পিটার ডিংকলেজ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
Jump to navigation Jump to search
পিটার ডিংকলেজ
Peter Dinklage by Gage Skidmore.jpg
২০১৩ সালে সান ডিয়েগো কমিক কনে ডিংকলেজ
স্থানীয় নাম Peter Dinklage
জন্ম পিটার হেডেন ডিংকলেজ
(১৯৬৯-০৬-১১) ১১ জুন ১৯৬৯ (বয়স ৪৯)
মরিসটাউন, নিউ জার্সি, যুক্তরাষ্ট্র
জাতীয়তা মার্কিন
পেশা অভিনেতা, প্রযোজক
কার্যকাল ১৯৯১–বর্তমান
Works চলচ্চিত্রপঞ্জি
উচ্চতা ৪ ফু ৫ ইঞ্চি (১৩৫ সেমি)
দাম্পত্য সঙ্গী এরিকা স্মিড্‌ট (বি. ২০০৫)
সন্তান
পুরস্কার পূর্ণ তালিকা

পিটার হেডেন ডিংকলেজ (ইংরেজি: Peter Hayden Dinklage; /ˈdɪŋklə/, অন্য উচ্চারণ: DINK-lij ডিঙ্কলিজ; জন্ম ১১ জুন, ১৯৬৯) হলেন একজন মার্কিন অভিনেতা ও প্রযোজক। নিউ জার্সির মরিসটাউনে জন্ম নেওয়া ও ব্রুকসাইডে বেড়ে ওঠা ডিংকলেজ দ্য ভেলভেটিন র‍্যাবিট মঞ্চনাটক দিয়ে তার অভিনয় জীবন শুরু করেন। বেনিংটন কলেজে পড়াকালীন তিনি বেশ কিছু মঞ্চনাটকে কাজ করেন। তার চলচ্চিত্রে অভিষেক হয় ১৯৯৫ সালে লিভিং ইন অবলিভিয়ন চলচ্চিত্র দিয়ে এবং তার প্রথম সফল অভিনয় দেখা যায় ২০০৩ সালের কমেডি নাট্যধর্মী দ্য স্টেশন এজেন্ট চলচ্চিত্রে। পরবর্তীতে তিনি কমেডিধর্মী এল্‌ফ (২০০৩), অপরাধধর্মী ফাইন্ড মি গিল্টি (২০০৬), সুপারহিরো কমেডি আন্ডারডগ (২০০৭), কল্পনাধর্মী দ্য ক্রনিকলস অব নার্নিয়া: প্রিন্স ক্যাস্পিয়ান (২০০৮) এবং সুপারহিরো চলচ্চিত্র এক্স-মেন: ডেজ অব ফিউচার পাস্ট (২০১৪) এ অভিনয় করেন।

ডিংকলেজ এইচবিও টেলিভিশনের ধারাবাহিক গেম অব থ্রোনস দিয়ে অধিক পরিচিতি লাভ করেন। এই ধারাবাহিকে টিরিয়ন ল্যানিস্টার চরিত্রে অভিনয়ের জন্য তিনি একটি গোল্ডেন গ্লোব পুরস্কার ও দুটি প্রাইমটাইম এমি পুরস্কারসহ বেশ কিছু পুরস্কার লাভ করেন। এছাড়া তিনি মার্কিন টেলিভিশনের সর্বোচ্চ বেতনভোগী তারকাদের একজন।

প্রারম্ভিক জীবন[সম্পাদনা]

