। "Julia Stiles Joins David O. Russell's Silver Linings Playbook"উই গট দিস কভার্ড (ইংরেজি ভাষায়)। সেপ্টেম্বর ১৭, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৪ অক্টোবর ২০২০ 
  14. "Capital Region schools helped arts-minded students gain career footholds" (ইংরেজি ভাষায়)। টাইমস ইউনিয়ন। ১২ এপ্রিল ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৪ অক্টোবর ২০২০ 
  15. মরফুট, অ্যাডি (ডিসেম্বর ১৯, ২০১২)। "Silver Linings Playbook – Produced by Donna Gigliotti, Bruce Cohen & Jonathan Gordon"ভ্যারাইটি (ইংরেজি ভাষায়)। মে ১৫, ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৫ অক্টোবর ২০২০ 
  16. রাইজিক, মেলেনা (নভেম্বর ৯, ২০১২)। "Shooting the Sass Easily as an Arrow"দ্য নিউ ইয়র্ক টাইমস (ইংরেজি ভাষায়)। আগস্ট ২, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৫ অক্টোবর ২০২০ 
  17. রায়ান, মাইক (২৮ নভেম্বর ২০১২)। "David O. Russell, Silver Linings Playbook Director, On Reinventing Bradley Cooper And Robert De Niro"হাফপোস্ট (ইংরেজি ভাষায়)। ২০ জুলাই ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৫ অক্টোবর ২০২০ 
  18. উইলম্যান, ক্রিস (নভেম্বর ৩০, ২০১২)। "Silver Linings David O. Russell on How Jennifer Lawrence Skyped Her Way to Oscar Front-Runner"দ্য র‍্যাপ (ইংরেজি ভাষায়)। অক্টোবর ৭, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৫ অক্টোবর ২০২০ 
  19. "Filming Locations of Silver Linings Playbook"মুভি লকি। ১৬ আগস্ট ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৫ অক্টোবর ২০২০ 
  20. কার্চিডি, স্যাম (নভেম্বর ১৫, ২০১১)। "Eagles star in Silver Linings Playbook"ফিলি.কম (ইংরেজি ভাষায়)। মার্চ ৩, ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৫ অক্টোবর ২০২০ 
  21. "Washington Redskins at Philadelphia Eagles - October 5th, 2008"প্রো-ফুটবল-রেফারেন্স (ইংরেজি ভাষায়)। ১৮ আগস্ট ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৫ অক্টোবর ২০২০ 
  22. "Angelina Jolie Wanted Jennifer Lawrence's Silver Linings Playbook Role"স্টার পালস (ইংরেজি ভাষায়)। ডিসেম্বর ৬, ২০১২। আগস্ট ২৬, ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৫ অক্টোবর ২০২০ 
  23. বেটিংগার, ব্রেন্ডন (আগস্ট ১, ২০১১)। "Bradley Cooper Replaces Mark Wahlberg in the Silver Linings Playbook; Robert De Niro in Talks"কলিডার (ইংরেজি ভাষায়)। জানুয়ারি ৮, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৫ অক্টোবর ২০২০ 
  24. হুইপ, গ্লেন (ডিসেম্বর ১, ২০১২)। "Silver Linings Playbook: Bradley Cooper's good 'bad guy energy'"লস অ্যাঞ্জেলেস টাইমস (ইংরেজি ভাষায়)। মে ২৬, ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৫ অক্টোবর ২০২০ 
  25. সিৎসকোভ্‌স্কি, কাভান (১৬ জানুয়ারি ২০১৪)। "Jennifer Lawrence Was Not The First Choice For 'Silver Linings Playbook'"হাফপোস্ট (ইংরেজি ভাষায়)। ২২ জুলাই ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৫ অক্টোবর ২০২০ 
  26. ওসাদ, জর্দানা (২০১৪)। "Anne Hathaway & Mark Wahlberg Bailed on Silver Linings Playbook"ই! অনলাইন (ইংরেজি ভাষায়)। ৭ জুন ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৫ অক্টোবর ২০২০ 
  27. ডোটি, মেরিয়া (সেপ্টেম্বর ১০, ২০১২)। "How Jennifer Lawrence stole her Silver Linings Playbook role"ইয়াহু (ইংরেজি ভাষায়)। জানুয়ারি ১৬, ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৫ অক্টোবর ২০২০ 
