প্রবেশদ্বার:পিংক ফ্লয়েড

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

পিংক ফ্লয়েড প্রবেশদ্বার


RWHollywoodBowl1-cover.JPG

পিংক ফ্লয়েড (ইংরেজি: Pink Floyd) ১৯৬৫ সালে গঠিত লন্ডন ভিত্তিক ব্রিটিশ রক ব্যান্ড। ১৯৬০-এর দশকের শেষের দিকে তারা লন্ডনের আন্ডারগ্রাউন্ড সঙ্গীত থেকে উঠে এসে তাদের প্রোগ্রেসিভ এবং সাইকেডেলিক সঙ্গীতের জন্য জনপ্রিয় সঙ্গীত ইতিহাসের অন্যতম সর্বাধিক বাণিজ্যিকভাবে সফল এবং প্রভাবশালী দল হয়ে উঠেছে। দার্শনিক গানের কথা, ধ্বনিত নিরীক্ষণ, সম্প্রসারিত সুর (কম্পোজিশন) এবং বিস্তৃত সরাসরি পরিবেশনার জন্য তারা প্রোগ্রেসিভ রক ধারার শীর্ষস্থানীয় ব্যান্ড।

পিংক ফ্লয়েড গঠিত হয় ১৯৬৫ সালে চারজন তরুণের সমন্বয়ে: স্থাপত্যবিদ্যার শিক্ষার্থী সিড ব্যারেট - গিটার ও মূল কন্ঠ, নিক মেইসন - ড্রাম, রজার ওয়াটার্স - বেস ও কন্ঠ, এবং রিচার্ড রাইট - কিবোর্ড ও কন্ঠ। ১৯৬০-এর দশকের শেষে তারা লন্ডনের আন্ডারগ্রাউন্ড সঙ্গীত পরিবেশনার মধ্য দিয়ে জনপ্রিয়তা অর্জন করতে শুরু করে, এবং ব্যারেটের নেতৃত্বাধীনে দুটি চার্ট তালিকাভুক্ত একক গান এবং দ্য পাইপার অ্যাট দ্য গেট্‌স অব ডউন (১৯৬৭) নামে একটি সফল আত্মপ্রকাশ অ্যালবাম প্রকাশ করে। ডিসেম্বর ১৯৬৭ সালে, পঞ্চম সদস্য হিসাবে গিটারবাদক ডেভিড গিলমোর দলে যোগদান করেন। এপ্রিল ১৯৬৮ সালে, মানসিক স্বাস্থ্যের অবনতি ঘটায় ব্যারেট ব্যান্ড ত্যাগ করেন। ওয়াটার্স, ব্যান্ডের প্রাথমিক গীতিকার এবং ধারণাগত নেতা হয়ে ওঠেন, পাশাপাশি তাদের সমালোচনাপূর্ণ এবং বাণিজ্যিকভাবে সফল দ্য ডার্ক সাইড অব দ্য মুন (১৯৭৩), উইশ ইউ ওয়্যার হেয়ার (১৯৭৫), অ্যানিম্যাল্‌স (১৯৭৭), দ্য ওয়াল (১৯৭৯) এবং দ্য ফাইনাল কাট (১৯৮৩) অ্যালবামের ধারণা উদ্ভাবন করেন। তাদের দ্য ডার্ক সাইড অব দ্য মুন এবং দ্য ওয়াল হয়ে ওঠে সর্বকালের সর্বোচ্চ-বিক্রিত অ্যালবাম। ব্যান্ডটি বেশকয়েকটি চলচ্চিত্রের স্কোর পরিচালনা করেছিল।

নির্বাচিত নিবন্ধ - অন্যগুলো দেখান

ব্রিটিশ রক ব্যান্ড পিংক ফ্লয়েডের ডিস্কোগ্রাফি, পনেরোটি স্টুডিও অ্যালবাম, তিনটি লাইভ অ্যালবাম, নয়টি সংকলন অ্যালবাম, চারটি বকাস সেট, পাঁচটি এক্সটেন্ডেট প্লে, এবং সাতাশটি একক গানের সমন্বয়ে গঠিত।

১৯৬৫ সালে গঠিত, পিংক ফ্লয়েড প্রাথমিকভাবে তাদের সাইকেডেলিক বা স্পেস রক এবং প্রগতিশীল রক সঙ্গীতর জন্যে স্বীকৃতি অর্জন করে। দার্শনিক গানের কথা, স্বনিক পরীক্ষণ, উদ্ভাবনী প্রচ্ছদ শিল্প, সম্প্রসারিত কম্পোজিশন এবং বিস্তৃত লাইভ শো-এর জন্যে তারা পরিচিত। রক সঙ্গীতের সবচেয়ে সফল কাজগুলির মধ্যে মধ্যে দলটি বিশ্বব্যাপী ২৫০ মিলিয়ন অ্যালবাম বিক্রি করেছে, যার মধ্যে শুধুমাত্র মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ৭৫ মিলিয়ন ইউনিট বিক্রি হয়েছে।

আরো পড়ুন...

