বিষয়বস্তুতে চলুন

গাজীপুর রউফিয়া কামিল মাদ্রাসা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
গাজীপুর রউফিয়া কামিল মাদ্রাসা, যশোর
মাদ্রাসার লোগো
ধরনএমপিও ভুক্ত
স্থাপিত১৯৫৪; ৭০ বছর আগে (1954)
প্রতিষ্ঠাতাগণ
  • মৌলভী মোহাম্মাদ মেছের আলী কাজী
  • কাজী আব্দুর রউফে
প্রাতিষ্ঠানিক অধিভুক্তি
ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়, কুষ্টিয়া (২০০৬- ২০১৬)
ইসলামি আরবি বিশ্ববিদ্যালয় (২০১৬- বর্তমান)
মাধ্যমিক অন্তর্ভুক্তিবাংলাদেশ মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড
শিক্ষার্থীআনু. ১২০০
ঠিকানা
গাজীপুর
, , ,
শিক্ষাঙ্গনগ্রাম্য
EIIN সংখ্যা১১৫৫২২
ক্রীড়াক্রিকেট, ফুটবল, ভলিবল, ব্যাটমিন্টন
এমপিও সংখ্যা৫৫০১০৩২৪০১
ওয়েবসাইটhttp://115522.ebmeb.gov.bd/

গাজীপুর রউফিয়া কামিল মাদ্রাসা যশোর জেলার অভয়নগর উপজেলার একটি উল্লেখযোগ্য আলিয়া মাদ্রাসা[১] এটি উপজেলার গাজীপুর নামক গ্রামে অবস্থিত একটি প্রাচীন ইসলামি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। ১৯৫৪ সালে মোহাম্মাদ মেছের আলী কাজী নামে এক ইসলাম প্রচারক এই মাদ্রাসাটি প্রতিষ্ঠা করেন। এটি বর্তমানে ইসলামি আরবি বিশ্ববিদ্যালয় অধিভুক্ত একটি কামিল মাদ্রাসা,[২] পাশাপাশি মাদ্রাসার দাখিল ও আলিম পরীক্ষার জন্য বাংলাদেশ মাদ্রাসা শিক্ষাবোর্ডের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। মাদ্রাসার ইআইআইএন নাম্বার ১১৫৫২২ এবং এমপিও নাম্বার ৫৫০১০৩২৪০১। মাদ্রাসার বর্তমান অধ্যক্ষের নাম মোহাম্মাদ আব্দুল ওয়াদুদ। জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ ২০২২ উপলক্ষে এই মাদ্রাসাটি উপজেলার শ্রেষ্ঠ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পুরস্কার লাভ করে।[৩]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

অভয়নগর উপজেলার পীর ও আধ্যাত্নিক ব্যক্তি এবং গাজীপুর কাজী খানকা শরীফের প্রতিষ্ঠাতা শাহ সূফী মৌলভী মোহাম্মাদ মেছের আলী কাজী ১৯৫৪ সালে তার পীর কাজী আব্দুর রউফ থেকে নির্দেশিত হয়ে এই মাদ্রাসাটি প্রতিষ্ঠা করেন। তার পীর আব্দুর রউফের নাম থেকেই এটি রউফিয়া মাদ্রাসা নামকরণ করা হয়। মাদ্রাসাটি প্রতিষ্ঠা করার ক্ষেত্রে গ্রামের স্থানীয় ব্যক্তিবর্গ সাহায্য করেছিলো, প্রাথমিক অবস্থায় চাচের বেড়া ও খড়ের ছাউনী একটি ঘর নির্মাণ করা হয়।

২০০৬ সালের এই মাদ্রাসাটি কুষ্টিয়া ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে অধিভুক্ত হয়।[৪] এরফলে ফাজিল ও কামিল পরীক্ষা উভয় মিলিয়ে সাধারণ শিক্ষার পূর্ণ স্নাতক ডিগ্রির সমমান লাভ করে। এরপরে ২০১৬ সালে মাদ্রাসা শিক্ষাকে আরও আধুনিকরন করার জন্য ইসলামি আরবি বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করা হলে, মাদ্রাসাটি ১২৮৪ টি মাদ্রাসার সাথে আরবি বিশ্ববিদ্যালয়ে স্থানান্তরিত করা হয়।[৫]

শিক্ষা কার্যক্রম[সম্পাদনা]

এই মাদ্রাসায় দাখিল শ্রেণী থেকে শুরু করে আলিয়া মাদ্রাসার সর্বোচ্চ শ্রেণী কামিল শ্রেণী পর্যন্ত রয়েছে। মাদ্রাসাটি দাখিল ও আলিম শ্রেণীর পরীক্ষায় ফলাফলে জেলার অন্যতম ভালো ফলাফল করে থাকে। এই মাদ্রাসার দাখিল ও আলিম শ্রেণীতে মানবিক ও বিজ্ঞান উভয় শাখা বিদ্যমান রয়েছে। এবং ফাজিল ও কামিল শ্রেণীতে কিছু বিভাগে অনার্স কোর্স চালু আছে। এই মাদ্রাসার বহু শিক্ষার্থীরা দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে উচ্চ শিক্ষার সুযোগ পেয়ে থাকে। এই মাদ্রাসার ফাজিল ও কামিল শ্রেণীতে আল-কুরআন ও আল হাদিস বিষয়ে অনার্স কোর্স চালু আছে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Gazipur Roufia Kamil Madrasa - Sohopathi | সহপাঠী" (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৭-০৭-০২। সংগ্রহের তারিখ ২০২২-১১-২০ 
  2. "ইসলামি আরবি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে একটি নোটিশ" (পিডিএফ)ইসলামি আরবি বিশ্ববিদ্যালয়। ৬ জানুয়ারি ২০২২ তারিখে মূল (পিডিএফ) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০ নভেম্বর ২০২২ 
  3. Dainikshiksha। "শ্রেষ্ঠ নির্বাচিত হলো যশোরের যেসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান - দৈনিকশিক্ষা"Dainik shiksha (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২২-১১-২০ 
  4. "আলিয়া মাদরাসার উৎপত্তি ও ক্রমবিকাশ"lekhapora24.net। ২০২১-০৮-১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৮-১৭ 
  5. "মাদ্রাসা শিক্ষার উন্নয়নে প্রত্যাশা"SAMAKAL (ইংরেজি ভাষায়)। ২০২১-০৬-১০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৬-১০ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]