দ্য পাইপার অ্যাট দ্য গেট্‌স অব ডউন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
দ্য পাইপার অ্যাট দ্য গেট্‌স অব ডউন
পিংক ফ্লয়েড - দ্য পাইপার অ্যাট দ্য গেট্‌স অব ডউন (১৯৬৭).jpg
পিংক ফ্লয়েড কর্তৃক স্টুডিও অ্যালবাম
মুক্তির তারিখ৫ আগস্ট ১৯৬৭
শব্দধারণের সময়২১ ফেব্রুয়ারি – ২১ মে ১৯৬৭
শব্দধারণকেন্দ্রইএমআই স্টুডিওস, লন্ডন
ঘরানা
দৈর্ঘ্য৪১:৫১
সঙ্গীত প্রকাশনী
প্রযোজকনরম্যান স্মিথ
পিংক ফ্লয়েড কালক্রম
দ্য পাইপার অ্যাট দ্য গেটস্ অব ডউন
(১৯৬৭)
অ্যা সোসারফুল অব সিক্রেট্‌স
(১৯৬৮)অ্যা সোসারফুল অব সিক্রেট্‌স১৯৬৮
দ্য পাইপার অ্যাট দ্য গেট্‌স অব ডউন থেকে একক গান
  1. "ফ্লেমিং" / "দ্য নোম"
    মুক্তির তারিখ: ২ নভেম্বর ১৯৬৭ (শুধুমাত্র ইউএস-এ)

দ্য পাইপার অ্যাট দ্য গেট্‌স অব ডউন ব্রিটিশ প্রোগ্রেসিভ রক ব্যান্ড পিংক ফ্লয়েডের অভিষেক স্টুডিও অ্যালবাম, এবং প্রাথমিক সদস্য সিড ব্যারেটের নেতৃত্বাধীনে গঠিত একমাত্র অ্যালবাম। অ্যালবামটি, কেনেথ গ্রহামের দ্য উইন্ড ইন দি উইলোস-এর সপ্তম অধ্যায় অবলম্বনে নামকরণকৃত,[৩] যেখানে ভিক সিং কর্তৃক গৃহীত প্রচ্ছদ ছবি সমন্বিত রয়েছে, যেটি ১৯৬৭ সালের মে থেকে ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত রেকর্ডকৃত এবং ৫ আগস্ট ১৯৬৭ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত। অ্যালবামটি বিটলস প্রকৌশলী নরম্যান স্মিথ কর্তৃক প্রযোজিত, এবং ১৯৬৭ সালে ইএমআই কলাম্বিয়া কর্তৃক যুক্তরাজ্যে ও যথাক্রমে আগস্ট ও অক্টোবরে টাওয়ার রেকর্ডস কর্তৃক যুক্তরাষ্ট্রে প্রকাশিত।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে অ্যালবামটি মুক্তির সময় ব্যান্ডটি যুক্তরাষ্ট্রে সফররত ছিল। যুক্তরাজ্যে, অ্যালবাম থেকে কোনো একক মুক্তি পায় নি, তবে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে "ফ্লেমিং" গানটি একটি একক হিসাবে প্রকাশিত হয়েছে। অ্যালবামটির ইউএস সংস্করণে একটি পুনর্বিন্যাসিত ট্র্যাক তালিকা রয়েছে, এবং অর্ন্তভূক্ত হয়েছে ইউকে অ-অ্যালবাম একক, "সি এমিলি প্লে"। অ্যালবামের দুইটি গান, "অ্যাস্ট্রোনমি ডোমিন" এবং "ইন্টারস্টেলার ওভারড্রাইভ", ব্যান্ডের লাইভ সেট তালিকায় দীর্ঘমেয়াদী মূলধারার গান হয়ে ওঠে, যখন অন্য গানগুলি লাইভে মুষ্টিমেয় সময়ে সঞ্চালিত হয়।

মুক্তির পর থেকে, অ্যালবামটি শ্রেষ্ঠ সাইকেডেলিক রক অ্যালবামের প্রশংসা পেয়েছে। ১৯৭৩ সালে, এটি ব্যান্ডের দ্বিতীয় অ্যালবাম এ্যা সোসারফুল অব সিকরেট্‌স-এর সঙ্গে প্যাকেজ করা হয়েছিল, এবং দ্য ডার্ক সাইড অব দ্য মুন-এর সাফল্যের পর ব্যান্ডের প্রাথমিক কাজ নতুন ভক্তদের পরিচয় করানোর জন্য অ্যা নাইস পেয়ার হিসেবে মুক্তি পায়। দ্য পাইপার অ্যাট দ্য গেটস্ অব ডউন-এর বিশেষ সীমিত সংস্করণগুলি ১৯৯৭ এবং ২০০৭ সালে অ্যালবামটির ত্রিশ ও চল্লিশ তম বার্ষিকী চিহ্নিত করতে প্রকাশিত করা হয়, যথাক্রমে, অতিরিক্ত ট্র্যাক ধারণকারী পরবর্তী মুক্তির সঙ্গে। ২০১২ সালে, দ্য পাইপার অ্যাট দ্য গেটস্ অব ডউন, রোলিং স্টোন ম্যাগাজিনের "সর্বকালের ৫০০ সর্বশ্রেষ্ঠ অ্যালবাম" তালিকায় ভোটের মাধ্যমে ৩৪৭তম স্থানে অকস্থান করে নেয়।

