নোনাজলের কাব্য

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
নোনাজলের কাব্য
চলচ্চিত্রের পোস্টার
পরিচালকরেজওয়ান শাহরিয়ার সুমিত
প্রযোজক
  • ইলান জিরার্ড
  • রেজওয়ান শাহরিয়ার সুমিত
রচয়িতারেজওয়ান শাহরিয়ার সুমিত
চিত্রনাট্যকাররেজওয়ান শাহরিয়ার সুমিত
শ্রেষ্ঠাংশে
সুরকারশায়ান চৌধুরী অর্ণব
চিত্রগ্রাহকচানানুন চতরুংগ্রোজ
সম্পাদক
  • ক্রিস্টেন স্প্রাগ
  • লুইজা পারভ্যু
  • শঙ্খজিৎ বিশ্বাস
প্রযোজনা
কোম্পানি
  • আরসাম ইন্টারন্যাশনাল (ফ্রান্স)
  • মাই পিক্সেল স্টোরি (বাংলাদেশ)
  • হাফ স্টপ ডাউন (বাংলাদেশ)
পরিবেশকফিল্ম রিপাবলিক (আন্তর্জাতিক)
মুক্তি
দৈর্ঘ্য১০৬ মিনিট
দেশফ্রান্স
বাংলাদেশ
ভাষাবাংলা
নির্মাণব্যয়প্রা. ১.২৫ কোটি (প্রাক-নির্মাণ)

নোনাজলের কাব্য (ইংরেজি: The Salt in our Waters) ২০২০ সালের ফ্রেঞ্চ-বাংলাদেশী বাংলা নাট্য চলচ্চিত্র[১] এটি নিজ রচনায় রেজওয়ান শাহরিয়ার সুমিতের প্রথম পূর্ণদৈর্ঘ্য নির্মাণ।[২] চলচ্চিত্রে বৈশ্বিক জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে বাংলাদেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলের জেলেদের দৈনন্দিন জীবন সংগ্রাম ও সংস্কৃতিক প্রভাব চিত্রণ করা হয়েছে।[৩][৪] তিতাস জিয়া, তাসনুভা তামান্না, ফজলুর রহমান বাবু, শতাব্দী ওয়াদুদ, অশোক ব্যাপারি, আমিনুর রহমান মুকুল, রোজি সিদ্দিকী এবং দুলারি তাহিম চলচ্চিত্রের মূল ভূমিকায় অভিনয় করেছেন।

২০১৮ সালে বাংলাদেশ ও ফরাসি সরকারের প্রাথমিক অর্থায়নে এবং বাংলাদেশের মাই পিক্সেল স্টোরি, হাফ স্টপ ডাউন এবং ফ্রান্সের আরসাম ইন্টারন্যাশনালের ব্যানারে চলচ্চিত্রটির নির্মাণ শুরু হয়।[১] বাংলাদেশের পটুয়াখালীতে ম্যানগ্রোভ বনসমৃদ্ধ সমুদ্র তীরের গ্রামীণ পরিবেশে এটির অধিকাংশ চিত্রগ্রহণ করা হয়। ছায়াছবির চিত্রগ্রহণ পরবর্তী সম্পাদনার কাজ ফ্রান্সে করা হয়।

নোনাজলের কাব্য বিশ্বব্যাপি প্রদর্শন ও বাণিজ্যিক মুক্তির জন্যটরিনো ফিল্ম ল্যাবের অনুদান পায়। ২০২০ সালের ১৩ অক্টোবর ব্রিটিশ ফিল্ম ইন্সটিটিউট আয়োজিত ৬৪তম লন্ডন চলচ্চিত্র উৎসবে চলচ্চিত্রটি প্রথম প্রদর্শিত হয়। পরবর্তীরে বুসান, সিঙ্গাপুরকলকাতার আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবগুলিতে এটির প্রদর্শনী চলে।

কাহিনিসংক্ষেপ[সম্পাদনা]

