বাহামা দ্বীপপুঞ্জ জাতীয় ফুটবল দল

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
বাহামা দ্বীপপুঞ্জ
ডাকনামবাহা বয়েজ
অ্যাসোসিয়েশনবাহামা দ্বীপপুঞ্জ ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন
কনফেডারেশনকনকাকাফ (উত্তর আমেরিকা)
প্রধান কোচনেসলে জন
অধিনায়কলেসলি সেন্ট ফ্লোর
সর্বাধিক ম্যাচলেসলি সেন্ট ফ্লোর (২০)
শীর্ষ গোলদাতালেসলি সেন্ট ফ্লোর (১০)
মাঠটমাস রবিনসন স্টেডিয়াম
ফিফা কোডBAH
ওয়েবসাইটwww.bahamasfa.com
প্রথম জার্সি
দ্বিতীয় জার্সি
ফিফা র‌্যাঙ্কিং
বর্তমান ২০১ বৃদ্ধি ১ (১৯ নভেম্বর ২০২১)[১]
সর্বোচ্চ১৩৮ (সেপ্টেম্বর ২০০৬)
সর্বনিম্ন২১০ (সেপ্টেম্বর ২০১৮–জুলাই ২০১৯)
এলো র‌্যাঙ্কিং
বর্তমান ২০৫ হ্রাস ৪ (২৬ নভেম্বর ২০২১)[২]
সর্বোচ্চ১৯১ (অক্টোবর ২০১১)
সর্বনিম্ন২০৭ (২০০১, ২০০৪)
প্রথম আন্তর্জাতিক খেলা
 পুয়ের্তো রিকো ৩–০ বাহামা দ্বীপপুঞ্জ 
(পানামা সিটি, পানামা; ১ মার্চ ১৯৭০)
বৃহত্তম জয়
 বাহামা দ্বীপপুঞ্জ ৬–০ টার্কস ও কেইকোস দ্বীপপুঞ্জ 
(নাসাউ, বাহামা দ্বীপপুঞ্জ; ৯ জুলাই ২০১১)
বৃহত্তম পরাজয়
 মেক্সিকো ১৩–০ বাহামা দ্বীপপুঞ্জ 
(তোলুকা, মেক্সিকো; ২৮ এপ্রিল ১৯৮৭)

বাহামা দ্বীপপুঞ্জ জাতীয় ফুটবল দল (ইংরেজি: Bahamas national football team) হচ্ছে আন্তর্জাতিক ফুটবলে বাহামা দ্বীপপুঞ্জের প্রতিনিধিত্বকারী পুরুষদের জাতীয় দল, যার সকল কার্যক্রম বাহামা দ্বীপপুঞ্জের ফুটবলের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাহামা দ্বীপপুঞ্জ ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হয়। এই দলটি ১৯৬৮ সাল হতে ফুটবলের সর্বোচ্চ সংস্থা ফিফার এবং ১৯৮১ সাল হতে তাদের আঞ্চলিক সংস্থা কনকাকাফের সদস্য হিসেবে রয়েছে।[৩] ১৯৭০ সালের ১লা মার্চ তারিখে, বাহামা দ্বীপপুঞ্জ প্রথমবারের মতো আন্তর্জাতিক খেলায় অংশগ্রহণ করেছে; পানামার পানামা সিটিতে অনুষ্ঠিত উক্ত ম্যাচে বাহামা দ্বীপপুঞ্জ পুয়ের্তো রিকোর কাছে ৩–০ গোলের ব্যবধানে পরাজিত হয়েছে।

১৫,০০০ ধারণক্ষমতাবিশিষ্ট টমাস রবিনসন স্টেডিয়ামে বাহা বয়েজ নামে পরিচিত এই দলটি তাদের সকল হোম ম্যাচ আয়োজন করে থাকে। এই দলের প্রধান কার্যালয় বাহামা দ্বীপপুঞ্জের রাজধানী নাসাউয়ে অবস্থিত। বর্তমানে এই দলের ম্যানেজারের দায়িত্ব পালন করছেন নেসলে জন এবং অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করছেন মন্টেগো বে ইউনাইটেডের আক্রমণভাগের খেলোয়াড় লেসলি সেন্ট ফ্লোর

বাহামা দ্বীপপুঞ্জ এপর্যন্ত একবারও ফিফা বিশ্বকাপে অংশগ্রহণ করতে পারেনি। অন্যদিকে, কনকাকাফ গোল্ড কাপেও বাহামা দ্বীপপুঞ্জ এপর্যন্ত একবারও অংশগ্রহণ করতে সক্ষম হয়নি।

