মনির খান

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
মনির খান
জন্ম (1972-08-01) ১ আগস্ট ১৯৭২ (বয়স ৪৭)
বাসস্থানঢাকা, বাংলাদেশ
পেশাসঙ্গীতশিল্পী
কার্যকাল১৯৯১–বর্তমান
দাম্পত্য সঙ্গীতাহমিনা আক্তার ইতি
পিতা-মাতামোঃ মাহবুব আলী খান (পিতা)
মোছা. মনোয়ারা খাতুন (মাতা)
পুরস্কারজাতীয় চলচিত্র পুরস্কার (৩ বার) এবং তিনি অনেক বছর যাবত জনপ্রিয়তার শীর্ষে হয়ে আছেন। বিভিন্ন প্রকার গানের জন্য তিনি জনপ্রিয়।
ওয়েবসাইটwww.monirkhan.com.bd

মনির খান বাংলাদেশের একজন জনপ্রিয় সঙ্গীতশিল্পী। ১৯৯৬ সালে তোমার কোন দোষ নেই নামক একক অ্যালবাম নিয়ে সঙ্গীতাঙ্গনে পদার্পণ করেন। সুদীর্ঘ সঙ্গীত জীবনে তিনি ৪২টি একক অ্যালবাম এবং ৩০০ এর অধিক দ্বৈত ও মিশ্র অ্যালবাম প্ৰকাশ করেছেন।[১][২] তিনি ৩ বার শ্রেষ্ঠ পুরুষ কণ্ঠশিল্পী হিসেবে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার (বাংলাদেশ) অর্জন করেন,[৩] বিজয়ী চলচ্চিত্রের নাম যথাক্রমে: প্রেমের তাজমহল (২০০১), লাল দরিয়া (২০০২) ও দুই নয়নের আলো (২০০৫)।

প্রারম্ভিক জীবন[সম্পাদনা]

মনির খান ১৯৭২ সালের ১ আগস্ট ঝিনাইদহ জেলার মহেশপুর উপজেলার মদনপুর গ্রামের সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতা মোঃ মাহবুব আলী খান একজন স্কুল শিক্ষক এবং মাতা মোছা. মনোয়ারা খাতুন একজন গৃহিণী। এক বোন ও চার ভাই এর মধ্যে মনির খান দ্বিতীয় এবং ভাইদের মধ্যে প্রথম।

মনির খানের শিক্ষাজীবনের শুরু নিজ গ্রামের প্রাথমিক বিদ্যালয়ে। পরবর্তীতে হাকিমপুর উচ্চ বিদ্যালয় ও পরে যশোরের চৌগাছা উপজেলার নারায়নপুর বহরাম উদ্দীন উচ্চ বিদ্যালয়ে লেখাপড়া করেন। ১৯৮৭ সালে এখান থেকে মেট্রিক এবং ১৯৯০ সালে কোটচাঁদপুর ডিগ্রী কলেজে থেকে ইন্টারমিডিয়েট পাস করেন। ১৯৯২ সালে ঐ একই কলেজ থেকে তিনি ডিগ্রী পাস করেন।

গুণী এই শিল্পীর বাল্যকাল কেটেছে নিজ গ্রামেই। বন্ধুদের সাথে খেলাধুলা, ছোটাছুটি, পুকুরে সাঁতারকাটা আর মাছ ধরা সবমিলিয়ে এক আনন্দঘন পরিবেশে বেড়ে উঠেছেন মনির খান। এত কিছুর মধ্যেও ছোট বেলা থেকেই তার গানের প্রতি একটা সহজাত আকর্ষণ ছিল। স্থানীয় অনেক গুরুজনদের কাছে গান শিখেছেন। তবে সঙ্গীতের হাতেখড়ি হয় মূলত রেজা খসরুর কাছে। পরবর্তীতে স্বপন চক্রবর্তী, ইউনুস আলী মোল্লা, খন্দকার এনায়েত হোসেনসহ আরও কয়েকজন গুরুজনের কাছে তিনি গানের তালিম নিয়েছেন। বাগেরহাট জেলার বাসিন্দা খন্দকার এনায়েত হোসেন ১৯৮৮ সাল থেকে কালিগঞ্জ গুঞ্জন শিল্পীগোষ্ঠি একাডেমীতে ১৫ দিন পর পর এসে গান শেখাতেন। সঙ্গীতের ভিত্তি গড়ে উঠেছে মূলত খন্দকার এনায়েত হোসেনের হাতেই।

