সান মারিনো জাতীয় ফুটবল দল

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সান মারিনো
দলের লোগো
ডাকনামলা সেরেনিসিমা
অ্যাসোসিয়েশনসান মারিনো ফুটবল ফেডারেশন
কনফেডারেশনউয়েফা (ইউরোপ)
প্রধান কোচফ্রাঙ্কো ভারেল্লা
অধিনায়কদাভিদে সিমোনচিনি
সর্বাধিক ম্যাচঅ্যান্ডি সেলভা (৭৪)
শীর্ষ গোলদাতাঅ্যান্ডি সেলভা (৮)
মাঠসান মারিনো স্টেডিয়াম
ফিফা কোডSMR
ওয়েবসাইটwww.fsgc.sm
প্রথম জার্সি
দ্বিতীয় জার্সি
ফিফা র‌্যাঙ্কিং
বর্তমান ২১০ হ্রাস ১ (১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১)[১]
সর্বোচ্চ১১৮ (সেপ্টেম্বর ১৯৯৩)
সর্বনিম্ন২১১ (নভেম্বর ২০১৮–জুলাই ২০১৯)
এলো র‌্যাঙ্কিং
বর্তমান ২০৯ অপরিবর্তিত (১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১)[২]
সর্বোচ্চ১৬৫ (সেপ্টেম্বর ১৯৮৭)
সর্বনিম্ন২০৯ (নভেম্বর ২০১৯)
প্রথম আন্তর্জাতিক খেলা
 সান মারিনো ০–৪ সুইজারল্যান্ড  
(সেরাভাল্লে, সান মারিনো; ১৪ নভেম্বর ১৯৯০)
বৃহত্তম জয়
 সান মারিনো ১–০ লিশটেনস্টাইন 
(সেরাভাল্লে, সান মারিনো; ২৮ এপ্রিল ২০০৪)
বৃহত্তম পরাজয়
 সান মারিনো ০–১৩ জার্মানি 
(সেরাভাল্লে, সান মারিনো; ৬ সেপ্টেম্বর ২০০৬)

সান মারিনো জাতীয় ফুটবল দল (ইতালীয়: Nazionale di calcio di San Marino, ইংরেজি: San Marino national football team) হচ্ছে আন্তর্জাতিক ফুটবলে সান মারিনোর প্রতিনিধিত্বকারী পুরুষদের জাতীয় দল, যার সকল কার্যক্রম সান মারিনোর ফুটবলের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা সান মারিনো ফুটবল ফেডারেশন দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হয়। এই দলটি ১৯৮৮ সাল হতে ফুটবলের সর্বোচ্চ সংস্থা ফিফার এবং একই বছর হতে তাদের আঞ্চলিক সংস্থা উয়েফার সদস্য হিসেবে রয়েছে। ১৯৯০ সালের ১৪ই নভেম্বর তারিখে, সান মারিনো প্রথমবারের মতো আন্তর্জাতিক খেলায় অংশগ্রহণ করেছে; সান মারিনোর সেরাভাল্লেতে অনুষ্ঠিত উক্ত ম্যাচে সান মারিনো সুইজারল্যান্ডের কাছে ৪–০ গোলের ব্যবধানে পরাজিত হয়েছে।

৭,০০০ ধারণক্ষমতাবিশিষ্ট সান মারিনো স্টেডিয়ামে লা সেরেনিসিমা নামে পরিচিত এই দলটি তাদের সকল হোম ম্যাচ আয়োজন করে থাকে। এই দলের প্রধান কার্যালয় সান মারিনোর রাজধানী সান মারিনো সিটিতে অবস্থিত। বর্তমানে এই দলের ম্যানেজারের দায়িত্ব পালন করছেন ফ্রাঙ্কো ভারেল্লা এবং অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করছেন লিবেরাসের রক্ষণভাগের খেলোয়াড় দাভিদে সিমোনচিনি

সান মারিনো এপর্যন্ত একবারও ফিফা বিশ্বকাপে অংশগ্রহণ করতে পারেনি। অন্যদিকে, উয়েফা ইউরোপীয় চ্যাম্পিয়নশিপেও সান মারিনো এপর্যন্ত একবারও অংশগ্রহণ করতে সক্ষম হয়নি।