  28. ভিনেইয়ার্ড, জেনিফার (ডিসেম্বর ২০, ২০১২)। "Party Lines Slideshow: David O. Russell Tells Us Who Else Auditioned for Silver Linings Playbook"ভালচার (ইংরেজি ভাষায়)। নিউ ইয়র্ক ম্যাগাজিন। মার্চ ৩০, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৫ অক্টোবর ২০২০ 
  29. ফোর্ড, রেবেকা। "'Silver Linings Playbook': Jennifer Lawrence Wins Her Role via Skype, Learns to Dance Like an Amateur"দ্য হলিউড রিপোর্টার। ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৫ অক্টোবর ২০২০ 
  30. রাইজিক, মেলেনা (৯ নভেম্বর ২০১২)। "Shooting the Sass Easily as an Arrow (Published 2012)"দ্য নিউ ইয়র্ক টাইমস (ইংরেজি ভাষায়)। ২৬ অক্টোবর ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৫ অক্টোবর ২০২০ 
  31. ভালবি, ক্যারেন (জানুয়ারি ২৫ – ফেব্রুয়ারি ১, ২০১৩)। "Jennifer Lawrence / Silver Linings Playbook"। এন্টারটেইনমেন্ট উইকলি। নিউ ইয়র্ক: টাইম ইঙ্ক.: ৪৮। 
  32. শীরা, দহভি (অক্টোবর ৯, ২০১২)। "Bradley Cooper & Jennifer Lawrence's 'Amazing Chemistry' Evident During Dance Rehearsal"পিপল (ইংরেজি ভাষায়)। সেপ্টেম্বর ২১, ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৫ অক্টোবর ২০২০ 
  33. ইউয়ান, জ্যাডা (নভেম্বর ১২, ২০১২)। "Jennifer Lawrence Has 30 Minutes to Schmooze Oscar Voters Before Getting Back to Hunger Games"ভালচার (ইংরেজি ভাষায়)। মার্চ ৩০, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৫ অক্টোবর ২০২০ 
  34. আলড্রিখ, রাইল্যান্ড। "Cannes 2012: Weinsteins Show Off Django Unchained, The Master, & Silver Lining Playbook"টুইচ ফিল্ম (ইংরেজি ভাষায়)। আগস্ট ১৪, ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৪ অক্টোবর ২০২০ 
  35. হুইপ, গ্লেন (সেপ্টেম্বর ১৬, ২০১২)। "Silver Linings Playbook wins People's Choice at Toronto festival"লস অ্যাঞ্জেলেস টাইমস (ইংরেজি ভাষায়)। জানুয়ারি ১৭, ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৪ অক্টোবর ২০২০ 
  36. "Silver Linings Playbook to open Mumbai Film Fest"এশিয়া প্যাসিফিক আর্টস (ইংরেজি ভাষায়)। অক্টোবর ৯, ২০১২। আগস্ট ২৯, ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৪ অক্টোবর ২০২০ 
  37. "Mumbai festival opens with Silver Linings Playbook"দ্য হিন্দু (ইংরেজি ভাষায়)। চেন্নাই। অক্টোবর ১৯, ২০১২। অক্টোবর ২১, ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৪ অক্টোবর ২০২০ 
  38. সুবার্স, রে (নভেম্বর ১৫, ২০১২)। "Forecast: 'Twilight' Finale Eyes Record Debut for Franchise"বক্স অফিস মোজো (ইংরেজি ভাষায়)। অক্টোবর ২৬, ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৪ অক্টোবর ২০২০ 
  39. জেইচিক, স্টিভেন (নভেম্বর ৫, ২০১২)। "Silver Linings writes an unusual release playbook"লস অ্যাঞ্জেলেস টাইমস (ইংরেজি ভাষায়)। এপ্রিল ১৪, ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৪ অক্টোবর ২০২০ 
  40. জেইচিক, স্টিভেন (নভেম্বর ১৪, ২০১২)। "Silver Linings Playbook won't go wide on Thanksgiving after all"লস অ্যাঞ্জেলেস টাইমস (ইংরেজি ভাষায়)। মার্চ ১৮, ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৪ অক্টোবর ২০২০ 
