আজারবাইজানের ভাষা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
আজারবাইজানের ভাষা

যদিও এই অঞ্চলে অনেকগুলো ভাযা প্রচলিত, তবে আজারবাইজানি আজারবাইজানের দাপ্তরিক এবং যোগাযোগের ভাষা।

আজারবাইজানের প্রধান এবং রাষ্ট্রভাষা আজারবাইজানি ভাষা (উত্তর আজারবাইজানি)।[১] আজারবাইজানি একটি তুর্কীয় ভাষা[২] এবং এতে প্রায় ৯৫% আজারবাইজানি কথা বলেন। রুশ ভাষায় কথা বলেন ৩% এবং আর্মেনীয় ভাষায় কথা বলেন প্রায় ২% লোক (মূলত নাগোর্নো-কারাবাখ জেলায়)। বাকীরা জর্জীয়, কুর্দি, ইত্যাদি নানা ভাষায় কথা বলেন। উত্তর আজারবাইজানি ভাষায় রুশ কৃতঋণ শব্দের আধিক্য দেখা যায়, আর দক্ষিণ আজারবাইজানি ভাষায় ফার্সি প্রভাব পরিলক্ষিত হয়।

১৯শ শতকের মধ্যভাগ থেকে আজারবাইজানি ভাষায় পত্রপত্রিকা প্রকাশ হচ্ছে। ১৯২৪ সাল পর্যন্ত ভাষাটি আরবি লিপিতে লেখা হত। এর পর এটি লাতিন লিপিতে লেখা হয়। ১৯৩৩ সালে সিরিলীয় লিপি লাতিন লিপিকে প্রতিস্থাপন করে। ১৯৯১ সালে স্বাধীনতার পর এটি "নতুন রোমান" লিপিতে লেখা হচ্ছে। আজারবাইজানি ভাষায় বর্তমানে দেড়শরও বেশি সংবাদপত্র প্রকাশিত হয়।

আজারবাইজানি ভাষার সাথে তুর্কিতুর্কমেন ভাষার মিল আছে। আধুনিক তুর্কি ভাষার চেয়ে প্রাক্তন উসমানীয় সাম্রাজ্যের তুর্কি ভাষার সাথে এর মিল বেশি দেখা যায়।

বর্তমান[সম্পাদনা]

২০০৯ সালের জরিপে এই ভাষা মোট জনসঙ্খ্যার ৯২.৫% জনগনের মাতৃভাষা।[৩] সেখানে রুশ এবং ইংরেজি শিক্ষা এবং যোগাযোগে উল্লেখযোগ্য ভুমিকা রাখে। আজারবাইজানের অর্ধেকেরও বেশি জনগন একটি ভাষায় কথা বলে।[৪]

কবি নাইজামির নামে দেশটিতে আজারবাইজানি ভাষার সমৃদ্ধির লক্ষ্যে একটি ভাষাতাত্ত্বিক ইন্সটিটিউট গঠন করা হয়েছে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Azerbaijan"। www.ethnologue.com। সংগৃহীত ১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৩ 
  2. Sinor, Denis (১৯৬৯)। Inner Asia. History-Civilization-Languages. A syllabus। Bloomington। পৃ: 71–96। আইএসবিএন 0-87750-081-9 
  3. "UNdata | record view | Population by language, sex and urban/rural residence"। Data.un.org। ২০১৫-১২-২৪। সংগৃহীত ২০১৬-০১-২৯ 
  4. Keith, Brown; Ogilvie, Sarah (২০০৮)। Concise Encyclopedia of Languages of the World 1st Edition। Elsevier Science। পৃ: 110। আইএসবিএন 9780080877754 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]