আলাপ:চর্যাপদ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
সাহিত্য উইকিপ্রকল্প
সাহিত্য উইকিপ্রকল্প
চর্যাপদ এই নিবন্ধটি উইকিপ্রকল্প সাহিত্যর অংশ, নিবন্ধটিকে আরো উন্নত করে তুলতে আমাদেরকে সাহায্য করুন। যদি আপনি অংশগ্রহণ করতে চান তবে প্রকল্প পাতায় যান।

সাহিত্য উইকিপ্রকল্প - আজ ও আগামীর বাঙালি পাঠকের জন্য শ্রেষ্ঠ সাহিত্য বিষয়ক তথ্যসূত্র গড়ে তোলার লক্ষ্যে

??? এই নিবন্ধটির গুণমান এখনও মূল্যায়িত হয়নি।
??? এই নিবন্ধটির গুরুত্ব এখনও মূল্যায়িত হয়নি।
Featured article চর্যাপদ একটি নির্বাচিত নিবন্ধ; অর্থাৎ, এটি (অথবা এর প্রাক্তন সংস্করণটি) উইকিপিডিয়ানদের সৃষ্ট অন্যতম শ্রেষ্ঠ একটি নিবন্ধরূপে চিহ্নিত। তারপরও আপনি যদি মনে করেন যে, নিবন্ধটির আরো উন্নতি বা হালনাগাদ করা সম্ভব, অনুগ্রহপূর্বক তা করুন


সন্ধ্যাভাষা-র জন্য পৃথক পাতার প্রয়োজন নেই[সম্পাদনা]

সন্ধ্যাভাষার জন্য আলাদা পাতার দরকার নেই। সব তথ্যই চর্যাপদ পাতায় সন্নিবেশিত হয়েছে।


চর্যাপদ প্রবন্ধটি চমৎকার হয়েছে । বানান ভুল প্রায় নেই, লাল লিঙ্কও খূব কম, আর পাদটীকা অংশটিও চমৎকার হয়েছে । এটাকে খুব সহজেই নির্বাচিত নিবন্ধ করা যেতে পারে । পিয়াল ১৮:২৭, ১৯ আগস্ট ২০০৮ (UTC)

কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় (নিবন্ধ লেখকের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি)[সম্পাদনা]

নিবন্ধ পর্যালোচনা এখনও চলছে। তবে এপর্যন্ত পর্যালোচিত অংশে যে বিষয়গুলোতে খটকা লেগেছে সেগুলো তুলে ধরছি, যাতে ভুলে যাওয়ার আগে বিষয়গুলো নজরে আনা যায়। পরবর্তিতে আরো কিছু পেলে তাও নজরে আনা হবে ইনশাল্লাহ:

  • "বজ্রযান", "সহজযান" ইত্যাদি শব্দের উল্লেখ আছে নিবন্ধে। এটা আমার অজ্ঞতাপ্রসূত প্রশ্ন: এই শব্দগুলো কি বৌদ্ধ ধর্মের কোনো মতবাদকে ইঙ্গিত করছে? কারণ আমার জানামতে, বৌদ্ধ ধর্মে "হীনযানী" ও "মহাযানী" নামক দুটো মতবাদ রয়েছে। যদি ঐ শব্দদুটোও বৌদ্ধ ধর্মের মতবাদকে ইঙ্গিত করে থাকে, তাহলে কোনটা সঠিক: "বজ্রযান" নাকি "বজ্রযানী"। সাধারণত আমরা কোনো মতবাদের অনুসারীকে বলি: ঈসায়ী, মুসায়ী ইত্যাদি। সেরকম কি কিছু হবে?
Vajrayana পৃষ্ঠায় আপনার প্রথম প্রশ্নের উত্তর পাবেন। পৃষ্ঠাটি এখনও বাংলায় অনুবাদ হয়নি, তাই ইংরেজি লিঙ্কই পাঠালাম। --অর্ণব দত্ত (আলাপ) ১৪:৫৯, ২৩ নভেম্বর ২০১০ (ইউটিসি)
  • ধ্বনিতত্ত্ব অংশে "পূরকদীর্ঘত্ব" নামে একটি শব্দ রয়েছে। এর মানে কী? এজাতীয় শব্দকে কি সহজ অন্য শব্দ বা একাধিক বাক্য দিয়ে প্রতিস্থাপন করা যায় না?
পূরকদীর্ঘত্ব শব্দের একপ্রকার বিশেষ পরিবর্তন। ওখানে উদাহরণ দেওয়া আছে। বিস্তারিত ব্যাখ্যার জন্য কোনো ভাষাতত্ত্বের বই consult করতে পারেন বা উইকিপিডিয়ান সামীরুদ্দৌলা সাহেবকে জিজ্ঞাসা করতে পারেন। উনি ভাষাবিজ্ঞান সম্পর্কে আমার থেকে ভাল জানেন। ভাষাবিজ্ঞান সংক্রান্ত পরিভাষা এটি। তাই শব্দটি না পাল্টানোই ভাল। --অর্ণব দত্ত (আলাপ) ১৫:১২, ২৩ নভেম্বর ২০১০ (ইউটিসি)
  • "অন্ত্যমিলযুক্ত" বানানটি কি "অন্তমিলযুক্ত" হবে?
সম্ভবত "অন্তমিলযুক্ত"-ই হবে। য-ফলাটা সম্ভবত ভুল করে দিয়েছিলাম। -অর্ণব দত্ত (আলাপ) ১৫:১৩, ২৩ নভেম্বর ২০১০ (ইউটিসি)
না না, ঠিক লিখেছি, "অন্ত্যমিলযুক্ত"। আকাদেমির সাহিত্যের শব্দকোষ মিলিয়ে দেখলাম। --অর্ণব দত্ত (আলাপ) ১৫:১৫, ২৩ নভেম্বর ২০১০ (ইউটিসি)
  • "অন্তানুপ্রাস" শব্দটির অর্থ কী?
অন্তানুপ্রাস হল, "কবিতায় পর পর দু-ধরনের শেষ ধ্বনি হলে অন্ত্যানুপ্রাস হয়। ['মহাভারতের কথা অমৃতসমান। কাশীরাম দাস ভনে শুনে পূণ্যবান।'] (সাহিত্যের শব্দার্থকোষ, পঃবