ম্যাথু কুইক

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
ম্যাথু কুইক
২০১৩ সালের কুইক
২০১৩ সালের কুইক
জন্ম (1973-10-23) ২৩ অক্টোবর ১৯৭৩ (বয়স ৪৭)
ক্যামডেন, নিউ জার্সি, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র
পেশালেখক
ভাষাইংরেজি
জাতীয়তামার্কিন
শিক্ষা প্রতিষ্ঠানলা সাল বিশ্ববিদ্যালয়, গডার্ড কলেজ
ধরনউপন্যাস
উল্লেখযোগ্য রচনাদ্য সিলভার লাইনিংস প্লেবুক
সঙ্গীঅ্যালিশিয়া বেসেট
ওয়েবসাইট
matthewquickwriter.com

ম্যাথু কুইক (জন্ম ২৩ অক্টোবর ১৯৭৩) একজন মার্কিন কথাসাহিত্যিক। তার প্রথম উপন্যাস দ্য সিলভার লাইনিংস প্লেবুক নিউ ইয়র্ক টাইমসের সর্বোচ্চ বিক্রীত বই।[১] এই বইটি থেকে সিলভার লাইনিংস প্লেবুক নামে একটি চলচ্চিত্র নির্মাণ করা হয়। তার রচিত বইগুলো বেশ কয়েকটি ভাষায় অনূদিত হয়েছে। ২০১২ সালে তার রচিত কিশোর উপন্যাস বয় টুয়েন্টি ওয়ান দ্য নিউ ইয়র্ক টাইমস কর্তৃক সমাদৃত হয়।[২]

কুইক ২০০৯ পেন/হেমিংওয়ে পুরস্কারের ফাইনালিস্টদের একজন,[৩] এবং টাইমের ২০১৩-এর ১০০ প্রভাবশালী ব্যক্তিত্বের চূড়ান্ত তালিকায় তার নাম আসে।[৪]

জীবনী[সম্পাদনা]

কুইক ১৯৭৩ সালের ২৩শে অক্টোবর নিউ জার্সির ক্যামডেনে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি নিউ জার্সির ওকলিনে বেড়ে ওঠেন এবং কলিংসউড হাই স্কুলে পড়াশোনা করেন। তিনি লা সাল বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইংরেজি সাহিত্য ও মাধ্যমিক শিক্ষায় দুইটি স্নাতক ডিগ্রি,[৫] এবং গডার্ড কলেজ থেকে চারুকলায় স্নাতকোত্তর (এমএফএ) ডিগ্রি অর্জন করেন। কলিংসউডে থাকাকালীন কুইক কয়েক বছর দক্ষিণ নিউ জার্সির হ্যাডনফিল্ডের একটি উচ্চ বিদ্যালয়ে ইংরেজি পড়াতেন এবং এই চাকরি ছেড়ে দিয়ে তিনি তার প্রথম উপন্যাস লেখা শুরু করেন।[৬][৭] কুইক এসময়ে কয়েক বছর ম্যাসাচুসেট্‌সে তার শ্বশুরবাড়িতে বসবাস করেন। ২০১৩ সালে তিনি লা সাল থেকে হিউমেন লেটার্সে সম্মানসূচক ডক্টরেট লাভ করেন।

সাহিত্য জীবন[সম্পাদনা]

লা সাল বিশ্ববিদ্যালয়ে থাকাকালীন কুইকের মধ্যে লেখক হওয়ার আকাঙ্ক্ষা জন্মে। কুইক তার শ্বশুরবাড়ির বেজমেন্টে বসে তার প্রথম উপন্যাস দ্য সিলভার লাইনিংস প্লেবুক বইটি লিখেন। বইটি ফারার, স্ট্রাউস অ্যান্ড জিরো থেকে প্রকাশিত হয়।[৫] ২০১২ সালে তার এই সর্বাধিক বিক্রীত বইটি থেকে সিলভার লাইনিংস প্লেবুক নামে একটি চলচ্চিত্র নির্মাণ করা হয়।[৮] ডেভিড ও. রাসেল পরিচালিত চলচ্চিত্রটিতে শ্রেষ্ঠাংশে অভিনয় করেন ব্র্যাডলি কুপারজেনিফার লরেন্স[৯]

পরবর্তীকালে কুইক তিনটি কিশোর উপন্যাস রচনা করেন, সেগুলো হল সর্টা লাইক আ রকস্টার (২০১০), বয় টুয়েন্টি ওয়ান (২০১২), ও ফরগিভ মি, লিওনার্ড পিকক (২০১৩)। ২০১৪ সালে দ্য গুড লাক অব রাইট নাউ এবং ২০১৫ সালে লাভ মে ফেইল প্রকাশিত হয়। ২০১৬ সালে তার চতুর্থ কিশোর উপন্যাস এভরি এক্সকুইজিট থিংস প্রকাশিত হয়।[১০]

সাহিত্যকর্ম[সম্পাদনা]

সূত্র: ফিকশন ডেটাবেজ[১১]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "The New York Times Bestseller List"দ্য নিউ ইয়র্ক টাইমস (ইংরেজি ভাষায়)। ১৪ মার্চ ২০১৩। সংগ্রহের তারিখ ১৫ অক্টোবর ২০২০ 
  2. ডি লা পেনিয়া, ম্যাট (৯ মার্চ ২০১২)। "The Finer Points of the Game" (ইংরেজি ভাষায়)। দ্য নিউ ইয়র্ক টাইমস। সংগ্রহের তারিখ ১৫ অক্টোবর ২০২০ 
  3. "The Ernest Hemingway Collection" (ইংরেজি ভাষায়)। জুলাই ১৯, ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৫ অক্টোবর ২০২০ 
  4. "Matthew Quick | The 2013 TIME 100 Poll | TIME.com" (ইংরেজি ভাষায়)। Time100.time.com। ২০১৩-০৩-২২। ২০১৩-১২-৩১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৫ অক্টোবর ২০২০ 
  5. "Matthew Quick, '95 – English"www.lasalle.edu। সংগ্রহের তারিখ ২৮ অক্টোবর ২০২০ 
  6. "Matthew Quick Bio" (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ১৫ অক্টোবর ২০২০ 
  7. স্কউফ্যালস, ম্যাট (২০১৩-০২-২৪)। "'Silver Linings Playbook' Scribe Reflects on Roots" (ইংরেজি ভাষায়)। কলিংসউড প্যাচ। সংগ্রহের তারিখ ১৫ অক্টোবর ২০২০ 
  8. ডেইর্ড্রে, ডোনাহু (১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯)। "'Silver Linings Playbook' success isn't exactly how author drew it up"ইউএসএ টুডে (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২৮ অক্টোবর ২০২০ 
  9. "David O. Russell to Direct The Silver Linings Playbook | /Film" (ইংরেজি ভাষায়)। স্ল্যাশফিল্ম। ২৮ মার্চ ২০০৯। সংগ্রহের তারিখ ১৫ অক্টোবর ২০২০ 
  10. সিন্ডি, রিটার (১৯ মে ২০১৬)। "Q & A with Matthew Quick"পাবলিশার্স উইকলি (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২৮ অক্টোবর ২০২০ 
  11. "Matthew Quick Book List" (ইংরেজি ভাষায়)। FictionDB। সংগ্রহের তারিখ ১৫ অক্টোবর ২০২০ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]