কমলা হ্যারিস

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
কমলা হ্যারিস
Kamala Harris Vice Presidential Portrait.jpg
অফিসিয়াল ছবি, ২০২১
৪৯ তম মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ভাইস প্রেসিডেন্ট
দায়িত্বাধীন
অধিকৃত কার্যালয়
২০ জানুয়ারী, ২০২১
রাষ্ট্রপতিজো বাইডেন
পূর্বসূরীমাইক পেন্স
কাজের মেয়াদ
৩ জানুয়ারী, ২০১৭ – ১৮ জানুয়ারী, ২০২১
পূর্বসূরীবারবারা বক্সার
উত্তরসূরীএল্যাক্সে পার্ডিলা
৩২তম ক্যালিফোনিয়ার এটর্নি জেনারেল
কাজের মেয়াদ
৩ জানুয়ারী, ২০১১ – ৩ জানুয়ারী, ২০১৭
গভর্নরজেরি ব্রাউন
পূর্বসূরীজেরি ব্রাউন
উত্তরসূরীজেভিয়ার বেসেরা
ব্যক্তিগত বিবরণ
জন্মকমলা দেবী হ্যারিস[ক]
(1964-10-20) ২০ অক্টোবর ১৯৬৪ (বয়স ৫৭)
ওকল্যান্ড ক্যালিফোর্নিয়া, যুক্তরাষ্ট্র.
রাজনৈতিক দলডেমোক্রেটিক
দাম্পত্য সঙ্গীটেমপ্লেট:বিবাহিত
পিতামাতা
বাসস্থান১ নং অবজার্ভেটরি সারর্কেল
শিক্ষা
পেশা
  • রাজনীতিবিদ
  • আইনজীবী
  • লেখিকা
স্বাক্ষর
ওয়েবসাইট

কমলা দেবী হ্যারিস (/ˈkɑːmələ ˈdvi/, /ˈkɑːmələ ˈdvi/ KAH-mə-lə DAY-vee; [২][৩] জন্ম ২০ অক্টোবর, ১৯৬৪) একজন আমেরিকান রাজনীতিবিদ এবং অ্যাটর্নি, যিনি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ৪৯তম এবং বর্তমান ভাইস প্রেসিডেন্ট । তিনি মার্কিন ইতিহাসে প্রথম মহিলা ভাইস প্রেসিডেন্ট, একই সাথে তিনি প্রথম আফ্রিকান আমেরিকান এবং প্রথম এশিয়ান আমেরিকান ভাইস প্রেসিডেন্ট। [৪] [৫]। তিনি ডেমোক্রেটিক পার্টির একজন সদস্য। তিনি ২০১১ থেকে ২০১৭ সাল পর্যন্ত ক্যালিফোর্নিয়ার অ্যাটর্নি জেনারেল এবং ২০১৭ থেকে ২০২১ সাল পর্যন্ত ক্যালিফোর্নিয়ার প্রতিনিধিত্বকারী মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সিনেটর হিসেবে কাজ করেছেন। ২০২১ সালের নির্বাচনে প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের সাথে ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্সকে পরাজিত করে যুক্তরাষ্ট্রের ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ গ্রহণ করেন।

কমলা হ্যারিস ক্যালিফোর্নিয়ার ওকল্যান্ডে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি হাওয়ার্ড বিশ্ববিদ্যালয় পড়ালেখা করেন এবং পরে হেস্টিংস কলেজ অফ দ্য ল, ক্যালিফোর্নিয়া বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক ডিগ্রি অর্জন করেন। তার কর্মজীবন শুরু হয়ে আলমেদা কাউন্টি জেলা অ্যাটর্নি অফিসে। পরে তিনি সান ফ্রান্সিসকো ডিস্ট্রিক্ট অ্যাটর্নি অফিসে এবং পরে সান ফ্রান্সিসকোর সিটি অ্যাটর্নি অফিসে নিয়োগ পান। ২০০৩ সালে তিনি সান ফ্রান্সিসকোর জেলা অ্যাটর্নি নির্বাচিত হন। তিনি ২০১০ সালে ক্যালিফোর্নিয়ার অ্যাটর্নি জেনারেল নির্বাচিত হন এবং ২০১৪ সালে পুনরায় নির্বাচিত হন । কমলা হ্যারিস ২০১৭ থেকে ২০২১ সাল পর্যন্ত ক্যালিফোর্নিয়া থেকে জুনিয়র মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সিনেটর হিসেবে কাজ করেছেন। তিনি ২০১৬ সালের সিনেট নির্বাচনে লরেটা সানচেজকে পরাজিত করে দ্বিতীয় আফ্রিকান আমেরিকান মহিলা এবং প্রথম দক্ষিণ এশীয় আমেরিকান হিসাবে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সিনেটে কাজ করেন। [৬] [৭] একজন সিনেটর হিসেবে, তিনি স্বাস্থ্যসেবা সংস্কার, গাঁজার ফেডারেল ডি-শিডিউলিং, অনথিভুক্ত অভিবাসীদের নাগরিকত্বের উপায়, ড্রিম অ্যাক্ট, অ্যাসল্ট অস্ত্রের ওপর নিষেধাজ্ঞা এবং প্রোগ্রেসিভ ট্যাক্স সংস্কারের পক্ষে কথা বলেন। সিনেটের শুনানির সময় ট্রাম্প প্রশাসনের কর্মকর্তাদের নিয়ে তার যুক্তিযুক্ত প্রশ্ন করার জন্য তিনি একটি জাতীয় প্রোফাইল অর্জন করেছিলেন, যার মধ্যে ট্রাম্পের দ্বিতীয় সুপ্রিম কোর্টের মনোনীত ব্রেট কাভানাও, যিনি যৌন নিপীড়নের অভিযোগে অভিযুক্ত ছিলেন।[৮]

কমলা হ্যারিস ২০২০ ডেমোক্রেটিক রাষ্ট্রপতির মনোনয়ন চেয়েছিলেন, কিন্তু প্রথম দিকেই তিনি নির্বচন রেস থেকে নিজেকে প্রত্যাহার করে নিয়ে ছিলেন। বাইডেন তাকে ২০২০ সালের আগস্টে তার রানিং মেট হিসাবে নির্বাচিত করেছিলেন এবং তাদের টিকিট নভেম্বরে সাধারণ নির্বাচনে জয়ী হয়েছিল। তিনি ২০ জানুয়ারী, ২০২১ এ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসাবে দ্বায়িত্ব গ্রহণ করেন।

বাল্য জীবন, পরিবার এবং শিক্ষা (১৯৬৪-১৯৯০)[সম্পাদনা]

কমলা দেবী হ্যারিস ১৯৬৪ সালের ২০ অক্টোবর ক্যালিফোর্নিয়ার ওকল্যান্ডে [৯] জন্মগ্রহ করেন। তার মা, শ্যামলা গোপালন, একজন ভারতীয় তামিল জীববিজ্ঞানী। তিনি স্তন ক্যান্সার গবেষণায় প্রোজেস্টেরন রিসেপ্টর জিনের উপর উচ্চতর গবেষণা করেছিলেন, [১০] ১৯৫৮ সালে ১৯ বছর বয়সে তিনি পুষ্টি এবং এন্ডোক্রিনোলজিতে স্নাতক ডিগ্রি অর্জন করতে ভারত থেকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে বার্কলে ক্যালিফোর্নিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে; [১১] [১২] শ্যামলা গোপালন ১৯৬৪ সালে পিএইচডি অর্জন করেন।[১৩] কমলা হ্যারিসের বাবা ডোনাল্ড জে. হ্যারিস, স্ট্যানফোর্ড ইউনিভার্সিটির অর্থনীতির ইমেরিটাস অধ্যাপক, ১৯৬১ সালে ইউসি বার্কলেতে স্নাতক অধ্যয়নের জন্য ব্রিটিশ জ্যামাইকা থেকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে আসেন, ১৯৬৬ সালে অর্থনীতিতে পিএইচডি অর্জন করেন। [১৪] [১৫] আফ্রো-জ্যামাইকান বংশোদ্ভূত, ডোনাল্ড হ্যারিস নাগরিক অধিকার আন্দোলনের চলাকালীন সময়ে শ্যামলা গোপালনের সাথে সাক্ষ্যৎ হয়। পরে তারা বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হোন। [১৬] [১৭]

বার্কলে -র ব্যানক্রফট ওয়েতে কমলা হ্যারিসের শৈশবের বাড়ি

কমলা হ্যারিস এবং তার ছোট বোন মায়া তার বাবা-মায়ের পড়াশোনার সময় থেকে ক্যালিফোর্নিয়ার বার্কলেতে থাকতেন। [১৮] [১৯] তারা সেন্ট্রাল বার্কলে মিলভিয়া স্ট্রিটে খুব অল্প সময় থাকেন, পরে তার বসবাস করেন ওয়েস্ট বার্কলে ব্যানক্রফট ওয়ের একটি ডুপ্লেক্সে বাড়িতে। এই এলাকা "ফ্ল্যাটল্যান্ড" নামে পরিচিত।[২০] এই এলাকায় অধিকাংশ লোকজন কৃষ্ণাঙ্গ ছিল। [২১] কমলা হ্যারিস যখন কিন্ডারগার্টেন শুরু করেন, তখন তাকে বার্কলের ব্যাপক বিচ্ছিন্নকরণ কর্মসূচির অংশ হিসেবে থাউজেন্ড ওকস এলিমেন্টারি স্কুলে ভর্তি করা হয়। এটা উত্তর বার্কলে [২০] একটি অভিজাত পাড়ার একটি পাবলিক স্কুল যার ৯৫ ভাগ ছাত্র-ছাত্রী ছিল শ্বেতাঙ্গ এবং বিচ্ছিন্নকরণ পরিকল্পনার প্রভাবে স্কুলটিতে ৪০ শতাংশ নিগ্র ছাত্র-ছাত্রী ভর্তি করা হয়। [২১]

একজন প্রতিবেশী[২২] তাদের নিয়মিত ওকল্যান্ডের একটি আফ্রিকান আমেরিকান চার্চে নিয়ে যেতেন। যেখানে [২৩] বাচ্চাদের সাথে সমবেত সঙ্গীত পরিবেশন করতেন। [২৪] তাদের মা তাদের হিন্দু ধর্মের সাথে পরিচয় করাতে স্থানীয় একটি হিন্দু মন্দিরে নিয়ে যেতেন, যেখানে তিনি মাঝে মাঝে ভজন গাইতেন। ছোটবেলায় তিনি এবং তার বোন মাদ্রাজে (বর্তমানে চেন্নাই) তাদের মায়ের পরিবারের কাছে কয়েকবার বেড়াতে গিয়েছিলেন। [২৫] তিনি বলেছেন যে, তিনি তার নানা পিভি গোপালন দ্বারা দৃঢ়ভাবে প্রভাবিত হয়েছেন। জনাব গোপালন একজন অবসরপ্রাপ্ত ভারতীয় বেসামরিক কর্মকর্তা; তার গণতন্ত্র এবং নারী অধিকারের বিষয়ে প্রগতিশীল দৃষ্টিভঙ্গি কমলা হ্যারিসকে প্রভাবিত করেছিল। কমলা হ্যারিস নিয়মিত তার ভারতীয় খালা এবং চাচাদের সাথে যোগাযোগ রেখেছেন। [২৬] হ্যারিস জ্যামাইকায় তার দাদার বাড়িও পরিদর্শন করেছেন। [২৭]

সাত বছর বয়সে তার বাবা-মায়ের বিবাহ বিচ্ছেদ ঘটে। কমলা হ্যারিস বলেছেন যে যখন তিনি এবং তার বোন সাপ্তাহিক ছুটির দিনে পালো অল্টোতে তাদের বাবার সাথে দেখা করতেন, তখন আশেপাশের অন্যান্য শিশুদের তাদের সাথে খেলতে দেওয়া হতো না কারণ তারা ছিল কৃষ্ণাঙ্গ। [২৫] যখন তার বয়স বারো, সে এবং তার বোন তাদের মায়ের সাথে কুইবেকে এর মন্ট্রিলে চলে যান, যেখানে তার মা শ্যামলা ম্যাকগিল ইউনিভার্সিটি -অধিভুক্ত ইহুদি জেনারেল হাসপাতালে গবেষণা এবং শিক্ষকতার কাজ করতেন। [২৮] কমলা হ্যারিস ১৯৮১ সালে ওয়েস্টমাউন্ট, কুইবেকের একটি ফরাসী-ভাষী প্রাথমিক বিদ্যালয় নটর-ডেম-ডেস-নেইজেস, [২৯] তারপর এফ.এ.সি.ই স্কুল, [৩০] এবং অবশেষে ওয়েস্টমাউন্ট হাই স্কুল [খ] লে পড়াশোনা করেন। [৩২] কমলা হ্যারিসের সহপাঠী ওয়ান্ডা কাগান, ২০২০ সালে সিবিসি নিউজকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে বলেছিলেন যে কমলা হ্যারিস তার সেরা বন্ধু এবং বর্ণনা করেছেন যে কীভাবে তিনি কমলা হ্যারিসের কাছে বর্ণনা করেছিলেন যে তার সৎ বাবা তাকে শ্লীলতাহানি করেছে। তিনি বলেছিলেন যে কমলা হ্যারিস তার মাকে বলেছিলেন, যিনি তখন কাগানকে জোর দিয়েছিলেন যে তার হাই স্কুলের শেষ বছরের বাকি সময় তাদের সাথে থাকতে হবে। কাগান বলেন, কমলা হ্যারিস সম্প্রতি তাকে বলেছিলেন যে তাদের বন্ধুত্ব এবং কাগানের নিপিড়নের বিরুদ্ধে ভূমিকা পালন করা, একজন প্রসিকিউটর হিসেবে নারী ও শিশুদের সুরক্ষায় হ্যারিস যে প্রতিশ্রুতি অনুভব করেছিল তা তৈরি করতে সাহায্য করেছে। হাই স্কুলের পর ১৯৮২ সালে, হ্যারিস হাওয়ার্ড ইউনিভার্সিটিতে পড়াশোনা করেন, ওয়াশিংটন ডিসির ঐতিহাসিকভাবে একটি কৃষ্ণাঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়, হাওয়ার্ডে থাকাকালীন তিনি ক্যালিফোর্নিয়ার সিনেটর অ্যালান ক্র্যানস্টনের জন্য একজন মেলরুম ক্লার্ক হিসাবে ইন্টার্নী করেন, অর্থনীতি সোসাইটির সভাপতিত্ব করেন, ডিবেটিং দলের নেতৃত্ব দেন এবং আলফা কাপা মহিলা সংঘে যোগদান করেন। [৩৩] [৩৪] তিনি ১৯৮৬ সালে হাওয়ার্ড থেকে রাষ্ট্রবিজ্ঞান এবং অর্থনীতিতে স্নাতক ডিগ্রি অর্জন করেন। [৩৫]

তারপর কমলা হ্যারিস ক্যালিফোর্নিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন স্কুলে যোগদানের জন্য ক্যালিফোর্নিয়ায় ফিরে আসেন, তিনি লিগাল এ্যাডুকেশন অপাচ্যুনেটি প্রোগ্রাম (LEOP) এর মাধ্যমে হেস্টিংস কলেজ অফ দ্য ল -এ ভর্তি হন। [৩৬] ইউসি হেস্টিংসে থাকাকালীন, তিনি ব্ল্যাক ল স্টুডেন্টস অ্যাসোসিয়েশনের চ্যাপ্টারের সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। [৩৭] তিনি ১৯৮৯ সালে একজন জুরিস ডক্টর সহ স্নাতক পান [৩৮] [৩৯] এবং ১৯৯০ সালের জুনে ক্যালিফোর্নিয়া বারে ভর্তি হন।[৪০]

প্রারম্ভিক কর্মজীবন (১৯৯০-২০০৪)[সম্পাদনা]

১৯৯০ সালে, কমলা হ্যারিসকে ক্যালিফোর্নিয়ার আলামেডা কাউন্টিতে একজন ডেপুটি ডিস্ট্রিক্ট অ্যাটর্নি হিসাবে নিয়োগ দেওয়া হয়েছিল, যেখানে তাকে "একজন উদীয়মান দক্ষ প্রসিকিউটর" হিসাবে বর্ণনা করা হয়েছিল। [৪১] 1994 সালে, ক্যালিফোর্নিয়া অ্যাসেম্বলির স্পিকার উইলি ব্রাউন, যিনি তখন হ্যারিসের সাথে ডেটিং করছিলেন, তাকে রাজ্যের বেকারত্ব বীমা আপিল বোর্ডে এবং পরে ক্যালিফোর্নিয়া মেডিকেল অ্যাসিসট্যান্স কমিশনে নিযুক্ত করেন। [৪১] ১৯৯৪ সালে ছয় মাসের জন্য ছুটি নিয়েছিলেন, পরবর্তীতে তিনি আবার প্রসিকিউটর হিসাবে পুনরায় কাজ শুরু করেছিলেন। ক্যালিফোর্নিয়ার রাজনৈতিক নেতাদের কমিশনে লাভে “বন্ধু এবং অনুগত রাজনৈতিক কর্মী" নিয়োগ করার একটি প্যাটার্নের অংশ হিসাবে ব্রাউনের সাথে কমলা হ্যারিসের সংযোগ মিডিয়া রিপোর্টে উল্লেখ করা হয়েছিল। এবং তিনি শেষ পর্যন্ত বজায় রেখেছেন। [৪১] [৪২] [৪৩]

