উইশ ইউ ওয়্যার হেয়ার (পিংক ফ্লয়েডের অ্যালবাম)

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
উইশ ইউ ওয়্যার হেয়ার
An image of two men dressed in dark grey business attire standing in the grounds of a Hollywood film studio, facing each other and shaking hands. The man on the right's hair and clothes are on fire, but he seems oblivious to the fact. The upper right edge of the photograph appears singed.
পিংক ফ্লয়েড কর্তৃক স্টুডিও অ্যালবাম
মুক্তির তারিখ১২ সেপ্টেম্বর ১৯৭৫
শব্দধারণের সময়জানুয়ারি–জুলাই ১৯৭৫
শব্দধারণকেন্দ্রঅ্যাবি রোড স্টুডিওস, লন্ডন
ঘরানা
দৈর্ঘ্য৪৪:৩৬
সঙ্গীত প্রকাশনী
প্রযোজকপিংক ফ্লয়েড
পিংক ফ্লয়েড কালক্রম
দ্য ডার্ক সাইড অব দ্য মুন
(১৯৭৩)
উইশ ইউ ওয়্যার হেয়ার
(১৯৭৫)
অ্যানিম্যাল্‌স
(১৯৭৭)
অতিরিক্ত প্রচ্ছদ
The black plastic covers the whole vinyl package. The circle sticker at the right-center position shows two machines clasped together, resembling a handshake. The whole circle is divided into four quarters in different colours. The pink quarter, located on north, has "PINK FLOYD" in big font; below the band name is "WISH YOU WERE HERE" in small font. The yellow quarter is at west; the blue quarter, east; the green quarter, south.
মূল ভিনাইল সঙ্কুচিত মোড়ানো
বিকল্প প্রচ্ছদ
উইশ ইউ ওয়্যার হেয়ার থেকে একক গান
  1. "হ্যাব অ্যা সিগার" / "ওয়েলকাম টু দা মেশিন"
    মুক্তির তারিখ: ১৫ নভেম্বর ১৯৭৫

উইশ ইউ ওয়্যার হেয়ার ব্রিটিশ রক ব্যান্ড পিংক ফ্লয়েডের নবম স্টুডিও অ্যালবাম। এটি ১২ সেপ্টেম্বর ১৯৭৫ সালে হার্ভেস্ট রেকর্ডস থেকে যুক্তরাজ্যে এবং একদিন পর কলাম্বিয়া রেকর্ডস থেকে যুক্তরাষ্ট্রে প্রকাশিত হয়, যেটি ছিলো ব্যান্ডটির প্রথম আমেরিকান মুক্তি। ইউরোপে পরিবেশনার সময় তাদের রচিত সঙ্গীতের উপর ভিত্তি করে পিংক ফ্লয়েড, লন্ডনে অ্যাবি রোড স্টুডিওসে ১৯৭৫ সালে একাধিক সেশনের সংমিশ্রনে উইশ ইউ ওয়্যার হেয়ার রেকর্ড করেছিল।

অ্যালবামটির দুটি গানে সঙ্গীত ব্যবসার সমালোচনা রয়েছে, পাশাপাশি অন্যান্য গানে রয়েছে বিচ্ছিন্নতার প্রকাশ এবং বহু-অংশে রচিত "শাইন অন ইউ ক্রেজি ডায়মন্ড" যা দলটির প্রতিষ্ঠাতা সিড ব্যারেটকে শ্রদ্ধা জানিয়ে করা হয়েছে, যিনি মানসিক স্বাস্থ্যহানির কারণে সাত বছর পূর্বে ব্যান্ড ত্যাগ করেছিলেন। তাদের পূর্ববর্তী রেকর্ড দ্য ডার্ক সাইড অব দ্য মুন (১৯৭৩) অ্যালবামের মতোন, এতেও স্টুডিও এফেক্ট ও সিন্থেজাইজারের ব্যবহার করা হয়। অতিথি সঙ্গীতশিল্পীদের মধ্যে ছিলেন, রয় হার্পার, যিনি "হ্যাব অ্যা সিগার" গানে মূল কণ্ঠ এবং ভেনেটা ফিল্ডস, যিনি "শাইন অন ইউ ক্রেজি ডায়মন্ড" গানে নেপথ্য কণ্ঠ দিয়েছিলেন। অ্যালবামটির প্রচারনার জন্য, ব্যান্ডটি ডাবল এ-সাইড একক "হ্যাভ অ্যা সিগার" / "ওয়েলকাম টু দা মেশিন" প্রকাশ করেছে।

উইশ ইউ ওয়্যার হেয়ার মুক্তির পরপর সমালোচকদের মিশ্র পর্যালোচনা পেয়েছিল, যারা অ্যালবামটির গান ও সঙ্গীত ব্যান্ডটির পূর্ববর্তী কাজের তুলনায় অ-অনুপ্রাণিত এবং নিকৃষ্ট বলে মনে করেছিলেন। যদিও পরবর্তীকালে এটি সমালোচনামূলক প্রশংসা পেয়েছে, সর্বকালের অন্যতম শ্রেষ্ঠ অ্যালবাম হিসাবে প্রশংসিত হয়েছে এবং কিবোর্ডবাদক রিচার্ড রাইট এবং গিটারবাদক ডেভিড গিলমোর তাদের প্রিয় পিংক ফ্লয়েড অ্যালবাম হিসাবে এর উল্লেখ করেছেন।

পটভূমি[সম্পাদনা]

১৯৭৪ সালের সময়, পিংক ফ্লয়েড তিনটি নতুন রচনা স্কেচ করেছিল, "রেভিং অ্যান্ড ড্রোলিং", "ইউ গট্টা বি ক্রেজি" এবং "শাইন অন ইউ ক্রেজি ডায়মন্ড"।[বিদ্র ১][৪] ১৯৭৩ সালের দ্য ডার্ক সাইড অব দ্য মুন-এর পর, এই গানগুলি ফ্রান্স ও ইংল্যান্ডে ব্যান্ডের প্রথম সফর, ধারাবাহিক এবং কনসার্টের কয়েকটি অনুষ্ঠানের সময় পরিবেশিত হয়েছিল। যেহেতু পিংক ফ্লয়েড কখনই কোনও প্রচারক নিযুক্ত করেনি এবং সংবাদমাধ্যম থেকে নিজেদের দূরে রাখতো, তাই গণমাধ্যমের সাথে তাদের সম্পর্ক বিরূপ হতে শুরু করে। পরে ব্যান্ডের নতুন উপাদান নিয়ে সিড ব্যারেটের ভক্ত নিক কেন্টের এনএমই সাময়িকীর একটি সমালোচনামূলক পর্যালোচনায় মেইসন বলেছিলেন যে, ব্যান্ডকে একত্রে রাখার ক্ষেত্রে প্রভাব পড়তে পারে, কারণ তারা ১৯৭৫ সালের প্রথম সপ্তাহেই স্টুডিওতে ফিরে এসেছিল।[৫]