  41. পেরেজ, রদ্রিগো (ডিসেম্বর ২০, ২০১২)। "David O. Russell's Silver Linings Playbook Hits 700 Screens Starting Christmas Day"ইন্ডিওয়্যার (ইংরেজি ভাষায়)। অক্টোবর ২, ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৪ অক্টোবর ২০২০ 
  42. "Silver Linings Playbook Blu-ray and DVD release"। নিউ ব্লু-রে রিলিজ। মার্চ ১১, ২০১৩। ডিসেম্বর ৩০, ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৬ অক্টোবর ২০২০ 
  43. "সিলভার লাইনিংস প্লেবুক (২০১২)"মেটাক্রিটিক (ইংরেজি ভাষায়)। ৫ অক্টোবর ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৪ অক্টোবর ২০২০ 
  44. "সিলভার লাইনিংস প্লেবুক (২০১২)"রটেন টম্যাটোস (ইংরেজি ভাষায়)। ৪ মে ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৪ অক্টোবর ২০২০ 
  45. "সিলভার লাইনিংস প্লেবুক (২০১২)"অলমুভি (ইংরেজি ভাষায়)। ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৪ অক্টোবর ২০২০ 
  46. "সিলভার লাইনিংস প্লেবুক (২০১২)" (ইংরেজি ভাষায়)। ইন্টারনেট মুভি ডেটাবেজ। ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৪ অক্টোবর ২০২০ 
  47. "সিলভার লাইনিংস প্লেবুক (২০১২)"আলোসিনে (ইংরেজি ভাষায়)। ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৪ অক্টোবর ২০২০ 
  48. "সিলভার লাইনিংস প্লেবুক (২০১২)"এম্পায়ার (ইংরেজি ভাষায়)। ২১ এপ্রিল ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৪ অক্টোবর ২০২০ 
  49. ব্র্যাডশো, পিটার (২২ নভেম্বর ২০১২)। "Silver Linings Playbook – review"দ্য গার্ডিয়ান (ইংরেজি ভাষায়)। গার্ডিয়ান মিডিয়া গ্রুপ। ২৭ জুলাই ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৫ অক্টোবর ২০২০ 
  50. রজার, ইবার্ট"সিলভার লাইনিংস প্লেবুক (২০১২)"রজারইবার্ট.কম (ইংরেজি ভাষায়)। ইবার্ট ডিজিটাল এলএলসি। ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৪ অক্টোবর ২০২০ 
  51. কুপার, জ্যাকি কে.। "Silver Linings Playbook"Jackie K. Cooper (ইংরেজি ভাষায়)। JackieCooper.com। এপ্রিল ১, ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৬ অক্টোবর ২০২০ 
  52. রোপার, রিচার্ড। "Silver Linings Playbook" (ইংরেজি ভাষায়)। RichardRoeper.com.com। ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০ তারিখে মূল (Video) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৬ অক্টোবর ২০২০ 
  53. ওয়াইৎজমান, এলিজাবেথ (নভেম্বর ১৬, ২০১২)। "Movie review: Silver Linings Playbook"নিউ ইয়র্ক ডেইলি নিউজ (ইংরেজি ভাষায়)। NYDailyNews.com। ফেব্রুয়ারি ১৭, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৬ অক্টোবর ২০২০ 
  54. রাইনার, পিটার (নভেম্বর ১৬, ২০১২)। "Bradley Cooper and Jennifer Lawrence strike romantic sparks in Silver Linings Playbook (+video)"ক্রিশ্চিয়ান সায়েন্স মনিটর (ইংরেজি ভাষায়)। মে ২৯, ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৬ অক্টোবর ২০২০ 
  55. কোভার্ট, কলিন (নভেম্বর ২০, ২০১২)। "Silver Linings: Crazy in love with this rom-com"স্টার ট্রিবিউন (ইংরেজি ভাষায়)। StarTribune.com। এপ্রিল ৩, ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৬ অক্টোবর ২০২০ 
  56. মুর, রজার (ডিসেম্বর ৩০, ২০১২)। "Movie Review: The Silver Linings Playbook — cute and disturbing Oscar bait"রজার মুভি নেশন (ইংরেজি ভাষায়)। মার্চ ২২, ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৬ অক্টোবর ২০২০ 