১৯৯৮ সালের ফেব্রুয়ারী মাসে সান ফ্রান্সিসকো জেলা অ্যাটর্নি টেরেন্স হ্যালিনান কমলা হ্যারিসকে সহকারী জেলা অ্যাটর্নি হিসাবে নিয়োগ দিয়েছিলেন। [৪৪] সেখানে তিনি ক্যারিয়ার ক্রিমিনাল ডিভিশনের প্রধান হিসাবে দ্বায়িত্ব পালন করেন যেখানে তার তত্ত্বাবধানে পাঁচজন অ্যাটর্নি ছিলেন। তার কোর্টে হত্যা, চুরি, ডাকাতি এবং যৌন নিপীড়নের মামলা বিশেষ করে তিন স্ট্রাইকের মামলার বিচারিক কার্যক্রম পরিচালিত হতো। ২০০০ সালে, হ্যারিস হ্যালিনানের সহকারী ড্যারেল সলোমনের সাথে [৪৫] নিয়ে বিবাদে জড়িয়ে পড়েন, যা প্রসিকিউটরদের কিশোর আদালতের পরিবর্তে সুপিরিয়র কোর্টে কিশোর আসামীদের বিচার কার্য পরিচালনের দ্বায়িত্ব পান। [৪৬] কমলা হ্যারিস নিয়ন্ত্রকের বিরুদ্ধে প্রচারণা চালায়, যা পাস হয়। সলোমন প্রপ সম্পর্কে মিডিয়া অনুসন্ধান পরিচালনার বিরোধিতা করেছিলেন ২১ হ্যারিসের কাছে এবং তাকে পুনঃঅর্পণ করা হয়েছে, একটি কার্যত অবনমন। কমলা হ্যারিস সলোমনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন এবং পদত্যাগ করেন। [৪৭]

২০০০ সালের আগস্টে কমলা হ্যারিস সান ফ্রান্সিসকো সিটি হলে একটি চাকরি নেন। শহরের অ্যাটর্নি লুইস রেনের জন্য কাজ শুরু করেন। [৪৮] তিনি শিশু নির্যাতন এবং অবহেলার মামলার প্রতিনিধিত্বকারী পরিবার এবং শিশু পরিষেবা বিভাগ পরিচালনা করেন। রেনে তার ডিএ ক্যাম্পেন এর সময় হ্যারিসকে সমর্থন করেছিলেন। [৪৯]

২০০১ সালে, তিনি মন্টেল উইলিয়ামসের সাথে খুব অল্প সময় ডেটং করেন। এ সম্পর্ক সম্বন্ধে উইলিয়ামস ২০২০ সালে টুইট করেছিলেন, "কমলা হ্যারিস এবং আমি অল্প সময়ের জন্য প্রায় ২০ বছর আগে ডেট করেছি যখন আমরা দুজনেই অবিবাহিত ছিলাম। তাতে কি? সেনের প্রতি আমার অনেক শ্রদ্ধা আছে। হ্যারিস।" [৫০]

সান ফ্রান্সিসকোর ডিস্ট্রিক্ট অ্যাটর্নি (২০০৪-২০১১)[সম্পাদনা]

কমলা হ্যারিস ক্যালিফোর্নিয়ার কংগ্রেসওম্যান ন্যান্সি পেলোসির সাথে (২০০৪)

২০০২ সালে, কমলা হ্যারিস সান ফ্রান্সিসকোর ডিস্ট্রিক্ট অ্যাটর্নির জন্য হ্যালিনান (বর্তমান) এবং বিল ফাজিওর বিরুদ্ধে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার জন্য সিদ্ধন্ত নেন। [৫১] কমলা হ্যারিস তিনজন প্রার্থীর মধ্যে সবচেয়ে কম পরিচিত ছিলেন [৫২] কিন্তু কেন্দ্রীয় কমিটিকে হ্যালিনান থেকে তার অনুমোদন বন্ধ রাখতে সমমত করান। [৪৯] কমলা হ্যারিস এবং হ্যালিনান যথাক্রমে ৩৩ এবং ৩৭ শতাংশ ভোট নিয়ে সাধারণ নির্বাচনের রানঅফে এগিয়ে ছিলেন। [৫৩]

রানঅফের মধ্যে, কমলা হ্যারিস কখনও মৃত্যুদণ্ড না চাওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন এবং শুধুমাত্র হিংসাত্মক অপরাধের ক্ষেত্রে তিন-স্ট্রাইক অপরাধীদের বিচার করবেন। [৫৪] তিনি প্রাক্তন মেয়র উইলি ব্রাউন, সেনেটর ডায়ান ফেইনস্টেইন, লেখক এবং কার্টুনিস্ট অ্যারন ম্যাকগ্রুডার এবং কৌতুক অভিনেতা এডি গ্রিফিন এবং ক্রিস রকের সহায়তায় একটি "জোরপূর্ণ" প্রচারণা চালান। [৫৫] [৫৬] কমলা হ্যারিস হ্যালিনানের পরফরম্যান্স এর সমালোচনা নিজেকে যোগ্যতর বলে প্রমাণ করেন। [৫৭] তিনি যুক্তি দিয়েছিলেন যে তিনি তার অফিস ছেড়েছেন কারণ এটি টেকনোলজির সম্পর্কে তার পর্যপ্ত জ্ঞান ছিল না, রাজ্যব্যাপী ৮৩ শতাংশ গড় দোষী সাব্যস্ত হওয়ার সত্ত্বেও গুরুতর অপরাধের জন্য তার ৫২ শতাংশ দোষী সাব্যস্ত হওয়ার হারকে জোর দেয়। [৫৮] কমলা হ্যারিস অভিযোগ করেছেন যে তার অফিস শহরের আগ্নেয়াস্ত্র সহিংসতা রোধ করার জন্য পর্যাপ্ত কাজ করছে না, বিশেষ করে বেভিউ এবং টেন্ডারলাইনের মতো দরিদ্র পাড়ায় এবং ডমেস্টিক সহিংসতার ক্ষেত্রে দর কষাকষি গ্রহণ করার তার ইচ্ছাকে আক্রমণ করেছিল। [৫৯] [৬০] কমলা হ্যারিস প্রথম কৃষ্ণাঙ্ক হিসাবে সান ফ্রান্সিসকোর জেলা অ্যাটর্নি নির্বাচিত হয়েছেন ৫৬ শতাংশ ভোটে পেয়ে। [৬১]

২০০৭ সালের নভেম্বর মাসে দ্বিতীয় মেয়াদে তিনি বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হন।[৬২]

জননিরাপত্তা[সম্পাদনা]

অহিংস অপরাধ[সম্পাদনা]

সান ফ্রান্সিসকো জেলা অ্যাটর্নি হিসাবে কমলা হ্যারিস

২০০৫ সালের গ্রীষ্মে, হ্যারিস একটি পরিবেশগত অপরাধ ইউনিট তৈরি করেছিল। [৬৩]

২০০৭ সালে হ্যারিস এবং সিটি অ্যাটর্নি ডেনিস হেরেরা সান ফ্রান্সিসকোর সুপারভাইজার ইডি জিউ কে তার সুপারভাইজার পদে থাকার জন্য আবাসিক প্রয়োজনীয়তা লঙ্ঘনের জন্য তদন্ত করেছিলেন; [৬৪] হ্যারিস জিউ এর বিরুদ্ধে নয়টি অপরাধের অভিযোগ আনেন, অভিযোগ করেন যে তিনি শপথের অধীনে মিথ্যা বলেছেন এবং নথিপত্র জাল করেছেন যাতে মনে হয় তিনি একটি সানসেট ডিস্ট্রিক্ট হোমে থাকেন, যাতে তিনি ৪র্থ জেলায় সুপারভাইজার পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে পারেন। [৬৫] জিউ অক্টোবর ২০০৮-এ অসম্পর্কিত ফেডারেল দুর্নীতির অভিযোগে (মেইল জালিয়াতি, ঘুষ চাওয়া এবং চাঁদাবাজি) [৬৫] দোষী সাব্যস্ত করেন এবং পরের মাসে রাজ্য আদালতে মনোনয়ন ফরমগুলিতে তার ঠিকানা সম্পর্কে মিথ্যা বলার জন্য মিথ্যাচারের অভিযোগে দোষী সাব্যস্ত করেন। একটি আবেদন চুক্তি যেখানে অন্যান্য রাষ্ট্রের অভিযোগ বাদ দেওয়া হয়েছিল এবং জিউ ক্যালিফোর্নিয়ায় নির্বাচিত অফিসে অধিষ্ঠিত হতে সম্মত হয়েছিল। [৬৬] কমলা হ্যারিস মামলাটিকে "আমাদের রাজনৈতিক প্রক্রিয়ার অখণ্ডতা রক্ষার বিষয়ে, যা আমাদের গণতন্ত্রের মূল অংশ" হিসাবে বর্ণনা করেছেন। [৬৬] তার ফেডারেল অপরাধের জন্য, জিউ কে ফেডারেল জেলে ৬৪ মাসের কারাদণ্ড এবং দশ হাজার ডলার জরিমানা করা হয়েছিল; [৬৭] রাষ্ট্রীয় মিথ্যাচারের দোষী সাব্যস্ত হওয়ার জন্য, জিউ কে কাউন্টি জেলে এক বছরের কারাদণ্ড, তিন বছরের প্রবেশন এবং প্রায় দুই হাজার ডলার জরিমানা করা হয়েছিল। [৬৮]

কমলা হ্যারিসের অধীনে, ডিএ অফিসে মারিজুয়ানা অপরাধের জন্য ১৯০০ টিরও বেশি দোষী সাব্যস্ত করেছে, যার মধ্যে একই সাথে মারিজুয়ানা অপরাধ এবং আরও গুরুতর অপরাধের জন্য দোষী সাব্যস্ত ব্যক্তিরাও রয়েছে৷ [৬৯] হ্যারিসের অফিসে যে হারে মারিজুয়ানা অপরাধের বিচার করা হয়েছিল তা হলিনানের অধীনে হারের চেয়ে বেশি ছিল, কিন্তু এই ধরনের অপরাধের জন্য রাষ্ট্রীয় কারাগারে সাজাপ্রাপ্ত আসামীদের সংখ্যা যথেষ্ট কম ছিল। [৬৯] হ্যারিসের অধীনে নিম্ন-স্তরের মারিজুয়ানা অপরাধের বিচার বিরল ছিল এবং তার অফিসে গাঁজা দখলের অপরাধের জন্য জেলের সময় অনুসরণ না করার নীতি ছিল। [৬৯] ডিএ হিসাবে কমলা হ্যারিসের উত্তরসূরি, জর্জ গ্যাসকোন, ১৯৭৫ সালে ফিরে যাওয়া সমস্ত সান ফ্রান্সিসকো মারিজুয়ানা অপরাধকে বহিষ্কার করেছিলেন। [৬৯]

সহিংস অপরাধ[সম্পাদনা]

২০০০ সালের গোড়ার দিকে সান ফ্রান্সিসকোর মাথাপিছু খুনের হার জাতীয় গড়কে ছাড়িয়ে গিয়েছিল। দায়িত্ব নেওয়ার প্রথম ছয় মাসের মধ্যে, হ্যারিস ৭৪টি পিছিয়ে পড়া নরহত্যা মামলার মধ্যে ২৭টি পীল আবেদন এবং ১৪টি নিষ্পত্তি করেন এবং ১১টি বিচারের মাধ্যমে নিষ্পত্তি করেন; এই ট্রায়ালগুলির মধ্যে নয়টি দোষী সাব্যস্ত হওয়ার সাথে এবং দুটি ঝুলন্ত জুরি দিয়ে শেষ হয়েছিল। তিনি ৪৯টি সহিংস অপরাধের মামলা বিচারের জন্য নিয়েছিলেন এবং ৩৬টি দোষী সাব্যস্ত করেছিলেন। [৭০] ২০০৪ থেকে ২০০৬ পর্যন্ত, হ্যারিস নরহত্যার জন্য ৮৭ শতাংশ দোষী সাব্যস্ত হওয়ার হার এবং সমস্ত অপরাধমূলক আগ্নেয়াস্ত্র ব্যবহারের জন্য ৯০ শতাংশ দোষী সাব্যস্ত হওয়ার হার অর্জন করেছে। [৭১]

কমলা হ্যারিস আগ্নেয়াস্ত্র অপরাধের সাথে জড়িত ফৌজদারি আসামীদের জন্য উচ্চতর জামিনের জন্য জোর দিয়েছিলেন, যুক্তি দিয়ে যে ঐতিহাসিকভাবে কম জামিন বহিরাগতদের সান ফ্রান্সিসকোতে অপরাধ করতে উৎসাহিত করেছিল। এসএফপিডি অফিসাররা হ্যারিসকে পূর্বেরআসামীদের ব্যবহার করা ফাঁকফোকরগুলি কঠোর করার জন্য কৃতিত্ব দিয়েছেন। [৭২] একটি আগ্নেয়াস্ত্র অপরাধ ইউনিট তৈরি করার পাশাপাশি, কমলা হ্যারিস আগ্নেয়াস্ত্র অপরাধে গ্রেপ্তার হলে আসামীদের নিজস্ব স্বীকৃতির ভিত্তিতে মুক্তি দেওয়ার বিরোধিতা করেছিলেন, লুকানো বা লোড করা অস্ত্র রাখার জন্য ন্যূনতম ৯০ দিনের সাজা চেয়েছিলেন এবং সমস্ত আগ্নেয়াস্ত্র রাখার মামলাগুলিকে অপরাধ হিসাবে অভিযুক্ত করেছিলেন। তিনি অপরাধীদের জন্য কারাগারের শর্তাদি চাইবেন যারা হামলার অস্ত্র ধারণ করেছে বা ব্যবহার করেছে এবং বন্দুক-সম্পর্কিত অপরাধের জন্য সর্বোচ্চ শাস্তি চাইবে। [৭৩]

কমলা হ্যারিস স্কুলে এলজিবিটি শিশু এবং কিশোর-কিশোরীদের বিরুদ্ধে ঘৃণামূলক অপরাধের উপর ফোকাস করে একটি হেট ক্রাইমস ইউনিট তৈরি করেছে। [৭৪] ২০০৬ সালের গোড়ার দিকে, ১৭ বছর বয়সী আমেরিকান ল্যাটিনা ট্রান্সজেন্ডার কিশোর গুয়েন আরাউজোকে দুইজন ব্যক্তি হত্যা করেছিল যারা পরে দ্বিতীয়-ডিগ্রি হত্যার জন্য দোষী সাব্যস্ত হওয়ার আগে " গে প্যানিক ডিফেন্স " ব্যবহার করেছিল। হ্যারিস, আরাউজোর মা সিলভিয়া গুয়েররোর সাথে, এই ধরনের আইনি প্রতিরক্ষা মোকাবেলা করার কৌশল নিয়ে আলোচনা করার জন্য দেশব্যাপী অন্তত ২০০ জন প্রসিকিউটর এবং আইন প্রয়োগকারী কর্মকর্তাদের একটি দুই দিনের সম্মেলন আহ্বান করেছিলেন। [৭৫] কমলা হ্যারিস পরবর্তীকালে AB 1160 সমর্থন করেন, ভিক্টিমস অ্যাক্টের জন্য Gwen Araujo Justice, যা ক্যালিফোর্নিয়ার পেনাল কোডে তাদের সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষেত্রে পক্ষপাতিত্ব, সহানুভূতি, কুসংস্কার বা জনমতকে উপেক্ষা করার জন্য জুরি নির্দেশাবলী অন্তর্ভুক্ত করে, এছাড়াও ক্যালিফোর্নিয়ার ডিস্ট্রিক্ট অ্যাটর্নি অফিসের জন্য বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। আতঙ্কের কৌশল সম্পর্কে এবং কীভাবে পক্ষপাতদুষ্টতাকে ট্রায়ালের ফলাফলকে প্রভাবিত করা থেকে রোধ করা যায়। [৭৬] ২০০৬ সালের সেপ্টেম্বরে, ক্যালিফোর্নিয়ার গভর্নর আর্নল্ড শোয়ার্জনেগার AB 1160 আইনে স্বাক্ষর করেন; আইনটি ক্যালিফোর্নিয়াকে "সামাজিক পক্ষপাতের" আপিলের ভিত্তিতে আসামীদের খালাস বা কম অন্তর্ভুক্ত অপরাধে দোষী সাব্যস্ত করার জন্য পাবলিক নীতির বিপরীত ঘোষণা হিসাবে রেকর্ডে রাখে। [৭৬] [৭৭]

