জো বাইডেন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
জো বাইডেন
Joe Biden
Joe Biden official portrait 2013.jpg
দাপ্তরিক পোট্রেট, ২০১৩
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ৪৬তম রাষ্ট্রপতি
দায়িত্বাধীন
অধিকৃত কার্যালয়
২০ জানুয়ারি ২০২১
উপরাষ্ট্রপতিকমলা হ্যারিস
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ৪৭তম উপরাষ্ট্রপতি
কাজের মেয়াদ
২০ জানুয়ারি ২০০৯ – ২০ জানুয়ারি ২০১৭
রাষ্ট্রপতিবারাক ওবামা
পূর্বসূরীডিক চেনি
উত্তরসূরীমাইক পেন্স
ডেলাওয়্যার থেকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সিনেট
কাজের মেয়াদ
১৩ জানুয়ারি ১৯৭৩ – ১৫ জানুয়ারি ২০০৯
পূর্বসূরীজে. ক্যালেব বগস
উত্তরসূরীটেড কফম্যান
পররাষ্ট্র সম্পর্ক বিষয়ক সিনেট কমিটির প্রধান
কাজের মেয়াদ
৩ জানুয়ারি ২০০৭ – ৩ জানুয়ারি ২০০৯
পূর্বসূরীরিচার্ড লুগার
উত্তরসূরীজন কেরি
কাজের মেয়াদ
৬ জুন ২০০১ – ৩ জানুয়ারি ২০০৩
পূর্বসূরীজেসি হেমস
উত্তরসূরীরিচার্ড লুগার
কাজের মেয়াদ
৩ জানুয়ারি ২০০১ – ২০ জানুয়ারি ২০০১
পূর্বসূরীজেসি হেমস
উত্তরসূরীজেসি হেমস
আন্তর্জাতিক মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ কাউকাসের প্রধান
কাজের মেয়াদ
৩ জানুয়ারি ২০০৭ – ৩ জানুয়ারি ২০০৯
পূর্বসূরীচাক গ্র্যাসলি
উত্তরসূরীডায়ান ফেইনস্টেইন
বিচার বিভাগীয় সিনেট কমিটির প্রধান
কাজের মেয়াদ
৩ জানুয়ারি ১৯৮৭ – ৩ জানুয়ারি ১৯৯৫
পূর্বসূরীস্ট্রম থারমন্ড
উত্তরসূরীওরিন হ্যাচ
৪৬ তম
কাজের মেয়াদ
৪ নভেম্বর ১৯৭০ – ৮ নভেম্বর ১৯৭২
পূর্বসূরীহেনরি ফলসম
উত্তরসূরীফ্রান্সিস সুইফট
ব্যক্তিগত বিবরণ
জন্মজোসেফ রবিনেট বাইডেন জুনিয়র
(1942-11-20) ২০ নভেম্বর ১৯৪২ (বয়স ৭৮)
স্ক্র্যান্টন, পেন্সিলভেনিয়া, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র
রাজনৈতিক দলডেমোক্র্যাটিক
দাম্পত্য সঙ্গীনেইলিয়া হান্টার
(বি. ১৯৬৬; মৃ. ১৯৭২)

জিল জ্যাকবস (বি. ১৯৭৭)
সন্তান
পিতামাতা
  • জোসেফ আর. বাইডেন সিনিয়র
  • ক্যাথরিন ইউজেনিয়া ফিনেগান
আত্মীয়স্বজনএডওয়ার্ড ফ্রান্সিস ব্লেউইট
(প্র-পিতামহ)
শিক্ষাডেলাওয়্যার বিশ্ববিদ্যালয় (কলা স্নাতক)
সিরাকিউজ বিশ্ববিদ্যালয় (আইনে ডক্টরেট)
পেশা
  • রাজনীতিবিদ
  • আইনজীবী
  • লেখক
পুরস্কারসম্মাননাসহ প্রেসিডেনশিয়াল মেডেল অব ফ্রিডম (২০১৭)
স্বাক্ষর
ওয়েবসাইটপ্রচারণার ওয়েবসাইট

জোসেফ রবিনেট বাইডেন জুনিয়র (জন্ম ২০ নভেম্বর ১৯৪২) একজন মার্কিন রাজনীতিবিদ এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ৪৬তম রাষ্ট্রপতি। ২০২০ সালের মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ক্ষমতাসীন ডোনাল্ড ট্রাম্পকে পরাজিত করার পর ২০২১ সালের ২০ জানুয়ারি তিনি ৪৬তম রাষ্ট্রপতি হিসেবে শপথ গ্রহণ করেন। ডেমোক্রেটিক পার্টির একজন সদস্য বাইডেন এর আগে ২০০৯ থেকে ২০১৭ সাল পর্যন্ত ৪৭তম ভাইস প্রেসিডেন্ট এবং ১৯৭৩ থেকে ২০০৯ সাল পর্যন্ত ডেলাওয়্যারের জন্য মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সিনেটর হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন।

স্ক্র্যানটন, পেনসিলভানিয়া এবং নিউ ক্যাসেল কাউন্টি, ডেলাওয়্যারে বেড়ে ওঠা বাইডেন ১৯৬৮ সালে সিরাকিউজ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আইন ডিগ্রি অর্জন করার আগে ডেলাওয়্যার বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করেন। তিনি ১৯৭০ সালে নিউ ক্যাসেল কাউন্টি কাউন্সিলর নির্বাচিত হন। তিনি ১৯৭২ সালে মাত্র ২৯ বছর বয়সে আমেরিকার ইতিহাসে ষষ্ঠ সর্বকনিষ্ঠ সিনেটর হিসেবে ডেলাওয়্যার থেকে মার্কিন সিনেটে নির্বাচিত হন । বাইডেন সিনেটের বৈদেশিক সম্পর্ক কমিটির দীর্ঘদিনের সদস্য ছিলেন এবং সর্বশেষ এর চেয়ারম্যানও নির্বাচিত হয়েছিলেন। তিনি ১৯৯১ সালে উপসাগরীয় যুদ্ধের বিরোধিতা করেন, কিন্তু পূর্ব ইউরোপে ন্যাটো জোট সম্প্রসারণ এবং ১৯৯০ সালে যুগোস্লাভ যুদ্ধে হস্তক্ষেপ সমর্থন করেন। তিনি ২০০২ সালে ইরাক যুদ্ধ অনুমোদন প্রস্তাব সমর্থন করেন, কিন্তু ২০০৭ সালে মার্কিন সৈন্য বৃদ্ধির বিরোধিতা করেন। তিনি ১৯৮৭ থেকে ১৯৯৫ সাল পর্যন্ত সিনেটের বিচার বিভাগীয় কমিটির সভাপতিত্ব করেন, মাদক নীতি, অপরাধ প্রতিরোধ এবং নাগরিক স্বাধীনতা বিষয়ক বিষয় নিয়ে কাজ করেন; তিনি সহিংস অপরাধ নিয়ন্ত্রণ এবং আইন প্রয়োগকারী আইন এবং নারী নির্যাতন আইনপাস করার প্রচেষ্টার নেতৃত্ব দেন । তিনি ছয়টি মার্কিন সুপ্রিম কোর্টের নিশ্চিতকরণ শুনানি তত্ত্বাবধান করেন, যার মধ্যে রবার্ট বোর্ক এবং ক্লারেন্স থমাসের বিতর্কিত শুনানি রয়েছে । তিনি ১৯৮৮ ও ২০০৮ সালে রাষ্ট্রপতি মনোনয়ন চাইলেও পাননি ।

