যৌনকর্মীর বিরুদ্ধে সহিংসতা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

যৌনকর্মীর বিরুদ্ধে সহিংসতার ঘটনা শারীরিক এবং মানসিক উভয় স্তরে বিশ্বব্যাপী নথিবদ্ধ করা হয়েছে। ভুক্তভোগীরা প্রধানত নারী, চরম ক্ষেত্রে কর্মক্ষেত্রের অভ্যন্তরে এবং বাইরে তাঁদের হত্যাও করা হয়েছে।

ব্যাপকতা[সম্পাদনা]

পতিতাবৃত্তিতে কর্মরত মহিলারা অন্যান্য ক্ষেত্রে কর্মরত মহিলাদের তুলনায় অনেক উচ্চ মাত্রায় সহিংসতার সম্মুখীন হন।[১] ২০০৪ সালে প্রকাশিত একটি দীর্ঘমেয়াদী গবেষণায়, ১৯৬৭ থেকে ১৯৯৯ সাল পর্যন্ত কলোরাডো স্প্রিংসে কাজ করা সক্রিয় মহিলা যৌনকর্মীদের হত্যার হার অনুমান করা হয়েছিল ২০৪ জন, প্রতি ১০০,০০০ ব্যক্তি-বছর[২] গবেষণা চালানোর ১,৯৬৯ মহিলাদের সিংহভাগই রাস্তার পতিতা হিসাবে কাজ করেছিলেন; মাত্র ১২৬ জন ম্যাসেজ পার্লারে কাজ করতেন।[২] যদিও এই কলোরাডো স্প্রিংস যৌনকর্মীদের ব্যাপকতা এবং যৌন সঙ্গীদের সংখ্যার দিক থেকে সমস্ত মার্কিন যৌনকর্মীদের প্রতিনিধি বলে ধরে নেওয়া যায় এবং যদিও তাঁরা দেশের অনেক জায়গায় যৌনকর্মী হিসেবে কাজ করেছিলেন (এবং মারা গিয়েছিলেন), অন্যত্র পতিতাদের মৃত্যুর হার এবং মোটামুটি নকশা আলাদা হতে পারে।[২] এই হত্যাকাণ্ডের সংখ্যা ১৯৮০ এর দশকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে পরবর্তী ঝুঁকিপূর্ণ পেশার তুলনায় যথেষ্ট বেশি (মহিলা মদের দোকানের কর্মীদের জন্য প্রতি ১০০,০০০ জনে ৪ জন এবং পুরুষ ট্যাক্সি চালকদের প্রতি ১০০,০০০ জনে ২৯ জন)।[৩] যৌনকর্মীদের বিরুদ্ধে সহিংসতার ব্যপকতা স্থান অনুযায়ী পরিবর্তিত হয়। কানাডার ভ্যানকুভার, ব্রিটিশ কলাম্বিয়ায় ১৪ বছরের বেশি বয়সী মহিলা যৌনকর্মী যাঁরা গাঁজা ছাড়া অন্য অবৈধ মাদক ব্যবহার করতেন, তাঁদের নিয়ে একটি গবেষণায় দেখা গেছে যে, ৫৭% যৌনকর্মী ১৮ মাসের বেশি সময় ধরে লিঙ্গভিত্তিক সহিংসতার শিকার হয়েছেন।[৪] কম্বোডিয়ার নমপেনের ১,০০০ জন নারী (উভয় সিজেন্ডার এবং রূপান্তরিত লিঙ্গ) যৌনকর্মীদের নিয়ে একটি গবেষণায় দেখা গেছে, ৯৩% নারী আগের বছর ধর্ষণের শিকার হয়েছেন।[৫]

সহিংসতার ধরন[সম্পাদনা]

শারীরিক[সম্পাদনা]

