কৃষ্ণ সাগর

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
এই নিবন্ধটি the body of water সম্পর্কিত। অন্য ব্যবহারের জন্য, দেখুন কৃষ্ণ সাগর (দ্ব্যর্থতা নিরসন)
কৃষ্ণ সাগর
Black Sea map.png
স্থানাঙ্ক ৪৪° উত্তর ৩৫° পূর্ব / ৪৪° উত্তর ৩৫° পূর্ব / 44; 35স্থানাঙ্ক: ৪৪° উত্তর ৩৫° পূর্ব / ৪৪° উত্তর ৩৫° পূর্ব / 44; 35
ধরণ সাগর
প্রাথমিক অন্তর্প্রবাহ দানিউব, Dnieper, Rioni, Southern Bug, Kızılırmak, Dniester
প্রাথমিক বহিঃপ্রবাহ বসফরাস
অববাহিকার দেশসমূহ বুলগেরিয়া, রোমানিয়া, ইউক্রেন, রাশিয়া, জর্জিয়া, তুরস্ক
সর্বাধিক দৈর্ঘ্য ১,১৭৫ কিমি (৭৩০ মা)
পৃষ্ঠতলীয় ক্ষেত্রফল ৪,৩৬,৪০২ কিমি (১,৬৮,৫০০ মা)
গড় গভীরতা ১,২৫৩ মি (৪,১১১ ফু)
সর্বাধিক গভীরতা ২,২১২ মি (৭,২৫৭ ফু)
পানির আয়তন ৫,৪৭,০০০ কিমি (১,৩১,২০০ মা)
দ্বীপপুঞ্জ 10+
জর্জিয়ার বাতুমিতে কৃষ্ণ সাগর
ক্রিমিয়ায় কৃষ্ণ সাগর

কৃষ্ণ সাগর দক্ষিণপূর্ব ইউরোপের একটি সাগর। এটি ইউরোপ, আনাতোলিয়াককেশাস দ্বারা বেষ্টিত এবং শেষ পর্যন্ত ভূমধ্যসাগরএজিয়ান সাগর এবং নানা প্রণালীর মাধ্যমে আটলান্টিক মহাসাগর-এর সাথে যুক্ত হয়। এটিকে বসফরাস প্রণালী মার্মারা সাগর, ও দার্দানেলেস প্রণালী ভূমধ্যসাগরীয় এজিয়ান সাগরের সাথে সংযুক্ত করে। এই সাগর পূর্ব ইউরোপপশ্চিম এশিয়াকে বিভক্ত করে। কৃষ্ণ সাগর ক্রার্চ প্রণালী দ্বারা আজভ সাগরের সাথেও সংযুক্ত।

কৃষ্ণ সাগরের আয়তন ৪,৩৬,৪০০ কিমি (১,৬৮,৫০০ মা) (আজভ সাগর বাদ দিয়ে),[১] সর্বোচ্চ গভীরতা ২,২১২ মি (৭,২৫৭ ফু),[২] এবং পানির আয়তন ৫,৪৭,০০০ কিমি (১,৩১,০০০ মা)।[৩] কৃষ্ণ সাগর পূর্ব-পশ্চিমে উপবৃত্তাকার ভাবে এদের মাঝে বিস্তৃতঃ বুলগেরিয়া, জর্জিয়া, রোমানিয়া, রাশিয়া, তুরস্ক, এবং ইউক্রেন.[৪]

পরিচ্ছেদসমূহ

ব্যাপ্তি[সম্পাদনা]

জনসংখ্যা[সম্পাদনা]

নাম[সম্পাদনা]

আধুনিক নাম[সম্পাদনা]

ঐতিহাসিক নাম[সম্পাদনা]

ভূতত্ত্ব এবং গভীরতা পরিমাপ বিদ্যা[সম্পাদনা]

জলানুসন্ধান[সম্পাদনা]

জলরসায়ন[সম্পাদনা]

বাস্তুসংস্থান[সম্পাদনা]

ফাইটো-প্লাংটন[সম্পাদনা]