পিটার হেডেন ডিংকলেজ ১৯৬৯ সালের ১১ জুন নিউ জার্সির মরিসটাউনে জন্মগ্রহণ করেন।[১][২] তার পিতা জন কার্ল ডিংকলেজ (১৯৩১-২০০৪) ছিলেন একজন জার্মান মার্কিন ও বিমাকর্মী এবং তার মাতা ডায়ানা ডিংকলেজ (জ. ১৯৪৩) একজন এলিমেন্টারি স্কুলের সঙ্গীতের শিক্ষক।[৩] ডিংকলেজ বামনত্বের একটি সাধারণ ধরন একোন্ড্রোপ্লাসিয়া নিয়ে জন্মগ্রহণ করেন।[৪] তিনি এবং তার বড় ভাই জোনাথন নিউ জার্সির ব্রুকসাইডে বেড়ে ওঠেন।[৫] শৈশবে তারা দুজন সঙ্গীতধর্মী পুতুল নাচের অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করতেন। ডিংকলেজ তার ভাই সম্পর্কে বলেন যে তিনি একজন বেহালাবাদক ছিলেন এবং তার পরিবারের সত্যিকারের একজন অভিনেতা ছিলেন এবং বলেন যে তার ভাইয়ের বেহালার প্রতি তার আবেগ তাকে অভিনয় থেকে বিরত রাখে।[৬]

ডিংকলেজ বেনিংটন কলেজে নাট্যকলা বিষয়ে পড়াশুনা করেন এবং ১৯৯১ সালে স্নাতক পাস করার পূর্বে বেশ কিছু মঞ্চনাটকে কাজ করেন।[৭][৮] এরপর তিনি ও তার বন্ধু ইয়ান বেল থিয়েটার কোম্পানি নির্মাণের লক্ষ্যে নিউ ইয়র্ক সিটিতে চলে যান। কিন্তু সেখানে ভাড়া পরিশোধ করতে না পারায় তাদের অ্যাপার্টমেন্ট ছাড়তে হয়।[৫] ডিংকলেজ পরে তার পূর্ণ অভিনয় জীবন শুরু পূর্বে ছয় বছর একটি ডেটা প্রসেসিং কোম্পানিতে চাকরি করেন।[৯]

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

প্রারম্ভিক কর্মজীবন: ১৯৯১-২০০২[সম্পাদনা]

ডিংকলেজ প্রাথমিকভাবে অভিনেতা হিসেবে কাজ খুঁজে পেতে সংগ্রাম করেছেন। তিনি সাধারণত "ক্ষুদে পরী" বা "দুষ্ট পরী" ধরনের চরিত্রের ভূমিকার প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেন।[৫] তিনি স্বল্প বাজেটের স্বাধীন কমেডি-নাট্যধর্মী লিভিং অব অবলিভিয়ন (১৯৯৫) ছবিতে স্টিভ বুসেমির সাথে অভিনয় করেন। চলচ্চিত্রটিতে একজন পরিচালক, ও কলাকুশলী এবং নিউ ইয়র্ক শহরে স্বল্প বাজেট স্বাধীন চলচ্চিত্র নির্মাণের গল্প বলা হয়। ডিংকলেজের ভূমিকা ছিল বামনাকৃতির হতাশ অভিনেতা, যে তার একই ধাঁচের চরিত্রে জন্য অভিযোগ করেন।[১০] চলচ্চিত্রটি সমালোচকদের দ্বারা সমাদৃত হয়।[১১] পরের বছর তিনি র‍্যাপ গায়ক টুপাক শাকুর অভিনীত অপরাধ নাট্যধর্মী বুলেট ছবিতে বিল্ডিং ম্যানেজার হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।[১২] লিভিং অব অবলিভিয়ন সমাদৃত হওয়ার পরও ডিংকলেজ তখনও তার এজেন্ট হতে ইচ্ছুক এমন কাউকে খুঁজে পেলেন না। বুসেমির সুপারিশ পরিচালক আলেসান্দ্রে রকওয়েল তাকে কমেডিধর্মী থার্টিন মুন্‌স (২০০২) ছবিতে অভিনয়ের সুযোগ দেন। পরে থিয়েটার ওয়েবসাইটের এক সাক্ষাত্কারে তাকে জিজ্ঞাসা করা হয়েছিল তার আদর্শ ভূমিকা কী ছিল, এবং তিনি উত্তরে বলেছিলেন "রোম্যান্টিক প্রধান চরিত্র", যে তার ভালবাসার মানুষকে পায়।[৫]