সঙ্গীত জীবন[সম্পাদনা]

১৯৮৯ সালে মনির খান খুলনা রেডিওতে অডিশন দিয়ে আধুনিক গানের শিল্পী হিসেবে তালিকাভুক্ত হন। ১৯৯১ সালের আগস্ট মাস পর্যন্ত তিনি এখানে একজন নিয়মিত শিল্পী হিসেবে গান করেন।

১৯৯১ সালের ৫ই সেপ্টেম্বর এখান থেকে এন. ও. সি নিয়ে তিনি ঢাকায় চলে আসেন। ঢাকাতে আসার পরও তিনি বেশ কিছু গুরুজনদের কাছে গান শিখেছেন। তাদের মধ্যে রয়েছেন আবুবক্কার সিদ্দিক, মঙ্গল চন্দ্র বিশ্বাস, সালাউদ্দীন আহমেদ, অনুপ চক্রবর্তীসহ আরও অনেকে। তিনি যখন যার মধ্যে ভাল কিছু পেয়েছেন সেগুলি নিজের আয়ত্বে নেয়ার চেষ্টা করেছেন।

এইভাবে বেশ কিছুদিন যাবার পর তিনি অডিও মার্কেটে একটি স্থান নেবার কথা ভাবলেন। চিন্তা অনুযায়ী কাজ শুরু করলেন। মূলত কুটি মনসুরের উৎসাহে উৎসাহিত হয়ে মনির খান বাজারে নিজের গাওয়া গানের অ্যালবাম বের করার সিদ্ধান্ত নিলেন। জনপ্রিয় সুরকার, গীতিকার এবং সঙ্গীত পরিচালক মিল্টন খন্দকারের সান্নিধ্য পাবার চেষ্টা করলেন। মিল্টন খন্দকার মনির খানের গান শুনে খুশী হয়ে তার কণ্ঠে গাওয়া গানের একটি ক্যসেট বের করতে রাজি হলেন। ক্যাসেট বের করার উদ্দেশ্যে মনির আরও ভাল ভাবে গান চর্চার মাধ্যদিয়ে নিজেকে একজন পরিপূর্ণ শিল্পী হিসেবে তৈরী করতে চেষ্টা করলেন। নিজেকে প্রস্তুত করতে মনির খানের সময় লেগেছিল ১৯৯২ থেকে ১৯৯৬ পর্যন্ত দীর্ঘ চার বছর।

১৯৯৬ সালে বিউটি কর্নার থেকে তার ১২টি গানের প্রথম একক অ্যালবাম তোমার কোন দোষ নেই বের হয়। অ্যালবামটি দারুণ জনপ্রিয়তা পায়। অ্যালবামটি জনপ্রিয়তা পাবার পর মনির খান রাতারাতি বিখ্যাত হয়ে গেলেন। এরপর মনির খান আর থেমে থাকেননি। তিনি একের পর গানের অ্যালবাম বের করেছেন এবং প্রতিটি অ্যালবামে সফলতা পেয়েছেন।

ব্যক্তিগত জীবন[সম্পাদনা]

মনির খান ২০০১ সালে কিশোরগঞ্জের মেয়ে তাহামিনা আক্তার ইতির সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। তিনি এক কন্যা সন্তান মুসফিকা আক্তার (মৌনতা) এবং পুত্র মোসাব্বির খান মুহূর্ত এর পিতা।

অ্যালবাম[সম্পাদনা]

মনির খানের ৪৩টি একক অ্যালবাম এবং ৩০০ এর অধিক দ্বৈত ও মিশ্র অ্যালবাম প্রকাশিত হয়েছে। এছাড়াও তিনি প্রায় ১০০ টির উপর চলচ্চিত্রে কণ্ঠ দিয়েছেন।