বাইডেন ছয়বার সিনেটে পুনর্নির্বাচিত হন, এবং চতুর্থ সর্বোচ্চ সিনেটর ছিলেন । তিনি ২০০৮ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে জয়লাভের পর বারাক ওবামার ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ওবামা এবং বাইডেন ২০১২ সালে পুনর্নির্বাচিত হন। ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে, বাইডেন মহা মন্দা প্রতিরোধে ২০০৯ সালে অবকাঠামো ব্যয় তত্ত্বাবধান করেন। কংগ্রেশনাল রিপাবলিকানদের সাথে তার সমঝোতা ২০১০ সালের কর ত্রাণ আইন সহ আইন পাশ করতে সাহায্য করেছে, যা কর অচলাবস্থার সমাধান করেছে; ২০১১ সালের বাজেট নিয়ন্ত্রণ আইন,যা ঋণের ঊর্ধ্বসীমা সংকটের সমাধান করেছে। । তিনি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র-রাশিয়া নতুন সূচনা চুক্তিপাস করার প্রচেষ্টা, লিবিয়ায় সামরিক হস্তক্ষেপসমর্থন, এবং ২০১১ সালে মার্কিন সৈন্য প্রত্যাহারের মাধ্যমে ইরাকের প্রতি মার্কিন নীতি প্রণয়নে সহায়তা করেন। স্যান্ডি হুক প্রাথমিক বিদ্যালয় গুলি করার পর তিনি বন্দুক সহিংসতা টাস্ক ফোর্স নেতৃত্ব দেন। ২০১৭ সালের জানুয়ারি মাসে ওবামা বাইডেনকে স্বাধীনতার রাষ্ট্রপতি পদক প্রদান করেন।

২০১৯ সালের এপ্রিল মাসে বাইডেন ২০২০ সালের রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের[১] প্রার্থীতা ঘোষণা করেন এবং তিনি ২০২০ সালের জুন দলের মনোনয়ন নিশ্চিত করার জন্য প্রয়োজনীয় প্রতিনিধির সীমায় পৌঁছান। ১১ আগস্ট তিনি ক্যালিফোর্নিয়ার মার্কিন সিনেটর কমলা হ্যারিসকে তার ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে ঘোষণা করেন। বাইডেন ৩ নভেম্বর [২] প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের বিরুদ্ধে ২০২০ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে জয়লাভ করেন। তিনি শুধুমাত্র দ্বিতীয় অ-ক্ষমতাসীন উপরাষ্ট্রপতি যিনি ১৯৬৮ সালে রিচার্ড নিক্সন[৩] ছাড়াও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হন।

প্রাথমিক জীবন (১৯৪২–১৯৬৫)[সম্পাদনা]

১০ বছর বয়সী বাইডেন (১৯৫৩)

জোসেফ রবিনেট বাইডেন জুনিয়র ১৯৪২ সালের ২০ নভেম্বর,[৪] পেনসিলভেনিয়ার স্ক্র্যান্টনের সেন্ট মেরি হাসপাতালে,[৫] ক্যাথরিন ইউজেনিয়া "জিন" বাইডেন (জন্ম ফিনেগেন) এবং জোসেফ রবিনেট বাইডেন সিনিয়র-এর ঘরে জন্মগ্রহণ করেন।[৬][৭] একটি ক্যাথলিক পরিবারের বড় সন্তান তিনি, তার এক বোন, ভ্যালারী এবং ফ্রান্সিস এবং জেমস নামে দুই ভাই রয়েছে।[৮] জিন আইরিশ বংশোদ্ভূত ছিলেন,[৯][১০][১১] অন্যদিকে জোসেফ সিনিয়র ছিলেন একজন ইংরেজ, ফরাসী এবং আইরিশ বংশধর।[১২][১১]

বাইডেনের বাবা ধনী ছিলেন, কিন্তু বাইডেনের জন্মের সময়কালে আর্থিক জটিলতায় পড়েছিলেন,[১৩][১৪][১৫] এবং বেশ কয়েক বছর ধরে পরিবারটি বাইডেনের মাতামহ-নানার সাথে থাকতো।[১৬] ১৯৫০-এর দশকে স্ক্র্যান্টন অর্থনৈতিক পতনের মধ্যে পড়ে গিয়েছিলো এবং বাইডেনের বাবা নির্দিষ্ট কোন কাজ খুঁজে পেলেন না।[১৭] ১৯৫৩ সালের শুরুতে, ডেলাওয়্যারের উইলমিংটনের একটি বাড়িতে যাওয়ার আগে, পরিবারটি ডেলাওয়্যারের ক্লেমন্টে একটি অ্যাপার্টমেন্টে বাস করত।[১৬] বাইডেন সিনিয়র পরে একজন সফল পুরনো গাড়ী বিক্রেতা হয়ে ওঠেন, এবং মধ্যবিত্ত জীবনযাপনে পরিবারকে বজায় রেখেছিলেন।[১৬][১৭][১৮]

ক্লেমন্টের আর্কমিয়ার একাডেমিতে,[১৯] বাইডেন বেসবল খেলতেন এবং তিনি উচ্চ বিদ্যালয়ের ফুটবল দলের স্ট্যান্ডআউট হাফব্যাক এবং প্রশস্ত রিসিভার ছিলেন।[১৬][২০][১৬] একজন দরিদ্র ছাত্র হওয়া সত্বেও, তিনি তার কনিষ্ঠ ও জ্যেষ্ঠ বছরগুলোতে শ্রেণী প্রতিনিধি ছিলেন।[২১][২২] তিনি ১৯৬১ সালে তার স্নাতক সম্পন্ন করেন।[২৩]

নেওয়ার্কের ডেলাওয়্যার বিশ্ববিদ্যালয়ে, বাইডেন সংক্ষিপ্তভাবে নবীন হিসাবে ফুটবল খেলেন[২৪][২৫] এবং একজন অব্যক্ত শিক্ষার্থী হিসাবে,[২৬] ১৯৬৫ সালে ইতিহাসরাষ্ট্রবিজ্ঞানে সম্মিলিত ডিগ্রি এবং ইংরেজিতে একটি গৌণ ডিগ্রির সাথে কলা স্নাতক ডিগ্রি (Bachelor of Arts) অর্জন করেন।[২৭][২৮]

বাইডেনের তোতলামি রয়েছে, যা তার প্রাথমিক বিশের দশক থেকে উন্নত হতে শুরু হয়েছে।[২৯] তিনি বলেছেন যে তিনি আয়নার সামনে কবিতা আবৃত্তি করে এটি হ্রাস করেছেন,[২২][৩০] তবে তাকে পরামর্শ দেওয়া হয়েছে যে এটি ২০২০ সালের ডেমোক্রেটিক পার্টির রাষ্ট্রপতি বিতর্কে তার কর্মদক্ষতাকে প্রভাবিত করতে পারে।[৩১]

বিয়ে, আইন বিদ্যালয়, এবং প্রাথমিক জীবন (১৯৬৬ – ১৯৭২)[সম্পাদনা]

বাইডেন ডেলাওয়্যার বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৯৬৫ শিক্ষাবর্ষে

১৯৬৬ সালের ২৭ আগস্ট, একজন রোমান ক্যাথলিকের সঙ্গে নিজের মেয়ের বিয়ে বাবা-মায়ের এই অনীহা কাটিয়ে ওঠার পরে বাইডেন সিরাকিউজ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী নিলিয়া হান্টারকে (১৯৪২ – ১৯৭২) বিয়ে করেন;[২৭] নিউইয়র্কের স্কানেটেলসের একটি ক্যাথলিক গির্জায় এই অনুষ্ঠানটি অনুষ্ঠিত হয়েছিল।[৩২] তাদের তিনটি সন্তান ছিল: জোসেফ আর. "বিউ" বাইডেন তৃতীয় (১৯৬৯ – ২০১৫), রবার্ট হান্টার বাইডেন (জন্ম ১৯৭০) এবং নওমি ক্রিস্টিনা "অ্যামি" বাইডেন (১৯৭১ – ১৯৭২)।[২৭]

১৯৬৮ সালে, বাইডেন সিরাকিউস ইউনিভার্সিটি কলেজ অফ ল থেকে আইনশাস্ত্রে ডক্টর ডিগ্রি অর্জন করেন, ৮৫তম ব্যাচে ৭৬তম স্থান অর্জন করেছিলেন, স্বীকৃতিপ্রাপ্ত "ভুলের" কারণে কোর্সে ব্যর্থ হওয়ার পরে যখন তিনি আইন বিদ্যালয়ে তার প্রথম বর্ষে লিখা একটি পত্রিকার জন্য একটি আইন পর্যালোচনা নিবন্ধ চৌর্যবৃত্তি করেছিলেন।[২৬] তিনি ১৯৬৯ সালে ডেলাওয়্যার বারে ভর্তি হন।[৩৩]

