প্রবেশদ্বার:পিংক ফ্লয়েড

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

পিংক ফ্লয়েড প্রবেশদ্বার


RWHollywoodBowl1-cover.JPG

পিংক ফ্লয়েড (ইংরেজি: Pink Floyd) ১৯৬৫ সালে গঠিত লন্ডন ভিত্তিক ব্রিটিশ রক ব্যান্ড। ১৯৬০-এর দশকের শেষের দিকে লন্ডনের আন্ডারগ্রাউন্ড সঙ্গীত থেকে উঠে এসে সাইকেডেলিক রক ব্যান্ড হিসেবে তাদের দার্শনিক গানের কথা, সম্প্রসারিত সুরারোপ (কম্পোজিশন), ধ্বনিত নিরীক্ষণ এবং বিস্তৃত সরাসরি পরিবেশনার জন্য দলটি প্রোগ্রেসিভ রক ধারার শীর্ষস্থানীয় ব্যান্ড হয়ে উঠে। তারা জনপ্রিয় সঙ্গীত ইতিহাসের অন্যতম সর্বাধিক বাণিজ্যিকভাবে সফল এবং প্রভাবশালী দল।

পিংক ফ্লয়েড ১৯৬৫ সালে স্থাপত্যবিদ্যার শিক্ষার্থী সিড ব্যারেট (গিটার ও মূল কন্ঠ), নিক মেইসন (ড্রাম), রজার ওয়াটার্স (বেস ও কন্ঠ) এবং রিচার্ড রাইট (কিবোর্ড ও কন্ঠ)- এই চারজন তরুণের সমন্বয়ে গঠিত হয়। ব্যারেটের নেতৃত্বাধীনে দলটি দুটি চার্ট তালিকাভুক্ত একক এবং দ্য পাইপার অ্যাট দ্য গেট্‌স অব ডউন (১৯৬৭) নামে একটি সফল আত্মপ্রকাশ অ্যালবাম প্রকাশ করে। ১৯৬৭ সালের ডিসেম্বরে, পঞ্চম সদস্য হিসেবে গিটারবাদক ডেভিড গিলমোর দলে যোগদান করেন। ১৯৬৮ সালের এপ্রিলে, মানসিক স্বাস্থ্যের অবনতি ঘটায় ব্যারেট দল ত্যাগ করেন। ওয়াটার্স, ব্যান্ডের প্রাথমিক গীতিকার এবং ধারণাগত নেতা হয়ে ওঠেন, পাশাপাশি তাদের সমালোচনাপূর্ণ এবং বাণিজ্যিকভাবে সফল দ্য ডার্ক সাইড অব দ্য মুন (১৯৭৩), উইশ ইউ ওয়্যার হেয়ার (১৯৭৫), অ্যানিম্যাল্‌স (১৯৭৭), দ্য ওয়াল (১৯৭৯) এবং দ্য ফাইনাল কাট (১৯৮৩) অ্যালবামের ধারণা উদ্ভাবন করেন। ব্যান্ডটি এছাড়াও সাতটি চলচ্চিত্রের স্কোর পরিচালনা করেছিল।

ব্যক্তিগত দুশ্চিন্তায় থাকার দরুন, ১৯৭৯ সালে রাইট পিংক ফ্লয়েড ত্যাগ করেন; ১৯৮৫ সালে একই পথ অনুসরণ করেন ওয়াটার্স। গিলমোর এবং মেইসন পিংক ফ্লয়েড হিসাবে নিজেদের অব্যাহত রাখেন। পরবর্তীতে সক্ষিপ্ত সময়ের জন্য রাইট পুনরায় ব্যান্ডে যোগ দিয়েছিলেন। এরপর তারা তিনজন উৎপাদন করেন আরো দুটি অ্যালবাম— অ্যা মৌমানট্রি ল্যাপ্‌স অব রিজন (১৯৮৭) ও দ্য ডিভিশন বেল (১৯৯৪)— এবং পরবর্তীতে দীর্ঘকাল নিস্ক্রিয় থাকার আগ পর্যন্ত দলটির সঙ্গীত সফর অব্যাহত রাখেন। প্রায় দুই দশক সময় পরে, ২০০৫ সালে লাইভ এইট নামে বৈশ্বিক সচেতনতা অনুষ্ঠানে পিংক ফ্লয়েড হিসেবে পরিবেশন করতে ব্যারেট ব্যাতীত দলের বাকি সদস্যরা সর্বশেষবার একত্রিত হয়েছিলেন। ব্যারেট মারা যান ২০০৬ সালে, এবং রাইট ২০০৮ সালে। পিংক ফ্লয়েডের সর্বশেষ স্টুডিও অ্যালবাম দি এন্ডলেস রিভার (২০১৪), ওয়াটার্সকে ছাড়াই রেকর্ড করা হয়, এবং যা মূলত তাদের অপ্রকাশিত সঙ্গীত উপাদানের ওপর ভিত্তি করে নির্মিত।