অ্যাল,
নং
বছর নাম ধরন লেবেল
০১ ১৯৯৬ তোমার কোন দোষ নেই পপ বিউটি কর্নার
০২ ১৯৯৭ সুখে থাকা হলো না আমার পপ বিউটি কর্নার
০৩ ১৯৯৮ জোর করে ভালবাসা হয় না পপ মিউজিক ফেয়ার
০৪ ১৯৯৯ অনেক স্বপ্ন ছিলো তোমাকে নিয়ে পপ বিউটি কর্নার
০৫ ১৯৯৯ বড় ব্যথা এই বুকে পপ সাউন্ডটেক
০৬ ২০০০ এ কেমন জীবন পপ সাউন্ডটেক
০৭ - কেন তুমি এতোটা পাষাণ পপ বিউটি কর্নার
০৮ - এই চাঁদমুখ পপ মিউজিক ফেয়ার
০৯ ২০০০ সে তো আর ফিরে এলোনা পপ বিউটি কর্নার
১০ - যে ভুল করেছি আমি পপ সাউন্ডটেক
১১ - বুকটা আমার ভাঙ্গা বাড়ি পপ বিউটি কর্নার
১২ ২০০০ কত সুখে আছি আমি পপ বিউটি কর্নার
১৩ - এত ব্যাথা রাখবো কি করে পপ বিউটি কর্নার
১৪ - তুমি দুরের মানুষ হয়ে গেলে পপ সঙ্গীতা
১৫ ২০০০ একবার তুমি নিলেনা খবর পপ সঙ্গীতা
১৬ - একুল আর ওকূল হারাইলাম দুকুল পপ বিউটি কর্নার
১৭ - ভেঙ্গে দিলে সাজানো জীবন পপ বিউটি কর্নার
১৮ - চোখের জলে ভাসি পপ বিউটি কর্নার
১৯ কি যে আগুন আমার বুকে পপ বিউটি কর্নার
২০ - আবার কেন পিছু ডাকো পপ বিউটি কর্নার
২১ - স্মৃতি নিয়ে বেঁচে আছি পপ বিউটি কর্নার
২২ - মনের মানুষ হয়না যেন পর পপ বিউটি কর্নার
২৩ - ভালোবেসে কেউ সুখী নয় পপ বিউটি কর্নার
২৪ - সুখ কপালে নেই পপ বিউটি কর্নার
২৫ - ভালোবাসার মানুষ পাইলাম না পপ বিউটি কর্নার
২৬ - মন কাঁন্দেরে পপ বিউটি কর্নার
২৭ - ভালবেসে যারা কেঁদেছে পপ বিউটি কর্নার
২৮ - এভাবে কি বেঁচে থাকা যায় পপ বিউটি কর্নার
২৯ - কি করে ভুলিবো তারে পপ বিউটি কর্নার
৩০ - কেয়ামত পপ বিউটি কর্নার
৩১ - একবার এসে দেখে যাও পপ বিউটি কর্নার
৩২ - হৃদয়ে ভালোবাসা পপ বিউটি কর্নার
৩৩ - শুধু একবার কথা দাও পপ বিউটি কর্নার
৩৪ - ভালবেসে কাঁদলাম পপ বিউটি কর্নার
৩৫ - তোমার জন্য পপ বিউটি কর্নার
৩৬ - তোমার আমার প্রিয় বাংলাদেশ পপ বিউটি কর্নার
৩৭ - দূরের কাশবন পপ বিউটি কর্নার
৩৮ - বড় ব্যথা এই বুকে পপ সাউন্ডটেক
৩৯ - ইতি তোমার দেবদাস পপ KT Series
৪০ - এত কেন কাঁদালে পপ সাউন্ডটেক
৪১ - বিরহের সানাই পপ সঙ্গীতা
৪২ ২০১৬ লীলাবতি পপ Kantha Entertainment
৪৩ ২০১৮ ঘুম নেই দুটি চোখে পপ এম কে মিউজিক২৪

দ্বৈত ও মিশ্র অ্যালবাম[সম্পাদনা]

মনির খানের তিন শতাধিক দ্বৈত ও মিশ্র অ্যালবাম রয়েছে। এখানে কিছু দ্বৈত ও মিশ্র অ্যালবামের নাম উল্লেখ করা হলো-