ট্র্যাক তালিকা[সম্পাদনা]

ইউকে মুক্তি[সম্পাদনা]

পাশ এক
নং.শিরোনামলেখকলিড ভোকালদৈর্ঘ্য
১."অ্যাস্ট্রোনমি ডোমিন"সিড ব্যারেটসিড ব্যারেটরিচার্ড রাইট৪:১২
২."লুসিফার স্যাম"ব্যারেটব্যারেট৩:০৭
৩."ম্যাটিল্ডা মাদার"ব্যারেটব্যারেট ও রাইট৩:০৮
৪."ফ্লেমিং"ব্যারেটব্যারেট২:৪৬
৫."পো আর. টোক এইচ."যন্ত্রসঙ্গীত৪:২৬
৬."টেক আপ দাই স্টেথোস্কোপ অ্যান্ড ওয়াল্ক"ওয়াটার্সরজার ওয়াটার্স৩:০৫
মোট দৈর্ঘ্য:২০:৪৪
পাশ দুই
নং.শিরোনামলেখকলিড ভোকালদৈর্ঘ্য
১."ইন্টারস্টেলার ওভারড্রাইভ"
  • ব্যারেট
  • ওয়াটার্স
  • রাইট
  • মেইসন
যন্ত্রসঙ্গীত৯:৪১
২."দ্য নোম"ব্যারেটব্যারেট২:১৩
৩."চ্যাপ্টার ২৪"ব্যারেটব্যারেট৩:৪২
৪."দ্য স্কেরক্রো"ব্যারেটব্যারেট২:১১
৫."বাইক"ব্যারেটব্যারেট৩:২১
মোট দৈর্ঘ্য:২১:০৮

ইউএস মুক্তি[সম্পাদনা]

পাশ এক
নং.শিরোনামলেখকলিড ভোকালদৈর্ঘ্য
১."সি এমিলি প্লে"ব্যারেটব্যারেট২:৫৩
২."পো আর. টোক এইচ."
  • ব্যারেট
  • ওয়াটার্স
  • রাইট
  • মেইসন
যন্ত্রসঙ্গীত৪:২৬
৩."টেক আপ দাই স্টেথোস্কোপ অ্যান্ড ওয়াল্ক"ওয়াটার্সওয়াটার্স৩:০৫
৪."লুসিফার স্যাম"ব্যারেটব্যারেট৩:০৭
৫."ম্যাটিল্ডা মাদার"ব্যারেটব্যারেট ও রাইট৩:০৮
পাশ এক
নং.শিরোনামলেখকলিড ভোকালদৈর্ঘ্য
১."দ্য স্কেরক্রো"ব্যারেটব্যারেট২:১১
২."দ্য নোম"ব্যারেটব্যারেট২:১৩
৩."চ্যাপ্টার ২৪"ব্যারেটব্যারেট৩:৪১
৪."ইন্টারস্টেলার ওভারড্রাইভ"
  • ব্যারেট
  • ওয়াটার্স
  • রাইট
  • মেইসন
যন্ত্রসঙ্গীত৯:৪১

৪০তম বার্ষিকী সংস্করণ[সম্পাদনা]

কর্মিবৃন্দ[সম্পাদনা]

পিংক ফ্লয়েড[৪]

উৎপাদন

  • সিড ব্যারেট – পশ্চাত প্রচ্ছদ নকশা
  • পিটার বউন – প্রকৌশল
  • পিটার জেনার – "অ্যাস্ট্রোনমি ডোমেইন" ভূমিকা কণ্ঠ (অস্বীকৃত)[৫]
  • ভিক সিং – সম্মুখ প্রচ্ছদ আলোকচিত্র
  • নরম্যান স্মিথ – উৎপাদন, কণ্ঠ এবং বাদ্যযন্ত্র আয়োজন, "ইন্টারস্টেলার ওভারড্রাইভ" গানে ড্রাম রোল বাদক[৬]

অভ্যর্থন[সম্পাদনা]

জুলাই ২০০৬ সালে, বিলবোর্ড, দ্য পাইপার অ্যাট দ্য গেট্‌স অব ডউন-কে সর্বকালের সেরা সাইকেডেলিক রক অ্যালবাম হিসেবে বর্ণনা করেছে।[১]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

পাদটিকা

উদ্ধৃতিসমূহ

  1. "Pink Floyd Co-Founder Syd Barrett Dies at 60"Billboard। ১১ জুলাই ২০০৬। সংগ্রহের তারিখ ১৯ জুলাই ২০১৬ 
  2. রব ইয়ং (১০ মে ২০১১)। Electric Eden: Unearthing Britain's Visionary Music। Farrar, Straus and Giroux। পৃষ্ঠা ৪৫৪–। আইএসবিএন 978-1-4299-6589-7 
  3. Cavanagh, John (২০০৩)। The Piper at the Gates of Dawn। New York [u.a.]: Continuum। পৃষ্ঠা 2–3। আইএসবিএন 978-0-8264-1497-7 
  4. The Piper at the Gates of Dawn (মিডিয়া টীকা)। Pink Floyd। EMI। ১৯৬৭। SCX6157। 
  5. Palacios 2010, pp. 206–207
  6. Chapman 2010, p. 170

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]