ধারণা[সম্পাদনা]

উইশ ইউ ওয়্যার হেয়ার ছিল সম্পূর্ণভাবে রজার ওয়াটার্স রচিত ফ্লয়েডের দ্বিতীয় অ্যালবাম ধারণামূলক থিম সহ অ্যালবাম। অ্যালবামটিতে ওয়াটার্সের ব্যক্তিগত অনুভূতির প্রতিফলিন ঘটে যা সৌহার্দ্যপূর্ণভাবে ব্যান্ডটি পরিবেশন করেছিল অনুপস্থিত ছিল।[৬] অ্যালবামটি দীর্ঘায়িত ইন্সট্রুমেন্টাল ভূমিকার মধ্য দিয়ে শুরু হয় এবং সিড ব্যারেটের প্রতি শ্রদ্ধা স্বরূপ "শাইন অন ইউ ক্রেজি ডায়মন্ড" গানের মাধ্যমে, যার মানসিক অবনতির কারণে তাকে সাত বছর আগে এই দল ত্যাগ করতে বাধ্য করেছিল।[৭] ব্যারেটকে "Remember when you were young, you shone like the sun" এবং "You reached for the secret too soon, you cried for the moon"-এর মতো লাইনগুলির মাধ্যমে স্নেহপূর্বক স্মরণ করা হয়।[৮]

উইশ ইউ ওয়্যার হেয়ার এছাড়াও সঙ্গীত ব্যবসায়ের সমালোচনামূলক অ্যালবাম। "শাইন অন" অবিচ্ছিন্নভাবে "ওয়েলকাম টু দি মেশিন"-এ প্রবেশ করে, এটি এমন গান যা একটি দরজা খোলার শব্দের মধ্য দিয়ে শুরু হয় (লোভ এবং সাফল্যের প্রতি অতিশয় আগ্রহী সঙ্গীত শিল্পের মাধ্যমে বিশ্বাসঘাতকতা গ্রস্থ সঙ্গীতিক আবিষ্কার এবং অগ্রগতির প্রতীক হিসাবে ওয়াটার্স কর্তৃক বর্ণিত) এবং একটি পার্টির মধ্য দিয়ে শেষ হয়, পরবর্তীকালে "মানুষের মধ্যে যোগাযোগের অভাব এবং প্রকৃত অনুভূতি" প্রকাশিত হয়। একইভাবে, "হ্যাব অ্যা সিগার" রেকর্ড শিল্পকে "ফ্যাট-ক্যাট" হিসাবে নিদারূণ অবজ্ঞা করে, সঙ্গীত শিল্পে উঠতি নতুনদের সেই সস্তা গানের পুনরাবৃত্তি করে এবং "by the way, which one's Pink?" প্রশ্ন ছুড়ে।[৯] পরবর্তী "উইশ ইউ ওয়্যার হেয়ার" গানের কথা, ব্যারেটের অবস্থা এবং ওয়াটার্সের চারিত্রিক দ্বন্দ্বের সাথে লোভ, সমবেদনা এবং ভাববাদের সঙ্গে উচ্চাকাঙ্ক্ষা লড়াইয়ের সাথে সম্পর্কযুক্ত।[১০]

"আমি ডার্ক সাইড অব দ্য মুন সম্পর্কে কিছু সমালোচনা করেছি ..." ডেভিড গিলমোর উল্লেখ করেছিলেন। "ধারণাগুলি বহনকারী বাহনের মধ্যে দু'একটি তারা যে ধারণাগুলি বহন করেছিল তার মতো শক্তিশালী ছিল না। আমি ভেবেছিলাম আমাদের ধারণা এবং এর বাহনের সাথে দৃঢ় সম্পর্ক করার জন্য আরো চেষ্টা করা উচিত ছিল এবং যাতে দুটির মধ্যে সমান ইন্দ্রজাল বিস্তার করে।… উইশ ইউ ওয়্যার হেয়ার নির্মাণকালীন এ বিষয়ে ব্যক্তিগতভাবে আমি জোড় দিচ্ছিলাম।"[১১]

রেকর্ডিং[সম্পাদনা]

পিংক ফ্লয়েডের পূর্বেকার স্টুডিও অ্যালবাম, দ্য ডার্ক সাইড অব দ্য মুন-এর ইএমআই স্টাফ প্রকৌশলী অ্যালান পার্সন্স তাদের সাথে কাজ চালিয়ে যাওয়ার ব্যান্ডের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেছিলেন। দলটি প্রকৌশলী ব্রায়ান হামফ্রিসের সাথে তাদের মোর অ্যালবামের জন্য সাথে কাজ করেছিল, যেটি পাই স্টুডিওতে রেকর্ড করা হয়েছিল[১২] এবং ১৯৭৪ সালে আবার যখন তিনি একটি অনভিজ্ঞ কনসার্ট প্রকৌশলীকে প্রতিস্থাপন করেছিলেন।[১৩] হামফ্রিস ব্যান্ডের নতুন উপাদানটিতে কাজ করার বিষয়ে সহজাত ছিলেন, যদিও ইএমআইয়ের অ্যাবে রোড সেট আপের জন্য অপরিচিত হয়েও তিনি কিছু প্রাথমিক সমস্যার মুখোমুখি হয়েছিলেন। একসময়, হামফ্রিস অজান্তে "শাইন অন"-এর ব্যাক ট্র্যাকগুলি নষ্ট করে দেয়, এই অংশটিতে ওয়াটার্স এবং ড্রামাবাদক নিক মেইসন প্রতিধ্বনি সহ বেশকয়েক ঘন্টা ব্যয় করেছিলেন। ফলে সম্পূর্ণ অংশটি পুনরায় রেকর্ড করতে হয়েছিল।[৯][১৪][১৫]