  • ১৫ কোটি মানুষের ৩০ কোটি হাত
  • আমার আপন কেহ নাই
  • আমার একটাই তো মন
  • আমার একটাই তুমি
  • আমার কি দোষ
  • আমার ভালোবাসা ফিরিয়ে দাও
  • আমি শুধু দুঃখ পেতে এলাম
  • আম্মা
  • আমরা দুজন
  • আনমনা
  • আপনজন
  • আর ভালোবাসা চাইনা
  • আসবে তুমি
  • বাঁধন
  • বান্ধব আমার চোখের মণি
  • বেদনার বালুচরে
  • ব্যর্থ প্রেমের গল্প
  • বিজয়ের প্রাপ্তি
  • বিন্দু বিন্দু ভালোবাসা
  • বিরহের চোরাবালি
  • বিরহী হৃদয়
  • বিয়ের ফুল
  • বোঝেনি তুমি
  • বন্ধু আমি ভালো নেই
  • বড় একা একা আছি আমি
  • বড় মায়া লাগে
  • বড় সুখে আছো
  • বড় ভালবাসে দুঃখ আমাকে
  • বুঝলিনা মন দুনিয়াধারী
  • বুকের জমানো বেদনা
  • ভুলনা একতারা গান
  • চান্দের বাত্তি
  • ছোট্ট ছোট্ট আশা
  • দৈনিক ভালবাসা
  • দু চোখে ব্যথার শ্রাবণ
  • দুই ভুবনের দুই বাসিন্দা
  • দুঃখ আমাকে কাঁদায়
  • দুঃখ কষ্ট যন্ত্রণা
  • দুঃখ ভরা হৃদয়
  • দুঃখ ভরা জীবন
  • দুটি চোখে নদী
  • এ আমার শেষ অনুরোধ
  • এই কি প্রেমের প্রতিদান
  • একা একা লাগে
  • একা তুমি জানলে না
  • একটু ভালোবাসা চাই
  • ফিরিয়ে দাও আমার প্রেম
  • গানের মেলা- ভলিউম ১
  • হয়তো তোমার জন্য
  • হৃদয়ের গান ২
  • যেতে চাই প্রেম নগর
  • জীবনের মানে
  • খাঁচার পাখী
  • কাঁদে মন
  • কালো মাইয়ার কালো চোখ
  • কাশফুলের মালা
  • কেন যে ভালবাসিলাম
  • কেউ বোঝেনা দুঃখ আমার
  • কি দোষে দোষী
  • কি ভাবে কাঁদালে আমায়
  • ক্ষমা করো উপমা
  • কষ্টেরা বুকে বাসা বেঁধেছে
  • কষ্টের গাঙচিল
  • কষ্ট আমার
  • কষ্ট
  • কথা রটেছে
  • কত আর ব্যথা দেবে
  • কোনো অভিযোগ ছিলনা আমার
  • মানুষের জীবন
  • মেঘে ঢাকা মন
  • মন কার লাগিয়া কাঁদো
  • মন খুঁজে তোমাকে
  • মন সারেং
  • নিরব চিঠি
  • নিরবতা
  • নিংসঙ্গ
  • নিঃস্ব করে দিলি
  • নয়ন মণি
  • অধিকার
  • ঐ দুটি চোখে
  • অনামিকা তুমি
  • অনেক কষ্ট তুমি দিয়েছ
  • অনন্ত অপেক্ষা
  • অনন্ত ভালবাসা
  • অন্তর কান্দে
  • অনুরোধ
  • অভিমান
  • পারবো না ভুলে যেতে তোমাকে
  • প্রবঞ্চনা
  • প্রেমের গুরু
  • প্রেমের জুয়াড়ি
  • প্রেমের শরীর
  • প্রিয়া নেই পৃথিবীতে
  • রক্ত দিয়ে লিখা
  • সাজিয়ে দেব ভালোবাসা
  • সানাই
  • সেই যে তুমি চলে গেলে
  • শেষ অনুরোধ
  • শেষ পরিচয়
  • শেষ প্রহর
  • স্বপ্ন মহল
  • ষোল আনা ভালোবাসা
  • সজনী কথা রাখেনি
  • সুখ কপালে সইলো না
  • সুখী হও চিরো সুখী
  • সুপার সিক্স
  • তাঁরকা মেলা পর্ব ১
  • তাঁরকা মেলা পর্ব ২
  • তোমাকে জানাই অভিনন্দন
  • তোমাকেই ভালোবাসি
  • তোমার জন্য ভালোবাসা
  • তোমারই আশায়
  • তোমারই প্রতীক্ষায়
  • তুমি আমার স্বপ্ন
  • তুমি আমার তেমনি একজন
  • তুমি একজনই তো বন্ধু আমার
  • ভালো লাগে তোমাকে
  • ভালোবাসা দুঃখ ছাড়া কিছু নয়
  • ভালোবাসার যন্ত্রণা
  • ভালোবাসার মরুভূমি
  • ভালোবাসে যুগে যুগে কেঁদেছে মানুষ
  • ভালোবেসে সুখ নেই
  • ভালোবেসে সুখী হয় ক’জন
  • ভালোবাসে ভুল করেছি
  • ভাঙ্গা গড়া
  • ভেজা চোখ
  • দুঃখ সুখের গল্প
  • যদি মরতে না পারি
  • আলতা