সাফল্য ২০০৩-২০১০[সম্পাদনা]

ডিংকলেজের প্রথম সাফল্য আসে ২০০৩ সালের টম ম্যাক্‌কার্থি পরিচালিত দ্য স্টেশন এজেন্ট ছবিতে অভিনয়ের মধ্যে দিয়ে।[৫] এতে তিনি ফিনবার ম্যাক্‌ব্রাইড চরিত্রে অভিনয় করেন। এই চরিত্রে অভিনয়ের জন্য তিনি শ্রেষ্ঠ অভিনেতা বিভাগে ইন্ডিপেন্ডেন্ট স্পিরিট পুরস্কার ও স্ক্রিন অ্যাক্টরস গিল্ড পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেন।[১৩][১৪] দ্য নিউ ইয়র্ক অবজারভারের পর্যালোচক অ্যান্ড্রু স্যারিস লিখেন, "ডিংকলেজ তার চেহারার মনমুগ্ধকর ভাব দিয়ে তার আকার ও বুদ্ধিমত্তার প্রকাশ ঘটিয়েছেন।"[১৫] এটি পর্যালোচনা ভিত্তিক ওয়েবসাইট রটেন টম্যাটোস-এ তার সর্বোচ্চ রেটিং পাওয়া চলচ্চিত্র।[১৬] দ্য স্টেশন এজেন্ট ছবিটি বক্স অফিসে মধ্যম মানের আয় করে এবং এর স্বল্প বাজেট সত্ত্বেও ৮ মিলিয়ন ডলারের বেশি আয় করে।[১৭][১৮]

২০০৬ সালে ডিংকলেজ সিডনি লুমেট পরিচালিত নাট্যধর্মী ফাইন্ড মি গিল্টি ছবিতে ভিন ডাইসেলের সঙ্গে অভিনয় করেন। ছবিটি আমেরিকার ইতিহাসে দীর্ঘতম মাফিয়া বিচারকার্যের প্রকৃত ঘটনা তোলে ধরে। ডিংকলেজ এতে প্রধান ডিফেন্স অ্যাটর্নি বেন ক্লেন্ডিস চরিত্রে অভিনয় করেন।[১৯] চলচ্চিত্রটি বেশিরভাগ ইতিবাচক সমালোচনা অর্জন করে, যদিও এটি বাণিজ্যিকভাবে ব্যর্থ হয়।[২০][২১] শিকাগো সান-টাইমস-এর চলচ্চিত্র সমালোচক রজার ইবার্ট ডিংকলেজের অভিনয়ের প্রশংসা করেন, তিনি ডিংকলেজের করা চরিত্রটিকে "সংক্ষিপ্ত, স্পষ্ট এবং পেশাদারী" বলে উল্লেখ করেন।[১৯] একই বছর তিনি নিপ / টাক পর্বে মার্লো সয়ার চরিত্রে অভিনয় করেন।[২২] তিনি এইচবিওর ধারাবাহিক এনটোরেজ-এর একটি পর্বে তার নিজের কল্পিত সংস্করণে এবং এনবিসির থার্টি রক-এ স্টুয়ার্ট চরিত্রে আবির্ভূত হন।[২৩] একই বছর ডিংকলেজ ব্রিটিশ রোম্যান্টিক কমেডি পেনেলোপে ছবিতে লেমন নামে একজন ট্যাবলয়েড রিপোর্টার চরিত্রে অভিনয় করেন।[২৪] চলচ্চিত্রটি সমালোচকদের কাছ থেকে মিশ্র সমালোচনা পেয়েছে।[২৫]