২০০৭ সালের আগস্ট মাসে রাজ্যের অ্যাসেম্বলিম্যান মার্ক লেনো কাউ প্যালেসে বন্দুক প্রদর্শন নিষিদ্ধ করার জন্য আইন প্রবর্তন করেন, যার সাথে হ্যারিস, পুলিশ প্রধান হিদার ফং এবং মেয়র গ্যাভিন নিউজম যোগ দেন। শহরের নেতারা দাবি করেছেন যে শোগুলি সান ফ্রান্সিসকোতে অবৈধ বন্দুকের বিস্তার এবং হত্যার হার বৃদ্ধিতে সরাসরি অবদান রাখছিল। (সেই মাসের শুরুতে নিউজম শহর এবং কাউন্টির সম্পত্তিতে বন্দুক প্রদর্শন নিষিদ্ধ করার জন্য স্থানীয় আইনে স্বাক্ষর করেছিল। ) লেনো অভিযোগ করেছে যে ব্যবসায়ীরা কাছাকাছি পাবলিক হাউজিং ডেভেলপমেন্টের মাধ্যমে গাড়ি চালিয়েছে এবং বাসিন্দাদের কাছে অবৈধভাবে অস্ত্র বিক্রি করেছে। [৭৮] বিলটি স্থগিত হওয়ার সময়, অনুষ্ঠানের স্থানীয় বিরোধিতা অব্যাহত ছিল যতক্ষণ না ২০১৯ সালে কাউ প্যালেস বোর্ড অফ ডিরেক্টরস ভবিষ্যতের সমস্ত বন্দুক শো নিষিদ্ধ করার একটি বিবৃতি অনুমোদনের পক্ষে ভোট দেয়। [৭৯]

সংস্কার কার্যক্রম[সম্পাদনা]

মৃত্যুদণ্ড[সম্পাদনা]

কমলা হ্যারিস বলেছেন যে প্যারোল ছাড়া যাবজ্জীবন কারাদণ্ড মৃত্যুদণ্ডের চেয়ে ভাল এবং আরও বেশি কার্যকারী শাস্তি, [৮০] এবং তিনি মনে করেন এর ফলে যে খরচ কমবে তাতে শুধুমাত্র সান ফ্রান্সিসকোতে এক হাজার অতিরিক্ত পুলিশ অফিসারের জন্য অর্থ প্রদান করতে পারে। [৮০]

তার প্রচারাভিযানের সময়, কমলা হ্যারিস কখনোই মৃত্যুদণ্ড চাইবেন না বলে অঙ্গীকার করেছিলেন। [৫৪] সান ফ্রান্সিসকো পুলিশ বিভাগের একজন কর্মকর্তা, আইজ্যাক এস্পিনোজাকে ২০০৪ সালে গুলি করে হত্যা করার পর, মার্কিন সিনেটর (এবং সান ফ্রান্সিসকোর প্রাক্তন মেয়র) ডায়ান ফেইনস্টেইন, [৮১] মার্কিন সিনেটর বারবারা বক্সার, ওকল্যান্ডের মেয়র জেরি ব্রাউন এবং সান ফ্রান্সিসকো পুলিশ অফিসার অ্যাসোসিয়েশন হ্যারিসকে সেই অবস্থানটি উল্টানোর জন্য চাপ দিয়েছিলেন, কিন্তু তিনি তা করেননি। [৮২] (পোলে দেখা গেছে যে সত্তর শতাংশ ভোটার হ্যারিসের সিদ্ধান্তকে সমর্থন করেছেন। ) [৮৩] যখন ২০০৯ সালে এডউইন রামোস নামের একজন অবৈধ অভিবাসী এবং কথিত MS-13 গ্যাং সদস্য একজন ব্যক্তি এবং তার দুই ছেলেকে হত্যার অভিযোগে অভিযুক্ত হন, [৮৪] হ্যারিস প্যারোল ছাড়াই জেলে যাবজ্জীবন সাজা চেয়েছিলেন, একটি সিদ্ধান্ত মেয়র গ্যাভিন নিউজম সমর্থন করেন। [৮৫]

মার্কিন সিনেট (২০১৭-২০২১)[সম্পাদনা]

নির্বাচন[সম্পাদনা]

সিনেট প্রচারণার লোগো (২০১৬)

ক্যালিফোর্নিয়া থেকে মার্কিন সিনেটর হিসাবে ২০ বছরেরও বেশি সময় ধরে নির্বাচিত সিনেটর বারবারা বক্সার ২০১৫ সালের জানুয়ারিতে ঘোষণা [৮৬] দেন যে ২০১৬ সালে পুনরায় নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন না। হ্যারিস পরের সপ্তাহে সিনেট আসনের জন্য তার প্রার্থিতা ঘোষণা করেন। [৮৬] হ্যারিস তার প্রচারণার শুরু থেকেই শীর্ষ প্রতিযোগী ছিলেন। [৮৭]

২০১৬ সালের ক্যালিফোর্নিয়া সিনেট নির্বাচনে ক্যালিফোর্নিয়ার নতুন শীর্ষ-দুটি প্রাথমিক বিন্যাস ব্যবহার করা হয়েছে যেখানে প্রাথমিকের শীর্ষ দুই প্রার্থী দল নির্বিশেষে সাধারণ নির্বাচনে অগ্রসর হবে। [৮৭] ফেব্রুয়ারী ২০১৬-এ, কমলা হ্যারিস পার্টি কনভেনশনে ক্যালিফোর্নিয়া ডেমোক্রেটিক পার্টির ৭৮% ভোট জিতেছিল, যার ফলে কমলা হ্যারিসের প্রচারাভিযান পার্টির কাছ থেকে আর্থিক সহায়তা পেতে পারে। [৮৮] তিন মাস পরে, গভর্নর জেরি ব্রাউন তাকে সমর্থন করেন। [৮৯] ৭ জুন প্রাইমারিতে হ্যারিস ৪০% ভোট নিয়ে প্রথম হয়েছিলেন এবং বেশির ভাগ কাউন্টিতে বহুত্বের সাথে জিতেছিলেন। [৯০] কমলা হ্যারিস সাধারণ নির্বাচনে কংগ্রেস মহিলা এবং সহকর্মী ডেমোক্র্যাট লরেটা সানচেজের মুখোমুখি হন। [৯১] ক্যালিফোর্নিয়া ১৯১৪ সালে সরাসরি সিনেটর নির্বাচন করার পর থেকে এটিই প্রথমবারের মতো একজন রিপাবলিকান সিনেটের সাধারণ নির্বাচনে উপস্থিত হননি। [৯২]

১৯ জুলাই রাষ্ট্রপতি বারাক ওবামা এবং ভাইস প্রেসিডেন্ট জো বিডেন কমলা হ্যারিসকে সমর্থন করেছিলেন। [৯৩] ২০১৬ নভেম্বরের নির্বাচনে, হ্যারিস সানচেজকে পরাজিত করেন, ৬০% এর বেশি ভোট পন, চারটি কাউন্টি ছাড়া বাকি সবগুলোকে দখল করেন। [৯৪] তার বিজয়ের পর, তিনি নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের নীতি থেকে অভিবাসীদের রক্ষা করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন এবং ২০১৬ সালের শেষ পর্যন্ত অ্যাটর্নি জেনারেল হিসেবে থাকার ঘোষণা দেন। [৯৫] [৯৬]

মেয়াদ এবং রাজনৈতিক পদ[সম্পাদনা]

হ্যারিসের অফিসিয়াল সিনেটের প্রতিকৃতি

২০১৭[সম্পাদনা]

হ্যারিস ৩ জানুয়ারী, ২০১৭-এ তৎকালীন ভাইস প্রেসিডেন্ট বাইডেন সিনেটে শপথ নেন।

২৮শে জানুয়ারী, ট্রাম্প এক্সিকিউটিভ অর্ডার ১৩৭৬৯ স্বাক্ষর করার পরে বেশ কয়েকটি মুসলিম-সংখ্যাগরিষ্ঠ দেশের নাগরিকদের নব্বই দিনের জন্য মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশ নিষিদ্ধ করে, তিনি আদেশটির নিন্দা করেছিলেন এবং এটিকে অন্যদের সাথে “মুসলিম নিষেধাজ্ঞা” হিসাবে বর্ণনা করেন। [৯৭] তিনি হোয়াইট হাউসের চিফ অফ স্টাফ জন এফ কেলিকে বাড়িতে ডেকে তথ্য সংগ্রহ করতে এবং নির্বাহী আদেশের বিরুদ্ধে সোচ্চার হয়ে উঠেন। [৯৮]

ফেব্রুয়ারিতে হ্যারিস ট্রাম্পের মন্ত্রিসভা শিক্ষা সচিবের জন্য বেটসি ডিভোস এবং মার্কিন [৯৯] অ্যাটর্নি জেনারেলের জন্য জেফ সেশনস বাছায়ের বিরোধিতায় কথা বলেছিলেন। [১০০] মার্চের গোড়ার দিকে, তিনি সেশনসকে পদত্যাগ করার আহ্বান জানান, যখন রিপোর্ট করা হয়েছিল যে সেশনস মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত সের্গেই কিসলিয়াকের সাথে দুবার কথা বলেছেন। [১০১]

এপ্রিল মাসে হ্যারিস মার্কিন সুপ্রিম কোর্টে নিল গর্সুচের নিশ্চিতকরণের বিরুদ্ধে ভোট দেন। [১০২] সেই মাসের শেষের দিকে, হ্যারিস মধ্যপ্রাচ্যে তার প্রথম বিদেশ সফরে যান, ইরাকে অবস্থানরত ক্যালিফোর্নিয়ার সেনাদের এবং জর্ডানের জাতারি শরণার্থী শিবির, সিরিয়ার শরণার্থীদের জন্য সবচেয়ে বড় ক্যাম্প পরিদর্শন করেন। [১০৩]

জুন মাসে, হ্যারিস ফেডারেল ব্যুরো অফ ইনভেস্টিগেশনের পরিচালক জেমস কমির ২০১৭-এর মে মাসে বরখাস্তের ঘটনায় যে ভূমিকা পালন করেছিলেন তার বিষয়ে ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল রড রোজেনস্টাইনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য মিডিয়ার মনোযোগ আকর্ষণ করেছিলেন। [১০৪] তার জিজ্ঞাসাবাদের প্রসিকিউটরিয়াল প্রকৃতির কারণে সেনেটর জন ম্যাককেইন, গোয়েন্দা কমিটির একজন পদাধিকারবলে সদস্য এবং কমিটির চেয়ারম্যান সিনেটর রিচার্ড বার তাকে বাধা দেন এবং সাক্ষীর প্রতি আরো শ্রদ্ধাশীল হওয়ার অনুরোধ করেন। এক সপ্তাহ পরে, তিনি একই বিষয়ে অ্যাটর্নি জেনারেল জেফ সেশনসকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছিলেন। [১০৫] সেশনস বলেছিলেন যে তার প্রশ্ন "আমাকে নার্ভাস করে তোলে"। [১০৬] কমলা হ্যারিস থেকে বুরের একক কথা নিউজ মিডিয়াতে পরামর্শ দেয় যে তার আচরণ যৌনতাবাদী ছিল, মন্তব্যকারীরা যুক্তি দিয়েছিলেন যে বুর একজন পুরুষ সিনেট সহকর্মীর সাথে একইভাবে আচরণ করবেন না। [১০৭]

ডিসেম্বরে কমলা হ্যারিস সিনেটর আল ফ্রাঙ্কেন -এর পদত্যাগের আহ্বান জানিয়ে টুইটারে জোর দিয়েছিলেন, "যৌন হয়রানি এবং অসদাচরণ কারও দ্বারা অনুমোদিত হওয়া উচিত নয় এবং কোথাও হওয়া উচিত নয়।" [১০৮]

২০১৮[সম্পাদনা]

সেলমায় ২০১৮ সালের ব্লাডি সানডে স্মরণে কমলা হ্যারিস (মাঝে), যেখানে তাকে জন লুইস (ডানে) বক্তৃতা করার জন্য আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল [১০৯]

জানুয়ারিতে আল ফ্রাঙ্কেন পদত্যাগের পর কমলা হ্যারিসকে সেনেট জুডিশিয়ারি কমিটিতে নিযুক্ত করা হয়েছিল। [১১০] সেই মাসের শেষের দিকে, হ্যারিস হোমল্যান্ড সিকিউরিটি সেক্রেটারি কার্স্টজেন নিলসেনকে অন্যদের চেয়ে নরওয়েজিয়ান অভিবাসীদের পক্ষপাতিত্ব করার জন্য এবং নরওয়ে একটি প্রধানত শ্বেতাঙ্গ দেশ বলে অজানা দাবি করার জন্য প্রশ্ন করেছিলেন। [১১১] [১১২]

মে মাসে হ্যারিস সেক্রেটারি নিলসেনকে ট্রাম্প প্রশাসনের পারিবারিক বিচ্ছেদ নীতি সম্পর্কে উত্তপ্ত প্রশ্ন করেছিলেন, যার অধীনে বাবা-মাকে বেআইনিভাবে মার্কিন [১১৩] প্রবেশের জন্য হেফাজতে নেওয়া হলে শিশুদের তাদের পরিবার থেকে বিচ্ছিন্ন করা হয়েছিল। সান দিয়েগোর সীমান্ত, [১১৪] কমলা হ্যারিস প্রথম সিনেটর হয়েছিলেন তিনি নিলসনের পদত্যাগ দাবি করেছিলেন। [১১৫]

সেপ্টেম্বর এবং অক্টোবরে ব্রেট কাভানাফ সুপ্রিম কোর্টের নিশ্চিতকরণ শুনানিতে, হ্যারিস ব্রেট কাভানাকে প্রশ্ন করেছিলেন যে তিনি রাষ্ট্রপতির ব্যক্তিগত অ্যাটর্নি মার্ক কাসোভিৎস দ্বারা প্রতিষ্ঠিত আইন সংস্থা কাসোভিৎজ বেনসন টরেস -এর একজন সদস্যের সাথে মুলার তদন্তের বিষয়ে একটি বৈঠক করেছিলেন। কাভানাফ উত্তর দিতে অপারগ এবং বারবার পরাজিত হন। [১১৬] কমলা হ্যারিস যৌন নিপীড়নের অভিযোগের বিষয়ে কাভানাফের তদন্তের এফবিআই পরিচালকের সীমিত সুযোগ নিয়ে প্রশ্ন তোলেন। [১১৭] তিনি তার নিশ্চিতকরণের বিরুদ্ধে ভোট দিয়েছেন।

কমলা হ্যারিস ২০১৮ অক্টোবর মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মেল বোমা হামলার প্রচেষ্টার লক্ষ্য ছিল। [১১৮]

ডিসেম্বরে সিনেট কমলা হ্যারিসের পৃষ্ঠপোষকতায় জাস্টিস ফর ভিকটিমস অফ লিঞ্চিং অ্যাক্ট (S. 3178) পাস করে। [১১৯] বিলটি যা হাউসে গৃহীত হয়নি , লিঞ্চিংকে ফেডারেল ঘৃণা অপরাধে পরিণত করে। [১২০]

২০১৯[সম্পাদনা]

এসএফ প্রাইড প্যারেড এ কমলা হ্যারিস (২০১৯)

২০১৯ সালে মার্চ মাসে বিশেষ কাউন্সেল রবার্ট মুলার ২০১৬ সালের নির্বাচনে রাশিয়ার হস্তক্ষেপের বিষয়ে তার প্রতিবেদন জমা দেওয়ার পরে কমলা হ্যারিস মার্কিন অ্যাটর্নি জেনারেল উইলিয়াম বারকে স্বচ্ছতার স্বার্থে কংগ্রেসের সামনে সাক্ষ্য দেওয়ার জন্য আহ্বান জানান। [১২১] দুই দিন পরে বার সংশোধন করা মুলার রিপোর্টের একটি চার পৃষ্ঠার "সারাংশ" প্রকাশ করে, যা এর সিদ্ধান্তের ইচ্ছাকৃত ভুল চরিত্রায়ন হিসাবে সমালোচিত হয়েছিল। [১২২] সেই মাসের শেষের দিকে, হ্যারিস বারো জন ডেমোক্র্যাটিক সিনেটরের একজন ছিলেন যিনি ম্যাজি হিরোনোর নেতৃত্বে একটি চিঠিতে সই করেছিলেন "তার নিজের উপসংহার যে রাষ্ট্রপতির আচরণ ন্যায়বিচারে বাধা দেয় না" প্রস্তাব করার সিদ্ধান্তকে প্রশ্নবিদ্ধ করে এবং বার এর সারসংক্ষেপ কিনা তা তদন্তের আহ্বান জানিয়েছিল। মুলার রিপোর্ট এবং একটি সংবাদ সম্মেলনে তার বিবৃতি ছিল বিভ্রান্তিকর। [১২৩]

২০১৯ সালের ১ মে বার সেনেট জুডিশিয়ারি কমিটির সামনে সাক্ষ্য দিয়েছেন। [১২৪] শুনানির সময়, বার সম্পূর্ণ প্রতিবেদনের আগে তিনি যে চার পৃষ্ঠার সারাংশ প্রকাশ করেছিলেন তার ভুল উপস্থাপনা সম্পর্কে বিবাদী ছিলেন। [১২৫] কমলা হ্যারিসকে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি রাষ্ট্রপতির বিরুদ্ধে ন্যায়বিচারে বাধা না দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে অন্তর্নিহিত প্রমাণ পর্যালোচনা করেছেন কিনা, বার স্বীকার করেছেন যে তিনি, রড রোজেনস্টাইন বা তার অফিসের কেউই অভিযোগের সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে প্রতিবেদনের সমর্থনকারী প্রমাণ পর্যালোচনা করেননি। [১২৬] হ্যারিস পরে বারকে পদত্যাগ করার আহ্বান জানান, এবং তাকে তার প্রশ্নের উত্তর দিতে অস্বীকার করার জন্য অভিযুক্ত করেন কারণ তিনি মিথ্যাচারের জন্য উন্মুখ থাকেন এবং তার প্রতিক্রিয়া উল্লেখ করে তাকে মার্কিন অ্যাটর্নি জেনারেল হিসেবে কাজ করার অযোগ্য ঘোষণা করেন। [১২৭] [১২৮] দুই দিন পর কমলা হ্যারিস আবার দাবি করেন যে ডিপার্টমেন্ট অফ ডিপার্টমেন্ট অফ ডিপার্টমেন্ট অফ ডিপার্টমেন্ট ইন্সপেক্টর জেনারেল মাইকেল ই. হোরোভিটস তদন্ত করবে যে অ্যাটর্নি জেনারেল বার ট্রাম্পের রাজনৈতিক শত্রুদের তদন্ত করার জন্য হোয়াইট হাউসের চাপে রাজি হয়েছেন কিনা। [১২৯]