"মানি" ব্রিটিশ প্রোগ্রেসিভ রক ব্যান্ড পিংক ফ্লয়েডের ১৯৭৩ সালের অ্যালবাম দ্য ডার্ক সাইড অব দ্য মুন থেকে একটি গান। রজার ওয়াটার্স রচিত গানটি এলপি রেকর্ডের দ্বিতীয় পাশের প্রথম গান।

একক গান হিসাবে মুক্তিপ্রাপ্ত, এটি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ব্যান্ডটির প্রথম হিট হয়ে ওঠে, ক্যাশ বক্স ম্যাগাজিনে ১০ নম্বর এবং বিলবোর্ড হট ১০০ তালিকায় ১৩ নম্বরে অবস্থান নেয়। "মানি" সাধারণত উল্লেখযোগ্য এর অস্বাভাবিক

সময় স্বাক্ষরের, এবং অর্থ সম্পর্কিত সাউন্ড এফেক্ট টেপ লুপ (যেমন নগদ নিবন্ধক বা ক্যাশ রেজিস্ট্রারের রিং এবং পয়সার ঝঙ্কার)-এর কারণে, যা পর্যায়ক্রমে গান জুড়ে একাধিকবার শোনা যায়।

আরো পড়ুন...

নির্বাচিত জীবনী - অন্যগুলো দেখান

Syd barrett.jpg

রজার কিথ "সিড" ব্যারেট (জানুয়ারি ৬, ১৯৪৬ – জুলাই ৭, ২০০৬) ছিলেন একজন ব্রিটিশ সঙ্গীতঙ্গ, সুরকার, গায়ক, গানলেখক, চিত্রশিল্পী এবং কবি। পিংক ফ্লয়েড ব্যান্ডের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য হিসেবে সবচেয়ে ভাল পরিচিত, র‌্যারেট ছিলেন ব্যান্ডটির প্রথম দিককার প্রধান গায়ক, গিটারবাদক এবং প্রধান গীতিকার এবং ব্যান্ডের নামকরণের কৃতিত্বধারী। ব্যারেট পিংক ল্লয়েড ছেড়ে যান এপ্রিল ১৯৬৮ সালে এবং পরবর্তীতে জীবনব্যাপী ট্রোমাটাইজেশন ঘটায় মানসিক অসুস্থতার কারণে হাসপাতালে থাকতে হয়েছিল।

ব্যারেট দশ বছরের কম সময় ধরে সঙ্গীতে সক্রিয় ছিলেন। পিংক ফ্লয়েড সঙ্গে, তিনি চারটি একক, পাশাপাশি তাদের আত্মপ্রকাশ অ্যালবাম এবং বিভিন্ন অপ্রকাশিত গান রেকর্ড করেন। ব্যারেট তার প্রথম একক অ্যালবাম দ্য ম্যাডকেপ লাফস থেকে "অক্টোপাস" গানের মাধ্যমে ১৯৬৯ সালে তার একক কর্মজীবন শুরু করেন। অ্যালবামটি এক বছরের কোর্সের উপর পাঁচজন পৃথক প্রযোজকের (পিটার জেনার, ম্যালকম জোন্স, ডেভিড গিলমোর, রজার ওয়াটার্স এবং ব্যারেট নিজে) সঙ্গে রেকর্ড করা হয়েছিল। ম্যাডকেপ মুক্তির প্রায় দুই মাস পর, ব্যারেট তার দ্বিতীয় এবং সর্বশেষ ব্যারেট (১৯৭০) অ্যালবামের কাজ শুরু করেন, গিলমোর প্রযোজনা এবং রিচার্ড রাইটের সমন্বিত অবদানে। তিনি ২০০৬ সালে তার মৃত্যু পর্যন্ত স্ব-আরোপিত নিঃসঙ্গতায় জীবনযাপন করেন। ১৯৮৮ সালে, অপেল অ্যালবামের একটি অপ্রকাশিত ট্র্যাক এবং আউটটেক, ব্যারেটের অনুমোদনে ইএমআই কর্তৃক মুক্তি দেয় হয়।

আরো পড়ুন...