১৯৬৮ সালে, বাইডেন বিশিষ্ট স্থানীয় রিপাবলিকান উইলিয়াম প্রিকেটের অধীনে উইলমিংটনের একটি ল ফার্মে ক্লার্ক হয়েছিলেন, এবং পরে তিনি বলেছিলেন, "নিজেকে আমি রিপাবলিকান হিসাবে ভাবি।"[৩৪][৩৫] তিনি ডেমোক্রেটিকের ডেলাওয়্যার গভর্নর চার্লস এল. টেরির রক্ষণশীল জাতিগত রাজনীতিকে অপছন্দ করতেন এবং ১৯৬৮ সালে টেরিকে পরাজিত করেন এমন একজন উদারপন্থী রিপাবলিকান রাসেল ডাব্লুউ. পিটারসনকে সমর্থন করেছিলেন।[৩৪] বাইডেনকে স্থানীয় রিপাবলিকানদের কর্তৃক নিয়োগ দেওয়া হয়েছিল, কিন্তু রিপাবলিকান প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী রিচার্ড নিক্সনের জন্য তার নিরবতা কারণে একজন স্বাধীন প্রার্থী হিসাবে নিবন্ধিত হন।[৩৪]

১৯৬৯ সালে, বাইডেন জনসাধারণের প্রতিনিধি (Public defender) হিসাবে প্রথম আইন অনুশীলন করেন এবং তারপরে স্থানীয়ভাবে একজন সক্রিয় ডেমোক্র্যাটের[৩৬][৩৪] নেতৃত্বে এমন একটি প্রতিষ্ঠানে অনুশীলন করেন, যিনি তাঁকে ডেমোক্র্যাটিক ফোরামে হিসাবে নামকরণ করেন, যে দলটি রাষ্ট্রীয় দলের সংস্কার এবং পুনরুজ্জীবিত করার চেষ্টা করছিল;[৩৭] পরবর্তীকালে বাইডেন ডেমোক্র্যাট হিসাবে পুনঃনিবন্ধিত হন।[৩৪] তিনি এবং আরেকজন অ্যাটর্নি মিলে একটি আইন সংস্থাও গঠন করেছিলেন।[৩৬] যাইহোক, কর্পোরেট আইন তাকে আকর্ষণ করেনি, এবং ফৌজদারি আইন ভালভাবে সম্পন্ন করেননি।[১৬] তিনি সম্পত্তি পরিচালনার দ্বারা তার আয় সম্পূরন করেন।[৩৮]

১৯৭০ সালের বাইডেন নিউ ক্যাসল কাউন্টি কাউন্সিলের একটি উদার প্ল্যাটফর্মে চতুর্থ জেলা আসনের হয়ে দৌড়ে ছিলেন, যার মধ্যে শহরতলিতে জনসাধারণের আবাসনের জন্য সমর্থন অন্তর্ভুক্ত ছিল।[৩৯][৩৬][৪০] এই আসনটি রিপাবলিকান হেনরি আর. ফলসমের হাতে ছিল, যিনি কাউন্সিলের জেলাগুলোর পুনর্বিবেচনার পরে পঞ্চম জেলা আসনের দৌড়ে ছিলেন।[৪১][৪২][৪৩] বাইডেন সাধারণ নির্বাচনে বিজয়ী হন এবং ১৯৭১ সালের ৫ জানুয়ারি দায়িত্ব গ্রহণ করেন।[৪৪][৪৫] তিনি ১৯৭৩ সালের ১ জানুয়ারি পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করেন এবং ডেমোক্র্যাট ফ্রান্সিস আর. সুইফট তাঁর স্থলাভিষিক্ত হন।[৪৬][৪৭][৪৮][৪৯] তিনি কাউন্টি কাউন্সিলে দায়িত্ব পালনকালে বড় বড় হাইওয়ে প্রকল্পগুলোর বিরোধিতা করেছিলেন, তিনি যুক্তি দিয়েছিলেন যে উইলমিংটনের পাড়াগুলোকে এগুলো ব্যাহত করতে পারে।[৫০]

১৯৭২ সালের ডেলাওয়্যারে মার্কিন সিনেট প্রচারণা[সম্পাদনা]

১৯৭২ সালের ডেলাওয়্যারের মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সিনেট নির্বাচনের ফলাফল

১৯৭২ সালে বাইডেন পদে থাকাকালীন রিপাবলিকান জে. কালেব বোগসকে পরাজিত করে ডেলাওয়্যার থেকে কনিষ্ঠ মার্কিন সিনেটর হন। তিনিই একমাত্র ডেমোক্র্যাট ছিলেন, যিনি বোগসকে চ্যালেঞ্জ জানাতে ইচ্ছুক ছিলেন।[৩৬] ন্যূনতম প্রচার তহবিলের সাথে, তার জয়ের কোনও সুযোগ ছিলো না।[১৬] পরিবারের সদস্যরা ও কর্মচারীরা এই প্রচারণটি পরিচালনা করেছিলেন, ভোটারদের মুখোমুখি সাক্ষাৎ এবং হস্ত বিতরণকারী অবস্থানের কাগজপত্রের উপর নির্ভর করে,[৫১] যা ডেলাওয়ারের ছোট আকার বলেই সম্ভব হয়েছিল।[৩৮] তিনি এএফএল–সিআইও এবং ডেমোক্র্যাটিক পোলস্টার (জনমতসম্বন্ধে ভোট-গ্রহণাদিত্র দক্ষ ব্যক্তি) প্যাট্রিক ক্যাডেলের কাছ থেকে সহায়তা পেয়েছিলেন।[৩৬] তার প্রচারের মাধ্যম ছিল পরিবেশ, ভিয়েতনাম থেকে প্রত্যাহার, নাগরিক অধিকার, গণপরিবহন, ন্যায়সঙ্গত কর, স্বাস্থ্যসেবা এবং "যথারীতি রাজনীতি" সম্পর্কে জনসাধারণের অসন্তুষ্টিকে কেন্দ্র করে।[৩৬][৫১] নির্বাচনের কয়েক মাস আগে, বাইডেন প্রায় ত্রিশ শতাংশ পয়েন্ট পেয়ে বোগসকে অনুসরণ করেছিলেন,[৩৬] তবে তাঁর শক্তি, আকর্ষণীয় তরুণ পরিবার এবং ভোটারদের আবেগের সাথে যোগাযোগের দক্ষতা, তার পক্ষে কাজ করেছে,[১৮] এবং তিনি শেষপর্যন্ত ৫০.৫ শতাংশ ভোট পেয়ে জয়লাভ করেন।[৫১]

স্ত্রী-কন্যার মৃত্যু[সম্পাদনা]

নির্বাচনের কয়েক সপ্তাহ পর ১৯৭২ সালের ১৮ ডিসেম্বর ডেলাওয়ারের হকিসিনে ক্রিসমাসের শপিংয়ের সময় বাইডেনের স্ত্রী নিলিয়া এবং এক বছরের কন্যা নওমী একটি গাড়ি দুর্ঘটনায় মারা গিয়েছিলেন।[২৭][৫২] নিলিয়ার স্টেশন ওয়াগনটি একটি চৌরাস্তা থেকে সরানোর সময় একটি সেমি ট্রেলার ট্রাক ধাক্কা দেয়। তাদের ছেলে বিউ (বয়স ৩) এবং হান্টার (বয়স ২) বড় ধরনের দুর্ঘটনার হাত থেকে বেঁচে যান এবং তাদের অনুকূল অবস্থায় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল, বিউ-এর একটি পা ভাঙ্গা এবং অন্যান্য ক্ষত নিয়ে এবং হান্টারের একটি মাথার খুলি সামান্য ফাটা ও মাথায় অন্যান্য আঘাত নিয়ে।[৫৩] বাইডেন তাদের যত্ন নেওয়ার জন্য পদত্যাগ করার কথা বিবেচনা করেছিলেন,[১৮] তবে সিনেটের সংখ্যাগরিষ্ঠ নেতা মাইক ম্যানসফিল্ড তাকে এ সিদ্ধান্ত না নিতে রাজি করেছিলেন।[৫৪]