ডিংকলেজ ২০০৭ সালে ব্রিটিশ কমেডি চলচ্চিত্র ডেথ অ্যাট আ ফিউনারেল-এ অভিনয় করেছিলেন এবং ২০১০ সালে এর মার্কিন পুনঃনির্মাণে ও অভিনয় করেন।[২৬][২৭] চলচ্চিত্র দুটিতে পিতার মৃত্যুর পর একটি পরিবারের বিভিন্ন সমস্যায় মোকাবিলা করার চেষ্টার গল্প দেখানো হয়েছে।[২৮] ২০০৭ সালের শেষের দিকে তিনি সুপারহিরো কমেডি আন্ডারডগ ছবিতে সাইমন বার সিনিস্টার চরিত্রে খল ভূমিকায় অভিনয় করেন। ছবিটি নেতিবাচক সমালোচনা লাভ করে, কিন্তু বাণিজ্যিক দিক থেকে কিছু সাফল্য অর্জন করে।[২৯][৩০] ডিংকলেজ ২০০৮ সালের চলচ্চিত্র দ্য ক্রনিকলস অব নার্নিয়া: প্রিন্স ক্যাস্পিয়ান ছবিতে ট্রাম্পকিন চরিত্রে অভিনয় করেন।[৩১] চলচ্চিত্রটি বিশ্বব্যাপী ৪১৯.৭ মিলিয়ন ডলারের আয় করে।[৩২] চলচ্চিত্র সমালোচক বিল গিবরন ডিংকলেজের ভূমিকাটি বলেন "চতুরতাপূর্ণ কিন্তু নতুনত্বহীন" বলে উল্লেখ করেন।[৩৩]

চলচ্চিত্রের তালিকা[সম্পাদনা]