স্থানীয় প্রজাতির প্রাণী[সম্পাদনা]

দূষণের পরিবেশগত প্রভাব[সম্পাদনা]

জলবায়ু[সম্পাদনা]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

হলোসিনের (Holocene) সময়কাল থেকে ভূমধ্যসাগরীয় সংযোগ[সম্পাদনা]

মহাপ্লাবন অনুমান[সম্পাদনা]

নথিভুক্ত ইতিহাস[সম্পাদনা]

প্রত্নতত্ত্ব[সম্পাদনা]

আধুনিক ব্যবহার[সম্পাদনা]

বাণিজ্যিক এবং নাগরিক ব্যবহার[সম্পাদনা]

পরিভ্রমণ[সম্পাদনা]

বন্দর ও ফেরি টার্মিনাল[সম্পাদনা]
বণিক বহর এবং ট্রাফিক[সম্পাদনা]

মাছ ধরা[সম্পাদনা]

হাইড্রোকার্বন অনুসন্ধান[সম্পাদনা]

হলিডে রিসর্ট এবং স্পা[সম্পাদনা]

আধুনিক সামরিক ব্যবহার[সম্পাদনা]

প্রণালীর আন্তর্জাতিক এবং সামরিক ব্যবহার[সম্পাদনা]

২০০৮ দক্ষিণ ওসেটিয়া যুদ্ধ[সম্পাদনা]

২০১৪ ক্রিমিয়ান সংকট[সম্পাদনা]

ট্রান্স সমুদ্র সহযোগিতা[সম্পাদনা]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

নোট[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Surface Area—"Black Sea Geography"University of Delaware College of Marine Studies। ২০০৩। সংগৃহীত এপ্রিল ৩, ২০১৪ 
  2. Maximum Depth—"Europa – Gateway of the European Union Website"Environment and Enlargement – The Black Sea: Facts and Figures 
  3. "Unexpected changes in the oxic/anoxic interface in the Black Sea"Nature Publishing Group। মার্চ ৩০, ১৯৮৯। সংগৃহীত ডিসেম্বর ২, ২০০৬ 
  4. UNEP/GRID-Arendal Maps and Graphics Library (২০০১)। "Socio-economic indicators for the countries of the Black Sea basin"। সংগৃহীত ডিসেম্বর ১১, ২০১০ 

গ্রন্থপঞ্জি[সম্পাদনা]

  • Stella Ghervas, "Odessa et les confins de l'Europe: un éclairage historique", in Stella Ghervas et François Rosset (ed), Lieux d'Europe. Mythes et limites, Paris, Editions de la Maison des sciences de l'homme, 2008. ISBN 978-2-7351-1182-4
  • Charles King, The Black Sea: A History, 2004, ISBN 0-19-924161-9
  • William Ryan and Walter Pitman, Noah's Flood, 1999, ISBN 0-684-85920-3
  • Neal Ascherson, Black Sea (Vintage 1996), ISBN 0-09-959371-8
  • Özhan Öztürk. Karadeniz: Ansiklopedik Sözlük (Black Sea: Encyclopedic Dictionary). 2 Cilt (2 Volumes). Heyamola Publishing. Istanbul.2005 ISBN 975-6121-00-9.
  • Rüdiger Schmitt, "Considerations on the Name of the Black Sea", in: Hellas und der griechische Osten (Saarbrücken 1996), pp. 219–224
  • West, Stephanie (২০০৩)। ‘The Most Marvellous of All Seas’: the Greek Encounter with the Euxine 50 (2)। Greece & Rome। পৃ: 151–167। 
  • Petko Dimitrov, Dimitar Dimitrov (২০০৪. ISBN ৯৫৪-৫৭৯-৩৩৫-X, ৯১p.)। THE BLACK SEA, THE FLOOD AND THE ANCIENT MYTHS। Varna। 
  • Dimitrov, D (২০১০)। Geology and Non-traditional resources of the Black Sea। LAP Lambert Academic Publishing। পৃ: ২৪৪। আইএসবিএন 978-3-8383-8639-3 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

টেমপ্লেট:কৃষ্ণ সাগর