  57. জ্যাগারনথ, কেভিন (সেপ্টেম্বর ৯, ২০১২)। "TIFF Review: Big-Hearted & Hilarious Silver Linings Playbook A Touchdown From David O. Russell"দ্য প্লেলিস্ট (ইংরেজি ভাষায়)। ইন্ডিওয়্যার। সেপ্টেম্বর ২০, ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৬ অক্টোবর ২০২০ 
  58. রুনি, ডেভিড (সেপ্টেম্বর ৯, ২০১২)। "Silver Lining Playbook: Toronto Review"দ্য হলিউড রিপোর্টার (ইংরেজি ভাষায়)। অক্টোবর ২৩, ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৬ অক্টোবর ২০২০ 
  59. করলিস, রিচার্ড (সেপ্টেম্বর ১১, ২০১২)। "Silver Linings Playbook: Bradley Cooper and Jennifer Lawrence Go Dancing on the Edge"টাইম (ইংরেজি ভাষায়)। টাইম ইঙ্ক। সেপ্টেম্বর ২৫, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৬ অক্টোবর ২০২০ 
  60. চ্যাং, জাস্টিন (সেপ্টেম্বর ৯, ২০১২)। "Silver Linings Playbook"ভ্যারাইটি (ইংরেজি ভাষায়)। রিড এলসেভিয়ের প্রপার্টিজ ইঙ্ক। ফেব্রুয়ারি ১৯, ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৬ অক্টোবর ২০২০ 
  61. কোন, এরিক (সেপ্টেম্বর ৯, ২০১২)। "Toronto Review: Making Light of Romantic Dysfunction, Silver Linings Playbook Is David O. Russell's Funniest Film to Date"ইন্ডিওয়্যার (ইংরেজি ভাষায়)। আ স্ন্যাগফিল্মস কোং। মার্চ ৯, ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৬ অক্টোবর ২০২০ 
  62. হর্নাডে, অ্যান (নভেম্বর ১৬, ২০১২)। "Silver Linings Playbook"দ্য ওয়াশিংটন পোস্ট (ইংরেজি ভাষায়)। জুলাই ২৯, ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৬ অক্টোবর ২০২০ 
  63. টুরান, কেনেথ (নভেম্বর ১৫, ২০১২)। "Movie review: Silver Linings Playbook is irresistibly eccentric"লস অ্যাঞ্জেলেস টাইমস (ইংরেজি ভাষায়)। ট্রিবিউন কোম্পানি। মে ২০, ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৬ অক্টোবর ২০২০ 
  64. রে, স্টিভেন (অক্টোবর ১৮, ২০১২)। "A wonderful Silver Linings Playbook to open Philadelphia Film Festival"দ্য ফিলাডেলফিয়া ইনকোয়েরার (ইংরেজি ভাষায়)। অক্টোবর ২৬, ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৬ অক্টোবর ২০২০ 
  65. বাকা, রিকার্ডো (নভেম্বর ২১, ২০১২)। "Movie review: A pleasure looking for those "Silver Linings""দ্য ডেনভার পোস্ট (ইংরেজি ভাষায়)। মিডিয়ানিউজ গ্রুপ। মার্চ ৩, ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৬ অক্টোবর ২০২০ 
  66. পিটার, ট্র্যাভার্স (নভেম্বর ১৫, ২০১২)। "Silver Linings Playbook"রোলিং স্টোন (ইংরেজি ভাষায়)। আগস্ট ১৯, ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৬ অক্টোবর ২০২০ 
  67. ডেনবি, ডেভিড (২৬ নভেম্বর ২০১২)। "Animal Instincts"দ্য নিউ ইয়র্কার (ইংরেজি ভাষায়)। ৫ আগস্ট ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৬ অক্টোবর ২০২০ 
  68. ব্রডি, রিচার্ড (২০ নভেম্বর ২০১২)। "The book on Silver Linings Playbook"দ্য নিউ ইয়র্কার। ৩০ ডিসেম্বর ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৬ অক্টোবর ২০২০ 
  69. ব্রডি, রিচার্ড (১২ ডিসেম্বর ২০১২)। "Silver Linings Encore"দ্য নিউ ইয়র্কার (ইংরেজি ভাষায়)। ৯ এপ্রিল ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৬ অক্টোবর ২০২০ 
  70. কলিন, রবি (নভেম্বর ২২, ২০১২)। "Silver Linings Playbook, review"দ্য ডেইলি টেলিগ্রাফ (ইংরেজি ভাষায়)। আগস্ট ১১, ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৬ অক্টোবর ২০২০ 
  71. ল্যাসি, লিয়াম (নভেম্বর ২১, ২০১২)। "Silver Linings Playbook is a touchdown for Lawrence and Cooper"দ্য গ্লোব অ্যান্ড মেইল (ইংরেজি ভাষায়)। মার্চ ৬, ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৬ অক্টোবর ২০২০ 