পুরস্কার[সম্পাদনা]

২০০১ সালে মনির খান প্রেমের তাজমহল ছবিতে কণ্ঠ দিয়ে প্রথমবারের মত জাতীয় চলচ্চিত্র পুরষ্কারে ভূষিত হন। এ গানের কথা ও সূর ছিল আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুল-এর। এত অল্প সময়ের মধ্যে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরষ্কারের মত এত বড় প্রাপ্তি তাঁর জীবনের একটি গুরুত্বপূর্ণ অধ্যায়। ২০০২ সালে লাল দরিয়া ছিনেমায় কণ্ঠ দিয়ে দ্বিতীয়বার জাতীয় চলচিত্র পুরস্কার লাভ করেন। গানটি ছিল সে আমার ভালোবাসার আয়না শিরোনামে। ২০০৫ সালে দুই নয়নের আলো সিনেমায় কণ্ঠ দিয়ে তিনি আবারো তৃতীয়বারের মত জাতীয় চলচিত্র পুরস্কার লাভ করেন। গানটি ছিল তুমি খুব সাধারণ একটি মেয়ে শিরোনামে।

বছর পুরস্কার বিভাগ গান চলচ্চিত্র অবস্থা
২০০১ জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার (বাংলাদেশ) শ্রেষ্ঠ পুরুষ কণ্ঠশিল্পী "আমার প্রেমের তাজমহল" প্রেমের তাজমহল বিজয়ী
২০০২ "সে আমার ভালবাসার আয়না" লাল দরিয়া বিজয়ী
২০০৫ "তুমি খুব সাধারণ একটি মেয়ে" দুই নয়নের আলো বিজয়ী

এছাড়াও তিনি অসংখ্য পুরস্কার পেয়েছেন। বাচসাস পুরস্কার, বাংলাদেশ টেলিভিশন রিপোটার্স এওয়ার্ড, বাংলাদেশ কালচারাল রিপোটার্স এওয়ার্ড সহ দেশ ও বিদেশে আরো অনেক পুরস্কারে ভূষিত হয়েছেন তিনি। তবে তিনি মনে করেন মানুষের ভালোবাসাই তার জীবনে সবচেয়ে বড় পুরস্কার।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Monir Khan, Milton Khondaker together after 6 years"। news.priyo.com। ৪ আগস্ট ২০১১। ৬ জুলাই ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৯ জুন ২০১৫ 
  2. "৩ বছর পর মনির খান"দৈনিক মানব জমিন। ২৬ এপ্রিল ২০১৪। সংগ্রহের তারিখ ৩০ জুন ২০১৫ 
  3. "National Film Awards for the last fours years announced"ডেইলি স্টার। ১ সেপ্টেম্বর ২০০৮। সংগ্রহের তারিখ ৩০ জুন ২০১৫ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]