এর বছরখানেক পরে, বাইডেন বলেছিলেন তিনি শুনেছেন যে, ট্রাক চালক দুর্ঘটনার পূর্বে মদ পান করেছিলেন। তবে চালকের পরিবার সেই দাবি অস্বীকার করে, এবং পুলিশ কখনও এটিকে সমর্থন করে নি। বাইডেন পরে পরিবারের কাছে ক্ষমা চেয়েছিলেন।[৫৫][৫৬][৫৭][৫৮][৫৯]

দুর্ঘটনাটি তাকে ক্ষোভ এবং ধর্মীয় সন্দেহে ভরিয়ে দিয়েছিল। তিনি লিখেছিলেন যে, তিনি "অনুভব করেছেন যে ঈশ্বর একটি ভয়ঙ্কর কৌশল চালিয়েছেন" তার উপর,[৬০] এবং কাজের দিকে মনোনিবেশ করতে তাঁর সমস্যা হচ্ছিল।[৬১][৬২]

দ্বিতীয় বিয়ে[সম্পাদনা]

বাইডেন ও তার দ্বিতীয় স্ত্রী জিল, তারা ১৯৭৫ সালে সাক্ষাৎ করেন এবং ১৯৭৭ সালে বিয়ে করেন।

বাইডেন তার দ্বিতীয় স্ত্রী শিক্ষক জিল ট্রেসি জ্যাকবসকে তার রাজনীতি এবং জীবনের প্রতি আগ্রহের পুনর্নবীকরণের জন্য কৃতিত্ব দেন;[৬৩] তারা ১৯৭৫ সালের একটি অজানা তারিখে মিলিত হয়েছিলেন[৬৪] এবং ১৯৭৭ সালের ১৭ জুন নিউ ইয়র্কের জাতিসংঘের চ্যাপেলে (খ্রিস্টানদের নিজস্ব প্রার্থনাগৃহ) বিয়ে করেছিলেন।[৬৫][৬৬] তারা রোমান ক্যাথলিক এবং ডেলাওয়্যারের গ্রিনভিলে সেন্ট জোসেফস অন দ্য ব্র্যান্ডইউইনে একত্রে যোগ দেন।[৬৭] তাদের মেয়ে অ্যাশলে ব্লেজার (জন্ম ১৯৮১)[২৭] একজন সমাজকর্মী, তিনি চিকিৎসক হাওয়ার্ড ক্রেইনের সঙ্গে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হয়েছেন।[৬৮] ছেলে বিউ বাইডেন ইরাকে সেনাবাহিনীর বিচারক অ্যাডভোকেট এবং পরে ডেলাওয়্যারের অ্যাটর্নি জেনারেল নিযুক্ত হয়েছিলেন;[৬৯] ২০১৫ সালে তিনি মস্তিষ্কের ক্যান্সারে মারা গিয়েছিলেন।[৭০][৭১] ছোট ছেলে হান্টার বাইডেন ওয়াশিংটনের একজন লবিস্ট এবং বিনিয়োগ উপদেষ্টা।[৭২]

১৯৯১ থেকে ২০০৮ সাল পর্যন্ত বাইডেন উইডেনার ইউনিভার্সিটি স্কুল অফ ল-এ সাংবিধানিক আইন বিষয়ক একটি সেমিনারে সহকারী হিসাবে শিখিয়েছিলেন।[৭৩] সেমিনারটি প্রায়শই অপেক্ষামান তালিকায় থাকত। ক্লাস পড়ানোর জন্য বাইডেন কখনও কখনও বিদেশ থেকেও ফিরে আসতেন।[৭৪][৭৫][৭৬][৭৭]

মার্কিন সিনেট (১৯৭৩–২০০৯)[সম্পাদনা]

সিনেট কার্যক্রম[সম্পাদনা]

১৯৭৯ সালে রাষ্ট্রপতি জিমি কার্টারের সঙ্গে বাইডেন

১৯৭৩ সালের জানুয়ারিতে সিনেটের সেক্রেটারি ফ্রান্সিস আর. ভ্যালিও উইলমিংটন মেডিকেল সেন্টারের ডেলাওয়্যার বিভাগে বাইডেনকে শপথ করিয়েছিলেন।[৭৮][৭৯] উপস্থিত ছিলেন তার ছেলে বিউ (যার পা তখনও অটোমোবাইল দুর্ঘটনার কারণে ফাটল ছিল) ও হান্টার এবং পরিবারের অন্যান্য সদস্যরা।[৭৮][৭৯] ৩০ বছর বয়সে তিনি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে ষষ্ঠতম কনিষ্ঠ সিনেটর ছিলেন।[৮০][৮১]

তার ছেলেদের প্রতিদিন দেখতে,[৮২] বাইডেন তার ডেলাওয়্যার বাড়ি এবং ডি.সি'র মধ্যে ট্রেনে চলাচল করেতেন—প্রতি রাস্তা ৯০মিনিট করে—এবং সিনেটে ৩৬ বছর ধরে তার এই অভ্যাসটি বজায় রেখেছিলেন।[১৮]

সিনেটে তার প্রাথমিক বছরগুলোতে, বাইডন ভোক্তা সুরক্ষা এবং পরিবেশগত বিষয়গুলোতে মনোনিবেশ করেছিলেন এবং বৃহত্তর সরকারের জবাবদিহিতার আহ্বান জানান।[৮৩] ১৯৭৪ সালের একটি সাক্ষাৎকারে, তিনি নিজেকে নাগরিক অধিকার ও স্বাধীনতা, প্রবীণ নাগরিকদের উদ্বেগ ও স্বাস্থ্যসেবা সম্পর্কে উদার হিসাবে এবং গর্ভপাত ও সামরিক নিবন্ধকরণ সহ অন্যান্য ইস্যুতে রক্ষণশীল হিসাবে বর্ণনা করেছিলেন।[৮৪]

সিনেটে তাঁর কর্মজীবনের প্রথম দশকে, বাইডেন অস্ত্র নিয়ন্ত্রণের দিকে মনোনিবেশ করেন।[৮৫][৮৬] ১৯৭৯ সালে সোভিয়েত প্রধানমন্ত্রী লিওনিড ব্রেজনেভ এবং মার্কিন রাষ্ট্রপতি জিমি কার্টারের স্বাক্ষরিত সল্ট দ্বিতীয় চুক্তি অনুমোদনে কংগ্রেস ব্যর্থ হওয়ার পরে, আমেরিকান উদ্বেগ এবং সিনেটের পররাষ্ট্র সম্পর্ক কমিটির আপত্তি সম্বলিত পরিবর্তনগুলো সুরক্ষিত করার জন্য বাইডেন সোভিয়েতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আন্ড্রে গ্রোমিকোর সাথে সাক্ষাৎ করেন।[৮৭] রিগান প্রশাসন যখন কৌশলগত প্রতিরক্ষা উদ্যোগের বিকাশের জন্য ১৯৭২ সালের প্রথম সল্ট চুক্তি শিথিলভাবে ব্যাখ্যা করতে চেয়েছিল, তখন বাইডেন চুক্তিটি কঠোরভাবে মেনে চলার পক্ষে যুক্তি দিয়েছিলেন।[৮৫] বর্ণবাদ সম্পর্কে অব্যাহত নীতি থাকা সত্ত্বেও দক্ষিণ আফ্রিকাতে রিগান প্রশাসনের সমর্থনের জন্য সিনেটের শুনানিতে পররাষ্ট্রমন্ত্রী জর্জ শাল্টজকে বহিষ্কার করা হলে তিনি যথেষ্ট মনোযোগ পেয়েছিলেন।[৩৪]