২০১৯ সালের ৫ মে কমলা হ্যারিস বলেছিলেন যে "ভোটার দমন" ডেমোক্র্যাট স্টেসি আব্রামস এবং অ্যান্ড্রু গিলমকে জর্জিয়া এবং ফ্লোরিডায় ২০১৮ সালের সরকারী নির্বাচনে জয়ী হতে বাধা দেয়; আব্রামস ৫৫ হাজার ভোটে হেরেছেন এবং গিলম ৩২ হাজার ভোটে হেরেছেন। নির্বাচনী আইন বিশেষজ্ঞ রিচার্ড এল. হ্যাসেনের মতে, "আমি কোন ভালো প্রমাণ দেখিনি যে কঠোর ভোটদান এবং নিবন্ধন আইনের দমনমূলক প্রভাব জর্জিয়া এবং ফ্লোরিডায় গভর্নরের দৌড়ের ফলাফলকে প্রভাবিত করেছে।" [১৩০]

জুলাই মাসে কমলা হ্যারিস চীনা কমিউনিস্ট পার্টির উইঘুর গণহত্যার অভিযোগ তদন্ত করার জন্য ট্রাম্প প্রশাসনকে অনুরোধ করার জন্য কার্স্টেন গিলিব্র্যান্ডের সাথে দলবদ্ধ হন; এই প্রশ্নে তিনি সহকর্মী মার্কো রুবিও যোগ দিয়েছিলেন। [১৩১]

নভেম্বরে কমলা হ্যারিস একজন ট্রান্সজেন্ডার মহিলা এবং অভিবাসী রক্সসানা হার্নান্দেজ যিনি আইসিই হেফাজতে মারা গিয়েছিলেন তার মৃত্যুর তদন্তের আহ্বান জানান। [১৩২] [১৩৩]

ডিসেম্বরে কমলা হ্যারিস হোয়াইট হাউসের সিনিয়র উপদেষ্টা স্টিফেন মিলারের অপসারণের দাবিতে ডেমোক্র্যাটিক সিনেটর এবং নাগরিক অধিকার সংস্থাগুলির একটি গ্রুপের নেতৃত্ব দেন যখন সাউদার্ন পোভার্টি ল সেন্টার দ্বারা প্রকাশিত ইমেলগুলি ব্রিটবার্ট ওয়েবসাইটের সম্পাদকদের কাছে সাদা জাতীয়তাবাদী সাহিত্যের ঘন ঘন প্রচারের কথা প্রকাশ করে। [১৩৪]

২০২০[সম্পাদনা]

কংগ্রেসনাল ব্ল্যাক ককাসের মহিলাদের সাথে কমলা হ্যারিস

২০২০ সালের ১৬ জানুয়ারী ডোনাল্ড ট্রাম্পের অভিশংসনের বিচার শুরুর আগে, কমলা হ্যারিস সিনেটের দাঁড়িয়ে মন্তব্য করেছিলেন, আমেরিকান বিচার ব্যবস্থার অখণ্ডতা এবং এই নীতির উপরে তার মতামত জানিয়েছিলেন যে একজন বর্তমান রাষ্ট্রপতি সহ কেউই আইনের উর্দ্ধে নয়। কমলা হ্যারিস পরে সিনেট জুডিশিয়ারি চেয়ারম্যান লিন্ডসে গ্রাহামকে অভিশংসন বিচারের সময় সমস্ত বিচার বিভাগীয় মনোনয়ন বন্ধ করতে বলেছিলেন, যা গ্রাহাম সম্মত হন। [১৩৫] [১৩৬] ক্ষমতার অপব্যবহার এবং কংগ্রেসে বাধা দেওয়ার অভিযোগে তিন রাষ্ট্রপতিকে দোষী সাব্যস্ত করার পক্ষে ভোট দেন। [১৩৭]

কমলা হ্যারিস রিপাবলিকান সহ-স্পন্সরদের সাথে দ্বিদলীয় বিল নিয়ে কাজ করেছেন, যার মধ্যে রয়েছে সিনেটর রান্ড পলের সাথে একটি জামিন সংস্কার বিল, [১৩৮] সেনেটর জেমস ল্যাঙ্কফোর্ডের সাথে একটি নির্বাচনী নিরাপত্তা বিল, [১৩৯] এবং সিনেটর লিসা মুরকোস্কির সাথে একটি কর্মক্ষেত্রে হয়রানি বিল। [১৪০]

২০২১[সম্পাদনা]

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে তার নির্বাচনের পর, কমলা হ্যারিস ১৮ জানুয়ারী, ২০২১-এ তার আসন থেকে পদত্যাগ করেন, [১৪১] ২০ জানুয়ারী, ২০২১ ক্যালিফোর্নিয়ার সেক্রেটারি অফ স্টেট অ্যালেক্স প্যাডিলা তার স্থলাভিষিক্ত হন। [১৪২]

কমিটির কার্যভার[সম্পাদনা]

সিনেটে থাকাকালীন, কমলা হ্যারিস নিম্নলিখিত কমিটির সদস্য ছিলেন: [১৪৩]

  • বাজেট সংক্রান্ত কমিটি
  • হোমল্যান্ড সিকিউরিটি এবং সরকারী বিষয়ক কমিটি
    • ফেডারেল খরচ তদারকি এবং জরুরী ব্যবস্থাপনা উপ-কমিটি
    • রেগুলেটরি অ্যাফেয়ার্স এবং ফেডারেল ম্যানেজমেন্টের উপ-কমিটি
  • ইন্টেলিজেন্স সিলেকশন কমিটি
  • বিচার বিভাগীয় কমিটি [১৪৪]
    • সংবিধানের উপর উপ-কমিটি
    • তত্ত্বাবধান, এজেন্সি অ্যাকশন, ফেডারেল রাইটস এবং ফেডারেল আদালতের উপ-কমিটি
    • গোপনীয়তা, প্রযুক্তি এবং আইন বিষয়ক উপকমিটি

রাজনৈতিক সদস্যপদ[সম্পাদনা]

  • কংগ্রেসনাল এশিয়ান প্যাসিফিক আমেরিকান ককাস [১৪৫]
  • কংগ্রেসনাল ব্ল্যাক ককাস [১৪৬]
  • মহিলা বিষয়ক কংগ্রেসনাল ককাস

২০২০ রাষ্ট্রপতি নির্বাচন (২০১৯-২০২০)[সম্পাদনা]

রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের প্রচারণা[সম্পাদনা]

কমলা হ্যারিস আনুষ্ঠানিকভাবে ২৭ জানুয়ারী, ২০১৯ তারিখে রাষ্ট্রপতি পদের জন্য ডেমোক্র্যাটিক মনোনয়নে তার প্রতিদ্বন্দ্বিতা ঘোষণা করেছিলেন।

কমলা হ্যারিসকে ২০২০ সালের রাষ্ট্রপতি পদে ডেমোক্র্যাটিক মনোনয়নের জন্য শীর্ষ প্রতিযোগী এবং সম্ভাব্য অগ্রগামী হিসাবে বিবেচনা করা হয়েছিল। [১৪৭] ২০১৮ সালের জুনে, তাকে "নট রুলিং ইট আউট” হিসাবে উদ্ধৃত করা হয়েছিল। [১৪৮] ২০১৮ সালে জুলাই -এ ঘোষণা করা হয়েছিল যে তিনি একটি স্মৃতিকথা প্রকাশ করবেন, যা সম্ভাব্য দৌড়ের একটি চিহ্ন। [১৪৯] ২১ জানুয়ারী, ২০১৯ তারিখে কমলা হ্যারিস আনুষ্ঠানিকভাবে ২০২০ সালের মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রপতির জন্য তার প্রার্থীতা ঘোষণা করেছিলেন। [১৫০] বিগত ২৪ বছরের মধ্যে তার প্রার্থিতা ঘোষণার কয়েক ঘন্টা পরে, তিনি ২০১৬ সালে বার্নি স্যান্ডার্সের দ্বারা একটি ঘোষণার পরের দিনে সবচেয়ে বেশি অনুদান সংগ্রহের রেকর্ড গড়েছিলেন।[তথ্যসূত্র প্রয়োজন] ২৭ জানুয়ারী ২০ হাজারের বেশি  মানুষ তার নিজ শহর ওকল্যান্ডের প্রচারণা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিল।[১৫১]

২০১৯ সালের জুনে প্রথম ডেমোক্র্যাটিক রাষ্ট্রপতি বিতর্কের সময়, কমলা হ্যারিস প্রাক্তন ভাইস প্রেসিডেন্ট জো বিডেন কে "ক্ষতিকর" মন্তব্যের জন্য তিরস্কার করেছিলেন, ১৯৭০-এর দশকে একীকরণ প্রচেষ্টার বিরোধিতাকারী সিনেটরদের সাথে আন্তরিকভাবে কথা বলেছিলেন এবং বাধ্যতামূলক স্কুল বাসিংয়ের বিরোধিতা করতে তাদের সাথে কাজ করেছিলেন। [১৫২] সেই বিতর্কের পরে পোলে কমলা হ্যারিসের সমর্থন ছয় থেকে নয় পয়েন্টের মধ্যে বেড়েছে। [১৫৩] আগস্টে দ্বিতীয় বিতর্কে, অ্যাটর্নি জেনারেল হিসাবে তার রেকর্ড নিয়ে হ্যারিস বাইডেন এবং কংগ্রেসওম্যান তুলসি গ্যাবার্ডের মুখোমুখি হন। [১৫৪] সান জোসে মার্কারি নিউজ মূল্যায়ন করেছে যে গ্যাবার্ড এবং বাইডেনের কিছু অভিযোগ ছিল, যেমন মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত বন্দীর ডিএনএ পরীক্ষায় বাধা দেওয়া, অন্যরা তদন্তের জন্য দাঁড়ায়নি। এর পরপরই কমলা হ্যারিস সেই বিতর্কের পরে ভোটে পড়ে যান। [১৫৫] [১৫৬] পরের কয়েক মাসে তার ভোটের সংখ্যা কম একক সংখ্যায় নেমে আসে। [১৫৭] এমন এক সময়ে যখন উদারপন্থীরা ফৌজদারি বিচার ব্যবস্থার বাড়াবাড়ি নিয়ে উদ্বিগ্ন হয়ে উঠছিল, হ্যারিস ক্যালিফোর্নিয়ার অ্যাটর্নি জেনারেল থাকাকালীন তিনি অনুসরণ করা টাফ অন ক্রাইম নীতির জন্য সংস্কারকদের সমালোচনার সম্মুখীন হন। উদাহরণস্বরূপ, ২০১৪ সালে তিনি আদালতে ক্যালিফোর্নিয়ার মৃত্যুদণ্ড রক্ষা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন। [১৫৮]

তার রাষ্ট্রপতির প্রচারণার আগে একটি অনলাইন অনানুষ্ঠানিক সংস্থা #KHive হ্যাশট্যাগ ব্যবহার করে তার প্রার্থীতাকে সমর্থন করতে এবং তাকে বর্ণবাদী এবং যৌনতাবাদী আক্রমণ থেকে রক্ষা করার জন্য গঠিত হয়েছিল। [১৫৯] [১৬০] [১৬১] [১৬২] ডেইলি ডট অনুসারে, জয় রিড প্রথম আগস্ট 2017 এর একটি টুইটে এই শব্দটি ব্যবহার করেছিলেন যে "@DrJasonJohnson @ZerlinaMaxwell এবং আমি একটি মিটিং করেছি এবং সিদ্ধান্ত নিয়েছি এটিকে কে-হাইভ বলা হবে।" [১৬৩]

৩ ডিসেম্বর, ২০১৯-এ কমলা হ্যারিস তহবিলের ঘাটতির উল্লেখ করে ২০২০ ডেমোক্র্যাটিক মনোনয়ন চাওয়া থেকে প্রত্যাহার করে নেন। [১৬৪] ২০২০ সালের মার্চ মাসে হ্যারিস রাষ্ট্রপতির জন্য জো বিডেনকে সমর্থন করেছিলেন। [১৬৫]

ভাইস প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রচারণা[সম্পাদনা]

বিডেন-হ্যারিস টিকিটের জন্য প্রচারণার লোগো

২০১৯ সালের মে মাসে কংগ্রেসনাল ব্ল্যাক ককাসের সিনিয়র সদস্যরা বাইডেন-হ্যারিস টিকিটের ধারণাটিকে সমর্থন করেছিলেন। [১৬৬] ফেব্রুয়ারির শেষের দিকে সুপার টুইস্টডে তে আরও বিজয়ের সাথে হাউস হুইপ জিম ক্লাইবার্নের সমর্থনে ২০২০ সাউথ ক্যারোলিনা ডেমোক্রেটিক প্রাইমারিতে বাইডেন একটি বিশাল জয় পান। মার্চের শুরুতে, ক্লাইবার্ন বাইডেন একজন কৃষ্ণাঙ্গ মহিলাকে রানিং মেট হিসাবে বেছে নেওয়ার পরামর্শ দিয়েছিলেন এবং মন্তব্য করেছিলেন যে "আফ্রিকান আমেরিকান মহিলাদের তাদের আনুগত্যের জন্য পুরস্কৃত করা দরকার"। [১৬৭] মার্চ মাসে, বাইডেন তার রানিং মেট করার জন্য একজন মহিলাকে বেছে নেওয়ার সিদ্ধন্ত নিয়েছিলেন। [১৬৮]

২০২০ সালের ১৭ এপ্রিল কমলা হ্যারিস মিডিয়ার জল্পনা-কল্পনার জবাব দিয়েছিলেন এবং বলেছিলেন যে তিনি বাইডেনের রানিং মেট হতে “সম্মত আছেন”। [১৬৯] মে মাসের শেষের দিকে, জর্জ ফ্লয়েডের হত্যাকাণ্ড এবং পরবর্তী বিক্ষোভ ও বিক্ষোভের ক্ষেত্রে, বাইডেন হ্যারিস এবং ভ্যাল ডেমিংসের আইন প্রয়োগকারীর প্রমাণপত্রকে হাইলাইট করে একজন কৃষ্ণাঙ্গ মহিলাকে তার রানিং সঙ্গী হিসেবে বেছে নেওয়ার জন্য পুনরায় প্রভাবিত হন। [১৭০]

১২ জুন, দ্য নিউ ইয়র্ক টাইমস রিপোর্ট করেছে যে হ্যারিস বাইডেনের রানিং সঙ্গী হওয়ার জন্য অগ্রগামী হিসাবে আবির্ভূত হচ্ছেন, কারণ তিনি ছিলেন একমাত্র আফ্রিকান আমেরিকান মহিলা যার রাজনৈতিক অভিজ্ঞতা ছিল ভাইস প্রেসিডেন্টের মতো। [১৭১] ২৬ জুন, সিএনএন রিপোর্ট করেছে যে বইডেন অনুসন্ধান প্রক্রিয়ার কাছাকাছি এক ডজনেরও বেশি লোক এলিজাবেথ ওয়ারেন, ভ্যাল ডেমিংস এবং কেইশা ল্যান্স বটমস সহ হ্যারিসকে বিডেনের শীর্ষ চার প্রতিযোগীর একজন হিসাবে বিবেচনা করেছেন। [১৭২]

২০২০ সালের ১১ আগস্ট বাইডেন ঘোষণা করেছিলেন যে তিনি হ্যারিসকে বেছে নিয়েছেন। তিনি ছিলেন প্রথম আফ্রিকান আমেরিকান, প্রথম ভারতীয় আমেরিকান, এবং জেরাল্ডিন ফেরারো এবং সারাহ প্যালিনের পরে তৃতীয় মহিলা যিনি একটি প্রধান দলের টিকিটের জন্য ভাইস-প্রেসিডেন্ট মনোনীত প্রার্থী হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন। [১৭৩]

২০২০ সালের মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে বাইডেন-হ্যারিসের টিকিটের বিজয়ের পর কমলা হ্যারিস ভাইস প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হন। [১৭৪] বড় নেটওয়ার্কগুলি বাইডেন/হ্যারিসের জন্য নির্বাচনের ডাক দেওয়ার পরে, হ্যারিস বিডেনকে ফোন করে বলেছেন, “আমরা এটি করেছি! আমরা এটা করেছি, জো. আপনি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পরবর্তী রাষ্ট্রপতি হতে যাচ্ছেন।” উদ্ধৃতিটি ২০২০ সালের সেরা ১০টি টুইটের একটি হয়ে উঠেছে। [১৭৫]