অ্যাবি রোড স্টুডিও থ্রি-তে[১৬] উইশ ইউ ওয়্যার হেয়ার-এর সেশনগুলি ১৯৭৫ সালের জানুয়ারি থেকে জুলাই পর্যন্ত চলেছিল, প্রতি সপ্তাহে চার দিন দুপুর ২:৩০ থেকে সন্ধ্যা অবধি রেকর্ডিং চলতো।[১৭] প্রথমে কোনও নতুন উপাদান তৈরি করা দলটির নিকট কঠিন বলে মনে হয়েছিল, বিশেষত দ্য ডার্ক সাইড অব দ্য মুন-এর সাফল্যে দলের চার সদস্য শারীরিক এবং মানসিকভাবে নিঃশেষ হয়ে উঠেছিল। কিবোর্ডবাদক রিচার্ড রাইট পরে এই অধিবেশনগুলিকে "একটি কঠিন সময়ের মধ্যে অবতীর্ণ" হিসাবে বর্ণনা করেছিলেন এবং ওয়াটার্স নিজেদের "নিপীড়নমূলক" হিসাবে স্মরণ করেছিলেন।[১৮] মেইসন মাল্টি-ট্র্যাক রেকর্ডিংয়ের প্রক্রিয়াটি নিষ্কোষিত এবং ক্লান্তিকর অবস্থায় খুঁজে পেয়েছিলেন,[১৯] যখন গিলমোর ব্যান্ডের বিদ্যমান উপাদানগুলি উন্নতি করতে আরো আগ্রহী হয়ে উঠেছিলেন। গিলমোর, মেইসনকে নিয়ে ক্রমশ হতাশ হয়ে পড়ছিলেন, কেননা তার ব্যর্থ বিবাহ একটি সাধারণ বিপর্যয় এবং উদাসীনতার অনুভূতি নিয়ে এসেছিল, তখন তারা উভয়ই ড্রাম বাজানোয় হস্তক্ষেপ করেছিলেন।[১৮]

এটা বলতে খুব কঠিন সময় ছিল। All your childhood dreams had been sort of realised and we had the biggest selling records in the world and all the things you got into it for. The girls and the money and the fame and all that stuff it was all ... everything had sort of come our way and you had to reassess what you were in it for thereafter, and it was a pretty confusing and sort of empty time for a while. —David Gilmour[১৫]

২০১৪ সালের এক সাক্ষাৎকারে হামফ্রিস এই লড়াইযুক্ত অধিবেশনগুলি সম্পর্কে তার মতামত দিয়েছেন: “There were days when we didn't do anything. I don't think they knew what they wanted to do. We had a dartboard and an air rifle and we'd play these word games, sit around, get drunk, go home and return the next day. That’s all we were doing until suddenly everything started falling into place.”[১৭]

বেশকয়েক সপ্তাহ পরে, ওয়াটার্স অন্য একটি ধারণা ভাবতে শুরু করেন।[১৮] ১৯৭৪ সালের সফর থেকে তিনটি নতুন রচনা কমপক্ষে একটি নতুন অ্যালবাম শুরু করার প্রেরণা ছিল, এবং নতুন কাজের কেন্দ্রবিন্দু হিসাবে "শাইন অন ইউ ক্রেজি ডায়মন্ড" যুক্তিসঙ্গত পছন্দ বলে মনে হয়েছিল তাদের। প্রায়শই "একোস"-এর মতোন বিশ মিনিটের অধিক ব্যপ্তির ইন্সট্রুমেন্টাল, প্রারম্ভিক চার-নোটের গিটার ফেসগুলি ওয়াটার্সকে প্রাক্তন ব্যান্ড-সদস্য সিড ব্যারেটের দীর্ঘস্থায়ী অপচ্ছায়া স্মরণ করিয়ে দেয়।[২০] দুর্ঘটনাবশত এর পূর্বে একই শব্দগুচ্ছ গিলমোর রচনা করেছিলেন, তবে ওয়াটার্সের ইতিবাচক প্রতিক্রিয়া তাকে উৎসাহিত করা হয়েছিল।[২১] ওয়াটার্স "শাইন অন ইউ ক্রেজি ডায়মন্ড" বিভক্ত করতে চেয়েছিল, এবং এর দুটি অংশের মধ্যে দুটি নতুন গান যুক্ত করতে চেয়েছিলেন। গিলমোর এতে দ্বিমত পোষণ করেছিলেন, তবে তিনটি থেকে একটিতেই ছাড়িয়ে গেলেন।[২২] "ওয়েলকাম টু দি মেশিন" এবং "হ্যাভ অ্যা সিগার" গান দুটিতে সঙ্গীত ব্যবসায়ের প্রতি উপর্যপুরি আক্রমণ ছিল, ব্যারেটের উত্থান ও পতনের যথাযথ সংক্ষিপ্তসার সরবরাহ করতে "শাইন অন" গানের কথা খুব সুন্দরভাবে কাজ করেছে;[২৩] "কারণ আমি যা অনুভব করেছিলাম তার কাছাকাছি যেতে চাইছিলাম ... সিডের নিখোঁজ হওয়া সম্পর্কে এই ধরণের অনির্বচনীয়, অনিবার্য অসুস্থতা।"[২০] "Raving and Drooling" এবং "You Gotta Be Crazy"-এ নতুন ধারণার কোনও স্থান ছিল না এবং পরবর্তী ১৯৭৭-এর অ্যানিম্যাল্‌স অ্যালবাম পর্যন্ত আলাদা ছিল।[৬]

যন্ত্রানুষঙ্গ[সম্পাদনা]

"দ্য ডার্ক সাইড অব দ্য মুন"-এর মতো, ব্যান্ডটি ইএমএস ভিসিএস ৩ ("ওয়েলকাম টু দা মেশিন" গানে) এর মতো সিন্থেসাইজার ব্যবহার করেছিল, তবে গিলমোরের অ্যাকোস্টিক গিটার এবং মেইসনের পার্কশনের মাধ্যমে কোমল করা হয়েছিল।[৯] "শাইন অন"-এর শুরুতে "হাউসহোল্ড অবজেক্টস" নামে পরিচিত ব্যান্ডের পূর্বেকার কিন্তু অসম্পূর্ণ স্টুডিও রেকর্ডিংয়ের অবশিষ্টাংশ রয়েছে। বিভিন্ন ধরণের তরল দিয়ে ওয়াইনের গ্লাস ভরাট করা হয়েছিল, এবং প্রতিটি গ্লাসের প্রান্ত ভেজা আঙুল দিয়ে বৃত্তাকারে স্পর্শ করার ফলে উৎপন্ন শব্দ রেকর্ডিং করা হয়েছিল। এই রেকর্ডিংগুলি বেশকয়েকটি কর্ডে ট্র্যাক করা হয়েছিল।[৬]