১৯৮৪ সালে রাষ্ট্রপতি রোনাল্ড রিগানের সঙ্গে হাত মেলাচ্ছেন বাইডেন

বাইডেন ১৯৮১ সালে সিনেটের বিচার বিভাগীয় কমিটির সংখ্যালঘু সদস্য হন। ১৯৮৪ সালে, তিনি বিস্তৃত অপরাধ নিয়ন্ত্রণ আইনটি সফলভাবে পাসের জন্য ডেমোক্র্যাটিক ফ্লোর ম্যানেজার ছিলেন; সময়ের সাথে সাথে অপরাধ সংক্রান্ত আইনের কঠোর বিধানগুলো বিতর্কিত হয়ে ওঠে এবং ২০১৯ সালে বাইডেন বিলটি পাস করার ক্ষেত্রে তার ভূমিকাকে একটি "বড় ভুল" বলে অভিহিত করেন।[৮৮][৮৯] তার সমর্থকরা আইনের বাজে কিছু ধারাগুলো সংশোধন করার জন্য তাঁর প্রশংসা করেছিলেন এবং এটি ছিল তার সময়ের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ আইনসভা সাফল্য।[৯০] এই বিলে যুক্তরাষ্টীয় অস্ত্র আক্রমণ নিষিদ্ধকরণ[৯১][৯২] এবং নারীর প্রতি সহিংসতা বিরোধী আইন অন্তর্ভুক্ত ছিল,[৯৩] যা তিনি তার সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ আইন বলে উল্লেখ করেছিলেন।[৯৪]

১৯৯৩ সালে বাইডেন এমন একটি বিধানের পক্ষে ভোট দিয়েছিলেন, যা সমকামিতাকে সামরিক জীবনের সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ নয় বলে গণ্য করেছিল এবং এর ফলে সমকামীদের সশস্ত্র বাহিনীতে কাজ করা নিষিদ্ধ করেছিল।[৯৫][৯৬][৯৭] ১৯৯৬ সালে তিনি ডিফেন্স অফ ম্যারেজ অ্যাক্টের পক্ষে ভোট দিয়েছিলেন, যা যুক্তরাষ্ট্রীয় সরকারকে সমকামী বিবাহকে স্বীকৃতি দেওয়া থেকে নিষিদ্ধ করেছিল এবং এর ফলে এই জাতীয় বিবাহগুলোতে ব্যক্তিদের যুক্তরাষ্ট্রীয় আইনের অধীনে সমান সুরক্ষা থেকে বিরত রাখা হয়েছিল এবং রাজ্যগুলোকেও একই কাজ করার অনুমতি দেওয়া হয়েছিল।[৯৮] ২০১৫ সালে আইনটি ওবারজিফেল বনাম হজেজ-এ (Obergefell v. Hodges) অসাংবিধানিক হিসাবে রায় জারি করা হয়।[৯৯]

২০২০-এর রাষ্ট্রপতিত্বের প্রচারাভিযান[সম্পাদনা]

অনুমান ও ঘোষণা[সম্পাদনা]

২০১৬ থেকে ২০১৯ সালের মধ্যে বিভিন্ন গণমাধ্যম বাইডেনকে ২০২০ সালের রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের সম্ভাব্য প্রার্থী হিসেবে উল্লেখ করে।[১০০] তাকে জিজ্ঞাসা করলে তিনি বিবিধ ও বিপরীতার্থক উত্তর প্রদান করতেন এবং বলতেন, "কখনোই কখনো না বলবেন না"।[১০১] একবার তিনি বলেন তিনি পুনরায় নির্বাচন করবেন এমন সম্ভাবনা দেখছেন না,[১০২][১০৩] কিন্তু কিছুদিন পর তিনি বলেন, "আমি যদি হাটতে পারি তাহলে নির্বাচন করবো।"[১০৪] ২০১৮ সালের জানুয়ারিতে এই নির্বাচনে বাইডেনের অংশগ্রহণ চেয়ে টাইম ফর বাইডেন নামে একটি রাজনৈতিক কর্মসূচি কমিটি গঠিত হয়।[১০৫]

প্রচারাভিযান[সম্পাদনা]

২০১৯ সালের ১৫ই জুলাই অমুনাফাভোগী বাইডেন ক্যানসার ইনিশিয়েটিভ পূর্বপরিজ্ঞেয় ভবিষ্যতের জন্য তাদের কার্যক্রম স্থগিত রাখার ঘোষণা দেয়। রাষ্ট্রপতিত্বের প্রচারাভিযানের পূর্বে নৈতিক পূর্বসতর্কতা হিসেবে বাইডেন ও তার স্ত্রী এপ্রিলে এই ইনিশিয়েটিভের বোর্ড সদস্যের পদ ছেড়ে দেন।[১০৬]

২০১৯ সালের সেপ্টেম্বর মাসে প্রতিবেদনে প্রকাশিত হয় যে রাষ্ট্রপতি ডোনাল্ড ট্রাম্প ইউক্রেনের রাষ্ট্রপতি ভলদিমির জেলেন্‌স্কিকে বাইডেন ও তার পুত্র হান্টার বাইডেনের অপকর্মের বিরুদ্ধে তদন্ত করার জন্য চাপ দেন।[১০৭] ২০১৯ সালের সেপ্টেম্বর নাগাদ অভিযোগ সত্ত্বেও তাদের বিরুদ্ধে কোন প্রকার অপকর্মের প্রমাণ পাওয়া যায় নি।[১০৮] গণমাধ্যম তাদের কাজের তদন্তের জন্য চাপ দেওয়াকে বাইডেনের রাষ্ট্রপতি নির্বাচন জয়ের সুযোগকে প্রশ্নবিদ্ধ করার চেষ্টা বলে উল্লেখ করে, যার ফলে রাজনৈতিক কেলেঙ্কারির সূত্রপাত হয়[১০৯][১১০] এবং হাউজ অব রিপ্রেজেন্টেটিভ ট্রাম্পকে অভিশংসিত করে।

২০২০ সালের ১৮ই আগস্ট ২০২০-এর ডেমোক্র্যাটিক ন্যাশনাল কনভেনশনে বাইডেন দাপ্তরিকভাবে ২০২০-এর রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের জন্য ডেমোক্র্যাটিক পার্টির প্রার্থী হিসেবে মনোনীত হন।[১১১][১১২][১১৩]

২০শে আগস্ট ৭০ জন সাবেক রিপাবলিকান সিনিয়র জাতীয় নিরাপত্তা কর্মকর্তা "ট্রাম্প জাতীয় সংকটকালে নেতৃত্ব দিতে অনুপযুক্ত ছিলেন" এই মর্মে বাইডেনকে ভোট দেওয়ার ঘোষণা দেন।[১১৪]

সর্বোচ্চ ভোটারপ্রিয় প্রার্থী[সম্পাদনা]