ভাইস প্রেসিডেন্ট (২০২১-বর্তমান)[সম্পাদনা]

কমলা হ্যারিস ২০ জানুয়ারী, ২০২১-এ ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসাবে শপথ নিচ্ছেন

২০২০ সালের নির্বাচনে মার্কিন প্রেসিডেন্ট হিসেবে জো বাইডেনের নির্বাচনের পর, কমলা হ্যারিস ২০ জানুয়ারী, ২০২১-এ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করেন। [১৭৬] তিনি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রথম মহিলা ভাইস প্রেসিডেন্ট, মার্কিন ইতিহাসে সর্বোচ্চ পদমর্যাদার মহিলা নির্বাচিত কর্মকর্তা এবং প্রথম আফ্রিকান-আমেরিকান এবং প্রথম এশিয়ান-আমেরিকান ভাইস প্রেসিডেন্ট। [১৭৭] [১৭৮] এছাড়াও তিনি দ্বিতীয় বর্ণের ব্যক্তি যিনি এই পদে অধিষ্ঠিত ছিলেন, তার আগে চার্লস কার্টিস, একজন নেটিভ আমেরিকান এবং কাও নেশনের সদস্য, যিনি ১৯২৯ থেকে ১৯৩৩ সাল পর্যন্ত হার্বার্ট হুভারের অধীনে কাজ করেছিলেন। [১৭৯] কার্টিস এবং প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি বারাক ওবামার পরে তিনি তৃতীয় ব্যক্তি যিনি স্বীকৃত নন-ইউরোপীয় বংশধর; যিনি নির্বাহী শাখার সর্বোচ্চ পদগুলির একটিতে পৌঁছেছেন।

কমলা হ্যারিস ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসাবে শপথ গ্রহণের দুই দিন আগে ১৮ জানুয়ারী, ২০২১-এ তার সিনেট আসন থেকে পদত্যাগ করেছিলেন। ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসাবে তার প্রথম কাজটি ছিল তার স্থলাভিষিক্ত অ্যালেক্স প্যাডিলা এবং জর্জিয়ার সিনেটর রাফেল ওয়ার্নক এবং জন ওসফ, যারা ২০২১ সালের জর্জিয়া রানঅফ নির্বাচনে নির্বাচিত হয়েছিল। [১৮০]

কমলা হ্যারিস ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে তার প্রথম বিদেশ সফরের সময় গুয়াতেমালায় পৌঁছেছেন।(জুন ২০২১)

২০২১ সালের ২০ জানুয়ারী থেকে বর্তমান ১১৭তম কংগ্রেসের সিনেট রিপাবলিকান এবং ডেমোক্র্যাটদের মধ্যে ৫০/৫০ ভাগ হয়েছে; [১৮১] এর অর্থ হল কমলা হ্যারিসকে প্রায়ই টাইব্রেকিং ভোট দেওয়ার জন্য আহ্বান জানানো হয়েছিল। কমলা হ্যারিস ৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২১-এ দুটি টাই-ব্রেকিং ভোটের মধ্যে তার প্রথম ভোট দেন। ফেব্রুয়ারি এবং মার্চ মাসে, সিনেটের রাষ্ট্রপতি হিসাবে তার ভূমিকায় কমলা হ্যারিসের টাই-ব্রেকিং ভোটগুলি রাষ্ট্রপতি বাইডেনের প্রস্তাবিত আমেরিকান রেসকিউ প্ল্যান অ্যাক্ট ২০২১ পাস করার ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ছিল কারণ সিনেটে কোনও রিপাবলিকান প্যাকেজের পক্ষে ভোট দেয়নি। [১৮২] [১৮৩] ২০ জুলাই, ২০২১-এ কমলা হ্যারিস ভাইস প্রেসিডেন্স হবার প্রথম বছরে প্রথম ছয় মাসে সপ্তম টাই-ব্রেকিং ভোট দিয়ে মাইক পেন্সের রেকর্ড ভেঙে দেন। [১৮৪] [১৮৫] ২০২১ সালের নভেম্বর পর্যন্ত কমলা হ্যারিস তার অফিসে প্রথম বছরে ১৩টি টাই-ব্রেকিং ভোট দিয়েছেন, যা মার্কিন ইতিহাসে এক বছরে সবচেয়ে বেশি টাই-ব্রেকিং ভোট। এর আগে ১৭৯০ সালে ১২টি ভোট দেওয়ার রেকর্ড ছিল জন অ্যাডামস[১৮৫] [১৮৬]

২০২১ সালের এপ্রিলে নিউ ইয়র্ক পোস্টের একটি খণ্ডিত গল্পে এটি দাবি করা হয়েছিল যে কমলা হ্যারিসের শিশুদের বই সুপার হিরো আর এভরিহোয়ার ক্যালিফোর্নিয়ার লং বিচে একটি আশ্রয়কেন্দ্রে অভিবাসী শিশুদের দেওয়া "ওয়েলকাম কিট" এর মাধ্যমে ব্যাপকভাবে বিতরণ করা হয়েছিল। [১৮৭] বাস্তবে, বইটির শুধুমাত্র একটি কপি জনসাধারণের একজন সদস্য দান করেছিলেন। মূল গল্পের লেখক লরা ইতালিয়ানো দাবি করেছিলেন যে তাকে তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে গল্পটি লিখতে বাধ্য করা হয়েছিল এবং ফলস্বরূপ তিনি নিউইয়র্ক পোস্ট থেকে পদত্যাগ করেছিলেন। [১৮৮]

২০২১ সালের এপ্রিলে হ্যারিস ইঙ্গিত দিয়েছিলেন যে রাষ্ট্রপতি বাইডেন আফগানিস্তান থেকে সমস্ত মার্কিন সৈন্য সরিয়ে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে তিনিই রুমের শেষ ব্যক্তি ছিলেন এবং মন্তব্য করেছিলেন যে রাষ্ট্রপতির "অসাধারণ পরিমাণ সাহস" এবং "তিনি যা নিয়ে সিদ্ধান্ত নেন তার উপর ভিত্তি করে সত্যিকার অর্থে বিশ্বাস করে... করাটাই সঠিক।" [১৮৯] জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জ্যাক সুলিভান বলেছেন যে বাইডেন "প্রত্যেক মূল সিদ্ধান্ত গ্রহণের বৈঠকে তিনি থাকার জোর দেন। তিনি সেই সভাগুলিকে বিশেষ গুরুত্ব দেন এবং প্রায়শই অনন্য দৃষ্টিভঙ্গি প্রদান করেন।" [১৯০]

কমলা হ্যারিস এবং জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঞ্জেলা মার্কেল (জুলাই ২০২১)

মধ্য আমেরিকা থেকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে অভিবাসন বৃদ্ধির মূল কারণগুলিকে মোকাবেলা করার প্রয়াসে হ্যারিস ২০২১ সালের জুন মাসে ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসাবে তার প্রথম আন্তর্জাতিক ভ্রমণ হিসাবে গুয়াতেমালা এবং মেক্সিকো সফর করেছিলেন। [১৯১] তার সফরের সময় গুয়াতেমালার রাষ্ট্রপতি আলেজান্দ্রো গিয়ামাত্তেইয়ের সাথে একটি যৌথ সংবাদ সম্মেলনে, হ্যারিস সম্ভাব্য অভিবাসীদের কাছে একটি আবেদন জারি করে বলেছিল, "আমি এই অঞ্চলের লোকদের কাছে পরিষ্কার হতে চাই যারা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র-মেক্সিকো সীমান্তে সেই বিপজ্জনক ট্র্যাক করার কথা ভাবছে। : এসো না. এসো না।" [১৯২] মধ্য আমেরিকায় তার কাজ দুর্নীতি এবং মানব পাচারের উপর টাস্ক ফোর্স তৈরি করেছে; একটি নারীর ক্ষমতায়ন কর্মসূচি, এবং আবাসন ও ব্যবসার জন্য একটি বিনিয়োগ তহবিল। [১৯০]

কমলা হ্যারিস একটি সাবমেরিন প্রোগ্রাম বাতিলের পরে সম্পর্ক জোরদার করতে ২০২১ সালের নভেম্বরে ফরাসি রাষ্ট্রপতি ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁর সাথে দেখা করেছিলেন। [১৯৩]

অফিসে প্রায় দশ মাস রাষ্ট্রপতি এবং ভাইস প্রেসিডেন্টের জন্য অনুমোদনের রেটিং ছিল যথাক্রমে ৩৮% এবং ২৮%। [১৯৪]

১৯ নভেম্বর, ২০২১ -এ, হ্যারিস ১০:১০ থেকে ১১:৩৫ EST পর্যন্ত ভারপ্রাপ্ত রাষ্ট্রপতি হিসাবে দায়িত্ব পালন করেছিলেন, যখন রাষ্ট্রপতি বাইডেন একটি কোলনোস্কোপি করা হয়েছিল। [১৯৫] তিনি প্রথম মহিলা এবং সামগ্রিকভাবে তৃতীয় ব্যক্তি হয়েছিলেন, যিনি ধারার অধীনে মার্কিন রাষ্ট্রপতির ক্ষমতা এবং দায়িত্ব গ্রহণ করেছিলেন 25তম সংশোধনীর 3. [১৯৬] [১৯৭]

অফিসে কমলা হ্যারিসের মেয়াদে তার প্রেস সেক্রেটারি, ডেপুটি প্রেস সেক্রেটারি, কমিউনিকেশন ডিরেক্টর এবং চিফ স্পিচরাইটার অন্তর্ভুক্ত উচ্চ স্টাফ টার্নওভার দেখেছে। তার সমালোচকরা পরামর্শ দেন যে এই ধরনের প্রতিবেদনগুলি তার ঘষিয়া তুলিয়া ফেলা ব্যবস্থাপনা শৈলীর বৈশিষ্ট্য। [১৯৮]

পুরস্কার ও সম্মাননা[সম্পাদনা]

২০০৫ সালে, ন্যাশনাল ব্ল্যাক প্রসিকিউটরস অ্যাসোসিয়েশন হ্যারিসকে থারগুড মার্শাল অ্যাওয়ার্ড প্রদান করে। সেই বছর, তাকে নিউজউইকের একটি প্রতিবেদনে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছিল যা "আমেরিকার সবচেয়ে শক্তিশালী ২০ মহিলা" এর প্রোফাইলিং করে। [১৯৯] ২০০৮ সালের নিউ ইয়র্ক টাইমসের একটি নিবন্ধ সেই বছরের পরে প্রকাশিত হয়েছিল এবং তাকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রপতি হওয়ার সম্ভাবনাযুক্ত একজন মহিলা হিসাবে চিহ্নিত করে, একজন "দৃঢ় যোদ্ধা" হিসাবে তার খ্যাতি তুলে ধরে। [২০০]

২০১৩, ২০২০ ও ২০২১ সালে, টাইম কমলা হ্যারিসকে টাইম ১০০ -এ অন্তর্ভুক্ত করেছে, টাইমের বার্ষিক তালিকায় বিশ্বের ১০০ জন সবচেয়ে প্রভাবশালী ব্যক্তি। [২০১] [২০২] [২০৩] ২০১৬সালে, ২০/২০ বিপার্টিসান জাস্টিস সেন্টার হ্যারিসকে সেনেটর টিম স্কটের সাথে বাইপার্টিসান জাস্টিস অ্যাওয়ার্ড প্রদান করে। [২০৪] বাইডেন এবং হ্যারিস যৌথভাবে ২০২০ সালের জন্য টাইম পারসন অফ দ্য ইয়ার নির্বাচিত হয়েছেন। [২০৫]

কমলা হ্যারিস উদ্বোধনী ২০২১ ফোর্বস ৫০ ওভার ৫০ এর জন্য নির্বাচিত হয়েছিল; উদ্যোক্তা, নেতা, বিজ্ঞানী এবং স্রষ্টাদের নিয়ে গঠিত যাদের বয়স ৫০ বছরের বেশি। [২০৬]

সম্মানসূচক ডিগ্রি
অবস্থান তারিখ বিদ্যালয় ডিগ্রী সূচনা ঠিকানা দিয়েছেন
 California</img> California ১৫ মে, ২০১৫ ইউনিভার্সিটি অফ সাউদার্ন ক্যালিফোর্নিয়া আইনের ডক্টরেট (LL. ডি. ) [২০৭] [২০৮] না
 District of Columbia</img> District of Columbia ১৩ মে, ২০১৭ হাওয়ার্ড বিশ্ববিদ্যালয় ডক্টর অফ হিউম্যান লেটারস (ডিএইচএল) [২০৯] [২১০] হ্যাঁ [২১১]

ব্যক্তিগত জীবন[সম্পাদনা]

২০২১ সালে হ্যারিস এবং তার স্বামী সেকেন্ড জেন্টলম্যান ডগ এমহফের ভাইস প্রেসিডেন্ট অফিসের প্রতিকৃতি

কমলা হ্যারিসের সাথে তার স্বামী অ্যাটর্নি ডগ এমহফের প্রথম দেখা করিয়ে দিয়েছিলেন ২০১৩ তাদের একজন কমন বন্ধু এডহফ। [২১২] এমহফ ছিলেন একজন ইন্টারটেইনমেন্ট আইনজীবী যিনি Venable LLP-এর লস অ্যাঞ্জেলেস অফিসে পার্টনার-ইন-চার্জ হয়েছিলেন। [২১২] [২১৩] হ্যারিস এবং এমহফ ২২ আগস্ট, ২০১৪-এ ক্যালিফোর্নিয়ার সান্তা বারবারায় বিয়ে করেছিলেন। [২১৪] হ্যারিস চলচ্চিত্র প্রযোজক কার্স্টিন এমহফের সাথে তার আগের পক্ষের দুই সন্তান কোল এবং এলার সৎ মা। [২১৫] আগস্ট 2019 পর্যন্ত, হ্যারিস এবং তার স্বামীর আনুমানিক নেট মূল্য $5.8 ছিল মিলিয়ন [২১৬]

কমলা হ্যারিস একজন বহুজাতিক আমেরিকান [১৭৭] এবং একজন ব্যাপটিস্ট, যিনি আমেরিকান ব্যাপটিস্ট চার্চ ইউএসএ -র একটি মণ্ডলী সান ফ্রান্সিসকোর তৃতীয় ব্যাপটিস্ট চার্চের সদস্যপদ ধারণ করেন। [২১৭] [২১৮] [২১৯] [২২০] তিনি লিঙ্কস এর একজন সদস্য। [২২১] [২২২]

কমলা হ্যারিসের বোন মায়া, একজন আইনজীবী এবং MSNBC রাজনৈতিক বিশ্লেষক; তার শ্যালক, টনি ওয়েস্ট, উবারের জেনারেল কাউন্সেল এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বিচার বিভাগের সাবেক সিনিয়র কর্মকর্তা। [২২৩] তার ভাগ্নি মীনা, ফেনোমেনাল উইমেন অ্যাকশন ক্যাম্পেইনের প্রতিষ্ঠাতা এবং উবারের কৌশল ও নেতৃত্বের প্রাক্তন প্রধান। [২২৪]

কমলা হ্যারিস তার স্বতন্ত্র মুক্তার নেকলেস পরার জন্য সুপরিচিত। যদিও ২০২ সালের রাষ্ট্রপতি নির্বাচনী প্রচারণার সময় জল্পনা প্রকাশ পায় যে তিনি তাদের হাওয়ার্ড ইউনিভার্সিটির শোররিটির প্রতি শ্রদ্ধা হিসেবে পরা শুরু করেছিলেন, [২২৫] [২২৬] [২২৭] এমনকি সুপ্রিম কোর্টের সহযোগী বিচারপতি রুথ ব্যাডার গিন্সবার্গের কাছেও, যা জারি করার সময় একটি স্বতন্ত্র কলার পরার জন্য পরিচিত। আদালতে একটি ভিন্নমত, [২২৬] তার ২০১৯ সালের জীবনী দ্য ট্রুথস উই হোল্ড হ্যারিস ব্যাখ্যা করেছেন যে তিনি তার মায়ের পরামর্শদাতা হাওয়ার্ডের উপহার হিসাবে একটি মুক্তার নেকলেস দেওয়ার পরে এটি করতে শুরু করেছিলেন। [২২৮]

প্রকাশনা[সম্পাদনা]

কমলা হ্যারিস দুটি নন-ফিকশন বই এবং একটি শিশুতোষ বই লিখেছেন।

আরো দেখুন[সম্পাদনা]

  • আমেরিকার রাজনীতিতে কালো নারী
  • আফ্রিকান-আমেরিকান মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মন্ত্রিসভার সদস্যদের তালিকা
  • আফ্রিকান-আমেরিকান মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সিনেটরদের তালিকা
  • মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে মহিলা রাষ্ট্রীয় অ্যাটর্নি জেনারেলদের তালিকা
  • মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মন্ত্রিসভার মহিলা সদস্যদের তালিকা
  • মহিলা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রপতি এবং ভাইস-প্রেসিডেন্ট প্রার্থীদের তালিকা
  • ভারতীয় বংশোদ্ভূত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রাজনীতিবিদদের তালিকা
  • ক্যালিফোর্নিয়া থেকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সিনেটরদের তালিকা
  • মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সিনেটে নারী