নির্বাচিত অ্যালবাম - অন্যগুলো দেখান


উইশ ইউ ওয়্যার হেয়ার ব্রিটিশ রক ব্যান্ড পিংক ফ্লয়েডের নবম স্টুডিও অ্যালবাম। এটি ১২ সেপ্টেম্বর ১৯৭৫ সালে হার্ভেস্ট রেকর্ডস কর্তৃক যুক্তরাজ্যে এবং একদিন পর কলাম্বিয়া রেকর্ডস কর্তৃক যুক্তরাষ্ট্রে প্রকাশিত, যেটি ছিলো প্রথম আমেরিকান মুক্তি।

ইউরোপে সঞ্চালনের সময় তাদের রচিত সঙ্গীতের উপর ভিত্তি করে পিংক ফ্লয়েড, লন্ডনে অ্যাবি রোড স্টুডিওসে একাধিক সেশনের সংমিশ্রনে উইশ ইউ ওয়্যার হেয়ার রেকর্ড করা হয়েছিল। দুটি গানে সঙ্গীত ব্যবসার সমালোচনা রয়েছে, অন্যটি বিচ্ছিন্নতার প্রকাশ এবং মাল্টি-পার্ট রচনার "শাইন অন ইউ ক্রেজি ডায়মন্ড" যা পিংক ফ্লয়েডের প্রতিষ্ঠাতা সিড ব্যারেটকে শ্রদ্ধা জানিয়ে করা হয়েছে, যিনি মানসিক স্বাস্থ্যহানির কারণে সাত বছর পূর্বে ব্যান্ড ত্যাগ করেছিলেন। তাদের দ্য ডার্ক সাইড অব দ্য মুন (১৯৭৩) অ্যালবামের মতোন, এতেও ফ্লয়েড স্টুডিও এফেক্ট ও সিন্থেজাইজারের ব্যবহার ঘটায়, এবং অতিথি গায়কদের সংযোগ ঘটান, রয় হার্পার, যিনি "হ্যাব অ্যা সিগার" গানে মূল কণ্ঠ দিয়েছিলেন এবং ভেনেটা ফিল্ডস, যিনি "শাইন অন ইউ ক্রেজি ডায়মন্ড" গানে নেপথ্য কণ্ঠ দিয়েছিলেন।

আরো পড়ুন...

নির্বাচিত চিত্র - অন্যগুলো দেখান


PinkFloydPig Animals.jpg
ফ্লয়েড পিগি- পিংক ফ্লয়েডের অ্যালবাম অ্যানিম্যাল্‌স থেকে একটি অঙ্গবিন্যাস


আরো মিডিয়া...

উপ-বিষয়শ্রেণী

সহযোগী উইকিমিডিয়া

উইকিসংবাদে পিংক ফ্লয়েড   উইকিউক্তিতে পিংক ফ্লয়েড   উইকিবইয়ে পিংক ফ্লয়েড   উইকিসংকলনে পিংক ফ্লয়েড   উইকিঅভিধানে পিংক ফ্লয়েড   উইকিবিশ্ববিদ্যালয়ে পিংক ফ্লয়েড   উইকিমিডিয়া কমন্সে পিংক ফ্লয়েড উইকিউপাত্তে পিংক ফ্লয়েড উইকিভ্রমণে পিংক ফ্লয়েড
উন্মুক্ত সংবাদ উৎস উক্তি-উদ্ধৃতির সংকলন উন্মুক্ত পাঠ্যপুস্তক ও ম্যানুয়াল উন্মুক্ত পাঠাগার অভিধান ও সমার্থশব্দকোষ উন্মুক্ত শিক্ষা মাধ্যম মুক্ত মিডিয়া ভাণ্ডার উন্মুক্ত জ্ঞানভান্ডার উন্মুক্ত ভ্রমণ নির্দেশিকা
Wikinews-logo.svg
Wikiquote-logo.svg
Wikibooks-logo.png
Wikisource-logo.svg
Wiktionary-logo.svg
Wikiversity-logo.svg
Commons-logo.svg
Wikidata-logo.svg
Wikivoyage-Logo-v3-icon.svg