শারীরিক সহিংসতাকে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা দ্বারা সংজ্ঞায়িত করা হয়েছে এইভাবে "শারীরিক শক্তি বা ক্ষমতার ইচ্ছাকৃত ব্যবহার, হুমকি দিয়ে বা প্রকৃত ভাবে, নিজের বিরুদ্ধে, অন্য ব্যক্তির বিরুদ্ধে, অথবা একটি গোষ্ঠী বা সম্প্রদায়ের বিরুদ্ধে, যার ফলে হয় আঘাত, মৃত্যু, মানসিক ক্ষতি, ত্রুটিপূর্ণ বিকাশ বা বঞ্চিত হওয়ার সম্ভাবনা বেশি।"[৬] শারীরিক সহিংসতা সাধারণত রাস্তার যৌনকর্মীদের বেশি সহ্য করতে হয়েছে, এক গবেষণায় দেখা গেছে, ৪৭% বাইরে কাজ করা যৌনকর্মী লাথি, ঘুষি বা চড়ের শিকার হয়েছেন।[৭] সান ফ্রান্সিসকোতে কর্মরত যৌনকর্মীদের একটি গবেষণায়, অংশগ্রহণকারীদের ৮২% বলেছেন যে পতিতাবৃত্তিতে প্রবেশের পর থেকে নানা ধরণের শারীরিক সহিংসতার সম্মুখীন হয়েছেন, এই হামলার ৫৫% তাঁদের মক্কেল দ্বারা সংঘটিত হয়েছে।[৮] একটি ভিন্ন গবেষণায় দেখা গেছে যে ৭৪% যৌনকর্মী তাঁদের জীবদ্দশায় বেশ কিছু শারীরিক নির্যাতনের সম্মুখীন হয়েছেন।[৯] যৌনকর্মীদের বিরুদ্ধে সহিংসতা সম্পর্কিত বেশিরভাগ গবেষণার মধ্যে সাধারণ ঐকমত্য হল যে তাঁদের বিরুদ্ধে শারীরিক সহিংসতার হার অত্যন্ত বেশি, বিশেষ করে মহিলা যৌনকর্মীদের মধ্যে (রূপান্তরিত লিঙ্গ সহ), যাঁরা তাদের পুরুষ সহকর্মীদের তুলনায় শারীরিক সহিংসতার হার বেশি অনুভব করেছেন।[৮]

মানসিক[সম্পাদনা]

মনস্তাত্ত্বিক অপব্যবহার, এছাড়াও মানসিক অপব্যবহার বা মানসিক নির্যাতন হিসাবে উল্লেখ করা হয়, যেখানে একজন ব্যক্তি অন্যের প্রতি এমন আচরণ করে যার ফলে মানসিক আঘাত হতে পারে। এর মধ্যে রয়েছে উদ্বেগ, দীর্ঘস্থায়ী বিষণ্নতা, অথবা আঘাত পরবর্তী চাপজনিত ব্যাধি (পিটিএসডি)।[১০][১১][১২] জাতিসংঘ জনসংখ্যা তহবিল বলে যে এই ধরনের সহিংসতার "অন্তর্ভুক্ত, কিন্তু অপমানিত হওয়ার মধ্যে সীমাবদ্ধ নয় (উদাহরণস্বরূপ অবমাননাকর নামে ডাকা) অথবা নিজের সম্পর্কে খারাপ বোধ করতে বাধ্য করা;অন্য মানুষের সামনে অপমানিত বা ছোট করা; নিজের সন্তানদের হেফাজত হারানোর হুমকি পাওয়া; বন্ধ থাকা বা পরিবার ও বন্ধুদের কাছ থেকে বিচ্ছিন্ন থাকা; নিজের বা প্রিয়জনের ক্ষতির হুমকি পাওয়া; বারবার চিৎকার করা, ভয় দেখানো শব্দ বা অঙ্গভঙ্গির মাধ্যমে ভয় সৃষ্টি করা; আচরণ নিয়ন্ত্রণ; এবং অধিকৃত বস্তু নষ্ট করা।"[১৩]