  72. সেইজেল, টাটিয়ানা (ডিসেম্বর ৬, ২০১২)। "The Real Philadelphia Eagles Games Behind Silver Linings Playbook's Football Obsession"দ্য হলিউড রিপোর্টার (ইংরেজি ভাষায়)। অক্টোবর ২৬, ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৬ অক্টোবর ২০২০ 
  73. সুবার্স, রে (নভেম্বর ১৮, ২০১২)। "Weekend Report: 'Breaking Dawn' Ends 'Twilight' Franchise on Strong Note"বক্স অফিস মোজো (ইংরেজি ভাষায়)। আইএমডিবি। জুলাই ১৮, ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৫ অক্টোবর ২০২০ 
  74. সুবার্স, রে (নভেম্বর ২৫, ২০১২)। "Weekend Report: 'Twilight,' Bond Dominate Fruitful Thanksgiving" (ইংরেজি ভাষায়)। জুলাই ১৮, ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৫ অক্টোবর ২০২০ 
  75. Ray Subers (ডিসেম্বর ৩০, ২০১২)। "Weekend Report: 'Hobbit' Holds Off 'Django' on Final Weekend of 2012"বক্স অফিস মোজো (ইংরেজি ভাষায়)। জুন ১৭, ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৫ অক্টোবর ২০২০ 
  76. সুবার্স, রে (জানুয়ারি ২১, ২০১৩)। "Weekend Report: 'Mama' Haunts First Place Over MLK Weekend" (ইংরেজি ভাষায়)। অক্টোবর ২৬, ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৫ অক্টোবর ২০২০ 
  77. পাণ্ড্য, গিতিশ (জানুয়ারি ২৮, ২০১৩)। "Weekend Box Office" (ইংরেজি ভাষায়)। জানুয়ারি ২১, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৫ অক্টোবর ২০২০ 
  78. সুবার্স, রে (অক্টোবর ৩১, ২০১২)। "Holiday 2012 Forecast"বক্স অফিস মোজো (ইংরেজি ভাষায়)। সেপ্টেম্বর ২৪, ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৫ অক্টোবর ২০২০ 
  79. সুবার্স, রে (ফেব্রুয়ারি ১৮, ২০১৩)। "Weekend Report: 'Die Hard' Narrowly Wins Presidents Day Weekend - Box Office Mojo"বক্স অফিস মোজো (ইংরেজি ভাষায়)। অক্টোবর ২৬, ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৫ অক্টোবর ২০২০ 
  80. "Oscars: Jennifer Lawrence and 12 of Hollywood's Youngest Academy Award Winners"দ্য হলিউড রিপোর্টার। ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৪ অক্টোবর ২০২০ 
  81. আইজেনবার্গ, এরিক (ডিসেম্বর ১৮, ২০১২)। "The Top 10 Movies Of 2012: Eric's List"সিনেমাব্লেন্ড (ইংরেজি ভাষায়)। অক্টোবর ২৬, ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৪ অক্টোবর ২০২০ 
  82. শোয়ার্ড, ক্যাথরিন (ডিসেম্বর ১১, ২০১২)। "The 10 best films of 2012, No 4 – Silver Linings Playbook"দ্য গার্ডিয়ান (ইংরেজি ভাষায়)। লন্ডন। সেপ্টেম্বর ২৮, ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৪ অক্টোবর ২০২০ 
  83. "Danny Elfman, Silver Linings Playbook [Original Motion Picture Soundtrack]"অলমিউজিক। অল মিডিয়া নেটওয়ার্ক, এলএলসি। নভেম্বর ২০, ২০১২। মে ১৭, ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ অক্টোবর ৬, ২০২০ 
  84. "Official UK Top 100 Singles"অফিশিয়াল চার্টস কোম্পানি (ইংরেজি ভাষায়)। ডিসেম্বর ১, ২০১২। অক্টোবর ২৮, ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৬ অক্টোবর ২০২০ 
  85. "Silver Linings Playbook"আইটিউন্স (ইংরেজি ভাষায়)। নভেম্বর ১৬, ২০১২। নভেম্বর ২৩, ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৬ অক্টোবর ২০২০ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

টেমপ্লেট:ফিলাডেলফিয়া ইগলস