ক্ষমতা (পদার্থবিজ্ঞান)

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
একটি পাওয়ার গ্লোভ

পদার্থবিজ্ঞানের পরিভাষায় একক সময়ে সম্পাদিত কাজের পরিমাণই ক্ষমতাএস্‌আই একক পদ্ধতির পরিমাপে ক্ষমতার একক ওয়াট। ১৮৮৯ খ্রিষ্টাব্দে বৈজ্ঞানিক জেমস ওয়াটের নামানুসারে ক্ষমতার একক "ওয়াট" স্থির করা হয়েছে। ১ সেকেণ্ড সময়ে ১ জুল পরিমাণ কাজ করার ক্ষমতা হলো ১ ওয়াট।[১] জেমস ওয়াট নিজে ক্ষমতার একক "অশ্ব শক্তি" স্থির করেছিলেন। ক্ষমতাকে এইভাবে হিসাব করা হয়ঃ

যেখানে P হল ক্ষমতা, W হল কাজ এবং t হল সময়

কিলোওয়াট[সম্পাদনা]

প্রায়শঃ বিদ্যুৎ, যা কি-না এক প্রকার শক্তি, তা "কিলোওয়াট" হিসাবে পরিমাপ করা হয়। ১ কিলোওয়াট=১০০০ ওয়াট। এর মানে হচ্ছে ১ সেকেন্ডে ১০০০ ওয়াট বৈদ্যুতিক শক্তি আলোতে রূপান্তরিত হচ্ছে। প্রতি ঘণ্টায় ১ কিলোওয়াট শক্তি ব্যবহার করা হলে তা "কিলোওয়াট-ঘণ্টা" দ্বারা প্রকাশ করা হয়। বৈদ্যুতিক মিটারে এক ইউনিট বলতে এক কিলোওয়াট ঘণ্টাকে বোঝায়।

অশ্বক্ষমতা[সম্পাদনা]

১ অশ্বক্ষমতা = ৭৪৬ ওয়াট। জেমস ওয়াটের সঙ্গার্থ অনুযায়ী ১ সেকেন্ডে একটি ঘোড়ার ৫০০ পাউন্ড পরিমাণের ওজন মাটি থেকে ১ ফুট ওপরে উত্তোলনের ক্ষমতাই ১ অশ্বক্ষমতা।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. ওয়াটঃ ডেফিনিশন