স্যাম এলিয়ট

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
স্যাম এলিয়ট
TIFF 2018 Samuel Elliott (44592132581) (cropped).jpg
স্থানীয় নাম
Sam Elliott
জন্ম
স্যামুয়েল প্যাক এলিয়ট

(১৯৪৪-০৮-০৯)৯ আগস্ট ১৯৪৪
পেশাঅভিনেতা
কার্যকাল১৯৬৮-বর্তমান
দাম্পত্য সঙ্গীক্যাথরিন রস (বি. ১৯৮৪)
সন্তান

স্যামুয়েল প্যাক এলিয়ট (ইংরেজি: Samuel Pack Elliott; জন্ম: ৯ আগস্ট ১৯৪৪) হলেন একজন মার্কিন অভিনেতা। তার লম্বা ও কৃশ দেহাকৃতি, ঘন গোঁফ, ও গম্ভীর কণ্ঠের জন্য তাকে প্রায়ই বিভিন্ন পশ্চিমা ধাঁচের চলচ্চিত্রে কাউবয় ও র‍্যাঞ্চার চরিত্রে অভিনয় করতে দেখা যায়। অভিনয় জীবনে তিনি একটি একাডেমি পুরস্কার, দুটি গোল্ডেন গ্লোব পুরস্কার ও দুটি প্রাইমটাইম এমি পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেছেন এবং একটি ন্যাশনাল বোর্ড অব রিভিউ পুরস্কার অর্জন করেছেন।

এলিয়ট দ্য ওয়ে ওয়েস্ট (১৯৬৭) চলচ্চিত্রে একটি ক্ষুদ্র চরিত্রে কাজের মধ্য দিয়ে তার চলচ্চিত্র জীবন শুরু করেন। পরবর্তী কালে তিনি বুচ ক্যাসিডি অ্যান্ড দ্য সানড্যান্স কিড (১৯৬৯) চলচ্চিত্রে ছোট চরিত্রে এবং পশ্চিমা ধাঁচের গানস্মোক (১৯৭২) টেলিভিশন ধারাবাহিকে অভিনয় করেন। চলচ্চিত্রে তার প্রথম সফলতা আসে নাট্যধর্মী লাইফগার্ড (১৯৭৬) দিয়ে এবং পরে তিনি মার্ডার ইন টেক্সাস (১৯৮১) দ্য শ্যাডো রাইডার্স (১৯৮২) টেলিভিশন চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন। তিনি লুই লামুরের রচনা অবলম্বনে নির্মিত দ্য কুইক অ্যান্ড দ্য ডেড (১৯৮৭) ও কোনাঘার (১৯৯১) টেলিভিশন চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন এবং দ্বিতীয় কাজটির জন্য তিনি সেরা টিভি চলচ্চিত্র অভিনেতা বিভাগে গোল্ডেন গ্লোব পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেন। বাফালো গার্লস (১৯৯৫) মিনি ধারাবাহিকে অভিনয় করে তিনি তার দ্বিতীয় গোল্ডেন গ্লোব এবং প্রথম প্রাইমটাইম এমি পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেন।

২০০০-এর দশকে এলিয়ট নাট্যধর্মী উই অয়ার সোলজার্স (২০০২), মারপিঠধর্মী সুপারহিরো চলচ্চিত্র হাল্ক (২০০৩), এবং ঘোস্ট রাইডার (২০০৭) ছবিতে পার্শ্ব চরিত্রে অভিনয় করেন। ২০১৫ সালে তিনি জাস্টিফাইড টিভি ধারাবাহিকে অতিথি ভূমিকায় কাজ করে একটি ক্রিটিকস চয়েস টিভি পুরস্কার অর্জন করেন। ২০১৬ সাল থেকে তিনি নেটফ্লিক্সের ধারাবাহিক দ্য র‍্যাঞ্চ-এ অভিনয় করছেন। এলিয়ট সঙ্গীত-নাট্যধর্মী আ স্টার ইজ বর্ন (২০১৮) চলচ্চিত্রে অভিনয় করে শ্রেষ্ঠ পার্শ্ব অভিনেতা বিভাগে অস্কার,[১] ক্রিটিকস চয়েস চলচ্চিত্র পুরস্কারস্ক্রিন অ্যাক্টরস গিল্ড পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেন এবং ন্যাশনাল বোর্ড অব রিভিউ পুরস্কার অর্জন করেন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "অস্কারের মনোনয়ন পেলেন যারা"দৈনিক ভোরের কাগজ। ২৬ জানুয়ারি ২০১৯। সংগ্রহের তারিখ ৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]