নির্বাচিত নিবন্ধ - অন্যগুলো দেখান

Pink Floyd Their Mortal Remains - 2017-10-13 - Andy Mabbett - 26.jpg

ইন দ্য ফ্লেশ সফর, যা অ্যানিম্যাল্‌স সফর হিসেবেও পরিচিত, ছিল ইংরেজ রক ব্যান্ড পিংক ফ্লয়েডের অ্যানিম্যাল্‌স অ্যালবামের সমর্থনে একটি কনসার্ট সফর। এটি দুটি ভাগে বিভক্ত, যার একটি ইউরোপে এবং অপরটি উত্তর আমেরিকায়। সফরটিতে বৃহৎ ফাঁপা শুকরাকৃতির পুতুলের পাশাপাশি একটি পাইরেটেকনিক "জলপ্রপাত" উপস্থাপন করা হয়েছিল। সে সময় র্পযন্ত যেটি ছিল বৃহত ও সবচেয়ে বিস্তৃত মঞ্চ, এবং বিভিন্ন প্রতিবন্ধকতা থেকে ব্যান্ডটিকে রক্ষা করার জন্য ছাতার মতোন চাঁদোয়া।

আরো পড়ুন...

"লাউডার দ্যান ওয়ার্ডস" (ইংরেজি: Louder than Words) ডেভিড গিলমোর এবং পলি স্যামসন রচিত একটি গান। গানটির, সমন্বিত রিরিক গিলমোরের কম্পোজিশন সহযোগে স্যামসন কর্তৃক রচিত হয়েছে, যা মূলত ব্রিটিশ রক ব্যান্ড পিংক ফ্লয়েডের পঞ্চদশ স্টুডিও অ্যালবাম দ্য এন্ডলেস রিভার (২০১৪) জন্য রেকর্ড করা হয়েছিল, যেখানে এটি অ্যালবামের সর্বশেষ ট্র্যাক হিসাবে প্রদর্শিত হয়েছে।

আরো পড়ুন...

নির্বাচিত জীবনী - অন্যগুলো দেখান

Nick Mason 2011-05-12.jpg

নিকোলাস বার্কলে "নিক" মেইসন (জন্মঃ জানুয়ারি ২৭, ১৯৪৪) একজন ইংরেজ সঙ্গীতঙ্গ, কম্পোজার এছাড়াও তিনি বিখ্যাত সাইকেডেলিক রক ব্যান্ড দল পিংক ফ্লয়েডের ড্রামার হিসেবে অধিক পরিচিত। এবং মেইসন একমাত্র সদস্য যিনি ১৯৬৫ সাল অর্থাৎ ব্যান্ড প্রতিষ্ঠার পর থেকে সবসময় ছিলেন। যদিও একক ভাবে মেইসন খুব কম সংখ্যক গান লিখেছেন কিন্তু পিংক ফ্লয়েডের সবচেয়ে জনপ্রিয় কম্পোজিশন "ইকোস" ও "টাইমের" সহ-লেখক তিনি।

মেইসন পিংক ফ্লয়েডের একমাত্র সদস্য যিনি সবকটি অ্যালবামে কাজ করার গৌরব অর্জন করেন। সর্বশেষ ২০১০ সালের হিসাব অনুযায়ী বিশ্বব্যাপী পিংক ফ্লয়েডের ২৫০ মিলিয়নের অধিক অ্যালবাম বিক্রি হয়েছে, যার মধ্যে শুধু যুক্তরাস্ট্রে বিক্রি হয়েছে ৭৫.৫ মিলিয়ন।

আরো পড়ুন...