জ্যাজ বেহালাবাদক স্টাফেন গ্রাপেলি এবং ধ্রুপদী বেহালাবাদক ইহুদি ম্যানুহিন একই ভবনের আরেকটি স্টুডিওতে পরিবেশন করছিলেন এবং নতুন অ্যালবামটির একটি অংশ রেকর্ড করার জন্য তাদের আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল। ম্যানুহিন, "উইশ ইউ ওয়্যার হেয়ার" গানে গ্রাপেলির পরিবেশন দেখেছিলেন; তবে, পরে ব্যান্ডটি সিদ্ধান্ত নিয়েছে যে তার অবদানটি অনুপযুক্ত এবং ২০১১ অবধি বিশ্বাস করা হয়েছিল যে এই অংশটি মুছে ফেলা হয়েছে।[২৪][২৫] দেখা যাচ্ছে যে তার পরিবেশনা অ্যালবামে অন্তর্ভুক্ত ছিল, তবে চূড়ান্ত মিশ্রণের পর তার অংশটি এতোটাই ক্ষুদ্র ছিল যে ব্যান্ডটি ধারণা করেছিল যে এতে তাকে স্বীকৃতি দেওয়া অবমাননাকর হবে।[২৬] তার অবদানের জন্য তাকে £৩০০ ডলার দেওয়া হয়েছিল (equivalent to £২৫০০ in ২০২০)। [২৭][২৮] ডিক প্যারি "শাইন অন ইউ ক্রেজি ডায়মন্ড"-এর জন্য আবার স্যাক্সোফোন বাজান।[২৯] উইশ ইউ ওয়্যার হেয়ার-এর শুরুর বারগুলি রেকর্ড করা হয়েছিল গিলমোরের গাড়ির বেতার থেকে, কারও সাথে ডায়ালটি ঘুরিয়ে দেওয়া হয়েছিল (ক্লাসিকাল সঙ্গীতটি শোনা গেছে চাইকভ্‌স্কি'র চতুর্থ সিম্ফনির সমাপ্তিতে)।[৩০]

কণ্ঠ[সম্পাদনা]

রেকর্ডিং সেশনগুলি মার্কিন সফরের সময় দু'বার বাধাপ্রাপ্ত হয়েছিল (প্রথমবার ১৯৭৫ সালের এপ্রিলে এবং পররেবার জুন মাসে),[৩১] এবং চূড়ান্ত অধিবেশনগুলি, যেগুলি নেবওয়ার্থে ব্যান্ডের পরিবেশনের পরে ঘটেছিল, যা ওয়াটার্সের জন্য বিশেষত অসুবিধাজনক প্রমাণিত হয়েছিল।[২২] তিনি "হ্যাব অ্যা সিগার" গানের জন্য কণ্ঠ রেকর্ড করতে প্রায় সংগ্রাম করেছিলেন কেননা গ্রহণযোগ্য সংস্করণটি সম্পাদন করতে বেশকয়েকটি টেক গ্রহণের প্রয়োজন ছিল। "শাইন অন ইউ ক্রেজি ডায়মন্ড" গানে মূল কণ্ঠ রেকর্ড করার সময় তার কণ্ঠের উপরে চাপ সৃষ্টি করার ফলে তার সমস্যাগুলি কিছুটা হলেও বেড়েছে। গিলমোরকে গানের নিধারিত অংশে গাইতে বলা হয়েছিল,[২৪] তবে শেষ পর্যন্ত তাদের সহকর্মী এবং বন্ধু রায় হার্পারকে এ দ্বায়িত্ব দেয়ার মাধ্যমে তা প্রত্যাখ্যান করা হয়েছিল। হার্পার সে সময়ে অ্যাবি রোডের অন্য একটি স্টুডিও কক্ষে তার নিজস্ব অ্যালবাম রেকর্ড করছিলেন, এবং গিলমোর ইতোমধ্যে তার জন্য কিছু গিটারের লিক পরিবেশন করেছিলেন। পরে ওয়াটার্স এই সিদ্ধান্তের জন্য আফসোস করেছিলেন যে গানটি তারই করা উচিত ছিল।[৩২] দা ব্ল্যাকবেরিস "শাইন অন ইউ ক্রেজি ডায়মন্ড" গানের ব্যাকিং ভোকাল রেকর্ড করেছলিল।[২৯]

সমালোচকের অভ্যর্থনা[সম্পাদনা]

পূর্ববর্তী পেশাদার পর্যালোচনা
পর্যালোচনা স্কোর
উৎসমূল্যায়ন
অলমিউজিক৫/৫ তারকা[৩৩]
Blender৫/৫ তারকা[৩৪]
Christgau's Record GuideA–[৩৫]
অ্যানসাইক্লোপিডিয়া অব পপুলার মিউজিক৪/৫ তারকা[৩৬]
The Great Rock Discography১০/১০[৩৭]
Music Story৫/৫ তারকা[৩৭]
MusicHound Rock৫/৫[৩৮]
Record Collector৫/৫ তারকা[৩৯]
The Rolling Stone Album Guide৫/৫ তারকা[৪০]
Tom Hull – on the WebA[৪১]

ট্র্যাকের তালিকা[সম্পাদনা]