অ্যান্ডি সেলভা, দামিয়ানো ভানুচ্চি, আলদো সিমোনচিনি, মানুয়েল মারানি এবং দাভিদে গুয়ালতিয়েরির মতো খেলোয়াড়গণ সান মারিনোর জার্সি গায়ে মাঠ কাঁপিয়েছেন।

র‌্যাঙ্কিং[সম্পাদনা]

ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিংয়ে, ১৯৯৩ সালের সেপ্টেম্বর মাসে প্রকাশিত র‌্যাঙ্কিংয়ে সান মারিনো তাদের ইতিহাসে সর্বোচ্চ অবস্থান (১১৮তম) অর্জন করে এবং ২০১৮ সালের নভেম্বর মাসে প্রকাশিত র‌্যাঙ্কিংয়ে তারা ২১১তম স্থান অধিকার করে, যা তাদের ইতিহাসে সর্বনিম্ন। অন্যদিকে, বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিংয়ে সান মারিনোর সর্বোচ্চ অবস্থান হচ্ছে ১৬৫তম (যা তারা ১৯৮৭ সালে অর্জন করেছিল) এবং সর্বনিম্ন অবস্থান হচ্ছে ২০৯। নিম্নে বর্তমানে ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং এবং বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিংয়ে অবস্থান উল্লেখ করা হলো:

ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং
১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১ অনুযায়ী ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং[১]
অবস্থান পরিবর্তন দল পয়েন্ট
২০৮ অপরিবর্তিত  ব্রিটিশ ভার্জিন দ্বীপপুঞ্জ ৮১২.৯৪
২০৯ বৃদ্ধি  অ্যাঙ্গুইলা ৭৯২.৩৪
২১০ হ্রাস  সান মারিনো ৭৯১.১৭
বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিং
১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১ অনুযায়ী বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিং[২]
অবস্থান পরিবর্তন দল পয়েন্ট
২০৭ বৃদ্ধি  বাংলাদেশ ৮৩৯
২০৮ হ্রাস  কম্বোডিয়া ৮৩৫
২০৯ অপরিবর্তিত  সান মারিনো ৮১৬
২১০ অপরিবর্তিত  টার্কস ও কেইকোস দ্বীপপুঞ্জ ৭৭৮
২১১ অপরিবর্তিত  চাগোস দ্বীপপুঞ্জ ৭৭৬

প্রতিযোগিতামূলক তথ্য[সম্পাদনা]

ফিফা বিশ্বকাপ[সম্পাদনা]

ফিফা বিশ্বকাপ বাছাইপর্ব
সাল পর্ব অবস্থান ম্যাচ জয় ড্র হার স্বগো বিগো ম্যাচ জয় ড্র হার স্বগো বিগো
উরুগুয়ে ১৯৩০ অংশগ্রহণ করেনি অংশগ্রহণ করেনি
ইতালি ১৯৩৪
ফ্রান্স ১৯৩৮
ব্রাজিল ১৯৫০
সুইজারল্যান্ড ১৯৫৪
সুইডেন ১৯৫৮
চিলি ১৯৬২
ইংল্যান্ড ১৯৬৬
মেক্সিকো ১৯৭০
পশ্চিম জার্মানি ১৯৭৪
আর্জেন্টিনা ১৯৭৮
স্পেন ১৯৮২
মেক্সিকো ১৯৮৬
ইতালি ১৯৯০
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ১৯৯৪ উত্তীর্ণ হয়নি ১০ ৪৬
ফ্রান্স ১৯৯৮ ৪২
দক্ষিণ কোরিয়া জাপান ২০০২ ৩০
জার্মানি ২০০৬ ১০ ১০ ৪০
দক্ষিণ আফ্রিকা ২০১০ ১০ ১০ ৪৭
ব্রাজিল ২০১৪ ১০ ১০ ৫৪
রাশিয়া ২০১৮ ১০ ১০ ৫১
কাতার ২০২২ অনির্ধারিত অনির্ধারিত
মোট ০/২১ ৬৬ ৬৪ ১১ ৩১০

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "ফিফা/কোকা-কোলা বিশ্ব র‍্যাঙ্কিং"ফিফা। ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১। সংগ্রহের তারিখ ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১ 
  2. গত এক বছরে এলো রেটিং পরিবর্তন "বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিং"eloratings.net। ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১। সংগ্রহের তারিখ ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]