নান্দীকার

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

নান্দীকার (বাংলা: নান্দীকার) ভারতের একটি থিয়েটার গ্রুপ। পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের কলকাতায় এই গোষ্ঠীর সদর দফতর রয়েছে। তবে সারা বিশ্বে থিয়েটার গ্রুপটি কাজ করে।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

নান্দীকার ২৯ শে জুন, ১৯৬০ সালে শুরু হয়, অসিত বন্দ্যোপাধ্যায় বি কে পাল এভেনিউতে তাঁর মামাবাড়িতে। অজিতেশ বন্দ্যোপাধ্যায়, অসিত বন্দ্যোপাধ্যায় ও মণীন্দ্র কলেজের কিছু বন্ধুরা যেমন দীপেন সেনগুপ্ত, সত্যেন মিত্র, অজয় গাঙ্গুলী, মহেশ সিংহ, দীপক নন্দী চিন্ময় রায় উপস্থিতিতে পঞ্জিকামতে ‘নান্দীকার’ প্রতিষ্ঠিত হয় ১৯৬০-এর ২৯ জুন। দলের প্রথম কার্যকরী সমিতির সদস্য নির্বাচিত হন : সভাপতি অজিতেশ বন্দ্যোপাধ্যায়, সম্পাদক অসিত বন্দ্যোপাধ্যায়, সহকারী সম্পাদক অজয় গাঙ্গুলী আর কোষাধ্যক্ষ সত্যেন মিত্র। অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা সদস্য দীপেন সেনগুপ্ত নতুন দলের নাম দেন নান্দীকার। নান্দীকার এর লোগো তৈরি করে দেন স্বয়ং সত্যজিৎ রায়

পরবর্তীকালে কেয়া চক্রবর্তী, বিভাষ চক্রবর্তী, অশোক মুখোপাধ্যায় এবং রুদ্রপ্রসাদ সেনগুপ্তের যোগ দেন নান্দীকার এ ।

গোষ্ঠীর প্রাথমিক প্রযোজনাগুলি প্রধানত অ-ভারতীয় নাটকের রূপান্তর, যেমন নাট্যকারার সন্ধ্যানে ছয়টি চরিত্র (লুইগি পিরান্ডালেরর ‘সিক্স ক্যারেকটার্স ইন সার্চ অফ অ্যান অথর’), মঞ্জুরি আমের মঞ্জুরি (চেখভের ‘চেরি অর্চার্ড’), জোখাঁ ইকা (আর্নল্ড ওয়াস্কারের ‘রুটস’), শের আফগান (পিরান্ডেলোর ‘হেনরি ঈভ’) এবং তিন পয়াসার পালা (বার্টোল্ট ব্রেখটের ‘থ্রি পেনি ওপেরা’)। তারা রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের চার অধ্যায়-ও প্রযোজনা করেছে।

নান্দীকার এ অজিতেশ বন্দ্যোপাধ্যায়, অসিত বন্দ্যোপাধ্যায়, রুদ্রপ্রসাদ সেনগুপ্ত ও কেয়া চক্রবর্তী একসাথে অভিনয় একটা স্বর্ণযুগ ছিল ।

১৯৭০ দশকের প্রথম দিকে অসিত বন্দ্যোপাধ্যায় এবং তারপর ১৯৭০ দশকের শেষের দিকে অজিতেশ বন্দ্যোপাধ্যায় দল ছেড়ে চলে যান। রুদ্রপ্রসাদ সেনগুপ্তকে প্রধান পরিচালক হিসেবে, একটি নতুন যুগ শুরু হয়, এবং নন্দীকার একটি বিশুদ্ধ কর্মভিত্তিক থিয়েটার গ্রুপ থেকে একটি প্রতিষ্ঠানের সাথে বিভিন্ন ধরনের প্রকল্পে পরিণত হয়, যার মধ্যে বার্ষিক ন্যাশনাল থিয়েটার ফেস্টিভ্যাল রয়েছে।

দলের বর্তমান অভিনেত্রী এবং অভিনেতা স্বাতীলেখা সেনগুপ্ত, যিনি সত্যজিৎ রায়ের চলচ্চিত্র ঘরে বাইরে (১৯৮৪) এবং রোনাল্ড জফে-র সিটি অফ জয় (১৯৯২), গৌতম হালদার (তিনি দলটি রেখেছেন এবং গঠন করেছেন একটি নতুন দল, প্রাথমিকভাবে দলের পরিচালক হয়ে উঠছেন), দেবশংকর হালদার, সোহিনী সেনগুপ্ত, যিনি অপর্ণা সেনের ছবি পারমিতার একদিন (২০০০) এবং রুদ্রপ্রসাদ সেনগুপ্ত নিজেকে অভিনয় করেছিলেন। নান্দীকার প্রযোজনায় অভিনয় ছাড়াও তিনি বার্নার্ডো বার্টোলুকির লিটল বুদ্ধে (১৯৯৩) অভিনয় করেছেন।

নান্দীকার নিয়মিত সারা ভারতে কাজ করে। তবে, গত এক দশকে এই গ্রুপটি ভারত, বাংলাদেশ, জার্মানি, সুইডেন, যুক্তরাজ্য এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রসহ বেশ কয়েকটি দেশে নাটক পরিচালনা করেছে।

নাটকগুলি[সম্পাদনা]

  • 2013 --- নাচনি - সুব্রত মুখোপাধ্যায়ের উপন্যাসের উপর ভিত্তি করে। সংগীত, নাটক এবং নির্দেশনায় পার্থ প্রতিম দেব।
  • 2009 --- মাধবী -  ভীষ্ম সাহনির নাটকের উপর ভিত্তি করে। পরিচালিত সুচিলক্ষ সেনগুপ্ত
  • 2008 --- আগাতবাস - নির্দেশনায় সুমন্ত গঙ্গোপাধ্যায়, সুকান্ত গঙ্গোপাধ্যায়ের গল্প উপর ভিত্তি করে।
  • 2007 --- জাহা চাই ... নির্দেশনায় রুদ্রপ্রসাদ সেনগুপ্ত ও গৌতম হালদার

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

https://aajkaal.in/news/kolkata/state-story-6ema

https://timesofindia.indiatimes.com/city/kolkata/53-years-on-an-actor-remembers-his-journey/articleshow/21769485.cms

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]