পুরস্কার ও সম্মাননা[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Peter Dinklage: 'The fight is all'"। দ্য টক্‌স। সেপ্টেম্বর ৩০, ২০১৫। ডিসেম্বর ২০, ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৭ 
  2. "Monitor"। এন্টারটেইনমেন্ট উয়িকলি (1263): 40। জুন ১৪, ২০১৩। 
  3. Moszczynski, Joe (জুলাই ১, ২০০৪)। "John C. Dinklage, 72, father of 2 entertainers"। নিউ জার্সি স্টার-লেজার। 
  4. Wang, Helena; Aquino, Tara (জুন ৭, ২০১৩)। "25 Things You Didn't Know About Peter Dinklage"কমপ্লেক্স। জুলাই ২৪, ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৭ 
  5. Kois, Dan (মার্চ ২৯, ২০১২)। "Peter Dinklage Was Smart to Say No"দ্য নিউ ইয়র্ক টাইমস। সেপ্টেম্বর ১, ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৭ 
  6. Spitznagel, Eric (মে ৩, ২০১৩)। "20Q Peter Dinklage"Playboy। জুলাই ১৩, ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৭ 
  7. Lawrence, Will (সেপ্টেম্বর ১২, ২০১৫)। "How Game of Thrones changed Peter Dinklage's life"দ্য নিউজিল্যান্ড হেরাল্ড। জুলাই ১৩, ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৭ 
  8. Smith, Dinitia (অক্টোবর ২, ২০১৩)। "Dark, Handsome And Short; Star of a Sundance Hit Is Ready for an Encore"দ্য নিউ ইয়র্ক টাইমস। জুন ৫, ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৭ 
  9. "Peter Dinklage's 2012 commencement speech explains how life sucks after graduation, but then gets better"কোয়ার্ট্‌জ। সেপ্টেম্বর ১৬, ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৭ 
  10. Maslin, Janet (মার্চ ১৭, ১৯৯৫)। "Film Festival Review: Living In Oblivion; A Valentine to the Perils of Film Making"দ্য নিউ ইয়র্ক টাইমস। সেপ্টেম্বর ১, ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৭ 
  11. "Living in Oblivion Movie Reviews, Pictures – Rotten Tomatoes"রটেন টম্যাটোস। সংগ্রহের তারিখ ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৭ 
  12. "Peter Dinklage biography"ট্রিবিউট। সেপ্টেম্বর ১, ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৭ 
  13. Brooks, Brian (ডিসেম্বর ৪, ২০০৩)। "In America, American Splendor, and Raising Victor Vargas Top Nominees for 2004 IFP Independent"ইন্ডিওয়্যার। জানুয়ারি ১৪, ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৭ 
  14. "The 10th Annual Screen Actors Guild Awards"স্ক্রিন অ্যাক্টরস গিল্ড। সেপ্টেম্বর ২০, ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৭ 
  15. Sarris, Andrew (ফেব্রুয়ারি ১৬, ২০০৪)। "Dinklage review"দ্য নিউ ইয়র্ক অবজারভার। এপ্রিল ৪, ২০০৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৭ 
  16. "Peter Dinklage"রটেন টম্যাটোস। সংগ্রহের তারিখ ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৭ 
  17. "The Station Agent (2003) – Box Office Mojo"বক্স অফিস মোজো। মার্চ ৪, ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৭ 
  18. Gibbons, Fiachra। "Good things come in small packages"দ্য গার্ডিয়ান। সংগ্রহের তারিখ ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৭ 
  19. Ebert, Roger (মার্চ ১৬, ২০০৬)। "Find Me Guilty (2006) Movie Review"রজারইবার্ট.কম। সেপ্টেম্বর ১, ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭ 
  20. "Find Me Guilty Movie Reviews, Pictures – Rotten Tomatoes"রটেন টম্যাটোস। সংগ্রহের তারিখ ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭ 
  21. "Find Me Guilty (2006) – Box Office Mojo"Box Office Mojo। সংগ্রহের তারিখ ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭ 
  22. Miller, Liz Shannon (জানুয়ারি ৩০, ২০০৯)। "Peter Dinklage's 13 Best Non-Game of Thrones TV Performances, Ranked"ইন্ডিওয়্যার। সেপ্টেম্বর ১, ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭ 
  23. Medina, Jeremy (জানুয়ারি ৩০, ২০০৯)। "30 Rock Review: "Senor Macho Solo" (Episode 307) and "Flu Shot" (Episode 308)"পেস্ট। সেপ্টেম্বর ১, ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭ 
  24. Holden, Stephen (ফেব্রুয়ারি ২৯, ২০০৮)। "Cursed With a Face Only a Sow Could Love"দ্য নিউ ইয়র্ক টাইমস। সেপ্টেম্বর ৬, ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭ 
  25. "Penelope Movie Reviews, Pictures – Rotten Tomatoes"রটেন টম্যাটোস। সংগ্রহের তারিখ ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭ 
  26. "Death at a Funeral (2007) Movie Reviews, Pictures – Rotten Tomatoes"রটেন টম্যাটোস। সংগ্রহের তারিখ ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭ 
  27. "Death at a Funeral (2010) Movie Reviews, Pictures – Rotten Tomatoes"Rotten Tomatoes। সংগ্রহের তারিখ ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭ 
  28. Smith, Sid (আগস্ট ১৭, ২০০৭)। "Death at a Funeral"লস অ্যাঞ্জেলেস টাইমস। জানুয়ারি ১৫, ২০০৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭ 
  29. "Underdog Movie Reviews, Pictures – Rotten Tomatoes"রটেন টম্যাটোস। সংগ্রহের তারিখ ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭ 
  30. "Underdog (2007) – Box Office Mojo"বক্স অফিস মোজো। ডিসেম্বর ১৬, ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭ 
  31. "Peter Dinklage and Vincent Grass Set for Prince Caspian"মুভিওয়েব। ফেব্রুয়ারি ৬, ২০০৭। অক্টোবর ২৯, ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭ 
  32. "The Chronicles of Narnia: Prince Caspian – Box Office Mojo"বক্স অফিস মোজো। নভেম্বর ১০, ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭ 
  33. Gibron, Bill। "The Chronicles of Narnia: Prince Caspian Movie Review, DVD Release"ফিল্মক্রিটিক.কম। মে ১৭, ২০০৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

সাধারণ

সাক্ষাৎকার

Talks