নোনাজলের কাব্য ২০০৭ সালে ঘুর্ণিঝড় সিডরের পর একটি মূল ভূখণ্ড হতে বিচ্ছিন্ন প্রান্তিক জেলেপল্লীর জনগণের পরিবর্তিত পরিবেশে সংগ্রাম ও পাশাপাশি জেলেদের দৈনন্দিন জীবন ও সংস্কৃতিকে ধর্মাশ্রয়ী মানুষের সদা প্রভাবের পটভূমিতে বর্ণিত গল্প।[৩] বাবার মৃত্যুর পর, নতুন কিছু ভাষ্কর্য তৈরীর জন্য রুদ্র (তিতাস জিয়া) ঢাকার কোলাহল ছেড়ে, বাংলাদেশের মূল ভূখণ্ড থেকে একদিনের নৌকা ভ্রমণ দূরত্বে প্রত্যন্ত ম্যানগ্রোভ অঞ্চলের একটি গ্রামে আসেন। গ্রামের চেয়ারম্যান (ফজলুর রহমান বাবু) ও গ্রামবাসি তাকে স্বাদরে গ্রহণ করে। রূদ্র এই গ্রামে বাশারের(অশোক ব্যাপারি) বাড়ী ভাড়া করে থাকা শুরু করেন। রূদ্র'র আধুনিক ভাবনা আর বানানো প্রায় জীবন্ত ভাষ্কর্যগুলি গ্রামের তরুণদের আলোড়িত এবং বাশারের মেয়ে টুনি (তাসনুভা তামান্না)কে আকৃষ্ট করে। রুদ্র'র প্রতি টুনি'র ভালবাসাকে কেউ ভালভাবে গ্রহণ করে না, বরং ভ্রূকুঞ্চিত দৃষ্টিতে দেখে। জেলে প্রধান এই গ্রামের জনগণ প্রকৃতির প্রতি নির্ভরশীল, সাগরের উত্তাল আচরণে ভীত ও সদা শংকিত। তাদের প্রধান রোজগার আসে বর্ষা মৌসুমে ধরা ইলিশ মাছ বিক্রি করে। সে মৌসুমে জেলেদের জালে খুব বেশি মাছ ধরা দিলনা। গ্রামের বয়োজৈষ্ঠরা মাছের আকালের কারণ হিসেবে রুদ্রের প্রতি দোষারোপ করেন। রুদ্র প্রতিমূর্তি বানানোয় সাগর আরো উত্তাল হচ্ছে; সৃষ্টিকর্তা তাদের প্রতি সুনজর ফিরিয়ে নিয়েছেন। এসময় দিগন্তের কাছে ঘুর্ণিঝড় দানা বাধে।

কুশীলব[সম্পাদনা]

নোনাজলের কাব্য অর্ধ-শতাধিক অভিনয় শিল্পী ও কলাকুশলী'র সম্মিলিত নির্মাণ।[৫] চলচ্চিত্রে পেশাদার অভিনয় শিল্পী ছাড়াও চিত্রগ্রহণ করা স্থানসমূহের অধিবাসীরা অংশগ্রহণ করেছিলেন।

কলাকুশলী[সম্পাদনা]

  • শব্দ গ্রহণ - ব্রুনো মেরসেরে।[৮]
  • চিত্রগ্রাহক - চানানুন চতরুংগ্রোজ।[৯]
  • শিল্প নির্দেশনা – সিলভেইন নাহমিয়াস।
  • সঙ্গীত পরিচালনা - শায়ান চৌধুরী অর্ণব[৫]
  • সম্পাদনা - ক্রিস্টেন স্প্রাগ,[৯] লুইজা পারভ্যু ও শঙ্খজিৎ বিশ্বাস।[৭]

প্রাক-নির্মাণ[সম্পাদনা]