মন্তব্য[সম্পাদনা]

  1. তার বাবা-মা’র দেওয়া নাম কমলা লেয়ার হ্যারিস। পরবর্তীতে তার নামের মধ্য অংশ পরিবর্তন করে দেবী রাখা হয় [১]
  2. Harris has said she struggled with understanding her French immersion, so her mother sent her to an English-speaking school for high school. This would no longer have been possible the next year, when Quebec passed a law requiring all immigrants who did not previously have English schooling in Quebec to enroll their children in French-speaking schools.[৩১]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

অফিসিয়াল[সম্পাদনা]


অন্যান্য[সম্পাদনা]

  1. Debolt, David (আগস্ট ১৮, ২০২০)। "Here's Kamala Harris' birth certificate. Scholars say there's no VP eligibility debate"The Mercury News। San Jose, California। সংগ্রহের তারিখ নভেম্বর ২৭, ২০২১ 
  2. Thomas, Ken (ফেব্রুয়ারি ১৫, ২০১৩)। "You Say 'Ka-MILLA;' I Say 'KUH-ma-la.' Both Are Wrong": 1। 
  3. Woodsome, Kate। "Opinion | You don't need to like Kamala Harris. But you should say her name properly."The Washington Post। ২০২১-১০-২৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জানুয়ারি ২২, ২০২১ – YouTube-এর মাধ্যমে। 
  4. Kalita, S. Mitra (আগস্ট ১২, ২০২০)। "Kamala Harris' Indian roots and why they matter"CNN। সংগ্রহের তারিখ ফেব্রুয়ারি ২৭, ২০২০ 
  5. Sudeep, Theres (নভেম্বর ২১, ২০২০)। "Indian-origin politicians around the world"Deccan Herald। সংগ্রহের তারিখ ফেব্রুয়ারি ২৭, ২০২০ 
  6. "Kamala D. Harris: US Senator from California"। United States Senate। অক্টোবর ১৪, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুলাই ২৯, ২০২০In 2017, Kamala D. Harris was sworn in as a United States senator for California, the second African-American woman, and first South Asian-American senator in history. 
  7. Weinberg, Tessa; Palaniappan, Sruthi (ডিসেম্বর ৩, ২০১৯)। "Kamala Harris: Everything you need to know about the 2020 presidential candidate"ABC News। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ১০, ২০২০Harris is the daughter of an Indian mother and Jamaican father, and is the second African-American woman and first South Asian-American senator in history. 
  8. Viser, Matt (জানুয়ারি ২১, ২০১৯)। "Kamala Harris enters 2020 Presidential Race"The Washington Post। সংগ্রহের তারিখ জানুয়ারি ২২, ২০১৯ 
  9. Kim, Catherin; Stanton, Zack (আগস্ট ১১, ২০২০)। "55 Things You Need to Know About Kamala Harris"Politico (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ২৩, ২০২০ 
  10. "In Memoriam: Dr. Shyamala G. Harris"Breast Cancer Action (ইংরেজি ভাষায়)। জুন ২১, ২০০৯। সংগ্রহের তারিখ জানুয়ারি ২৩, ২০১৯ 
  11. Travernise, Sabrina (আগস্ট ১৫, ২০২০)। "Kamala Harris, Daughter of Immigrants, Is the Face of America's Demographic Shift"New York Times। ২০২০-০৮-১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ২৪, ২০২০When Kamala Harris's mother left India for California in 1958, the percentage of Americans who were immigrants was at its lowest point in over a century. ... Her arrival at Berkeley as a young graduate student ... 
  12. Bengali, Shashank; Mason, Melanie (অক্টোবর ২৫, ২০১৯)। "The progressive Indian grandfather who inspired Kamala Harris"Los Angeles Times। সংগ্রহের তারিখ এপ্রিল ২৪, ২০২০In 1958, she surprised them by applying for a master's program at UC Berkeley, a campus they had never heard of. She was 19, the eldest of their four children, and had never set foot outside India. Her parents dug into Gopalan's retirement savings to pay her tuition and living costs for the first year. ... left to study nutrition and endocrinology at Berkeley, eventually earning a PhD. 
  13. Biswas, Soutik (আগস্ট ১১, ২০২০)। "Biden's VP pick: Why Kamala Harris embraces her biracial roots"BBC। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ২৪, ২০২০Gopalan picked up her doctorate degree at age 25 in 1964, the same year Ms Harris was born. 
  14. "PM Golding congratulates Kamala Harris-daughter of Jamaican – on appointment as California's First Woman Attorney General"। Jamaican Information Service। ডিসেম্বর ২, ২০১০। জানুয়ারি ১৫, ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ফেব্রুয়ারি ২, ২০১১ 
  15. "Stanford University – Department of Economics"web.stanford.edu। সংগ্রহের তারিখ মে ১৯, ২০২০ 
  16. Barry, Ellen (সেপ্টেম্বর ১৩, ২০২০)। "How Kamala Harris's Immigrant Parents Found a Home, and Each Other, in a Black Study Group"The New York Times। সংগ্রহের তারিখ মার্চ ২৩, ২০২১ 
  17. Clarke, Chevaz (আগস্ট ১৪, ২০২০)। "Get to know Kamala Harris' family"CBS News (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ১৯, ২০২০ 
  18. Horwitz, Sari (ফেব্রুয়ারি ২৭, ২০১২)। "Justice Dept. lawyer Tony West to take over as acting associate attorney general"The Washington Post। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ২৩, ২০২০ 
  19. Martinez, Michael (অক্টোবর ২৩, ২০১০)। "A 'female Obama' seeks California attorney general post"। CNN। সংগ্রহের তারিখ জানুয়ারি ২২, ২০১৪ 
  20. Orenstein, Natalie (জানুয়ারি ২৪, ২০১৯)। "Did Kamala Harris' Berkeley childhood shape the presidential hopeful? Long before she was a 2020 presidential contender, Kamala Harris was a resident of the Berkeley flats and a student at Thousand Oaks."Berkeleyside। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ১২, ২০২০ 
  21. Dale, Daniel (জুন ২৯, ২০১৯)। "Fact check: Kamala Harris was correct on integration in Berkeley, school district confirms"। CNN। 
  22. Shimron, Yonat (আগস্ট ১২, ২০২০)। "5 faith facts about Biden's VP choice Kamala Harris – a Black Baptist with Hindu family"National Catholic Reporter। Religion News Service। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ২১, ২০২০But because her parents divorced when she was 7, she also grew up in Oakland and Berkeley attending predominantly Black churches. Her downstairs neighbor, Regina Shelton, often took Kamala and her sister, Maya, to Oakland's 23rd Avenue Church of God in Oakland. Harris now considers herself a Black Baptist. 
  23. Bruinius, Harry (আগস্ট ১৯, ২০২০)। https://www.csmonitor.com/USA/Politics/2020/0819/In-Kamala-Harris-richly-textured-background-a-portrait-of-America-today। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ২১, ২০২০  |শিরোনাম= অনুপস্থিত বা খালি (সাহায্য)
  24. Rissacher, Tessa; Saul, Scott (সেপ্টেম্বর ১৪, ২০২০)। "Where Kamala Harris' Political Imagination Was Formed"Slate (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ নভেম্বর ২৭, ২০২০ 
  25. Finnegan, Michael (সেপ্টেম্বর ৩০, ২০১৫)। "How race helped shape the politics of Senate candidate Kamala Harris"Los Angeles Times। সংগ্রহের তারিখ ডিসেম্বর ১, ২০১৮  Quote: "Steeped in Indian culture, Harris and her sister, Maya, now a civil rights lawyer and senior policy advisor to Hillary Rodham Clinton, visited family in Madras on occasion."
  26. Gettleman, Jeffrey; Raj, Suhasini (আগস্ট ১৬, ২০২০)। "How Kamala Harris's Family in India Helped Shape Her Values"The New York Times। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ১৮, ২০২০ 
  27. Dolan, Casey (ফেব্রুয়ারি ১০, ২০১৯)। "How Kamala Harris' immigrant parents shaped her life – and her political outlook"The Mercury News। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ১৪, ২০২০Kamala also visited far-flung family in India and Jamaica as she grew up, getting her first taste of the broader world. 
  28. Whiting, Sam (মে ১৪, ২০০৯)। "Kamala Harris grew up idolizing lawyers"San Francisco Chronicle। সংগ্রহের তারিখ জানুয়ারি ১১, ২০১৪ 
  29. Givhan, Robin (সেপ্টেম্বর ১৬, ২০১৯)। "Kamala Harris grew up in a mostly white world. She then went to a black university in a black city."The Washington Post। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ১৫, ২০২০ 
  30. Dunlevy, T'Cha (নভেম্বর ২০, ২০২০)। "Dunlevy: Before Westmount High, Kamala Harris went to FACE"Montreal Gazette 
  31. Black, Peter (আগস্ট ২০, ২০২০)। "Kamala Harris's Montreal experience"Press-Republican 
  32. Dale, Daniel (ডিসেম্বর ২৯, ২০১৮)। "U.S. Sen. Kamala Harris's classmates from her Canadian high school cheer her potential run for president"Toronto Star। সংগ্রহের তারিখ জুলাই ১, ২০১৯ 
  33. Owens, Donna (নভেম্বর ৮, ২০১৬)। "Meet Kamala Harris, the second Black woman elected to the U.S. Senate"NBC News। সংগ্রহের তারিখ ফেব্রুয়ারি ১৮, ২০১৭ 
  34. "Howard Alumna Becomes First Woman Elected as California Attorney General" (সংবাদ বিজ্ঞপ্তি)। Howard University। ডিসেম্বর ১৭, ২০১০। জানুয়ারি ১২, ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ নভেম্বর ১৪, ২০১৪ 
  35. Costley, Drew (জুলাই ৪, ২০১৭)। "Kamala Harris' life in the political limelight and all the times she made history"SFGATE (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ডিসেম্বর ২৭, ২০২০ 
  36. "LEOP: Opening Doors for Students of Promise"UC Hastings Magazine। আগস্ট ১৪, ২০১৮। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ১৩, ২০২০ 
  37. "UC Hastings Congratulates Kamala Harris '89: California's next U.S. Senator"UC Hastings Law। নভেম্বর ৯, ২০১৬। 
  38. "Kamala Harris '89 Wins Race for California Attorney General"। UC Hastings News Room। নভেম্বর ২৪, ২০১০। নভেম্বর ৩০, ২০১০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ফেব্রুয়ারি ২, ২০১১ 
  39. "Attorney Licensee Profile, Kamala Devi Harris #146672"The State Bar of California। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ১, ২০২০ 
  40. "Attorney Licensee Profile, Kamala Devi Harris #146672"The State Bar of California। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ১, ২০২০ 
  41. Morain, Dan (নভেম্বর ২৯, ১৯৯৪)। "2 More Brown Associates Get Well-Paid Posts : Government: The Speaker appoints his frequent companion and a longtime friend to state boards as his hold on his own powerful position wanes."Los Angeles Times। সংগ্রহের তারিখ জুলাই ৪, ২০২০ 
  42. Byrne, Peter (সেপ্টেম্বর ২৪, ২০০৩)। "Kamala's Karma"SF Weekly (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ২৩, ২০২০ 
  43. Carlsen, William; Writer, Chronicle Staff (মার্চ ১০, ২০০২)। "Lawmakers put cronies in plum jobs / Big pay, few hours on 3 state panels"SFGate 
  44. "DA Names New Head of Career Crime Unit"The San Francisco Examiner। ফেব্রুয়ারি ৩, ১৯৯৮। এপ্রিল ২২, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 
  45. Hartlaub, Peter (আগস্ট ২১, ২০০০)। "DA's top aide quits among turmoil (paywalled)"The San Francisco Examiner। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ২৫, ২০২০ 
  46. Fred, Gardener (ফেব্রুয়ারি ১৩, ২০১৯)। "Kamala vs. Kayo (2003)"Anderson Valley Advertiser। Boonville, CA: Bruce Anderson, editor and publisher। 
  47. Gardner, Fred (জুন ২৪, ২০২০)। "Kayo & Kamala"Anderson Valley Advertiser। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ১২, ২০২০ 
  48. "Women's Radio: This DA Makes a Difference For Women"। Womensradio.com। ডিসেম্বর ১৯, ২০১০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ নভেম্বর ১৮, ২০১০ 
  49. Byrne, Peter (সেপ্টেম্বর ২৪, ২০০৩)। "Kamala's Karma"San Francisco Weekly। সংগ্রহের তারিখ জুলাই ৪, ২০২০ 
  50. "Kamala Harris Once Dated Talk Show Host Montel Williams"Inside Edition। আগস্ট ৮, ২০১৯। সংগ্রহের তারিখ ৮ আগস্ট ২০২০ 
  51. Kruse, Michael (আগস্ট ৯, ২০১৯)। "How San Francisco's Wealthiest Families Launched Kamala Harris"Politico 
  52. Martin, Nina (আগস্ট ২০০৭)। "Why Kamala Matters"San Francisco Magazine। ফেব্রুয়ারি ১৫, ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ মে ১২, ২০১৫ 
  53. Soltau, Alison; Fletcher, Ethan (ডিসেম্বর ১০, ২০০৩)। "Harris ousts veteran Hallinan"। The San Francisco Examiner 
  54. VanDerbeken, Jaxson (জানুয়ারি ৯, ২০০৪)। "New D.A. promises to be 'smart on crime' / Harris speaks well of Hallinan, will continue some of his policies"SFGate  উদ্ধৃতি ত্রুটি: <ref> ট্যাগ বৈধ নয়; আলাদা বিষয়বস্তুর সঙ্গে "sfgate.com" নামটি একাধিক বার সংজ্ঞায়িত করা হয়েছে
  55. Hampton, Adriel (জুলাই ২৮, ২০০৩)। "Harris stumps in the Sunset"। The San Francisco Examiner 
  56. Dineen, J.K.; Hampton, Adriel (ডিসেম্বর ৯, ২০০৩)। "Clinton Tops List of Celebrity Supporters"The San Francisco Examiner 
  57. Bulwa, Demian (ডিসেম্বর ৬, ২০০৩)। "Harris puts D.A. on trial / Performance, not philosophy, an issue"San Francisco Chronicle 
  58. Bulwa, Demian (ডিসেম্বর ১০, ২০০৩)। "Harris defeats Hallinan after bitter campaign"San Francisco Chronicle 
  59. Bulwa, Demian (নভেম্বর ১২, ২০০৩)। "Harris slams Hallinan on city's gun violence / D.A. candidate points to bus shooting victim"San Francisco Chronicle 
  60. Bulwa, Demian (ডিসেম্বর ৫, ২০০৩)। "No-holds-barred debate in D.A. race"San Francisco Chronicle 
  61. Zernike, Kate (ফেব্রুয়ারি ১১, ২০১৯)। "'Progressive Prosecutor': Can Kamala Harris Square the Circle?"New York Times। ২০১৯-০২-১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 
  62. Knight, Heather (নভেম্বর ৭, ২০০৭)। "Kamala Harris celebrates unopposed bid for district attorney"San Francisco Chronicle। সংগ্রহের তারিখ ফেব্রুয়ারি ২, ২০১১ 
  63. Johnson, Jason B. (জুন ১, ২০০৫)। "D.A. creates environmental unit: 3-staff team takes on crime mostly affecting the poor"San Francisco Chronicle। সংগ্রহের তারিখ মে ৪, ২০২০ 
  64. "Ed Jew surrenders for felony arrest, out on bail"San Francisco Chronicle। জুন ১৩, ২০০৭। সংগ্রহের তারিখ মে ২, ২০২০ 
  65. Buchanan, Wyatt (অক্টোবর ১১, ২০০৮)। "Former S.F. supervisor pleads guilty to federal extortion, bribery, plans to accuse others"San Francisco Chronicle 
  66. Coté, John (নভেম্বর ১৯, ২০০৮)। "Ex-Supe Ed Jew guilty of lying about residence"San Francisco Chronicle 
  67. Coté, John (এপ্রিল ৪, ২০০৯)। "Former S.F. supervisor sentenced to prison: Ed Jew dealt 64 months in prison for shakedown"San Francisco Chronicle 
  68. "More Jail Time for Ed Jew"NBC Bay Area। এপ্রিল ২২, ২০০৯। সংগ্রহের তারিখ সেপ্টেম্বর ২১, ২০২০ 
  69. Tolan, Casey (সেপ্টেম্বর ১১, ২০১৯)। "Campaign fact check: Here's how Kamala Harris really prosecuted marijuana cases"San Jose Mercury News 
  70. Soltau, Alison (জুলাই ২১, ২০০৪)। "New DA claims higher success rate vs. violent felons"San Francisco Examiner। পৃষ্ঠা 4। সংগ্রহের তারিখ মে ২০, ২০২০ 
  71. Eslinger, Bonnie (সেপ্টেম্বর ১৫, ২০০৬)। "SF's Felony conviction rate improves"San Francisco Examiner। পৃষ্ঠা 4। সংগ্রহের তারিখ মে ২০, ২০২০ 
  72. Van Derbeken, Jaxon (মার্চ ২০, ২০০৬)। "Trials and tribulations of Kamala Harris, D.A. / 2 years into term, prosecutor, police have their differences"San Francisco Chronicle। সংগ্রহের তারিখ মার্চ ৯, ২০১৯ 
  73. Garofoli, Joe (মে ২৯, ২০০৪)। "D.A. vows to go after gun law violators / Harris takes tough approach, pledges maximum penalties"San Francisco Chronicle। সংগ্রহের তারিখ মে ২, ২০২০ 
