বিষয়বস্তুতে চলুন

আয়মোরে মোরেইরা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
আয়মোরে মোরেইরা
১৯৬৩ সালে আয়মোরে
ব্যক্তিগত তথ্য
জন্ম (১৯১২-০৪-২৪)২৪ এপ্রিল ১৯১২
জন্ম স্থান মিরাসেমা, ব্রাজিল
মৃত্যু ২৬ জুলাই ১৯৯৮(1998-07-26) (বয়স ৮৬)
মৃত্যুর স্থান সালভাদোর, ব্রাজিল
উচ্চতা ১.৭২ মিটার (৫ ফুট + ইঞ্চি)
মাঠে অবস্থান গোলরক্ষক
জ্যেষ্ঠ পর্যায়*
বছর দল ম্যাচ (গোল)
১৯৩২–১৯৩৩ আমেরিকা
১৯৩৪–১৯৩৫ পালমেইরাস
১৯৩৬–১৯৪১ বোতাফোগো ৪১২ (০)
১৯৪১ ফ্লুমিনেন্সে
১৯৪১–১৯৪৬ বোতাফোগো
জাতীয় দল
১৯৩২–১৯৪২ ব্রাজিল ৩২ (০)
পরিচালিত দল
১৯৪৮–১৯৪৯ ওলারিয়া
১৯৫০ বাঙ্গু
১৯৫১ সাও ক্রিস্তোভাও
১৯৫১–১৯৫২ পালমেইরাস
১৯৫২ সান্তোস
১৯৫৩ পোর্তুগেসা
১৯৫৩ সাও পাওলো
১৯৫৩ ব্রাজিল
১৯৫৪–১৯৫৭ পালমেইরাস
১৯৬১–১৯৬৩ ব্রাজিল
১৯৬২ সাও পাওলো
১৯৬২–১৯৬৬ পোর্তুগেসা
১৯৬৬–১৯৬৭ সাও পাওলো
১৯৬৭ পালমেইরাস
১৯৬৭–১৯৬৮ ফ্লামেঙ্গো
১৯৬৭–১৯৬৮ ব্রাজিল
১৯৬৮ করিন্থিয়ান্স
১৯৬৯–১৯৭০ পোর্তুগেসা
১৯৭০–১৯৭১ করিন্থিয়ান্স
১৯৭২–১৯৭৪ বোয়াভিস্তা
১৯৭৪–১৯৭৫ পোর্তু
১৯৭৫–১৯৭৬ পানাথিনাইকোস
১৯৭৭ বোতাফোগো
১৯৭৭ ফেরোভিয়ারিয়া
১৯৭৭–১৯৭৮ ক্রুজেইরো
১৯৭৯ ভিতোরিয়া
১৯৮১–১৯৮২ বাইয়া
১৯৮৩ গালিসিয়া
১৯৮৪ কাতুয়েন্সে
* কেবল ঘরোয়া লিগে ক্লাবের হয়ে ম্যাচ ও গোলসংখ্যা গণনা করা হয়েছে

আয়মোরে মোরেইরা (পর্তুগিজ: Aymoré Moreira; ২৪ এপ্রিল ১৯১২ – ২৬ জুলাই ১৯৯৮) একজন ব্রাজিলীয় পেশাদার ফুটবল খেলোয়াড় এবং ম্যানেজার ছিলেন।[১] তিনি তার ১৫ বছরের খেলোয়াড়ি জীবনের অধিকাংশ সময় বোতাফোগো এবং ব্রাজিল জাতীয় দলের হয়ে গোলরক্ষক হিসেবে খেলেছিলেন।

১৯৩২–৩৩ মৌসুমে, ব্রাজিলীয় ফুটবল ক্লাব আমেরিকার হয়ে খেলার মাধ্যমে তিনি তার জ্যেষ্ঠ পর্যায়ের খেলোয়াড়ি জীবন শুরু করেছিলেন, যেখানে তিনি মাত্র দুই মৌসুম অতিবাহিত করেছিলেন। অতঃপর ১৯৩৪–৩৫ মৌসুমে তিনি পালমেইরাসে যোগদান করেছিলেন। পালমেইরাসে দুই মৌসুম অতিবাহিত করার পর বোতাফোগোর সাথে চুক্তি স্বাক্ষর করেছিলেন। পরবর্তীকালে, তিনি ফ্লুমিনেন্সের হয়ে খেলেছিলেন। ১৯৪১–৪২ মৌসুমে, তিনি পুনরায় বোতাফোগোয় যোগদান করেছিলেন; বোতাফোগোর হয়ে পাঁচ মৌসুম খেলার পর তিনি অবসর গ্রহণ করেছিলেন।