২০০৮ সালের নির্বাচনে ডেমোক্র‌্যাট প্রার্থী বারাক ওবামা ৬ কোটি ৯৪ লাখ ৯৮ হাজার ৫শ’র বেশী ভোট[১১৫] পেয়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের ইতিহাসে সবচেয়ে বেশী ভোটারপ্রিয় প্রার্থী ছিলেন। এবারের ২০২০ সালের নির্বাচনে একই দলের প্রার্থী জো বাইডেন ৭ কোটি ২১ লাখ ৫৭ হাজারেরও বেশী ভোট পেয়ে  সর্বোচ্চ ভোটারপ্রিয়তার স্বাক্ষর রাখলেন। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের ইতিহাসে শুন্য ভোট পাওয়ার রেকর্ড থাকলেও এখন পর্যন্ত এত বেশি ভোট পেয়ে কোনো প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হননি। তবে জনপ্রিয়তার বিবেচনায়, ১৭৮৮ সাল এবং ১৭৯২ সালের উভয় নির্বাচনে ইলেক্টোরাল ও পপুলার, উভয় ভোটেই নির্দলীয় প্রার্থী জর্জ ওয়াশিংটনের শতভাগ ভোটপ্রাপ্তিই একমাত্র বিরল ঘটনা। পরবর্তীতে কোন প্রার্থী কোন ভোটের কোন পদ্ধতিতেই শতভাগ ভোট পাননি।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Biden closes on US Democratic 2020 nomination"Emerald Expert Briefings। ২০২০-০৩-১৮। আইএসএসএন 2633-304Xডিওআই:10.1108/oxan-es251415 
  2. "Why Nature supports Joe Biden for US president"Nature586 (7829): 335–335। ২০২০-১০-১৪। আইএসএসএন 0028-0836ডিওআই:10.1038/d41586-020-02852-x 
  3. Tollefson, Jeff (২০২০-১১-০৭)। "Scientists relieved as Joe Biden wins tight US presidential election"Natureআইএসএসএন 0028-0836ডিওআই:10.1038/d41586-020-03158-8 
  4. মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র কংগ্রেস। "Joseph R. Biden (id: b000444)"বায়োগ্রাফিক্যাল ডিরেক্টরি অফ দি ইউনাইটেড স্টেটস কংগ্রেস (ইংরেজি ভাষায়)। 
  5. Witcover (2010), p. 5.
  6. Chase, Randall (জানুয়ারি ৯, ২০১০)। "Vice President Biden's mother, Jean, dies at 92"WITN-TV। Associated Press। মে ২০, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জানুয়ারি ২৪, ২০২১ 
  7. "Joseph Biden Sr., 86, father of the senator"The Baltimore Sun। সেপ্টেম্বর ৩, ২০০২। ডিসেম্বর ৩০, ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ এপ্রিল ১৫, ২০২০ 
  8. Witcover (2010), p. 9.
  9. Smolenyak, Megan (জুলাই ২, ২০১২)। "Joe Biden's Irish Roots"Huffington Post। এপ্রিল ২৮, ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ডিসেম্বর ৬, ২০১২ 
  10. "Number two Biden has a history over Irish debate"The Belfast Telegraph। নভেম্বর ৯, ২০০৮। ডিসেম্বর ১৬, ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জানুয়ারি ২২, ২০০৮ 
  11. Witcover (2010), p. 8.
  12. Smolenyak, Megan (এপ্রিল–মে ২০১৩)। "Joey From Scranton—Vice President Biden's Irish Roots"Irish America। জানুয়ারি ৩, ২০২১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ এপ্রিল ১৫, ২০২০ 
  13. Russell, Katie (নভেম্বর ১১, ২০২০)। "Joe Biden's family tree: how tragedy shaped the US president-elect"The Telegraph (ইংরেজি ভাষায়)। আইএসএসএন 0307-1235। জানুয়ারি ৮, ২০২১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ডিসেম্বর ১, ২০২০ 
  14. Biden, Joe (২০০৮)। Promises to Keep: On Life and Politics। Random House। পৃষ্ঠা 16–17। আইএসবিএন 978-0812976212 
  15. Witcover (2010), pp. 7-8.
  16. Broder, John M. (অক্টোবর ২৩, ২০০৮)। "Father's Tough Life an Inspiration for Biden"The New York Times। নভেম্বর ৮, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ অক্টোবর ২৪, ২০০৮ 
  17. Rubinkam, Michael (আগস্ট ২৭, ২০০৮)। "Biden's Scranton childhood left lasting impression"Fox NewsAssociated Press। জানুয়ারি ১৫, ২০২১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ সেপ্টেম্বর ৭, ২০০৮ 
  18. Almanac of American Politics 2008, p. 364.
  19. Witcover (2010), pp. 27, 32.
  20. Frank, Martin (সেপ্টেম্বর ২৮, ২০০৮)। "Biden was the stuttering kid who wanted the ball"The News Journal। পৃষ্ঠা D.1। জুন ১, ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 
  21. Witcover (2010), pp. 40-41.
  22. Taylor (1990), p. 99.
  23. Witcover (2010), pp. 40-41.
  24. Biden, Promises to Keep, pp. 27, 32–33.
  25. "Fact Check: Biden's Too Tall Football Tale"firstread.nbsnews.com। অক্টোবর ১৬, ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 
  26. Dionne Jr., E.J. (সেপ্টেম্বর ১৮, ১৯৮৭)। "Biden Admits Plagiarism in School But Says It Was Not 'Malevolent'"The New York Times। The New York Times Company। জানুয়ারি ২১, ২০২১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জানুয়ারি ২১, ২০২১ 
  27. "A timeline of U.S. Sen. Joe Biden's life and career"San Francisco ChronicleAssociated Press। আগস্ট ২৩, ২০০৮। সেপ্টেম্বর ২৫, ২০০৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ সেপ্টেম্বর ৬, ২০০৮ 
  28. Taylor (1990), p. 98.
  29. Biden, Joseph R., Jr. (জুলাই ৯, ২০০৯)। "Letter to National Stuttering Association chairman" (PDF)। National Stuttering Association। জুলাই ২৮, ২০১১ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ডিসেম্বর ৯, ২০১০ 
  30. "Joe Biden's childhood struggle with a stutter: How he overcame it and how it shaped him"Los Angeles Times। সেপ্টেম্বর ১৬, ২০১৯। সেপ্টেম্বর ১৬, ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুলাই ২৪, ২০২০ 
  31. Hendrickson, John (জানুয়ারি–ফেব্রুয়ারি ২০২০)। "What Joe Biden Can't Bring Himself to Say"The Atlantic। নভেম্বর ২১, ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ নভেম্বর ২৪, ২০১৯ 
  32. Biden, Promises to Keep, pp. 32, 36–37.
  33. "Biden, Joseph Robinette, Jr."Biographical Directory of the United States Congress। আগস্ট ২৭, ২০০৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ১৯, ২০০৮ 
  34. Leubsdorf, Carl P. (সেপ্টেম্বর ৬, ১৯৮৭)। "Biden Keeps Sights Set On White House"The Dallas Morning News। জানুয়ারি ৩, ২০২১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জানুয়ারি ২৪, ২০২১  Reprinted in "Lifelong ambition led Joe Biden to Senate, White House aspirations"The Dallas Morning News। আগস্ট ২৩, ২০০৮। সেপ্টেম্বর ১৯, ২০০৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 
  35. Barrett, Laurence I. (জুন ২২, ১৯৮৭)। "Campaign Portrait, Joe Biden: Orator for the Next Generation"Time। নভেম্বর ১৩, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জানুয়ারি ২৪, ২০২১ 
  36. Current Biography Yearbook 1987, p. 43.
  37. Witcover (2010), p. 86.
  38. Palmer, Nancy Doyle (ফেব্রুয়ারি ১, ২০০৯)। "Joe Biden: 'Everyone Calls Me Joe'"Washingtonian। জুলাই ৩১, ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ফেব্রুয়ারি ৪, ২০০৯ 
  39. Witcover (2010), p. 59.
  40. Harriman, Jane (ডিসেম্বর ৩১, ১৯৬৯)। "Joe Biden: Hope for Democratic Party in '72?"Newspapers.com। The News Journal। পৃষ্ঠা 3। আগস্ট ২, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ মে ১, ২০১৯ 
  41. Delaware Republican State Headquarters (১৯৭০)। "Republican Information Center: 1970 List of Candidates" (PDF)University of Delaware Library Institutional Repository। Newark, DE: University of Delaware। পৃষ্ঠা 11। জানুয়ারি ১৫, ২০২১ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জানুয়ারি ১৩, ২০২১ 
  42. "County Ponders Housing Code"The News Journal। Wilmington, DE। অক্টোবর ১, ১৯৬৯। পৃষ্ঠা 2। জানুয়ারি ১৫, ২০২১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জানুয়ারি ২৪, ২০২১Newspapers.com-এর মাধ্যমে। 
