ইট উড বি সো নাইস

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
"ইট উড বি সো নাইস"
ইট উড বি সো নাইস
পিংক ফ্লয়েড কর্তৃক একক
বি-সাইড"জুলিয়া ড্রিম"
মুক্তিপ্রাপ্ত১২ এপ্রিল ১৯৬৮; ৫২ বছর আগে (1968-04-12)
রেকর্ডকৃতফেব্রুয়ারি ১৯৬৮, অ্যাবি রোড স্টুডিওস, লন্ডন
ধারাসাইকেডেলিক পপ[১]
লেবেলকলাম্বিয়া (ইএমআই)(ইউকে)
গান লেখকরিচার্ড রাইট
প্রযোজকনরম্যান স্মিথ
পিংক ফ্লয়েড কালক্রম কালক্রম
"অ্যাপল্স অ্যান্ড অরেঞ্জেস"
(১৯৬৭)
"ইট উড বি সো নাইস"
(১৯৬৮)
"লেট দেয়ার বি মোর লাইট"
(১৯৬৮)

"ইট উড বি সো নাইস" ১৯৬৮ সালে প্রকাশিত রক ব্যান্ড পিংক ফ্লয়েডের চতুর্থ একক গান, যেটি রচনা করেছেন দলটির তৎকালীন কিবোর্ডবাদক এবং গায়ক রিচার্ড রাইট[২][৩][৪] গানটি ১৯৭১ সালের সংকলন রেলিক্স অ্যালবামের পাশাপাশি ১৯৯২ সালে শাইন অন বক্স সেট প্রকাশের আগে দ্য আর্লি সিঙ্গেল্স হিসাবে প্রকাশিত হয়েছিল। এটি কেবলমাত্র দা বেস্ট অব দা পিংক ফ্লয়েড (১৯৭০) এবং বিখ্যাত বুটলেগ দা ডার্ক সাইড অব দা মো সংকলন অ্যালবামে সংকলিত হয়েছে। গানটির বি-সাইডে রয়েছে "জুলিয়া ড্রিম" একক, যেটি রচনা করেছেন দলটির গিটারবাদক রজার ওয়াটার্স (যিনি ধীরে ধীরে দলটির মূল গীতিকার ও কণ্ঠশিল্পী হয়ে ওঠেন) যেটি দা আর্লি সিঙ্গেল্স অ্যালবামে পুনরায় প্রকাশিত হয়েছিল।

বিভিন্ন সংস্করণ[সম্পাদনা]

১৯৬৮ সালে প্রকাশিত একটি সংবাদপত্রের তথ্য অনুসারে ভিন্ন গানের কথায় মূল এককটির দুটি সংস্করণ রয়েছে। একই তথ্য অনুসারে প্রথম লিরিক সম্পর্কে লন্ডনের ইভনিং স্ট্যান্ডার্ড সংবাদপত্রে উল্লেখ রয়েছে। গানটি যুক্তরাজ্যভিত্তিক একটি গণমাধ্যম সংস্থা বিবিসি কর্তৃক নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়েছিল কারণ একটি কঠোর বিজ্ঞাপনবিহীন নীতি যা নাম অনুসারে কোনও পণ্য উল্লেখ করার অধিকার বাতিল করে। দলটি বিবিসির জন্য একটি বিশেষ সংস্করণ রেকর্ড করতে অতিরিক্ত সময় এবং ব্যয় করতে বাধ্য হয়েছিল ফলে "ডেইলি স্ট্যান্ডার্ড" নামে এর পরিবর্তীত সংস্করণ প্রকাশ পায়। এই সংস্করণটি কেবলমাত্র এলপি এবং সিডিতে পুনরায় প্রকাশিত হয়েছে। "ইভনিং স্ট্যান্ডার্ড" ডিস্কগুলির মধ্যে কতগুলি আসলে বিদ্যমান তা অজানা। সংযোজন প্রচার সত্ত্বেও, এককটি খুব কম প্রচার পেয়েছিল এবং ইউকে একক চার্টে প্রবেশ করতে ব্যর্থ হয়েছিল।

