সাইপ্রাস

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সাইপ্রাস প্রজাতন্ত্র
Κυπριακή Δημοκρατία (গ্রিক)
Kypriakí Dimokratía )
Kıbrıs Cumhuriyeti (তুর্কী)
পতাকা কোট অফ আর্মস
নীতিবাক্য
নেই
জাতীয় সঙ্গীত
Ύμνος εις την Ελευθερίαν
Imnos is tin Eleftherian  (প্রতিবর্ণীকরণ)
হিম টু ফ্রিডম 


ইউরোপীয় ইউনিয়নের মধ্যে দেশটির অবস্থান
ইউরোপীয় ইউনিয়নের মধ্যে দেশটির অবস্থান
দেশটির এমওডিআইএস কৃত্রিম উপগ্রহ চিত্র
দেশটির এমওডিআইএস কৃত্রিম উপগ্রহ চিত্র
রাজধানী নিকোশিয়া
বৃহত্তম শহর রাজধানী
রাষ্ট্রীয় ভাষাসমূহ গ্রিক, তুর্কী
সরকার প্রজাতন্ত্র
 -  রাষ্ট্রপতি Dimitris Christofias
স্বাধীনতা যুক্তরাজ্য থেকে 
 -  তারিখ আগস্ট ১৬ ১৯৬০ 
ইউরোপীয় ইউনিয়নে অন্তর্ভুক্তি মে ১, ২০০৪
আয়তন
 -  মোট ৯,২৫১ বর্গকিমি (১৬৭তম)
৩,৫৭২ বর্গমাইল 
 -  জলভাগ (%) নগণ্য
জনসংখ্যা
 -  ২০০৬ আনুমানিক ৮৫৫,০০০ (১৫৪তম)
 -  ২০০৫ আদমশুমারি ৮৩৫,০০০ 
 -  ঘনত্ব ৯০ /বর্গ কিমি (১০৫তম)
২৩৩ /বর্গমাইল
জিডিপি (পিপিপি) ২০০৭ আনুমানিক
 -  মোট $২৩.৭৪ বিলিয়ন (১১৩তম)
 -  মাথাপিছু $৩১,০৫৩ (২৫তম)
মানব উন্নয়ন সূচক (২০০৪) বৃদ্ধি ০.৯০৩ (উচ্চ) (২৯তম)
মুদ্রা সাইপ্রিয়ট পাউন্ড (সিওয়াইপি)
সময় স্থান ইইটি (ইউটিসি+২)
 -  গ্রীষ্মকালীন (ডিএসটি) ইইএসটি (ইউটিসি+৩)
ইন্টারনেট টিএলডি .সিওয়াই
কলিং কোড ৩৫৭
১. "Ymnos pros tin Eleutherian" is also used as the national anthem of Greece.
২. UN population estimate for entire island including Turkish-controlled areas.
৩. The .eu domain is also used, shared with other European Union member states.

সাইপ্রাস (গ্রিক ভাষায় Κύπρος কিপ্রস্‌; তুর্কি ভাষায় Kıbrıs ক্যিব্র্যিস্‌), যার সরকারী নাম সাইপ্রাস প্রজাতন্ত্র (Κυπριακή Δημοκρατία কিপ্রিয়াকি দ়িমক্রাতিয়া; Kıbrıs Cumhuriyeti ক্যিব্র্যিস্‌ জুম্‌হুরিয়েতি), ভূমধ্যসাগরের একটি দ্বীপ রাষ্ট্র। এটি ইউরোপ মহাদেশের অন্তর্গত।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

রাজনীতি[সম্পাদনা]

সাইপ্রাসের রাজনীতি একটি রাষ্ট্রপতিশাসিত, বহুদলীয়, প্রতিনিধিত্বমূলক গণতান্ত্রিক প্রজাতন্ত্র কাঠামোয় সংঘটিত হয়। রাষ্ট্রপতি হলেন একাধারে রাষ্ট্র ও সরকার প্রধান। সরকারের হাতে নির্বাহী ক্ষমতা ন্যস্ত। সরকার ও আইনসভা একত্রে আইন প্রণয়নের দায়িত্বে নিয়োজিত। বিচার বিভাগ নির্বাহী ও আইন প্রণয়ন বিভাগ হতে স্বাধীন।

সাইপ্রাস বর্তমানে একটি বিভক্ত রাষ্ট্র। তুর্কি বিচ্ছিন্নতাবাদীরা দ্বীপের ১৯৭০-এর দশক থেকে দ্বীপের উত্তরের এক-তৃতীয়াংশ নিয়ন্ত্রণ করছে। এই ঘটনাটি সাইপ্রাসের রাজনীতিতে আজ অবধি গভীর প্রভাব বিস্তার করে চলেছে।

প্রশাসনিক অঞ্চলসমূহ[সম্পাদনা]

ভূগোল[সম্পাদনা]

অর্থনীতি[সম্পাদনা]

সাইপ্রাসের অর্থনীতি দক্ষিণের সাইপ্রীয় গ্রিক সরকার নিয়ন্ত্রিত এলাকা এবং উত্তরের তুর্কি সাইপ্রীয় নিয়ন্ত্রিত এলাকার দ্বিবিধ অর্থনীতি নিয়ে গঠিত। গ্রিক নিয়ন্ত্রিত এলাকাটির অর্থনীতি উন্নত বলে স্বীকৃত।

জনসংখ্যা[সম্পাদনা]

সংস্কৃতি[সম্পাদনা]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]