লেসলি সেন্ট ফ্লোর, ডোয়াইন ওয়াইলি, হ্যাপি হল, নেসলে জন এবং টেরি ডেলান্সির মতো খেলোয়াড়গণ বাহামা দ্বীপপুঞ্জের জার্সি গায়ে মাঠ কাঁপিয়েছেন।

র‌্যাঙ্কিং[সম্পাদনা]

ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিংয়ে, ১৯৯৩ সালের সেপ্টেম্বর মাসে প্রকাশিত র‌্যাঙ্কিংয়ে বাহামা দ্বীপপুঞ্জ তাদের ইতিহাসে সর্বপ্রথম সর্বোচ্চ অবস্থান (১ম) অর্জন করে এবং ২০১৩ সালের জুন মাসে প্রকাশিত র‌্যাঙ্কিংয়ে তারা ২২তম স্থান অধিকার করে, যা তাদের ইতিহাসে সর্বনিম্ন। অন্যদিকে, বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিংয়ে বাহামা দ্বীপপুঞ্জের সর্বোচ্চ অবস্থান হচ্ছে ১ম (যা তারা সর্বপ্রথম ১৯৫৮ সালে অর্জন করেছিল) এবং সর্বনিম্ন অবস্থান হচ্ছে ২০। নিম্নে বর্তমানে ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং এবং বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিংয়ে অবস্থান উল্লেখ করা হলো:

ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং
১৯ নভেম্বর ২০২১ অনুযায়ী ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং[১]
অবস্থান পরিবর্তন দল পয়েন্ট
১৯৯ বৃদ্ধি  টোঙ্গা ৮৬১.৮১
২০০ বৃদ্ধি  আরুবা ৮৫৯.৯৭
২০১ বৃদ্ধি  বাহামা দ্বীপপুঞ্জ ৮৫৮.৫
২০২ বৃদ্ধি  ইরিত্রিয়া ৮৫৫.৫৬
২০৩ হ্রাস  জিব্রাল্টার ৮৫৩.৬
বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিং
২৬ নভেম্বর ২০২১ অনুযায়ী বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিং[২]
অবস্থান পরিবর্তন দল পয়েন্ট
২০৩ হ্রাস  চীনা তাইপেই ৮৭৯
২০৪ অপরিবর্তিত  পাকিস্তান ৮৭৩
২০৫ হ্রাস  বাহামা দ্বীপপুঞ্জ ৮৬৬
২০৬ বৃদ্ধি  কম্বোডিয়া ৮৬১
২০৭ হ্রাস  সেন্ট মার্টিন ৮৫৫

প্রতিযোগিতামূলক তথ্য[সম্পাদনা]

ফিফা বিশ্বকাপ[সম্পাদনা]

ফিফা বিশ্বকাপ বাছাইপর্ব
সাল পর্ব অবস্থান ম্যাচ জয় ড্র হার স্বগো বিগো ম্যাচ জয় ড্র হার স্বগো বিগো
উরুগুয়ে ১৯৩০ অংশগ্রহণ করেনি অংশগ্রহণ করেনি
ইতালি ১৯৩৪
ফ্রান্স ১৯৩৮
ব্রাজিল ১৯৫০
সুইজারল্যান্ড ১৯৫৪
সুইডেন ১৯৫৮
চিলি ১৯৬২
ইংল্যান্ড ১৯৬৬
মেক্সিকো ১৯৭০
পশ্চিম জার্মানি ১৯৭৪
আর্জেন্টিনা ১৯৭৮
স্পেন ১৯৮২
মেক্সিকো ১৯৮৬
ইতালি ১৯৯০
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ১৯৯৪
ফ্রান্স ১৯৯৮ প্রত্যাহার প্রত্যাহার
দক্ষিণ কোরিয়া জাপান ২০০২ উত্তীর্ণ হয়নি ১৫
জার্মানি ২০০৬
দক্ষিণ আফ্রিকা ২০১০ ১৬
ব্রাজিল ২০১৪ প্রত্যাহার ১০
রাশিয়া ২০১৮ উত্তীর্ণ হয়নি
কাতার ২০২২ অনির্ধারিত অনির্ধারিত
মোট ০/২১ ১৪ ২০ ৪৩

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "ফিফা/কোকা-কোলা বিশ্ব র‍্যাঙ্কিং"ফিফা। ১৯ নভেম্বর ২০২১। সংগ্রহের তারিখ ১৯ নভেম্বর ২০২১ 
  2. গত এক বছরে এলো রেটিং পরিবর্তন "বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিং"eloratings.net। ২৬ নভেম্বর ২০২১। সংগ্রহের তারিখ ২৬ নভেম্বর ২০২১ 
  3. "BAHAMAS"। সংগ্রহের তারিখ ৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]