তথ্যসূত্রসমূহ[সম্পাদনা]

টীকা[সম্পাদনা]

  1. Martínez, Pilar Rodríguez (সেপ্টেম্বর ২০১৫)। "Un análisis interseccional sobre malos tratos y violencia laboral en mujeres que ejercen la prostitución" [An Intersectional Analysis of Intimate Partner Violence and Workplace Violence among Women Working in Prostitution] (PDF)Revista Española de Investigaciones Sociológicas (Spanish ভাষায়)। 151: 123–140। ডিওআই:10.5477/cis/reis.151.123অবাধে প্রবেশযোগ্য 
  2. Potterat এবং অন্যান্য 2004
  3. Castillo ও Jenkins 1994
  4. Shannon, K.; Kerr, T; Strathdee, S A; Shoveller, J; Montaner, J S; Tyndall, M W (১১ আগস্ট ২০০৯)। "Prevalence and structural correlates of gender based violence among a prospective cohort of female sex workers"BMJ339 (aug11 3): b2939। ডিওআই:10.1136/bmj.b2939পিএমআইডি 19671935পিএমসি 2725271অবাধে প্রবেশযোগ্য 
  5. "Addressing the links between gender-based violence and HIV in the Great Lakes region" (PDF)UNESCO। United Nations Educational, Scientific, and Cultural Organization। সংগ্রহের তারিখ অক্টোবর ২৯, ২০১৫ 
  6. "WHO | World report on violence and health"www.who.int। সংগ্রহের তারিখ ২০১৫-১০-১৯ 
  7. Church, Stephanie; Henderson, Marion; Barnard, Marina; Hart, Graham (৩ মার্চ ২০০১)। "Violence by clients towards female prostitutes in different work settings: questionnaire survey"BMJ322 (7285): 524–525। ডিওআই:10.1136/bmj.322.7285.524পিএমআইডি 11230067পিএমসি 26557অবাধে প্রবেশযোগ্য 
  8. Farley, Melissa; Barkan, Howard (১৯৯৮)। "Prostitution, Violence, and Posttraumatic Stress Disorder"। Women & Health27 (3): 37–49। ডিওআই:10.1300/j013v27n03_03পিএমআইডি 9698636 
  9. Ulibarri, Monica D.; Semple, Shirley J.; Rao, Swati; Strathdee, Steffanie A.; Fraga-Vallejo, Miguel A.; Bucardo, Jesus; De la Torre, Adela; Salázar-Reyna, Juan; Orozovich, Prisci; Staines-Orozco, Hugo S.; Amaro, Hortensia; Magis-Rodríguez, Carlos; Patterson, Thomas L. (জুন ২০০৯)। "History of Abuse and Psychological Distress Symptoms Among Female Sex Workers in Two Mexico–U.S. Border Cities"Violence and Victims24 (3): 399–413। ডিওআই:10.1891/0886-6708.24.3.399পিএমআইডি 19634364পিএমসি 2777761অবাধে প্রবেশযোগ্য 
  10. Dutton, D. G. (১৯৯৪)। "Patriarchy and wife assault: The ecological fallacy"। Violence and Victims9 (2): 125–140। এসটুসিআইডি 35155731ডিওআই:10.1891/0886-6708.9.2.167পিএমআইডি 7696196 
  11. O'Leary, K. Daniel; Maiuro, Roland D. (২০০৪-০১-০১)। Psychological Abuse in Violent Domestic Relations। Springer Publishing Company। আইএসবিএন 9780826111463 
  12. Thompson, Anne E.; Kaplan, Carole A. (ফেব্রুয়ারি ১৯৯৬)। "Childhood Emotional Abuse"। British Journal of Psychiatry168 (2): 143–148। ডিওআই:10.1192/bjp.168.2.143পিএমআইডি 8837902 
  13. Addressing violence against sex workers. WHO.

সূত্র[সম্পাদনা]