  74. "Marriage Equality"। Kamalaharris.org। নভেম্বর ২৫, ২০১০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ নভেম্বর ১৮, ২০১০ 
  75. "Harris challenges 'gay panic' strategy"The San Francisco Examiner। জুলাই ৫, ২০০৬। পৃষ্ঠা 4। 
  76. "Gwen Araujo Justice for Victims Act"California Legislative Information। সেপ্টেম্বর ২৮, ২০০৬। সংগ্রহের তারিখ জুন ২৩, ২০১৫ 
  77. Hemmelgarn, Seth; Laird, Cynthia (অক্টোবর ৪, ২০১২)। "Ten years later, Araujo's murder resonates"The Bay Area Reporter। সংগ্রহের তারিখ জুন ২৩, ২০১৫ 
  78. Lagos, Marisa (আগস্ট ৯, ২০০৭)। "Measure would ban gun shows at Cow Palace"San Francisco Chronicle 
  79. Pereira, Alyssa (এপ্রিল ১৬, ২০১৯)। "Cow Palace to stop hosting gun shows beginning in 2020"San Francisco Chronicle 
  80. "San Francisco District Attorney Kamala Harris"। Californiascapitol.com। এপ্রিল ১৫, ২০০৯। সংগ্রহের তারিখ নভেম্বর ১৮, ২০১০ 
  81. Matier, Phillip; Ross, Andrew (এপ্রিল ২১, ২০০৪)। "Feinstein's surprise call for death penalty puts D.A. on spot"San Francisco Chronicle। সংগ্রহের তারিখ মে ৩, ২০২০ 
  82. Matier, Phillip; Ross, Andrew (মে ৫, ২০০৪)। "Sen. Boxer joins throng calling for death in killing of cop"San Francisco Chronicle। সংগ্রহের তারিখ মে ৩, ২০২০ 
  83. Matier, Phillip; Ross, Andrew (মে ১৯, ২০০৪)। "D.A.'s death penalty no-go gets a thumbs-up in S.F. poll"San Francisco Chronicle। সংগ্রহের তারিখ মে ৩, ২০২০ 
  84. Van Derbeken, Jaxon (সেপ্টেম্বর ১১, ২০০৯)। "Edwin Ramos won't face death penalty"San Francisco Chronicle। সংগ্রহের তারিখ এপ্রিল ২২, ২০২০ 
  85. Knight, Heather; Lagos, Marisa (সেপ্টেম্বর ১৬, ২০০৯)। "Newsom backs Harris' decision"San Francisco Chronicle। সংগ্রহের তারিখ অক্টোবর ২০, ২০০৯ 
  86. Mehta, Seema (জানুয়ারি ১৩, ২০১৫)। "Kamala Harris launches U.S. Senate bid, begins raising money"Los Angeles Times। জানুয়ারি ১৩, ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জানুয়ারি ১৩, ২০১৫ 
  87. Kane, Will (নভেম্বর ৭, ২০১৬)। "Why Is the Most Groundbreaking Senate Race Ever So Uninspiring?"POLITICO Magazine (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ নভেম্বর ১৯, ২০২০ 
  88. Cadelago, Christopher (ফেব্রুয়ারি ২৭, ২০১৬)। "Kamala Harris receives California Democratic Party endorsement"The Sacramento Bee। ফেব্রুয়ারি ১৫, ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ১৯, ২০২০ 
  89. Willon, Phil (মে ২৩, ২০১৬)। "California Gov. Jerry Brown backs Kamala Harris for U.S. Senate"। এপ্রিল ৫, ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ১৯, ২০২০ 
  90. "United States Senator (primary results)" (PDF)California Secretary of State। জুলাই ২০১৬। আগস্ট ২৬, ২০১৯ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ১৯, ২০২০ 
  91. "Kamala Harris wins U.S. Senate primary"Los Angeles Times। জুন ৭, ২০১৬। মার্চ ৪, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ১৯, ২০২০ 
  92. Myers, John (জুন ৮, ২০১৬)। "Two Democrats will face off for California's U.S. Senate seat, marking first time a Republican will not be in contention"Los Angeles Times। মার্চ ৪, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ১৯, ২০২০ 
  93. Willon, Phil (জুলাই ১৯, ২০১৬)। "Obama, Biden endorse Kamala Harris for U.S. Senate"Los Angeles Times। জুলাই ১৯, ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুলাই ১৯, ২০১৬ 
  94. "Live California election results"Los Angeles Times। নভেম্বর ৯, ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ নভেম্বর ৯, ২০১৬ 
  95. Willon, Phil (নভেম্বর ১০, ২০১৬)। "Newly elected Kamala Harris vows to defy Trump on immigration"Los Angeles Times। আগস্ট ৩, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ১৯, ২০২০ 
  96. Willon, Phil (ডিসেম্বর ১, ২০১৬)। "Essential Politics November archives"Los Angeles Timesআইএসএসএন 0458-3035। ডিসেম্বর ১৭, ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ডিসেম্বর ২০, ২০১৬ 
  97. Merica, Dan (জানুয়ারি ৩০, ২০১৭)। "Trump signs executive order to keep out 'radical Islamic terrorists'"। আগস্ট ৪, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ১৯, ২০২০ 
  98. Ting, Eric (জানুয়ারি ৮, ২০১৯)। "Kamala Harris says John Kelly got mad when she called him at home during the travel ban"San Francisco Chronicle। আগস্ট ২, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ১৯, ২০২০ 
  99. "Sen. Kamala Harris speaks out against Betsy DeVos as part of Democrats' 24-hour blitz on Senate floor"Los Angeles Times। ফেব্রুয়ারি ৬, ২০১৭। আগস্ট ১৫, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ১৯, ২০২০ 
  100. "Sen. Kamala Harris: 'You Deserve An Attorney General Who Recognizes The Full Human Quality Of All People'"। newsone.com। ফেব্রুয়ারি ৮, ২০১৭। জুন ৮, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ এপ্রিল ২২, ২০২০ 
  101. Cockerham, Sean (মার্চ ২, ২০১৭)। "Kamala Harris calls on attorney general to resign over contacts with the Russians"Sacramento Bee। আগস্ট ১২, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ১৯, ২০২০ 
  102. Adam Liptak; Matt Flegenheimer (এপ্রিল ৮, ২০১৭)। "Neil Gorsuch Confirmed by Senate as Supreme Court Justice"The New York Times। পৃষ্ঠা A1। এপ্রিল ২৯, ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ এপ্রিল ১৫, ২০১৭ 
  103. "Sen. Kamala Harris visits troops, refugee camp in Middle East"ABC News। এপ্রিল ১৭, ২০১৭। জুন ৮, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ মে ১৬, ২০১৯ 
  104. Jalonick, Mary Clare (জুন ৭, ২০১৭)। "Harris Reminded to Be Respectful During Intel Hearing"U.S. News & World Report। Washington, D.C.। Associated Press। আগস্ট ৩, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ১৯, ২০২০ 
  105. Finnegan, Michael (জুন ১৪, ২০১৭)। "Sen. Kamala Harris leaves Sessions 'nervous' in interrogation over his refusal to disclose conversations with Trump"Los Angeles Times। জুলাই ৪, ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ১৯, ২০২০ 
  106. Agence France-Presse (নভেম্বর ৭, ২০২০)। "Kamala Harris: America's first woman vice president"France 24 (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ডিসেম্বর ৫, ২০২০ 
  107. Ansari, M. K. (জুন ৮, ২০১৭)। "The Silencing Of Kamala Harris During The Senate Hearing Was Sexist: Why do people take issue when a woman asks direct questions?"HuffPost। New York। অক্টোবর ১২, ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ১৯, ২০২০ 
  108. Tolan, Casey (ডিসেম্বর ৬, ২০১৭)। "Harris, Feinstein call on Al Franken to resign after sexual harassment allegations"San Jose Mercury News। আগস্ট ১৬, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 
  109. "Lawmakers reflect on Selma beyond Bloody Sunday"WCBI (ইংরেজি ভাষায়)। CBS News। মার্চ ৭, ২০১৮। সংগ্রহের তারিখ ডিসেম্বর ২৩, ২০২০ 
  110. Weigel, David (জানুয়ারি ৯, ২০১৮)। "Democrats add Harris, Booker to Senate Judiciary Committee"The Washington Post। জুন ১১, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ মে ১২, ২০২০ 
  111. Campoy, Ana (জানুয়ারি ১৬, ২০১৮)। "Trump's DHS chief perfectly recalls his praise for Norway—but not "shithole""Quartz 
  112. Richardson, Davis (জানুয়ারি ১৬, ২০১৮)। "Cory Booker and Kamala Harris Grill Kirstjen Nielsen Over Trump's Racial Remarks"The New York Observer 
  113. Bacon, John (মে ১৬, ২০১৮)। "Homeland Security chief defends policy that separates families entering U.S. illegally"USA Today। জুন ৯, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুলাই ৪, ২০২০ 
  114. Sloss, Jason (জুন ২২, ২০১৮)। "'Utter despair': Sen. Harris visits migrant mothers separated from children in San Diego"Fox 5 San Diego। নভেম্বর ১০, ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ নভেম্বর ৯, ২০১৮ 
  115. Byrne, Trapper (জুন ১৮, ২০১৮)। "Kamala Harris says DHS chief should resign over immigrant family separations"Advocate। জুন ৮, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ মে ৮, ২০২০ 
  116. Zhou, Li (সেপ্টেম্বর ৬, ২০১৮)। "Kamala Harris's mysterious Kasowitz question during the Kavanaugh hearings, explained"Vox। জুন ৮, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ মে ৪, ২০২০ 
  117. Ring, Trudy (অক্টোবর ১০, ২০১৮)। "FBI Head Stonewalls as Kamala Harris Grills Him on Kavanaugh Probe"Advocate। নভেম্বর ১০, ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ নভেম্বর ৯, ২০১৮ 
  118. Stanton, Sam; McGough, Mike (অক্টোবর ২৬, ২০১৮)। "Suspicious package in Sacramento addressed to Sen. Kamala Harris, sources say"The Sacramento Bee। জুন ৩০, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ মে ১৫, ২০২০ 
  119. Zaveri, Mihir (ডিসেম্বর ২০, ২০১৮)। "Senate Unanimously Passes Bill Making Lynching a Federal Crime"The New York Timesআইএসএসএন 0362-4331। ডিসেম্বর ২০, ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ফেব্রুয়ারি ৬, ২০১৮ 
  120. "S.3178 – Justice for Victims of Lynching Act of 2018, 115th Congress (2017–2018)"Congress.gov। মার্চ ১১, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 
  121. Clark, Dartunorro (মার্চ ২২, ২০১৯)। "'Release the report. Release the report. Release the report.' 2020 Dems demand Mueller report be made public."NBC News। মে ২০, ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুলাই ৪, ২০২০ 
  122. Sullivan, Margaret (নভেম্বর ১০, ২০১৯)। "Media beware: Impeachment hearings will be the trickiest test of covering Trump"The Washington Post। নভেম্বর ১০, ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ নভেম্বর ১১, ২০১৯ 
  123. Levine, Marianne (এপ্রিল ৩০, ২০১৯)। "Senate Dems call on DOJ watchdog to investigate Barr"Politico। আগস্ট ২, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ১৯, ২০২০ 
  124. Barrett, Devlin; Zapotosky, Matt (এপ্রিল ৩০, ২০১৯)। "Mueller complained that Barr's letter did not capture 'context' of Trump probe"The Washington Post। এপ্রিল ৩০, ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ মে ১৬, ২০২০ 
  125. Jarrett, Laura (মে ২, ২০১৯)। "Barr defiant amid furor over his handling of Mueller report"। CNN। আগস্ট ৯, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ১৯, ২০২০ 
  126. Levin, Bess (মে ১, ২০১৯)। "Kamala Harris Guts Barr Like a Fish, Leaves Him Flopping on the Deck"Vanity Fair। জুন ৬, ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ১৯, ২০২০ 
  127. Stracqualursi, Veronica (মে ২, ২০১৯)। "Kamala Harris accuses Barr of not answering her question to avoid exposure to perjury"। CNN। জুলাই ৩০, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ১৯, ২০২০ 
  128. Shabad, Rebecca (মে ১, ২০১৯)। "Barr defends himself amid calls for resignation, slights Mueller's 'snitty' letter"NBC News। জুন ২৪, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুলাই ৪, ২০২০ 
  129. Levine, Marianne (মে ৩, ২০১৯)। "Harris urges DOJ watchdog to probe whether Trump asked Barr to investigate 'enemies'"Politico। আগস্ট ২, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ১৯, ২০২০ 
  130. Sherman, Amy (মে ১, ২০১৯)। "Kamala Harris says voter suppression kept Stacey Abrams, Andrew Gillum out of office. Really?"PolitiFact। সংগ্রহের তারিখ সেপ্টেম্বর ২০, ২০২১ 
  131. "Calls for UN probe of China forced birth control on Uighurs"। The Associated Press। জুন ৩০, ২০২০। সংগ্রহের তারিখ জুলাই ১, ২০২০ 
  132. "Harris and Blumenthal Demand Special Counsel to Investigate Failure to Preserve Evidence Within DHS and ICE" (সংবাদ বিজ্ঞপ্তি)। U.S. Senator Kamala Harris of California। নভেম্বর ১, ২০১৯। ডিসেম্বর ১৮, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ২১, ২০২০ 
  133. Davis, Georgia (আগস্ট ১১, ২০২০)। "Joe Biden announces Kamala Harris as his running mate. Here is where she stands on LGBTQ issues"GLAAD 
  134. Mathias, Christopher (ডিসেম্বর ৯, ২০১৯)। "Kamala Harris Leads Senators in Demanding 'Immediate Removal' Of Stephen Miller"HuffPost। আগস্ট ২, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ১৯, ২০২০ 
  135. Adler, Madison (জানুয়ারি ১৫, ২০২০)। "Senate Judiciary Pauses Nominations for Impeachment Trial (1)"Bloomberg Law। আগস্ট ৩, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ১৯, ২০২০ 
  136. Weiss, Debra Cassens (জানুয়ারি ১৬, ২০২০)। "Sen. Kamala Harris calls for halt to advancement of judicial nominees; is it happening?"ABA Journal। জুলাই ৫, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুলাই ৪, ২০২০ 
  137. "How senators voted on Trump's impeachment"Politico। ফেব্রুয়ারি ৫, ২০২০। ফেব্রুয়ারি ৫, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ১৯, ২০২০ 
  138. Hamilton, Dawchelle। "Rand Paul and Kamala Harris Team Up to Reform Bail Practices"NBC News। মার্চ ২৩, ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ এপ্রিল ২৭, ২০১৯ 
  139. Matishak, Martin (মার্চ ২২, ২০১৮)। "Lawmakers gather behind election security bill – at last"Politico। মার্চ ২৬, ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ এপ্রিল ২৭, ২০১৯ 
  140. Hensley-Clancy, Molly (জুন ৫, ২০১৮)। "Two Women Senators Will Introduce A New Bill About Workplace Harassment"BuzzFeedNews। এপ্রিল ২১, ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ এপ্রিল ২৭, ২০১৯ 
  141. Harris, Kamala (জানুয়ারি ১৮, ২০২১)। "Thank you, California."Medium.com। সংগ্রহের তারিখ ডিসেম্বর ২২, ২০২০ 
  142. Ronayne, Kathleen (ডিসেম্বর ২২, ২০২০)। "Newsom taps California election chief Padilla for US Senate"Associated Press। সংগ্রহের তারিখ ডিসেম্বর ২২, ২০২০ 
  143. Myers, John (ডিসেম্বর ১৯, ২০১৬)। "Kamala Harris nabs national security, environment assignments in the U.S. Senate"Los Angeles Times। মে ১৪, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ এপ্রিল ২২, ২০২০ 
  144. "Schumer Announces Updated Senate Democratic Committee Memberships for the 115th Congress, 2nd Session"democrats.senate.gov। জানুয়ারি ১০, ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জানুয়ারি ১০, ২০১৮ 
  145. "Members"। Congressional Asian Pacific American Caucus। মে ১৪, ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ মে ১৭, ২০১৮ 
  146. "Membership"। Congressional Black Caucus। এপ্রিল ২৭, ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ মার্চ ৭, ২০১৮ 
  147. Beckett, Lois (জুলাই ২২, ২০১৭)। "Kamala Harris: young, black, female – and the Democrats' best bet for 2020?"The Guardian। সেপ্টেম্বর ২১, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুলাই ১০, ২০১৮ 
  148. Hunt, Kasie (জুন ২৪, ২০১৮)। "Sen. Kamala Harris not ruling out 2020 White House run"NBC News। আগস্ট ৩১, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুলাই ৪, ২০২০ 
  149. Bradner, Eric। "Kamala Harris signs book deal amid 2020 speculation"। অক্টোবর ৮, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ অক্টোবর ১২, ২০১৮ 
  150. Reston, Maeve (জানুয়ারি ২১, ২০১৯)। "Kamala Harris to run for president in 2020"। CNN। জানুয়ারি ২১, ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জানুয়ারি ২১, ২০১৯ 