সবগুলি গানের গীতিকার রজার ওয়াটার্স

প্রথম পাশ
নং.শিরোনামসুরকারমূল কন্ঠদৈর্ঘ্য
১."শাইন অন ইউ ক্রেজি ডায়মন্ড (অংশ ১–৫)"রজার ওয়াটার্স, ডেভিড গিলমোর, রিচার্ড রাইটওয়াটার্স১৩:৩২
২."ওয়েলকাম টু দি মেশিন"ওয়াটার্সগিলমোর৭:৩২
মোট দৈর্ঘ্য:২১:০৪
দ্বিতীয় পাশ
নং.শিরোনামসুরকারমূল কন্ঠদৈর্ঘ্য
১."হ্যাব অ্যা সিগার" (ফিচারিং রয় হার্পার)ওয়াটার্সরয় হার্পার৫:০৮
২."উইশ ইউ ওয়্যার হেয়ার"গিলমোর, ওয়াটার্সগিলমোর৫:৩৫
৩."শাইন অন ইউ ক্রেজি ডায়মন্ড (অংশ ৬–৯)"রাইট, গিলমোর, ওয়াটার্স (অংশ ৬–৮)
রাইট (অংশ ৯)
ওয়াটার্স১২:৩০
মোট দৈর্ঘ্য:২৩:১৩
1982 জাপানি সিডি মুক্তি
নং.শিরোনামদৈর্ঘ্য
১."শাইন অন ইউ ক্রেজি ডায়মন্ড (অংশ ১–৫) – ওয়েলকাম টু দি মেশিন"২১:০৩
২."হ্যাব অ্যা সিগার – উইশ ইউ ওয়্যার হেয়ার – শাইন অন ইউ ক্রেজি ডায়মন্ড (অংশ ৬–৯)"২৩:১০
মোট দৈর্ঘ্য:৪৪:১৩

কর্মিবৃন্দ[সম্পাদনা]

পিংক ফ্লয়েড[সম্পাদনা]

অতিরিক্ত সঙ্গীতশিল্পী[সম্পাদনা]

প্রযোজনা[সম্পাদনা]

চার্ট[সম্পাদনা]

চার্ট (১৯৭৫) শীর্ষ
অবস্থান
অস্ট্রেলিয় অ্যালবাম (কেন্ট মিউজিক রিপোর্ট)[৪৪]
অস্ট্রিয় অ্যালবাম (ওথ্রি অস্ট্রিয়া)[৪৫]
কানাডা শীর্ষ অ্যালবাম/সিডি (আরপিএম)[৪৬] ১৪
ডাচ অ্যালবাম (মেগাচার্টস)[৪৭]
জার্মান অ্যালবাম (অফিসিয়াল টপ ১০০)[৪৮]
নিউজিল্যান্ড অ্যালবাম (আরএমএনজেড)[৪৯]
নরওয়েজিয় অ্যালবাম (ভিজি-তালিকা)[৫০]
স্প্যানিয় অ্যালবাম (এএফই)[৫১]
সুইডিশ অ্যালবাম (সেরিটোপলিস্তান)[৫২] ১৪
ইউকে অ্যালবাম (ওসিসি)[৫৩]
ইউএস বিলবোর্ড ২০০[৫৪]
চার্ট (১৯৭৮) শীর্ষ
অবস্থান
অস্ট্রিয় অ্যালবাম (ওথ্রি অস্ট্রিয়া)[৫৫] ২৩
জার্মান অ্যালবাম (অফিসিয়াল টপ ১০০)[৫৬]
ইউকে অ্যালবাম (ওসিসি)[৫৭] ৫২
চার্ট (১৯৯৪) শীর্ষ
অবস্থান
জার্মান অ্যালবাম (অফিসিয়াল টপ ১০০)[৫৮] ৩৩
ইউকে অ্যালবাম (ওসিসি)[৫৯] ৫২
চার্ট (১৯৯৭) শীর্ষ
অবস্থান
জার্মান অ্যালবাম (অফিসিয়াল টপ ১০০)[৬০] ৩৩
চার্ট (২০০৬) শীর্ষ
অবস্থান
বেলজিয় অ্যালবাম (আল্ট্রাটপ ফ্লান্ডার্স)[৬১] ৮৫
বেলজিয় অ্যালবাম (আল্ট্রাটপ ওয়ালোনিয়া)[৬২] ৯৫
ইতালিয় অ্যালবাম (এফএমআই)[৬৩] ১৩
স্প্যানিয় অ্যালবাম (প্রোমিউসিকাা)[৬৪] ৬৭
সুইস অ্যালবাম (শ্যয়াইজার হিটপ্রেড)[৬৫] ৭০
চার্ট (২০১১) শীর্ষ
অবস্থান
অস্ট্রিয় অ্যালবাম (ওথ্রি অস্ট্রিয়া)[৬৬] ৩১
বেলজিয় অ্যালবাম (আল্ট্রাটপ ফ্লান্ডার্স)[৬৭] ৭৭
বেলজিয় অ্যালবাম (আল্ট্রাটপ ওয়ালোনিয়া)[৬৮] ৬৮
চেক অ্যালবাম (সিএনএস আইএফপিআই)[৬৯] ৩৪
ডাচ অ্যালবাম (মেগাচার্টস)[৪৭] ৬২
ফিনিয় অ্যালবাম (সুমেন বিরলিনেন তালিকা)[৭০] ৫০
ফরাসি অ্যালবাম (এসএনইপি)[৭১] ৩৪
জার্মান অ্যালবাম (অফিসিয়াল টপ ১০০)[৭২]
ইতালিয় অ্যালবাম (এফএমআই)[৭৩] ১০
নিউজিল্যান্ড অ্যালবাম (আরএমএনজেড)[৭৪] ২৪
নরওয়েজিয় অ্যালবাম (ভিজি-তালিকা)[৭৫] ২৪
পোলিয় অ্যালবাম (জেডপিএভি)[৭৬] ২০
পর্তুগিজ অ্যালবাম (এএফপি)[৭৭] ১৯
স্প্যানিয় অ্যালবাম (প্রোমিউসিকাা)[৭৮] ১৭
সুইডিশ অ্যালবাম (সেরিটোপলিস্তান)[৭৯] ২২
সুইস অ্যালবাম (শ্যয়াইজার হিটপ্রেড)[৮০] ১৫
ইউকে অ্যালবাম (ওসিসি)[৮১] ৩৮
ইউএস বিলবোর্ড ২০০[৮২] ৩৩
চার্ট (২০১৮) শীর্ষ
অবস্থান
পোলিয় অ্যালবাম (জেডপিএভি)[৮৩] ৩২

প্রত্যয়ন[সম্পাদনা]