২০০৭ সালে ঘূর্নিঝড় সিডরের তিন চার মাস পর রেজওয়ান শাহরিয়ার সুমিত কুয়াকাটা ভ্রমণে গিয়েছিলেন, এসময় প্রান্তিক জেলেপল্লীর জনজীবনে সিডরের প্রভাব প্রত্যক্ষ করেছিলেন।[৩] ২০১২ সালে একটি পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রের চিত্রনাট্য উন্নয়নের জন্য 'স্পাইক লি রাইটিং গ্রান্ট' অর্জন করেন।[৭] ২০১৪ সালে তিনি জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব সংক্রান্ত প্রান্তিক জনবসতি ও জনগোষ্টি নিয়ে চিত্রনাট্য লেখা শুরু করেন, রচনার সময় ২০১৫ সাল হতে জেলেপল্লীর জীবন পর্যবেক্ষণ শুরু করেন। আড়াই বছর সময় নিয়ে চিত্রনাট্য উন্নয়ন, গবেষণা ও স্থান নির্বাচন করা হয়।[৩] চিত্রনাট্যের মানের ভিত্তিতে ২০১৬-১৭ অর্থবছরে নোনাজলের কাব্য প্রযোজনার জন্য বাংলাদেশ সরকার হতে ৫০ লাখ টাকা[১০] ও ফরাসি প্রযোজক ইলান জিরার্ডের মধ্যস্থতায়[১১] ফরাসি সংস্কৃতি ও যোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের ‘দ্যু মন্ড গ্রান্ট’ হতে প্রায় ৭৫ লাখ টাকা অনুদান লাভ করে। পরবর্তীতে সহ-প্রযোজনা ও নির্মাণ সহযোগী হিসেবে বাংলাদেশের হাফ স্টপ ডাউন চলচ্চিত্রটির সাথে যুক্ত হয়।[১২]

নির্মাণ[সম্পাদনা]

নোনাজলের কাব্য'র দৃশ্যধারণের জন্য বাংলাদেশের বর্ষা ঋতু বেছে নেয়া হয়।[৭] ২০১৮ সালের ১৩ জুলাই হতে পটুয়াখালীর বঙ্গোপোসাগর তীরবর্তী ম্যানগ্রোভ বন সমৃদ্ধ রাঙ্গাবালী উপজেলার চর এলাকার প্রত্যন্ত গ্রামে চিত্রগ্রহণ শুরু হয়। ৩৬ দিন ব্যাপী দৃশ্যধারণ পটুয়াখালী ছাড়াও চট্টগ্রামের সাগর তীরের কাছাকাছি গ্রামীণ পরিবেশে করা হয়েছিল। একইবছর ৩ সেপ্টেম্বর মুখ্য চিত্রগ্রহণ সম্পন্ন হয়।[২] দেড় বছর সময় নিয়ে ফ্রান্সের দুইটি স্টুডিওতে চলচ্চিত্রটির চিত্রগ্রহণ পরবর্তী শব্দ ও রংবিন্যাস সম্পাদনার কাজ করা হয়।[৩][৭]

মুক্তি[সম্পাদনা]

নোনাজলের কাব্য প্রেক্ষাগৃহে বাণিজ্যিক মুক্তির পূর্বে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে প্রদর্শিত হয়। বিশ্বব্যাপি প্রদর্শন ও বাণিজ্যিক মুক্তির জন্য ২০২০ সালের জুলাই মাসে চলচ্চিত্রটি টরিনো ফিল্ম ল্যাব অডিয়েন্স ডিজাইন ফান্ড হতে আরো ৪৫ হাজার ইউরো(৪৫ লাখ টাকা) অনুদান পায়।[১৩] [১৪] লন্ডন ভিত্তিক ফিল্ম রিপাবলিক চলচ্চিত্রটির আন্তর্জাতিক পরিবেশক স্বত্ব অধিকার করে।[১][১৫]

প্রদর্শনী[সম্পাদনা]

নোনাজলের কাব্য ২০২০ সালের ১৩ অক্টোবর ব্রিটিশ ফিল্ম ইন্সটিটিউট আয়োজিত ৬৪তম লন্ডন চলচ্চিত্র উৎসবের 'ফিচার ফিল্ম স্ট্র্যান্ডস' বিভাগে[১১] প্রথমবার আনুষ্ঠানিক প্রদর্শনী হয়।[১২][১৬] একই বছর ২৮ অক্টোবর, ২৫তম বুসান আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে একমাত্র বাংলাদেশি পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র হিসেবে প্রদর্শিত হয়[৮][৯] এবং ২৯ নভেম্বর, সিঙ্গাপুর আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের সাউথ এশিয়ান প্রিমিয়ার বিভাগে প্রদর্শিত হয়।[২][১৭][১৮] ২০২১ সালে কলকাতা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে প্রদর্শিত হয়।[১৯]