  43. Lockman, Norm (ডিসেম্বর ২০, ১৯৬৯)। "New Housing Code Favored for County"The News Journal। Wilmington, DE। পৃষ্ঠা 2। জানুয়ারি ১৫, ২০২১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জানুয়ারি ২৪, ২০২১Newspapers.com-এর মাধ্যমে। 
  44. "County Council to Take Oath"The News Journal। Wilmington, DE। জানুয়ারি ২, ১৯৭১। পৃষ্ঠা 4। জানুয়ারি ১৫, ২০২১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জানুয়ারি ২৪, ২০২১Newspapers.com-এর মাধ্যমে। 
  45. "Conner Calls Shake of 7 Lucky Omen for Council"The News Journal। Wilmington, DE। জানুয়ারি ৬, ১৯৭১। পৃষ্ঠা 3। জানুয়ারি ১৫, ২০২১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জানুয়ারি ২৪, ২০২১Newspapers.com-এর মাধ্যমে। 
  46. "Maloney Seeks New Businesses"The News Journal। Wilmington, DE। জানুয়ারি ২, ১৯৭৩। পৃষ্ঠা 4। জানুয়ারি ১৫, ২০২১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জানুয়ারি ২৪, ২০২১Newspapers.com-এর মাধ্যমে। 
  47. "Swift Seeks 4th District County Seat"The News Journal। Wilmington, DE। মার্চ ৩০, ১৯৭২। পৃষ্ঠা 41। জানুয়ারি ১৫, ২০২১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জানুয়ারি ২৪, ২০২১Newspapers.com-এর মাধ্যমে। 
  48. "GOP Decade Ends with Slawik Win"The News Journal। Wilmington, DE। নভেম্বর ৮, ১৯৭২। পৃষ্ঠা 3। জানুয়ারি ১৫, ২০২১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জানুয়ারি ২৪, ২০২১Newspapers.com-এর মাধ্যমে। 
  49. Zintl, Terry (মার্চ ১৪, ১৯৭৩)। "Shop Center Hackles Rise In Hockessin"The News Journal। Wilmington, DE। পৃষ্ঠা 64। জানুয়ারি ১৫, ২০২১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জানুয়ারি ২৪, ২০২১Newspapers.com-এর মাধ্যমে। 
  50. Witcover (2010), p. 62.
  51. Naylor, Brian (অক্টোবর ৮, ২০০৭)। "Biden's Road to Senate Took Tragic Turn"National Public Radio। সেপ্টেম্বর ১১, ২০০৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ সেপ্টেম্বর ১২, ২০০৮ 
  52. "Biden's Wife, Child Killed in Car Crash"The New York Times (ইংরেজি ভাষায়)। ডিসেম্বর ১৯, ১৯৭২। পৃষ্ঠা 9। আইএসএসএন 0362-4331। ডিসেম্বর ২, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জানুয়ারি ৮, ২০২১ 
  53. Witcover (2010), pp. 93, 98.
  54. Levey, Noam M. (আগস্ট ২৪, ২০০৮)। "In his home state, Biden is a regular Joe"Los Angeles Times। ডিসেম্বর ৩০, ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ সেপ্টেম্বর ৭, ২০০৮ 
  55. Kipp, Rachel (সেপ্টেম্বর ৪, ২০০৮)। "No DUI in crash that killed Biden's 1st wife, but he's implied otherwise"The News Journal। পৃষ্ঠা A.1। জুন ১, ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 
  56. "A Senator's Past: The Biden Car Crash"। Inside Edition। আগস্ট ২৭, ২০০৮। জুন ১, ২০০৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ মে ২৮, ২০০৯ 
  57. Orr, Bob (মার্চ ২৪, ২০০৯)। "Driver In Biden Crash Wanted Name Cleared"। CBS News। মার্চ ১৪, ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ মার্চ ১৩, ২০১৭ 
  58. Hamilton, Carl (অক্টোবর ৩০, ২০০৮)। "Daughter of man in '72 Biden crash seeks apology from widowed Senator"। Newark Post। জানুয়ারি ১৬, ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ মার্চ ১৩, ২০১৭ 
  59. Kruse, Michael (মার্চ ২৪, ২০০৯)। "How Grief Became Joe Biden's 'Superpower'"। Politico। জুন ১৩, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুন ১৩, ২০২০ 
  60. Biden, Promises to Keep, p. 81
  61. Bumiller, Elisabeth (ডিসেম্বর ১৪, ২০০৭)। "Biden Campaigning With Ease After Hardships"The New York Times। ডিসেম্বর ১০, ২০০৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ সেপ্টেম্বর ১৩, ২০০৮ 
  62. "On Becoming Joe Biden"Morning Edition। NPR। আগস্ট ১, ২০০৭। সেপ্টেম্বর ৯, ২০০৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ সেপ্টেম্বর ১২, ২০০৮ 
  63. Biden, Promises to Keep, p. 113.
  64. Seelye, Katharine Q. (আগস্ট ২৪, ২০০৮)। "Jill Biden Heads Toward Life in the Spotlight"The New York Times। ডিসেম্বর ১০, ২০০৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ২৫, ২০০৮ 
  65. Dart, Bob (অক্টোবর ২৪, ২০০৮)। "Bidens met, forged life together after tragedy"Orlando SentinelCox News Service। অক্টোবর ২০, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জানুয়ারি ২৪, ২০২১ 
  66. Biden, Promises to Keep, p. 117.
  67. Gibson, Ginger (আগস্ট ২৫, ২০০৮)। "Parishioners not surprised to see Biden at usual Mass"The News Journal। পৃষ্ঠা A.12। জুন ১, ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 
  68. "Ashley Biden and Howard Krein"The New York Times। জুন ৩, ২০১২। পৃষ্ঠা ST15। নভেম্বর ১, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জানুয়ারি ২৪, ২০২১ 
  69. Cooper, Christopher (আগস্ট ২০, ২০০৮)। "Biden's Foreign Policy Background Carries Growing Cachet"The Wall Street Journal। পৃষ্ঠা A4। আগস্ট ১৩, ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ২৩, ২০০৮ 
  70. Helsel, Phil (মে ৩১, ২০১৫)। "Beau Biden, Son of Vice President Joe Biden, Dies After Battle With Brain Cancer"NBC News। জানুয়ারি ২২, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ডিসেম্বর ৩০, ২০১৯ 
  71. Kane, Paul (মে ৩১, ২০১৫)। "Family losses frame Vice President Biden's career"The Washington Post। ডিসেম্বর ৩০, ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ডিসেম্বর ৩০, ২০১৯ 
  72. Evans, Heidi (ডিসেম্বর ২৮, ২০০৮)। "From a blind date to second lady, Jill Biden's coming into her own"Daily News। New York। জানুয়ারি ৪, ২০০৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জানুয়ারি ৩, ২০০৯ 
  73. "Fact check: If he loses election, Biden said he wants to teach, but where is uncertain"। USA Today। নভেম্বর ১, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ অক্টোবর ১১, ২০২০ 
  74. "Faculty: Joseph R. Biden, Jr."Widener University School of Law। অক্টোবর ৬, ২০০৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ সেপ্টেম্বর ২৪, ২০০৮ 
  75. উদ্ধৃতি ত্রুটি: অবৈধ <ref> ট্যাগ; wid-veep-elect নামের সূত্রের জন্য কোন লেখা প্রদান করা হয়নি
  76. Purchla, Matt (আগস্ট ২৬, ২০০৮)। "For Widener Law students, a teacher aims high"Metro Philadelphia। অক্টোবর ৪, ২০০৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ সেপ্টেম্বর ২৫, ২০০৮ 
  77. Carey, Kathleen E. (আগস্ট ২৭, ২০০৮)। "Widener students proud of Biden"Delaware County Daily and Sunday Times। সেপ্টেম্বর ১৯, ২০০৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ সেপ্টেম্বর ২৫, ২০০৮ 
  78. "Oath Solemn"Spokane Daily Chronicle। Associated Press। জানুয়ারি ৬, ১৯৭৩। পৃষ্ঠা 11। জানুয়ারি ৩, ২০২১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জানুয়ারি ২৪, ২০২১ 
  79. Witcover (2010), pp. 93, 98.
  80. "Youngest Senator"। United States Senate। ডিসেম্বর ২৬, ২০০২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ২৫, ২০০৮  টেমপ্লেট:PD-notice
  81. Byrd, Robert and Wolff, Wendy Senate, 1789–1989: Historical Statistics, 1789–1992, Volume 4 ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত জানুয়ারি ৩, ২০২১ তারিখে, p. 285 (Government Printing Office 1993) টেমপ্লেট:PD-notice