অঞ্চল প্রত্যয়ন প্রত্যয়িত একক/বিক্রয়
আর্জেন্টিনা (সিএপিআইএফ)[৮৪] গোল্ড ৩০,০০০
অস্ট্রেলিয়া (এআরআইএ)[৮৫] ৭× প্ল্যাটিনাম ৩৫০,০০০
অস্ট্রিয়া (আইএফপিআই অস্ট্রিয়া)[৮৬] ২× প্ল্যাটিনাম ১,০০,০০০
কানাডা (সঙ্গীত কানাডা)[৮৭] ৩× প্ল্যাটিনাম ৩,০০,০০০
ফ্রান্স (এসএনইপি)[৮৮] ডায়মন্ড ১,৪২৭,২০০[৮৯]
জার্মানি (বিভিএমআই)[৯০] প্ল্যাটিনাম ৫,০০,০০০
গ্রিস (আইএফপিআই গ্রিস)[৯১] গোল্ড ৫০,০০০
ইতালি (এফআইএমআই)[৯২]
২০০৯ থেকে
২× প্ল্যাটিনাম ১,২০,০০০
পোল্যান্ড (জেডপিএভি)[৯৩] গোল্ড ৫০,০০০
যুক্তরাজ্য (বিপিআই)[৯৪] ২× প্ল্যাটিনাম ৬,০০,০০০
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র (আরআইএএ)[৯৬] ৬× প্ল্যাটিনাম ৬০,০০,০০০
সারাংশ
বিশ্বব্যাপী ১৩,০০০,০০০[৯৭]

*একক প্রত্যয়নের ভিত্তিতে বিক্রয় সংখ্যা
^একক প্রত্যয়নের ভিত্তিতে চালান সংখ্যা

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

তথ্যমূলক টীকা

  1. প্রথম দুটি পরবর্তীকালে "শীপ" এবং "ডগ্‌স", নামকরণ করা হয় এবং অ্যানিম্যাল্‌স অ্যালবামে প্রকাশিত হয়।