অর্জন[সম্পাদনা]

পুরস্কার এবং মনোনয়নের তালিকা
সংগঠন বছর বিভাগ প্রাপক ফলাফল তথ্যসূত্র
কলকাতা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব ২০২১ এশীয় বাছাই 'নেটপ্যাক' শ্রেনীতে সেরা চলচ্চিত্র রেজওয়ান শাহরিয়ার সুমিত বিজয়ী [২০]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. রামচরন, নমন (২০২০-১০-৩০)। "U.K.'s Film Republic Boards London, Busan Title 'The Salt in Our Waters' (EXCLUSIVE)"Variety (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১১-২০ 
  2. "সিঙ্গাপুর চলচ্চিত্র উৎসবে ‌'নোনাজলের কাব্য'"বাংলা ট্রিবিউন। ২০২০-১১-০৫। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১১-২০ 
  3. "'নোনা জলের কাব্য'কে ট্র্যাজেডি ফিল্ম বানাতে চাইনি"বণিক বার্তা। ২০২০-০৯-১৯। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১১-২০ 
  4. শারমিন, জিনাত (২০২০-০৯-১৭)। "বুসানে বাংলাদেশি নির্মাতাদের ডাক"প্রথম আলো। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১১-২০ 
  5. "চলচ্চিত্রের আবহ সংগীতে অর্ণব"বাংলা ট্রিবিউন। ২০২০-০৯-০৯। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১১-২০ 
  6. "বিএফআই লন্ডন ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে 'নোনা জলের কাব্য'"দ্য ডেইলি স্টার। ২০২০-১০-০৮। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১১-২০ 
  7. শারমিন, জিনাত (২০১৯-১০-১৭)। "সুমিতের চলচ্চিত্রকাব্য"প্রথম আলো। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১১-২০ 
  8. "The Salt in Our Waters - Busan International Film Festival"Busan International Film Festival। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১১-২০ 
  9. "লন্ডনের চলচ্চিত্র উৎসবে 'নোনাজলের কাব্য'"বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম। ২০২০-০৯-১৬। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১১-২০ 
  10. "৯ মাসের 'কাঁটা' কেন শেষ হলো না ৭ বছরেও, অনুদানের অন্য ছবির খবর"দ্য ডেইলি স্টার। ২০২০-১০-২৬। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১১-২০ 
  11. "আন্তর্জাতিক উৎসবে বাংলাদেশের 'নোনা জলের কাব্য'"প্রথম আলো। ২০২০-০৯-০৯। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১১-২০ 
  12. "লন্ডন চলচ্চিত্র উৎসবে 'নোনা জলের কাব্য'"এনটিভি অনলাইন। ২০২০-০৯-১২। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১১-২০ 
  13. "The Salt in Our Waters | TorinoFilmLab"www.torinofilmlab.it। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১১-২০ 
  14. "'নোনাজলের কাব্য' ছড়িয়ে দিতে ৪৫ লাখ টাকা"প্রথম আলো। ২০২০-০৭-১৭। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১১-২০ 
  15. "'Nonajoler Kabbo' selected for Singapore International Film Festival"ঢাকা ট্রিবিউন। ২০২০-১১-০৪। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১১-২০ 
  16. "The Salt in our Waters (Nonajoler Kabbo)"ব্রিটিশ ফিল্ম ইন্সটিটিউট (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১১-২০ 
  17. "The Salt in Our Waters | Singapore International Film Festival"www.sgiff.com। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১১-২০ 
  18. রামচরন, নমন (২০২০-১১-২৮)। "SGIFF: 'The Salt in Our Waters' Explores Man vs Nature in Bangladesh"Variety (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১১-৩০ 
  19. সাহা, অমর (২০২১-০১-০৩)। "কলকাতা চলচ্চিত্র উৎসবে বাংলাদেশের 'নোনাজলের কাব্য'"প্রথম আলো। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০১-০৩ 
  20. "Curtains down on 26th KIFF with awards | Kolkata News"দ্য টাইমস অব ইন্ডিয়া (ইংরেজি ভাষায়)। ২০২১-০১-১৬। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০১-১৬ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]