আয়মোরে ১৯৩২ সালে ব্রাজিলের হয়ে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে অভিষেক করেছিলেন; ব্রাজিলের জার্সি গায়ে তিনি সর্বমোট ৩২ ম্যাচে অংশগ্রহণ করেছিলেন।

প্রারম্ভিক জীবন[সম্পাদনা]

আয়মোরে মোরেইরা ১৯১২ সালের ২৪শে এপ্রিল তারিখে ব্রাজিলের মিরাসেমায় জন্মগ্রহণ করেছেন এবং সেখানেই তার শৈশব অতিবাহিত করেছেন। জেজে মোরেইরা এবং আয়ার্তন মোরেইরা নামে তার দুই ভাই ছিল, তারাও ব্রাজিলীয় ফুটবলের সফলতম কোচ হিসেবে মর্যাদা পেয়েছিলেন।

ক্লাব ফুটবল[সম্পাদনা]

আয়মোরে ফুটবল খেলায় ডান পার্শ্বীয় আক্রমণভাগের খেলোয়াড় হিসেবে খেলা শুরু করেছিলেন, তবে কিন্তু খুব শীঘ্রই তিনি তার মত পরিবর্তন করে গোলরক্ষকের ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়েছিলেন। আমেরিকা, পালমেইরাস এবং বোতাফোগো দলে ১৯৩৬ থেকে ১৯৪৬ সাল পর্যন্ত খেলেছিলেন। এরপর তিনি ব্রাজিল জাতীয় দলে অন্তর্ভুক্ত হয়েছিলেন।

ম্যানেজার[সম্পাদনা]

খেলোয়াড়ি জীবন থেকে অবসর নিয়ে তিনি সফলতম কোচ হয়েছিলেন। ব্রাজিলের কোচ হয়ে তিনি চিলিতে অনুষ্ঠিত ১৯৬২ ফিফা বিশ্বকাপে ২য় বারের মতো শিরোপা এনে দিয়েছেন। প্রথম খেলায় মেক্সিকোর বিরুদ্ধে পেলে প্রথম গোল করেছিলেন। দ্বিতীয় গোল করে চেকোস্লোভাকিয়ার বিরুদ্ধে দূরপাল্লার শট নিতে গিয়ে আঘাত পেয়েছিলেন। ফলে তাকে পরবর্তীতে প্রতিযোগিতার বাকি খেলায় অংশগ্রহণ করা থেকে বিরত থাকতে হয়েছিল। আয়মোরে প্রতিযোগিতায় দলের একমাত্র পরিবর্তন হিসেবে আমারিলদোকে মাঠে নামিয়েছিলেন। ফাইনালে পুনরায় প্রতিপক্ষরূপে চেকোস্লোভাকিয়ার বিপক্ষে গ্যারিঞ্চার সাফল্যে দল ৩–১ গোলে জয়লাভ করেছে।

এছাড়াও তিনি বাঙ্গু,[২] পালমেইরাস, পোর্তুগেসা, বোতাফোগো, সাও পাওলো, গালিসিয়া[৩] এবং পানাথিনাইকোস দলের কোচে দায়িত্ব পালন করেছিলেন।[৪]

মোরেইরা ব্রাজিল জাতীয় দলের হয়ে ৬১ ম্যাচে ম্যানেজারের দায়িত্ব পালন করেছিলেন। এতে দলটি ৩৭ খেলায় জয়, ৯ ড্র এবং ১৫ খেলায় পরাজিত হয়েছিল। বিশ্বকাপ জয়ের পাশাপাশি কানারিনিয়ো নামে খ্যাত ব্রাজিল জাতীয় ফুটবল দলকে ১৯৬১ এবং ১৯৬২ সালের তাকা ওসওয়ালদো ক্রুজ, ১৯৬১ এবং ১৯৬৬ সালে তাকা বেরনার্দো ও'হিগিন্স, ১৯৬৩ সালে রোকা কাপ এবং ১৯৬৭ সালে তাকা রিউ ব্রাঙ্কো জয়ে সহায়তা করেছিলেন।

অর্জন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Pimentel, Paulo (২১ মার্চ ২০১৬)। "Figuras pouco lembradas - Aymoré Moreira"Museu dos Esportes (পর্তুগিজ ভাষায়)। ২১ মার্চ ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০ নভেম্বর ২০২১ 
  2. "সংরক্ষণাগারভুক্ত অনুলিপি"। ৯ আগস্ট ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১১ ডিসেম্বর ২০১২ 
  3. "Archived copy"। ২০০৯-০৫-১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১০-০৩-১৫ 
  4. "Archived copy"। ২০১৬-০৩-০৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১০-০১-২৩ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]