উদ্ধৃতিসমূহ

  1. "50 Greatest Prog Rock Albums of All Time"রোলিং স্টোন। ১৭ জুন ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ২৮ জুলাই ২০১৬ 
  2. পিংক ফ্লয়েডস্পিন ম্যাগাজিন। ২০০২। পৃষ্ঠা ৭৮। 
  3. Encyclopedia of Recorded Sound। Guy A Marco। ১৯৯৩। পৃষ্ঠা ১৬৫১। 
  4. শাফনার ১৯৯১, পৃ. ১৭৮
  5. শাফনার ১৯৯১, পৃ. ১৭৮–১৮৪
  6. মেইসন ২০০৫, পৃ. ২০৪
  7. দা পিংক ফ্লয়েড অ্যান্ড সিড ব্যারেট স্টোরি (ডিভিডি), বিবিসি, ২০০৩ 
  8. ডি পের্না ২০০২, পৃ. ২৩
  9. শাফনার ১৯৯১, পৃ. ১৮৭
  10. শাফনার ১৯৯১, পৃ. ১৮৮
  11. ফিল্ডার, হিউ (২০০২)। ল্লেভেলিন, সায়েন, সম্পাদক। "Sinking the pink"। ক্লাসিক রক (ক্রিস্টমাস সংস্করণ) (৪৮): ৫৯। 
  12. মেইসন ২০০৫, পৃ. ১৩৪, ২০০
  13. মেইসন ২০০৫, পৃ. ২০০
  14. মেইসন ২০০৫, পৃ. ২০২–২০৩
  15. In the Studio with Redbeard, Barbarosa Ltd. Productions, ১৯৯২, ১৪ ডিসেম্বর ২০১০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা 
  16. মেইসন ২০০৫, পৃ. ২০৮
  17. বুশকিন, রিচার্ড (ডিসেম্বর ২০১৪)। "Pink Floyd 'Shine On You Crazy Diamond'"সাউন্ড অন সাউন্ড। সংগ্রহের তারিখ ২৪ এপ্রিল ২০১৬ 
  18. শাফনার ১৯৯১, পৃ. ১৮৪–১৮৫
  19. মেইসন ২০০৫, পৃ. ২০২
  20. শাফনার ১৯৯১, পৃ. ১৮৪
  21. ওয়াটকিন্সন ও অ্যান্ডারসন ২০০১, পৃ. ১১৯
  22. পোভেই ২০০৭, পৃ. ১৯০
  23. শাফনার ১৯৯১, পৃ. ১৮৫–১৮৬
  24. মেইসন ২০০৫, পৃ. ২০৬
  25. উইলসন, জন (২৬ সেপ্টেম্বর ২০১১), Violinist Grappelli found on 'lost' Pink Floyd track, বিবিসি, সংগ্রহের তারিখ ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১২ 
  26. রিচার্ড, মেৎজগার (২৬ এপ্রিল ২০১৩), "Wish You Were Here: Pink Floyd Jam with Stéphane Grappelli, 1975", ডেঞ্জারাস মাইন্ডস, সংগ্রহের তারিখ ২৭ এপ্রিল ২০১৩ 
  27. UK CPI inflation numbers based on data available from Lawrence H. Officer (2010) "What Were the UK Earnings and Prices Then?" MeasuringWorth.
  28. শাফনার ১৯৯১, পৃ. ১৮৮–১৮৯
  29. ব্লেক ২০০৮, পৃ. ২২৪
  30. ব্লেক ২০০৮, পৃ. ২৩০
  31. শাফনার ১৯৯১, পৃ. ১৮৬–১৮৭
  32. শাফনার ১৯৯১, পৃ. ১৮৭–১৮৮
  33. Erlewine, Stephen Thomas, "Wish You Were Here", AllMusic, সংগ্রহের তারিখ ১৪ আগস্ট ২০০৯ 
  34. Twist, Carlo, "Pink Floyd – Wish You Were Here", Blender, ১৯ ডিসেম্বর ২০১০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা, সংগ্রহের তারিখ ২৭ এপ্রিল ২০১৫ 
  35. Christgau, Robert (১৯৮১)। "Consumer Guide '70s: P"Christgau's Record Guide: Rock Albums of the SeventiesTicknor & Fieldsআইএসবিএন 089919026X। সংগ্রহের তারিখ মার্চ ১০, ২০১৯ – robertchristgau.com-এর মাধ্যমে। 
  36. Larkin, Colin (২০১১)। "Pink Floyd"। Encyclopedia of Popular Music (5th সংস্করণ)। Omnibus Pressআইএসবিএন 0857125958 
  37. "Pink Floyd Wish You Were Here"Acclaimed Music। ২৭ ডিসেম্বর ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৭ ডিসেম্বর ২০১৪ 
  38. Graff, Gary; Durchholz, Daniel (eds) (১৯৯৯)। MusicHound Rock: The Essential Album Guide। Farmington Hills, MI: Visible Ink Press। পৃষ্ঠা 872আইএসবিএন 1-57859-061-2 
  39. "Pink Floyd – Wish You Were Here (CD)"Target Corporation। সংগ্রহের তারিখ মার্চ ১০, ২০১৯ 
  40. Sheffield, Rob (২ নভেম্বর ২০০৪)। "Pink Floyd: Album Guide"Rolling Stone। Wenner Media, Fireside Books। ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৭ ডিসেম্বর ২০১৪ 
  41. Hull, Tom (n.d.)। "Grade List: Pink Floyd"Tom Hull – on the Web। সংগ্রহের তারিখ ১৯ জুলাই ২০২০ 
  42. সিম্পসন, ডেভ (২১ অক্টোবর ২০১৪)। "The little-known musicians behind some of music's most famous moments" (ইংরেজি ভাষায়)। দ্য গার্ডিয়ান। সংগ্রহের তারিখ ৩ এপ্রিল ২০১৭ 
  43. ব্লেক ২০১১, পৃ. ২৩১
  44. Kent, David (১৯৯৩)। Australian Chart Book 1970–1992 (Illustrated সংস্করণ)। St. Ives, N.S.W.: Australian Chart Book। পৃষ্ঠা 233। আইএসবিএন 0-646-11917-6 
  45. "Pink Floyd – Wish You Were Here" (জার্মান ভাষায়)। Austriancharts.at. হাং মেডিয়ান। সংগ্রহের তারিখ 9 June 2016.
  46. "Top RPM Singles: Issue 4045a." আরপিএম. Library and Archives Canada। সংগ্রহের তারিখ 9 June 2016.
  47. "Pink Floyd – Wish You Were Here" (ডাচ ভাষায়)। Dutchcharts.nl. হাং মেডিয়ান। সংগ্রহের তারিখ 9 June 2016.
  48. "15.11.1975"Musikmarkt। Musikmarkt GmbH & Co. KG। সংগ্রহের তারিখ ৯ জুন ২০১৬ 
  49. "New Zealand charts portal (31/10/1975)"charts.nz। সংগ্রহের তারিখ ৯ জুন ২০১৬ 
  50. "Norwegian charts portal (40/1975)"norwegiancharts.com। সংগ্রহের তারিখ ৯ জুন ২০১৬ 
  51. Salaverri, Fernando (সেপ্টেম্বর ২০০৫)। Sólo éxitos: año a año, 1959–2002 (1st সংস্করণ)। Spain: Fundación Autor-SGAE। আইএসবিএন 84-8048-639-2 
  52. "Swedish charts portal (14/11/1975)"swedishcharts.com। সংগ্রহের তারিখ ৯ জুন ২০১৬ 
  53. "Pink Floyd | Artist | Official Charts". ইউকে অ্যালবাম চার্ট সংগ্রহের তারিখ 9 June 2016.
  54. "Pink Floyd Album & Song Chart History" বিলবোর্ড ২০০ for Pink Floyd. সংগ্রহের তারিখ 9 June 2016.
  55. "Pink Floyd – Wish You Were Here" (জার্মান ভাষায়)। Austriancharts.at. হাং মেডিয়ান। সংগ্রহের তারিখ 22 June 2016.
  56. "Offiziellecharts.de – Pink Floyd – Wish You Were Here" (জার্মান ভাষায়)। জিএফকে এন্টারটেইনমেন্ট চার্ট। সংগ্রহের তারিখ 22 June 2016.
  57. "Pink Floyd | Artist | Official Charts". ইউকে অ্যালবাম চার্ট সংগ্রহের তারিখ 22 June 2016.
  58. "Offiziellecharts.de – Pink Floyd – Wish You Were Here" (জার্মান ভাষায়)। জিএফকে এন্টারটেইনমেন্ট চার্ট। সংগ্রহের তারিখ 22 June 2016.
  59. "Pink Floyd | Artist | Official Charts". ইউকে অ্যালবাম চার্ট সংগ্রহের তারিখ 22 June 2016.
  60. "Offiziellecharts.de – Pink Floyd – Wish You Were Here" (জার্মান ভাষায়)। জিএফকে এন্টারটেইনমেন্ট চার্ট। সংগ্রহের তারিখ 22 June 2016.