অভ্যর্থন[সম্পাদনা]

দ্য ডার্ক সাইড অব দ্য মুন: দ্য মেকিং অব দ্য পিংক ফ্লয়েড মাস্টারপিস গ্রন্থে, জন হ্যারিস গানটি সম্পর্কে মন্তব্য লিখেছেন:

"The first recorded work [Pink Floyd] released in the wake of Syd Barrett's exit was Richard Wright's almost unbearably whimsical 'It Would Be So Nice,' a single whose lightweight strain of pop-psychedelia—akin, perhaps, to the music of such faux-counterculturalists as the Hollies and the Monkees—rendered it a non-event that failed to trouble the British charts; as Roger Waters later recalled, 'No one ever heard it because it was such a lousy record.' Waters' own compositional efforts, however, were hardly more promising. 'Julia Dream', the single's B-side, crystallized much the same problem: though the band evidently wanted to maintain the Syd Barrett aesthetic, their attempts sounded hopelessly lightweight."[১]

গানটির প্রতি অপছন্দ জানাতে নিক মেইসন ওয়াটার্সের চেয়েও বেশি সোচ্চার ছিলেন:

Mason: "Fucking awful, that record, wasn't it? At that period we had no direction. We were being hustled about to make hit singles. There's so many people saying it's important you start to think it is important. It is possible on an LP to do exactly what we want to do. . . ."

Roger Waters: "Live bookings seem to depend on whether or not you have a record in the Top Ten. I don't like 'It Would Be So Nice.' I don't like the song or the way it's sung."
Mason: "We were a rock and roll band and if you're a rock and roll band and you've got a record that you want to be number one, you get it played and if they say 'take something out' or whatever - you do it. In fact what you do is exactly what was done - you make as much press out of it as possible. You ring up the Evening Standard and say: 'Did you know that the BBC won't play our record because it mentions your paper?'"[৫]

কর্মিবৃন্দ[সম্পাদনা]

কভার[সম্পাদনা]

গানটির একটি কভার সংস্করণ ক্যাপ্টেন সেনসিবলের দ্বিতীয় একক অ্যালবাম দা পাওয়ার অব লাভ-এ প্রকাশিত হয়।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Harris, John (২০০৬)। The Dark Side of the Moon: The Making of the Pink Floyd MasterpieceHarper Perennialআইএসবিএন 0-00-723229-2 
  2. স্ট্রং ২০০৪, পৃ. ১১৭৭।
  3. মাবেট ১৯৯৫, পৃ. ৩৯।
  4. ডি পের্না ২০০২, পৃ. ১৩।
  5. "p8"Digilander.libero.it। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-১০-০২ 

উৎস[সম্পাদনা]

মাবেট, অ্যান্ডি (১৯৯৫)। The Complete Guide to the Music of Pink Floyd [দ্য কমপ্লিট গাইড টু দ্য মিউজিক অব পিংক ফ্লয়েড] (১ম ইউকে পেপারব্যাক সংস্করণ)। অমনিবাস প্রেস। আইএসবিএন 978-0-7119-4301-8 
ডি পের্না, অ্যালান (২০০২)। "মিস্ট্রিরিয়াস ওয়েস"। কিটস, জেফ; টলিনস্কি, ব্রাড। Guitar World Presents: Pink Floyd [গিটার ওর্য়াল্ড প্রেজেন্টস: পিংক ফ্লয়েড]। হাল লিওনার্ড। আইএসবিএন 978-0-7546-6708-7 
স্ট্রং, মার্টিন সি. (২০০৪)। The Great Rock Discography (ইংরেজি ভাষায়) (৭ম সংস্করণ)। এডিনবরা: ক্যানোঙ্গেট বুক্‌সআইএসবিএন 1-84195-551-5ওসিএলসি 863544914 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]