সানোয়ার হোসেন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
সানোয়ার হোসেন
ক্রিকেট তথ্য
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনডানহাতি অফ ব্রেক
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট ওডিআই
ম্যাচ সংখ্যা ২৭
রানের সংখ্যা ৩৪৫ ২৯০
ব্যাটিং গড় ১৯.১৬ ১১.৫৯
১০০/৫০ -/- -/১
সর্বোচ্চ রান ৪৯ ৫২
বল করেছে ৪৪৪ ৩৮৩
উইকেট ১০
বোলিং গড় ৬২.০০ ৩২.৭০
ইনিংসে ৫ উইকেট - -
ম্যাচে ১০ উইকেট - -
সেরা বোলিং ২/১২৮ ৩/৪৯
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ১/- ১১/-
উৎস: cricinfo, ১৬ জুলাই ২০১৫

মোহাম্মদ সানোয়ার হোসেন (জন্ম: ৫ আগস্ট, ১৯৭৩) বৃহত্তর ময়মনসিংহ এলাকায় জন্মগ্রহণকারী বাংলাদেশের সাবেক ক্রিকেটারবাংলাদেশ ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। দলে তিনি মূলতঃ মাঝারি সারির ব্যাটসম্যান ছিলেন। ডানহাতে ব্যাটিংয়ের পাশাপাশি ডানহাতে অফ ব্রেক বোলিংয়ে পারদর্শী ছিলেন তিনি। ঘরোয়া ক্রিকেটে বরিশাল ও চট্টগ্রাম বিভাগ এবং বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের প্রতিনিধিত্ব করেন সানোয়ার হোসেন[১]

খেলোয়াড়ী জীবন[সম্পাদনা]

মূলতঃ সামনের পায়ের উপর ভর করে তিনি ব্যাটিং চলাতেন। দীর্ঘ পাঁচ বছর আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে পদচারণা করেন তিনি। কিন্তু ঐ সময়ে কেবলমাত্র একটি অর্ধ-শতকের সন্ধান পান। ১০ জানুয়ারি, ১৯৯৮ তারিখে ভারতের বিপক্ষে তার ওডিআই অভিষেক হয়। জিম্বাবুয়ের বিরুদ্ধে ২০০১ সালে একদিনের আন্তর্জাতিকে নিজস্ব সর্বোচ্চ ৫২ রান তোলেন। ৯ সেপ্টেম্বর, ২০০৩ তারিখে মুলতানে পাকিস্তানের বিপক্ষে তিনি সর্বশেষ ওডিআইয়ে অংশ নেন সানোয়ার।

১৮ ডিসেম্বর, ২০০১ তারিখে নিউজিল্যান্ড সফরে হ্যামিল্টনে টেস্ট অভিষেক ঘটে তার। ঐ খেলায় তিনি চল্লিশের কোটা অতিক্রম করেন। পরবর্তীতে ২০০৩ সালেও অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে চল্লিশের কোটাকে পাশ কাটিয়ে অর্ধ-শতকে রূপান্তরে ব্যর্থ হন। ২০ আগস্ট, ২০০৩ তারিখে পাকিস্তান সফরে সর্বশেষ টেস্টে অংশ নেন।

আকরাম খানের অবসরের পর মাঝারি সারিতে ব্যাটিংয়ের সুযোগ পান। পরবর্তীকালে দল নির্বাচকমণ্ডলী তার স্থানে আমিনুল ইসলামকে অন্তর্ভুক্ত করেন।

২০০৩ সালের ক্রিকেট বিশ্বকাপে অংশ নেন। সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে তিনি মাত্র নয় টেস্ট ও ২৭ ওডিআইয়ে অংশগ্রহণ করেন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Isam, Mohammad। "Sanwar Hossain's Cricinfo Profile"Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ 2015-7-16  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |সংগ্রহের-তারিখ= (সাহায্য)

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]