  61. "Pink Floyd – Wish You Were Here" (ডাচ ভাষায়)। Ultratop.be. হাং মেডিয়ান। সংগ্রহের তারিখ 22 June 2016.
  62. "Pink Floyd – Wish You Were Here" (ফরাসি ভাষায়)। Ultratop.be. হাং মেডিয়ান। সংগ্রহের তারিখ 22 June 2016.
  63. "Pink Floyd – Wish You Were Here". Italiancharts.com. হাং মেডিয়ান। সংগ্রহের তারিখ 22 June 2016.
  64. "Pink Floyd – Wish You Were Here". Spanishcharts.com. হাং মেডিয়ান। সংগ্রহের তারিখ 22 June 2016.
  65. "Pink Floyd – Wish You Were Here". Swisscharts.com. হাং মেডিয়ান। সংগ্রহের তারিখ 22 June 2016.
  66. "Pink Floyd – Wish You Were Here" (জার্মান ভাষায়)। Austriancharts.at. হাং মেডিয়ান। সংগ্রহের তারিখ 9 June 2016.
  67. "Pink Floyd – Wish You Were Here" (ডাচ ভাষায়)। Ultratop.be. হাং মেডিয়ান। সংগ্রহের তারিখ 9 June 2016.
  68. "Pink Floyd – Wish You Were Here" (ফরাসি ভাষায়)। Ultratop.be. হাং মেডিয়ান। সংগ্রহের তারিখ 9 June 2016.
  69. "Czech Albums – Top 100". সিএনএস আইএফপিআইটীকা: On the chart page, select 201139 on the field besides the word "Zobrazit", and then click over the word to retrieve the correct chart data. সংগ্রহের তারিখ 17 June 2016.
  70. "Pink Floyd: Wish You Were Here" (ফিনিয় ভাষায়)। Musiikkituottajat – IFPI Finland. সংগ্রহের তারিখ 22 June 2016.
  71. "Les charts francais (12/11/2011)"lescharts.com। সংগ্রহের তারিখ ৯ জুন ২০১৬ 
  72. "Offiziellecharts.de – Pink Floyd – Wish You Were Here" (জার্মান ভাষায়)। জিএফকে এন্টারটেইনমেন্ট চার্ট। সংগ্রহের তারিখ 9 June 2016.
  73. "Italian charts portal (17/11/2011)"italiancharts.com। সংগ্রহের তারিখ ৯ জুন ২০১৬ 
  74. "New Zealand charts portal (14/11/2011)"charts.nz। সংগ্রহের তারিখ ৯ জুন ২০১৬ 
  75. "Norwegian charts portal (45/2011)"norwegiancharts.com। সংগ্রহের তারিখ ৯ জুন ২০১৬ 
  76. "Oficjalna lista sprzedaży :: ওলিস - প্রাতিষ্ঠানিক খুচরা বিক্রয় চার্ট"ওলিসপোলিশ সোসাইটি অব দ্য ফোনোগ্রাফিক ইন্ডাস্ট্রি। সংগ্রহের তারিখ 22 June 2016.
  77. "Pink Floyd – Wish You Were Here". Portuguesecharts.com. হাং মেডিয়ান। সংগ্রহের তারিখ 9 June 2016.
  78. "Spanish charts portal (13/11/2011)"spanishcharts.com। সংগ্রহের তারিখ ৯ জুন ২০১৬ 
  79. "Swedish charts portal (11/11/2011)"swedishcharts.com। সংগ্রহের তারিখ ৯ জুন ২০১৬ 
  80. "Pink Floyd – Wish You Were Here". Swisscharts.com. হাং মেডিয়ান। সংগ্রহের তারিখ 9 June 2016.
  81. "Pink Floyd | Artist | Official Charts". ইউকে অ্যালবাম চার্ট সংগ্রহের তারিখ 9 June 2016.
  82. "Pink Floyd Album & Song Chart History" বিলবোর্ড ২০০ for Pink Floyd. সংগ্রহের তারিখ 9 June 2016.
  83. "Oficjalna lista sprzedaży :: ওলিস - প্রাতিষ্ঠানিক খুচরা বিক্রয় চার্ট"ওলিসপোলিশ সোসাইটি অব দ্য ফোনোগ্রাফিক ইন্ডাস্ট্রি। সংগ্রহের তারিখ 14 June 2018.
  84. "Discos de oro y platino" (স্প্যানিয় ভাষায়)। Cámara Argentina de Productores de Fonogramas y Videogramas। ৬ জুলাই ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৫ আগস্ট ২০১২ 
  85. "ARIA Charts – Accreditations – 2011 Albums"Australian Recording Industry Association। সংগ্রহের তারিখ ২১ আগস্ট ২০১২ 
  86. "অস্ট্রিয় অ্যালবামের প্রত্যায়নপত্রসমূহ – পিংক ফ্লয়েড – উইশ ইউ ওয়্যার হেয়ার" (জার্মান ভাষায়)। আইএফপিআই অস্ট্রিয়া। সংগ্রহের তারিখ ২১ আগস্ট ২০১২  Enter পিংক ফ্লয়েড in the field Interpret. Enter উইশ ইউ ওয়্যার হেয়ার in the field Titel. Select album in the field Format. Click Suchen. 
  87. "Canadian অ্যালবামের প্রত্যায়নপত্রসমূহ – পিংক ফ্লয়েড – উইশ ইউ ওয়্যার হেয়ার"মিউজিক কানাডা। সংগ্রহের তারিখ ২১ আগস্ট ২০১২ 
  88. "ফরাসি অ্যালবামের প্রত্যায়নপত্রসমূহ – পিংক ফ্লয়েড – উইশ ইউ ওয়্যার হেয়ার" (ফরাসি ভাষায়)। ইনফোডিস্ক। সংগ্রহের তারিখ ২১ আগস্ট ২০১২  Select পিংক ফ্লয়েড and click OK. 
  89. https://www.infodisc.fr/Ventes_Albums_Tout_Temps.php?debut=50
  90. "Gold-/Platin-Datenbank (পিংক ফ্লয়েড; 'উইশ ইউ ওয়্যার হেয়ার')" (জার্মান ভাষায়)। Bundesverband Musikindustrie। সংগ্রহের তারিখ ২১ আগস্ট ২০১২ 
  91. "International - Golden Floyd" (PDF)বিলবোর্ড। ১০ জুন ১৯৭৮। পৃষ্ঠা 70। সংগ্রহের তারিখ ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০ – American Radio History-এর মাধ্যমে। 
  92. "Italian অ্যালবামের প্রত্যায়নপত্রসমূহ – পিংক ফ্লয়েড – উইশ ইউ ওয়্যার হেয়ার" (PDF) (Italian ভাষায়)। Federazione Industria Musicale Italiana। সংগ্রহের তারিখ ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০  Select "2016" in the "Anno" drop-down menu. Select "উইশ ইউ ওয়্যার হেয়ার" in the "Filtra" field. Select "Album e Compilation" under "Sezione".
  93. "পোলিশ অ্যালবামের প্রত্যায়নপত্রসমূহ – পিংক ফ্লয়েড – উইশ ইউ ওয়্যার হেয়ার" (পোলিশ ভাষায়)। Polish Society of the Phonographic Industry। সংগ্রহের তারিখ ৮ জানুয়ারি ২০১৪ 
  94. "ব্রিটিশ অ্যালবামের প্রত্যায়নপত্রসমূহ – পিংক ফ্লয়েড – উইশ ইউ ওয়্যার হেয়ার" (ইংরেজি ভাষায়)। British Phonographic Industry। {২৬ নভেম্বর ২০২০। সংগ্রহের তারিখ 21 August 2012  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |তারিখ= (সাহায্য) Select albums in the Format field. Select প্ল্যাটিনাম in the Certification field. Type উইশ ইউ ওয়্যার হেয়ার in the "Search BPI Awards" field and then press Enter.
  95. BPI Sales Awards Launch Automatic Certification, বিপিআই
  96. UNSUPPORTED OR EMPTY REGION: মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র.
  97. পোভেই ২০০৭, পৃ. ৩৪৬।

গ্রন্থতালিকা

আরো পড়ুন[সম্পাদনা]

  • রেইসিং, রাসেল (২০০৫)। স্পিক টু মি। অ্যাসগেট পাবলিশিং। আইএসবিএন 0-7546-4019-1 
  • For a television documentary on the album, see The Story Of Wish You Were Here, Eagle Rock, ২৫ জুন ২০১২ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]