  151. Beckett, Lois (জানুয়ারি ২৭, ২০১৯)। "Kamala Harris kicks off 2020 campaign with hometown Oakland rally"The Guardian। অক্টোবর ৫, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুলাই ৪, ২০১৯ 
  152. Flegenheimer, Matt; Burns, Alexander (জুন ২৭, ২০১৯)। "Kamala Harris Makes the Case That Joe Biden Should Pass That Torch to Her"The New York Times। অক্টোবর ৮, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ নভেম্বর ৮, ২০২০ 
  153. Agiesta, Jennifer (জুলাই ১, ২০১৯)। "CNN Poll: Harris and Warren rise and Biden slides after first Democratic debates"। CNN। অক্টোবর ১০, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ নভেম্বর ৮, ২০২০ 
  154. Vagianos, Alanna (জুলাই ৩১, ২০১৯)। "Tulsi Gabbard Takes Kamala Harris To Task On Marijuana Prosecution Record"HuffPost। অক্টোবর ৮, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ নভেম্বর ৮, ২০২০ 
  155. Tolan, Casey (আগস্ট ১, ২০১৯)। "Democratic debate: Fact-checking the attacks on Kamala Harris' criminal justice record"San Jose Mercury News। অক্টোবর ৫, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ নভেম্বর ৮, ২০২০ 
  156. Silver, Nate (আগস্ট ৭, ২০১৯)। "Polls Since The Second Debate Show Kamala Harris Slipping"FiveThirtyEight। অক্টোবর ১০, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ২৫, ২০১৯ 
  157. Bacon Jr., Perry (অক্টোবর ৮, ২০১৯)। "What Happened to the Kamala Harris Campaign?"FiveThirtyEight। অক্টোবর ৮, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ডিসেম্বর ৩, ২০১৯ 
  158. Dolan, Maura (আগস্ট ২১, ২০১৪)। "California AG Kamala Harris to appeal ruling against death penalty"Los Angeles Times। অক্টোবর ১৪, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ নভেম্বর ৮, ২০২০ 
  159. "Analysis | The Technology 202: Kamala Harris is already facing online attacks in her bid for the vice presidency"Washington Post (ইংরেজি ভাষায়)। অক্টোবর ৫, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ১৬, ২০২০ 
  160. Zakrzewski, Cat (আগস্ট ১৩, ২০২০)। "Kamala Harris is already facing online attacks in her bid for the vice presidency"Washington Post (ইংরেজি ভাষায়)। অক্টোবর ৫, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ১৫, ২০২০ 
  161. Zhou, Li (জুলাই ২৫, ২০১৯)। "The #KHive, Kamala Harris's most devoted online supporters, explained"Vox (ইংরেজি ভাষায়)। অক্টোবর ১৪, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ১৫, ২০২০ 
  162. Bixby, Scott (আগস্ট ১২, ২০২০)। "Kamala Harris Built a 'Digital Army' – Now She Gets to Use It"The Daily Beast (ইংরেজি ভাষায়)। অক্টোবর ৯, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ১৫, ২০২০ 
  163. Thomas, Alex (আগস্ট ১২, ২০২০)। "What Is the K-Hive, Kamala Harris' Online Twitter Support?"The Daily Dot (ইংরেজি ভাষায়)। অক্টোবর ৫, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ১৬, ২০২০ 
  164. Harris, Kamala। "I am suspending my campaign today"Medium। অক্টোবর ১০, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ডিসেম্বর ৪, ২০১৯ 
  165. Wootson Jr., Cleve R.। "Sen. Kamala D. Harris endorses Joe Biden for president"The Washington Post। অক্টোবর ৮, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ মার্চ ৯, ২০২০ 
  166. Caygle, Heather (মে ১২, ২০১৯)। "'A dream ticket': Black lawmakers pitch Biden-Harris to beat Trump"Politico। অক্টোবর ৮, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ মে ৩, ২০২০ 
  167. Timm, Jane C.; Gregorian, Dareh (মার্চ ১০, ২০২০)। "Clyburn calls for Democrats to 'shut this primary down' if Biden has big night"NBC News। জুলাই ৩০, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুলাই ৪, ২০২০ 
  168. "Joe Biden commits to picking a woman as his running mate"Axios। মার্চ ১৬, ২০২০। অক্টোবর ৮, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ মে ৩, ২০২০ 
  169. Garofoli, Joe; Kopan, Tal (এপ্রিল ১৭, ২০২০)। "Kamala Harris 'would be honored' to be Joe Biden's running mate"San Francisco Chronicle। অক্টোবর ৮, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ মে ৩, ২০২০ 
  170. Caputo, Marc; Korecki, Natasha (মে ৩১, ২০২০)। "Minneapolis unrest shakes up VP shortlist"Politico। অক্টোবর ৫, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ মে ৩১, ২০২০ 
  171. Leonhardt, David (জুন ১২, ২০২০)। "Kamala Harris, Front-runner (Again)"The New York Times। অক্টোবর ১২, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুন ১২, ২০২০ 
  172. Zeleny, Jeff; Merica, Dan (জুন ২৬, ২০২০)। "Nation's reckoning on race looms large over final month of Biden's running mate search"CNN। অক্টোবর ৯, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুন ২৭, ২০২০ 
  173. "Biden VP pick: Kamala Harris chosen as running mate"BBC News। আগস্ট ১১, ২০২০। অক্টোবর ১০, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ১১, ২০২০ 
  174. Blood, Michael R.; Riccardi, Nicholas (ডিসেম্বর ৫, ২০২০)। "Biden officially secures enough electors to become president"AP News। সংগ্রহের তারিখ ডিসেম্বর ২২, ২০২০ 
  175. Chowdhury, Shatabdi (ডিসেম্বর ১৬, ২০২০)। ""We Did It, Joe": Top 10 Tweets Of 2020"NDTV (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ডিসেম্বর ১৬, ২০২০ 
  176. Tensley, Brandon; Wright, Jasmine (নভেম্বর ৭, ২০২০)। "Harris bursts through another barrier, becoming the first female, first Black and first South Asian vice president-elect"CNN। নভেম্বর ৭, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ নভেম্বর ৮, ২০২০ 
  177. Horowitz, Juliana Menasce; Budiman, Abby (আগস্ট ১৮, ২০২০)। "Key findings about multiracial identity in the U.S. as Harris becomes vice presidential nominee"Pew Research Center (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ নভেম্বর ৮, ২০২০ 
  178. McEvoy, Jemima (নভেম্বর ৭, ২০২০)। "Kamala Harris Makes History As First Female, Black, Asian American Vice President"Forbes। সংগ্রহের তারিখ নভেম্বর ১৩, ২০২০ 
  179. Solender, Andrew (আগস্ট ১২, ২০২০)। "Here Are The 'Firsts' Kamala Harris Represents With VP Candidacy"Forbes। সেপ্টেম্বর ২, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ নভেম্বর ৮, ২০২০Harris would not be the first person of color to serve as vice president. That honor belongs to Charles Curtis, President Herbert Hoover's No. 2. 
  180. Hayes, Christal (জানুয়ারি ২০, ২০২১)। "Democrats officially take control of Senate after Harris swears in Ossoff, Warnock and Padilla"USA Today (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ জানুয়ারি ২১, ২০২১ 
  181. Pramuk, Jacob (জানুয়ারি ২০, ২০২১)। "Democrats take Senate majority, sealing control of the White House and Congress"CNBC 
  182. Segers, Grace (ফেব্রুয়ারি ৫, ২০২১)। "Senate passes $1.9 trillion COVID relief resolution after all-night 'vote-a-rama'"CBS News 
  183. Singh, Maanvi; Greve, Joan E. (মার্চ ৫, ২০২১)। "Kamala Harris breaks Senate tie to begin Covid relief package debate – as it happened"The Guardian (ইংরেজি ভাষায়)। আইএসএসএন 0261-3077। সংগ্রহের তারিখ মার্চ ৫, ২০২১ 
  184. Cohn, Alicia। "Pence became ultimate tie-breaker in 2017"The Hill। সংগ্রহের তারিখ ২৫ অক্টোবর ২০২১ 
  185. "Votes to Break Ties in the Senate"senate.gov। সংগ্রহের তারিখ ২৫ অক্টোবর ২০২১ 
  186. "Senate.gov: VPTies.pdf" (PDF)। মে ২, ২০১৭ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ফেব্রুয়ারি ৫, ২০১৮ 
  187. Dale, Daniel (এপ্রিল ২৮, ২০২১)। "New York Post temporarily deletes, then edits false story that claimed Harris' book was given out in migrant 'welcome kits'"CNN। সংগ্রহের তারিখ এপ্রিল ৩০, ২০২১ 
  188. Waterson, Jim (এপ্রিল ২৮, ২০২১)। "New York Post reporter quits citing pressure to write incorrect story about Kamala Harris"The Guardian। সংগ্রহের তারিখ এপ্রিল ৩০, ২০২১ 
  189. Allie Bice (এপ্রিল ২৫, ২০২১)। "Harris says she had key role in Biden's Afghanistan withdrawal decision"Politico। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ২০, ২০২১ 
  190. Rothkopf, David (২০২১-১২-১৭)। "Kamala's Conundrum: She's Doing a Great Job But Her Story's Not Getting Out"The Daily Beast (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২২-০১-০২ 
  191. Egan, Lauren (জুন ৭, ২০২১)। "Harris takes first steps onto world stage, into migration spotlight"NBC News (ইংরেজি ভাষায়)। 
  192. Rodriguez, Sabrina (জুন ৭, ২০২১)। "Harris' blunt message in Guatemala: 'Do not come' to U.S."POLITICO (ইংরেজি ভাষায়)। 
  193. Rogers, Katie (২০২১-১১-১০)। "Harris Meets Macron, Signaling a 'New Era' After Sub Snub, Both Say"The New York Times (ইংরেজি ভাষায়)। আইএসএসএন 0362-4331। ২০২১-১১-১০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০২২-০১-০২ 
  194. Tracy, Abigail (১৮ নভেম্বর ২০২১)। "Top Kamala Harris aide heads for the exit"Vanity Fair। সংগ্রহের তারিখ ১৮ নভেম্বর ২০২১ 
  195. Miller, Zeke (১৯ নভেম্বর ২০২১)। "Biden to have routine colonoscopy, transfer power to Harris"Associated Press NewsBethesda: Associated Press। সংগ্রহের তারিখ ১৯ নভেম্বর ২০২১ 
  196. Feinberg, Andrew (১৯ নভেম্বর ২০২১)। "'First woman president': Kamala Harris makes history when she briefly assumes powers of presidency during Biden procedure"The Independent। সংগ্রহের তারিখ ১৯ নভেম্বর ২০২১ 
  197. Pengelly, Martin (২০২১-১১-১৯)। "Kamala Harris takes on presidential role – briefly – as Biden has colonoscopy"The Guardian (ইংরেজি ভাষায়)। 
  198. Tomlinson, Hugh (১৭ মার্চ ২০২২)। "Fresh woe for Kamala Harris as another adviser quits"The Times (ইংরেজি ভাষায়)। 
  199. Reber, Deborah (২০১৫)। In Their Shoes: Extraordinary Women Describe Their Amazing CareersSimon Pulse। পৃষ্ঠা 37। আইএসবিএন 978-1-4814-2812-5। অক্টোবর ২৩, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ নভেম্বর ৮, ২০২০ 
  200. Zernike, Kate (মে ১৮, ২০০৮)। "She Just Might Be President Someday"The New York Times। এপ্রিল ৬, ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ নভেম্বর ১৬, ২০১৮ 
  201. Pelosi, Nancy (এপ্রিল ১৮, ২০১৩)। "Kamala Harris Jurist to watch, 48"Time। এপ্রিল ২০, ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ এপ্রিল ১৮, ২০১৩ 
  202. D'Souza, Shaad (সেপ্টেম্বর ২৩, ২০২০)। "Megan Thee Stallion, The Weeknd, Halsey make TIME 100 list"The Fader (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ডিসেম্বর ৫, ২০২১ 
  203. Parsley, Aaron (সেপ্টেম্বর ১৫, ২০২১)। "Bernie Sanders and Cindy McCain Write Tributes for Biden and Other Leaders on TIME 100 List"People (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ডিসেম্বর ৫, ২০২১ 
  204. "20/20 Award Winners"2020 Club। অক্টোবর ৮, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ নভেম্বর ৮, ২০২০ 
  205. (ইংরেজি ভাষায়) https://time.com/person-of-the-year-2020-joe-biden-kamala-harris/। সংগ্রহের তারিখ ডিসেম্বর ১১, ২০২০  |শিরোনাম= অনুপস্থিত বা খালি (সাহায্য)
  206. Gross, Elana Lyn; Voytko, Lisette (জুন ২, ২০২১)। "The New Golden Age"Forbes। সংগ্রহের তারিখ জুন ২, ২০২১ 
  207. "Speakers, Honorary Degree Recipients: 2000 to present | USC"। সেপ্টেম্বর ২১, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ নভেম্বর ৮, ২০২০ 
  208. "Past Recipients · Honorary Degrees"honorarydegrees.usc.edu। অক্টোবর ৫, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ নভেম্বর ৮, ২০২০ 
  209. Dalton, Autumn (মে ৩, ২০১৭)। "Howard University Commencement Honors Groundbreaking Women"Howard University News Service। জুলাই ৭, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ মে ২৬, ২০২০ 
  210. "Recipients of Honorary Degrees (By Year) – Office of the Secretary"। Howard University। এপ্রিল ২৭, ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ১২, ২০২০ 
  211. "Senator Kamala Harris Challenges Howard University Graduates to Forge a Way Forward"Howard Newsroom। মে ১৩, ২০১৭। অক্টোবর ৫, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ নভেম্বর ৮, ২০২০ 
  212. Wright, Jasmine; Stracqualursi, Veronica (জানুয়ারি ১৫, ২০২১)। "Harris and Emhoff recall first date: 'It felt like we had known each other forever'"CNN। সংগ্রহের তারিখ জানুয়ারি ১৮, ২০২১ 
  213. "Douglas C. Emhoff"Venable LLP। জুলাই ৬, ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ মে ২৮, ২০১৪ 
  214. Siders, David (আগস্ট ২৫, ২০১৪)। "Kamala Harris married in Santa Barbara ceremony"The Sacramento Bee। আগস্ট ১৭, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ নভেম্বর ৮, ২০২০ 
  215. Harris, Kamala (মে ১০, ২০১৯)। "Sen. Kamala Harris on Being 'Momala'"ELLE। আগস্ট ১২, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ মে ১১, ২০১৯ 
  216. "The Net Worth Of Every 2020 Presidential Candidate"Forbes। আগস্ট ১৪, ২০১৯। আগস্ট ২৩, ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ২৪, ২০১৯ 
  217. Mwaura, Maina (অক্টোবর ২৮, ২০২০)। "Kamala Harris talks about her own faith and how it might influence a Biden-Harris White House"Religion News Service। সংগ্রহের তারিখ নভেম্বর ৯, ২০২০ 
  218. Schor, Elana (আগস্ট ১২, ২০২০)। "Harris brings Baptist, interfaith roots to Democratic ticket"Washington post। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ১৩, ২০২০ 
  219. "5 faith facts about Biden's veep pick, Kamala Harris – a Baptist with Hindu family"The Salt Lake Tribune (ইংরেজি ভাষায়)। আগস্ট ১২, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ১৩, ২০২০ 
  220. "Find A Church"ABCUSA (ইংরেজি ভাষায়)। আগস্ট ৬, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ১৩, ২০২০ 
  221. "America's black upper class and Black Lives Matter"The Economist। আগস্ট ২২, ২০২০। সংগ্রহের তারিখ জুলাই ২১, ২০২১ 
  222. Pitts, Myron B.। "Myron B. Pitts: Sen. Kamala Harris, VP-elect, shines light on The Links"The Fayetteville Observer (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২২-০২-০৭ 
  223. Shaban, Hamza (অক্টোবর ২৭, ২০১৭)। "Uber hires PepsiCo's Tony West as general counsel"The Washington Post। অক্টোবর ২৮, ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 
  224. Kratofil, Colleen (জুন ১৭, ২০২০)। "Meet Meena Harris, the Designer and Activist Behind the Viral 'Phenomenally Black' T-Shirt"PEOPLE.com। নভেম্বর ৬, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ নভেম্বর ৮, ২০২০ 
  225. Shaw-Ellis, Daisy (আগস্ট ১৭, ২০২০)। https://www.vanityfair.com/style/2020/08/kamala-harris-pearl-necklace-symbolism-beyond-politics। সংগ্রহের তারিখ জুন ২০, ২০২১  |শিরোনাম= অনুপস্থিত বা খালি (সাহায্য)
  226. Copeland, Shelby (অক্টোবর ৮, ২০২০)। "The Real Meaning Behind Kamala Harris' Pearl Necklaces"Oprah Daily। সংগ্রহের তারিখ জুন ২০, ২০২১ 
  227. Newman, Jill (জানুয়ারি ২০, ২০২১)। "The Poignant Meaning Behind Kamala Harris's Inauguration Jewelry"Town & Country। সংগ্রহের তারিখ জুন ২০, ২০২১ 
  228. Harris, Kamala (২০১৯)। The Truths We Hold: An American JourneyPenguin Books। পৃষ্ঠা 10। আইএসবিএন 978-1-984886-22-4। সংগ্রহের তারিখ জুন ২০, ২০২১