মাইকেল শিন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
মাইকেল শিন
Michael Sheen at PaleyFest 2014.jpg
২০১৪ সালে প্যালি ফেস্টে শিন
স্থানীয় নাম
Michael Sheen
জন্ম
মাইকেল ক্রিস্টোফার শিন

(1969-02-05) ৫ ফেব্রুয়ারি ১৯৬৯ (বয়স ৫০)
নিউপোর্ট, মনমাউথশায়ার, ওয়েলস
বাসস্থানলস অ্যাঞ্জেলেস, ক্যালিফোর্নিয়া, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র
যেখানের শিক্ষার্থীরয়্যাল একাডেমি অব ড্রামাটিক আর্ট
পেশাঅভিনেতা
কার্যকাল১৯৯১-বর্তমান
সঙ্গীকেট বেকিনসেল (১৯৯৫-২০০৩)
সারা সিলভারম্যান (২০১৪-২০১৭)[১]
সন্তান

মাইকেল ক্রিস্টোফার শিন, ওবিই (ইংরেজি: Michael Christopher Sheen; জন্ম: ৫ ফেব্রুয়ারি ১৯৬৯)[২] হলেন একজন ওয়েলসীয় অভিনেতা। লন্ডনের রয়্যাল একাডেমি অব ড্রামাটিক আর্ট থেকে প্রশিক্ষণ গ্রহণ করে তিনি ১৯৯০-এর দশক জুড়ে মঞ্চে অভিনয় করেন। এই সময়ে মঞ্চে তার উল্লেখযোগ্য কাজগুলো হল রোমিও অ্যান্ড জুলিয়েট (১৯৯২), ডোন্ট ফুল উইথ লাভ (১৯৯৩), পিয়ার জাইন্ট (১৯৯৪), দ্য সিগাল (১৯৯৫), দ্য হোমকামিং (১৯৯৭), এবং ফিফথ হেনরি (১৯৯৭)। ১৯৯৮ সালে ওল্ড ভিসে আমাডেয়ুস ও ১৯৯৯ সালে ন্যাশনাল থিয়েটারে লুক ব্যাক ইন অ্যাঙ্গার এবং ২০০৩ সালে ডনমার ওয়্যারহাউজে কালিগুলা মঞ্চনাটকে অভিনয় করে তিনি তিনটি লরন্স অলিভিয়ে পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেন

২০০০-এর দশকে তিনি চলচ্চিত্রে অভিনয় করে খ্যাতি অর্জন করেন, বিশেষ করে জীবনীমূলক চলচ্চিত্রে কাজ করে।[৩] তিনি ব্রিটিশ রাজনীতিবিদ টনি ব্লেয়ার চরিত্রে পিটার মরগান রচিত ত্রয়ী চলচ্চিত্র - টেলিভিশন চলচ্চিত্র দ্য ডিল (২০০৩), চলচ্চিত্র দ্য কুইন (২০০৬) ও দ্য স্পেশাল রিলেশনশিপ (২০১০)-এ অভিনয় করেন। তিনি দ্য ডিল-এ অভিনয়ের জন্য টিভি চলচ্চিত্রে সেরা অভিনেতা বিভাগে প্রাইমটাইম এমি পুরস্কার এবং দ্য কুইন-এ অভিনয়ের জন্য শ্রেষ্ঠ পার্শ্বচরিত্রে অভিনেতা বিভাগে বাফটা পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেন। ২০১৩ সালে তিনি শোটাইম চ্যানেলের ধারাবাহিক মাস্টার্স অব সেক্স-এ অভিনয় করে নাট্যধর্মী টিভি ধারাবাহিকে সেরা অভিনেতা বিভাগে গোল্ডেন গ্লোব পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Michael Sheen blames his breakup with Sarah Silverman on Brexit"দি ইন্ডিপেন্ডেন্ট (ইংরেজি ভাষায়)। ২৯ নভেম্বর ২০১৮। সংগ্রহের তারিখ ৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ 
  2. "Michael Sheen Biography (1969-)"ফিল্ম রেফারেন্স। সংগ্রহের তারিখ ৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ 
  3. মার্শাল, কিংসলি (১৬ ফেব্রুয়ারি ২০১১)। "Why Great Lives Make Great Movies"। লিটল হোয়াইট লাইজ। ২৮ সেপ্টেম্বর ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]