স্টুডিও অ্যালবাম - অন্যগুলো দেখান


অ্যা সোসারফুল অব সিক্রেট্‌স ব্রিটিশ প্রোগ্রেসিভ রক ব্যান্ড পিংক ফ্লয়েডের দ্বিতীয় স্টুডিও অ্যালবাম। এটি ২৯ জুন ১৯৬৮ সালে ইএমআই কলাম্বিয়া কর্তৃক যুক্তরাজ্যে এবং ২৭ জুলাই ১৯৬৮ সালে টাওয়ার রেকর্ডস কর্তৃক মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে প্রকাশিত হয়। অ্যালবামটি সিড ব্যারেটের ব্যান্ড থেকে প্রস্থানের পূর্বে কিছু সময় এবং পরে ব্যারেটকে ছাড়াই রেকর্ড করা হয়েছিল। ব্যারেটের আচরণ ক্রমবর্ধমানভাবে অনির্ভরযোগ্য হয়ে ওঠায়, তিনি ব্যান্ড ছেড়ে যেতে বাধ্য হন এবং ডেভিড গিলমোরকে জানুয়ারি ১৯৬৮ সালে নিযুক্ত করা হয়।

ফলস্বরূপ, অ্যা সোসারফুল অব সিক্রেট্‌স পিংক ফ্লয়েডের একমাত্র অ-সংকলিত অ্যালবাম যাতে ব্যন্ডের পাঁচ সদস্যের উপস্থিতি রয়েছে। এক পাশে গিলমোরের পাঁচটি গান ("রিমেম্বার অ্যা ডে" ও "জাগব্যান্ড ব্লুস" বাদে) এবং অপর পাশে ব্যারেটের তিনটি গান ("রিমেম্বার অ্যা ডে", "জাগব্যান্ড ব্লুস" ও "সেট দ্য কন্ট্রোল্‌স ফর দ্য হার্ট অব দ্য সান") যুক্ত ছিল। সেট দ্য কন্ট্রোল্‌স ফর দ্য হার্ট অব দ্য সান ছিল পাঁচ সদস্যের একত্রে উপস্থিত হওয়া একমাত্র গান। ব্যান্ডের ড্রামবাদক নিক মেইসন অ্যা সোসারফুল অব সিক্রেট্‌সকে তার প্রিয় পিংক ফ্লয়েড অ্যালবাম হিসাবে মনে করেন।

আরো পড়ুন...

নির্বাচিত চিত্র - অন্যগুলো দেখান


Pink floyd live 8 london.jpg
২০০৫ সালের ২ জুলাই লন্ডনের হাইড পার্কে লাইভ এইট কনসার্টে পিংক ফ্লয়েড


আরো মিডিয়া...

উপ-বিষয়শ্রেণী

সহযোগী উইকিমিডিয়া

Wikinews-logo.svg
উইকিসংবাদে পিংক ফ্লয়েড
উন্মুক্ত সংবাদ উৎস

Wikiquote-logo.svg
উইকিউক্তিতে পিংক ফ্লয়েড
উক্তি-উদ্ধৃতির সংকলন

Wikisource-logo.svg
উইকিসংকলনে পিংক ফ্লয়েড
উন্মুক্ত পাঠাগার

Wikibooks-logo.png
উইকিবইয়ে পিংক ফ্লয়েড
উন্মুক্ত পাঠ্যপুস্তক ও ম্যানুয়াল

Wikiversity-logo.svg
উইকিবিশ্ববিদ্যালয়ে পিংক ফ্লয়েড
উন্মুক্ত শিক্ষা মাধ্যম

Commons-logo.svg
উইকিমিডিয়া কমন্সে পিংক ফ্লয়েড
মুক্ত মিডিয়া ভাণ্ডার

Wiktionary-logo.svg
উইকিঅভিধানে পিংক ফ্লয়েড
অভিধান ও সমার্থশব্দকোষ

Wikidata-logo.svg
উইকিউপাত্তে পিংক ফ্লয়েড
উন্মুক্ত জ্ঞানভান্ডার

Wikivoyage-Logo-v3-icon.svg
উইকিভ্রমণে পিংক ফ্লয়েড
উন্মুক্ত ভ্রমণ নির্দেশিকা