দালমা সান্তোস

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
দালমা সান্তোস
Djalma Santos.jpg
২০০৮ সালে জুলে রিমে ট্রফি হাতে দালমা সান্তোস
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নাম দালমা পেরেইরা দিয়াস দস সান্তোস
জন্ম (১৯২৯-০২-২৭)২৭ ফেব্রুয়ারি ১৯২৯
জন্ম স্থান সাও পাওলো, ব্রাজিল
মৃত্যু ২৩ জুলাই ২০১৩(2013-07-23) (বয়স ৮৪)
মৃত্যুর স্থান উবেরাবা, ব্রাজিল
উচ্চতা ১.৭৩ মি (৫ ফু ৮ ইঞ্চি)
মাঠে অবস্থান রাইট ব্যাক
জ্যেষ্ঠ পর্যায়*
বছর দল ম্যাচ (গোল)
১৯৪৮–১৯৫৯ পর্তুগিজা ৪৩৪ (১১)
১৯৫৯–১৯৬৮ পালমেইরাস ৪৯৮ (১০)
১৯৬৯–১৯৭০ অ্যাতলেটিকো পারানাইন্স ৩২ (২)
মোট ৯৬৪ (২৩)
জাতীয় দল
১৯৫২–১৯৬৮ ব্রাজিল ৯৮ (৩)
* শুধুমাত্র ঘরোয়া লীগে ক্লাবের হয়ে ম্যাচ ও গোলসংখ্যা গণনা করা হয়েছে

দালমা পেরেইরা দিয়াস দস সান্তোস (ব্রাজিলীয় পর্তুগিজ: [diˈʒawmɐ ˈsɐ̃tus]; জন্ম: ২৭ ফেব্রুয়ারি, ১৯২৯-২৩ জুলাই, ২০১৩) ছিলেন একজন ব্রাজিলীয় ফুটবলার যিনি ব্রাজিল দলের পক্ষ হয়ে চারটি বিশ্বকাপে প্রতিনিধিত্ব করেছেন। ১৯৫৮১৯৬২ সালের বিশ্বকাপ ফুটবল জয়ী ব্রাজিল দলের অন্যতম খেলোয়াড় ছিলেন তিনি। দালমা সান্তোসকে ফুটবলের ইতিহাসের অন্যতম সেরা রাইট ব্যাক হিসেবে গন্য করা হয়। তিনি সাধারনত রক্ষনভাগের খেলোয়াড় হলেও দলের প্রয়োজনে প্রায়ই উপরে উঠে দলের আক্রমণে সহায়তা করতেন। ১৯৫৪, ১৯৫৮১৯৬২ বিশ্বকাপের অল-স্টার দলে জায়গা পেয়েছেন তিনি। এছাড়াও ২০০৪ সালে ফিফার শততম বর্ষপূর্তিতে পেলের ঘোষিত সেরা ১২৫ বেঁচে থাকা ফুটবলার-এর তালিকায় তার নাম অন্তর্ভুক্ত হয়। এছাড়াও তিনি কয়েকজন ফুটবলারদের মধ্যে একজন যারা তাদের ক্যারিয়ারে ১,০০০ টিরও বেশি পেশাদার উপস্থিতি রয়েছে। [১]

ক্লাব ক্যারিয়ার[সম্পাদনা]

আন্তরজাতিক ক্যারিয়ার[সম্পাদনা]

১৯৫৪ বিশ্বকাপ[সম্পাদনা]

১৯৫৮ বিশ্বকাপ[সম্পাদনা]

১৯৬২ বিশ্বকাপ[সম্পাদনা]

১৯৬৬ বিশ্বকাপ[সম্পাদনা]

মৃত্যু[সম্পাদনা]

দালমা সান্তোস ২৩ জুলাই ২০১৩ নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত হয়ে উবেরাবার একটি হাসপাতালে মারা যান। [২][৩]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Djalma Santos: Footballer who won the World Cup with Brazil"The Independent। ২৩ আগস্ট ২০১৩। সংগ্রহের তারিখ ২৩ অক্টোবর ২০১৩ 
  2. "Brazil legend Djalma Santos dies"। FIFA। ২৪ জুলাই ২০১৩। ৩১ জুলাই ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৪ অক্টোবর ২০১৩ 
  3. "Djalma Santos, bicampeão mundial, morre em Uberaba aos 84 anos" (পর্তুগিজ ভাষায়)। Globo Esporte। ২৩ জুলাই ২০১৩।