  82. Pride, Mike (ডিসেম্বর ১, ২০০৭)। "Biden a smart guy who has lived his family values"Concord Monitor। ডিসেম্বর ৩, ২০০৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ অক্টোবর ৪, ২০০৮ 
  83. "200 Faces for the Future"Time। জুলাই ১৫, ১৯৭৪। আগস্ট ১৩, ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ২৩, ২০০৮ 
  84. Kelley, Kitty (জুন ১, ১৯৭৪)। "Death and the All-American Boy"The Washingtonian। নভেম্বর ১০, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ মার্চ ৮, ২০২০ 
  85. উদ্ধৃতি ত্রুটি: অবৈধ <ref> ট্যাগ; nyt-foreign নামের সূত্রের জন্য কোন লেখা প্রদান করা হয়নি
  86. Current Biography Yearbook 1987, p. 45.
  87. Salacuse, Jeswald W. (২০০৫)। Leading Leaders: How to Manage Smart, Talented, Rich and Powerful People। American Management Association। আইএসবিএন 0-8144-0855-9  p. 144.
  88. Herndon, Astead W. (জানুয়ারি ২১, ২০১৯)। "Biden Expresses Regret for Support of Crime Legislation in the 1990s"The New York Timesআইএসএসএন 0362-4331। নভেম্বর ১০, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জানুয়ারি ২১, ২০১৯ 
  89. "Biden in 2020? Allies Say He Sees Himself as Democrats' Best Hope" ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত নভেম্বর ১০, ২০২০ তারিখে, By Jonathan Martin and Alexander Burns. New York Times. January 6, 2019
  90. উদ্ধৃতি ত্রুটি: অবৈধ <ref> ট্যাগ; cby-44 নামের সূত্রের জন্য কোন লেখা প্রদান করা হয়নি
  91. Fifield, Anna (জানুয়ারি ৪, ২০১৩)। "Biden faces key role in second term"Financial Times। জানুয়ারি ৩, ২০২১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জানুয়ারি ২৪, ২০২১ 
  92. উদ্ধৃতি ত্রুটি: অবৈধ <ref> ট্যাগ; time-cov-0113 নামের সূত্রের জন্য কোন লেখা প্রদান করা হয়নি
  93. Finley, Bruce (সেপ্টেম্বর ১৯, ২০১৪)। "Biden: Men who don't stop violence against women are "cowards""The Denver Post। অক্টোবর ১৩, ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 
  94. "Domestic Violence"Biden senate website। আগস্ট ২২, ২০০৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ সেপ্টেম্বর ৯, ২০০৮ 
  95. "govinfo"govinfo.gov। মে ৬, ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ মে ৬, ২০১৯ 
  96. Epstein, Reid J.; Lerer, Lisa (সেপ্টেম্বর ২০, ২০১৯)। "Joe Biden Has Tense Exchange Over L.G.B.T.Q. Record"The New York Timesআইএসএসএন 0362-4331। এপ্রিল ১৬, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ এপ্রিল ১৫, ২০২০ 
  97. A. Del, Jose। "Sanders attacks Biden's record on gay rights and women's issues"Washington Post। মার্চ ৮, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ এপ্রিল ১৫, ২০২০ 
  98. "U.S. Senate: U.S. Senate Roll Call Votes 104th Congress—2nd Session"senate.gov। মে ৭, ২০০৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুন ১২, ২০১৯ 
  99. de Vogue, Ariane; Diamond, Jeremy। "Supreme Court rules states must allow same-sex marriage"CNN। জুন ২৭, ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুন ১২, ২০১৯ 
  100. মেমোলি, মাইকেল (ডিসেম্বর ৫, ২০১৬)। "Joe Biden wouldn't count out a 2020 run for president. But he was asked in an emotional moment"লস অ্যাঞ্জেলেস টাইমস (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ১২ অক্টোবর ২০২০ 
  101. রাইট, ডেভিড (ডিসেম্বর ৭, ২০১৬)। "Biden stokes 2020 buzz on Colbert: 'Never say never'"সিএনএন (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ১২ অক্টোবর ২০২০ 
  102. ল্যাং, ক্যাডি (ডিসেম্বর ৭, ২০১৬)। "Joe Biden Discussed Running in 2020 With Stephen Colbert: 'Never Say Never'"টাইম (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ১২ অক্টোবর ২০২০ 
  103. Revesz, Rachael (জানুয়ারি ১৩, ২০১৭)। "Joe Biden: I will not run for president in 2020 but I am working to cure cancer"দি ইন্ডিপেন্ডেন্ট (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ১২ অক্টোবর ২০২০ 
  104. অল্টার, জোনাথন (জানুয়ারি ১৭, ২০১৭)। "Joe Biden: 'I Wish to Hell I'd Just Kept Saying the Exact Same Thing'"দ্য নিউ ইয়র্ক টাইমস (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ১২ অক্টোবর ২০২০ 
  105. শার্নেৎস্কি, তোরি (জানুয়ারি ১০, ২০১৮)। "New Quad City Super PAC: "Time for Biden"" (ইংরেজি ভাষায়)। ডব্লিউভিআইকে। সংগ্রহের তারিখ ১২ অক্টোবর ২০২০ 
  106. ব্রাউন, স্টিফেন (জুলাই ১৫, ২০১৯)। "Biden cancer nonprofit suspends operations indefinitely"অ্যাসোসিয়েটেড প্রেস (ইংরেজি ভাষায়)। জুলাই ১৫, ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১২ অক্টোবর ২০২০ 
  107. ক্র্যামার, অ্যান্ড্রু ই. (সেপ্টেম্বর ২০, ২০১৯)। "Ukraine Pressured on U.S. Political Investigations"দ্য নিউ ইয়র্ক টাইমস (ইংরেজি ভাষায়)। আইএসএসএন 0362-4331। সংগ্রহের তারিখ ১২ অক্টোবর ২০২০ 
  108. একাধিক সূত্র:
    • ইসাচেনকভ, ভ্লাদিমির (সেপ্টেম্বর ২৭, ২০১৯)। "Ukraine's prosecutor says there is no probe into Biden" (ইংরেজি ভাষায়)। অ্যাসোসিয়েটেড প্রেস। সংগ্রহের তারিখ ১২ অক্টোবর ২০২০Though the timing raised concerns among anti-corruption advocates, there has been no evidence of wrongdoing by either the former vice president or his son. 
    • "White House 'tried to cover up details of Trump-Ukraine call'"বিবিসি নিউজ (ইংরেজি ভাষায়)। সেপ্টেম্বর ২৬, ২০১৯। সংগ্রহের তারিখ ১২ অক্টোবর ২০২০There is no evidence of any wrongdoing by the Bidens. 
    • টিম, জেন (সেপ্টেম্বর ২৫, ২০১৯)। "There's no evidence for Trump's Biden-Ukraine accusations. What really happened?"এনবিসি নিউজ (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ১২ অক্টোবর ২০২০But despite Trump's continued claims, there's no evidence of wrongdoing on the part of either Biden. 
  109. কালিসন, অ্যালান; বলহাউস, রেবেকা; ভলজ, ডাস্টিন (সেপ্টেম্বর ২১, ২০১৯)। "Trump Repeatedly Pressed Ukraine President to Investigate Biden's Son"দ্য ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ১২ অক্টোবর ২০২০ 
  110. ম্যাকিনন, অ্যামি (সেপ্টেম্বর ২০, ২০১৯)। "Is Trump Trying to Get Ukraine to Take Out Biden for Him?"ফরেন পলিসি (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ১২ অক্টোবর ২০২০ 
  111. "DNC Nominates Joe Biden to Lead Nation Through Pandemic"দ্য ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল (ইংরেজি ভাষায়)। আগস্ট ১৮, ২০২০। সংগ্রহের তারিখ ১২ অক্টোবর ২০২০ 
  112. "Joe Biden officially becomes the Democratic Party's nominee on convention's second night"দ্য ওয়াশিংটন পোস্ট (ইংরেজি ভাষায়)। আগস্ট ১৯, ২০২০। সংগ্রহের তারিখ ১২ অক্টোবর ২০২০ 
  113. শুলৎজ, মারিসা (আগস্ট ১৮, ২০২০)। "Democrats formally nominate Joe Biden for president in virtual roll call"ফক্স নিউজ (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ১২ অক্টোবর ২০২০ 
  114. স্যাঙ্গার, ডেভিড ই. (আগস্ট ২০, ২০২০)। "Top Republican National Security Officials Say They Will Vote for Biden"দ্য নিউ ইয়র্ক টাইমস (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ১২ অক্টোবর ২০২০ 
  115. "Presidential Election of 2008"270toWin.com। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১১-০৫ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]