পিনাক

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পিনাক
Rama breaking the bow to win Sita as wife.jpg
সীতার স্বয়ম্বরসভার শর্তানুসারে রাম হরধনু ভঙ্গ করছেন
প্রকার ধনুক
ব্যবহার ইতিহাস
ব্যবহারকারী শিব

হরধনু(সংস্কৃত: शिव धनुष) বা পিণাক (pínāka) হলো ভগবান শিবের ধনুকের নাম৷[১]

পিণাক হলো শিবের ধনুক বা হরধনুর মূল নাম, যা তার প্রলয়ঙ্করী অস্ত্র৷ অননূদিত বাল্মিকী রামায়ণ অনুসারে, দেবেন্দ্র সমধারকত্বের দুটি ধনুক নির্মাণ করান এরং তা যথাক্রমে রুদ্র এবং বিষ্ণুকে প্রদান করেন৷ পরে প্রজাপতি ব্রহ্মা কৌতুহলবশত কে অধিক শক্তিমান তা তিনি যাচাই করার জন্য কৌশলে তাদের নিজেদের মধ্যে যুদ্ধ করতে শ্রেষ্ঠত্ব প্রমাণ করার শর্ত রাখেন৷ যুদ্ধ শুরু হওয়ার প্রাক-মুহূর্তে একটি আকাশবাণী হয় এবং তাতে এই যুদ্ধের ফলস্বরূপ ভয়ঙ্কর প্রলয়ের কথা আশঙ্কা করা হয় এবং যুদ্ধবিরতির অনুরোধ করা হয়৷ আকাশবাণী শুনে রুদ্র তার ধনুক ছুঁড়ে ফেলেন, যা পৃৃথিবীতে এসে পতিত হয়, পরে এটি শিব ধনুষ বা হরধনু নামে পরিচিতি পায়৷ রাজা জনকের পূর্বসূরী রাজা দেবরথ এই হরধনু পান৷ হিন্দু পুরাণ রামায়ণে উল্লেখ করা আছে যে, রামায়ণের মূল চরিত্র রাম এই হরধনু ভঙ্গ করেই জনককন্যা সীতাকে স্ত্রী হিসাবে পান৷

দেবশিল্পী বিশ্বকর্মা উভয় দিব্যধনুর নকশা তৈরি করেছিলেন৷ তিনি শ্রীবিষ্ণুকে শার্ঙ্গ ও ভগবান শিবকে পিণাক নামক দুটি ধনু দিয়েছিলেন৷ রামায়ণের আদিপর্বের বিবরণ অনুসারে মিথিলার রাজা জনকের কন্যা সীতা অজান্তে এই ধনুক তুলে ধরেন, যা সম্ভবত অন্য অনেক রাজাদের দ্বারাই সম্ভব ছিলো না৷ এই ঘটনা রাজা জনক দেখলে তিনি সীতা স্বয়ম্বরকালে এই ঘটনার পুনরাবৃত্তি করার কথা ভাবেন৷

পরবর্তীকালে রাজা জনক ঘোষণা করেন যে, যেই রাজকুমার এই দিব্য হরধনু তুলে ধরতে পারবে এবং তাতে গুন পড়াতে পারবে একমাত্র সে-ই তার কন্যা সীতাকে স্ত্রী হিসাবে গ্রহণের যোগ্য৷ জনক আয়োজিত সীতার স্বয়ম্বরসভায় অযোধ্যার রাজকুমার রাম ধনুকে গুন পরানোর সময় এই হরধনু ভঙ্গ হয় এবং রাম-সীতার বিবাহ সম্পন্ন হয়৷ বিবাহের পরে যখন রাজা দশরথ তার পুত্রগণ ও পুত্রবধুগণের সাথে রাজ্যে প্রত্যাবর্তন করছিলেন তখন পরশুরাম তাদের পথ অবরোধ করেন এবং হরধনু ভাঙার জন্য রামকে সংপৃষ্ঠ করেন৷ রাম ঋষিকে উপগীত করেন৷ এরপর রাজা দশরথ তার কাছে ক্ষমাপ্রার্থী হলেও পরশুরাম একটুও বিচলিত না হয়ে বিষ্ণুধনু এনে উপস্থিত হন এবং সেই ধনুকে গুন পরিয়ে রামকে সম্মুখযুদ্ধে আহ্বান করেন৷ রাম তার হাত থেকে ধনুকটি নিয়ে তাতে ছিলা পরান এবং একটি তীর রেখে তা প্রতিপক্ষের হৃদয়ে উপলক্ষ বানান৷ রাম পরে পরশুরামকে একটি লক্ষ্যবস্তু দিতে বলেন৷ এক্ষণে পরশুরাম নিজের ভুল বুঝতে পারেন এবং রামকে শ্রীবিষ্ণুর অবতাররূপে চিনতে পারেন৷

শিব ধনুক নিয়ে আরেকটি কাহিনী বিষ্ণু পুরাণে বর্ণিত আছে । একবার তারকাসুরের তিন পুত্র তরকাক্ষ , কমলাক্ষ এবং বিদ্যুৎমালী সৃষ্টি ধ্বংসে উদ্যত হয়, তখন দেবগণ ভগবান শিব এর চরণে আশ্রয় নেন । ভগবানশিব তখন ওই তিন অসুরের সঙ্গে যুদ্ধে উপনীত হন । সেই যুদ্ধে মেরু পর্বত ধনুকের আকার ধারণ করেন , আদি শেষ নাগ ধনুকের প্রত্তঞ্চ হন , দেবী সরস্বতী হন মৃদুল ঘন্টিকা এবং বিষ্ণু পরিণত হন বাণ রূপে । এবং এই ধনুর্বাণের দ্বারা শঙ্কর সেই তিন অসুরের নিধন করেন । পরে সেই ধনুক শম্ভু দেবতাদের দেন। তখন বিষ্ণু বলেন এই প্রবল শক্তিধর ধনুক যদি অসৎ উদ্দেশ্য ব্যবহৃত হয় তবে সৃষ্টিতে প্রলয় আসতে পারে। তখন ভগবান শিব বলেন ত্রেতা যুগে যখন বিষ্ণু মানব অবতার ধারণ করবেন তখন তার হাতে ভঙ্গ হবে শিবের ধনুক পিণাক

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Williams, Monier। "Monier-Williams Sanskrit-English Dictionary"pínāka m. n. a staff or bow, (esp.) the staff or bow of Rudra-Śiva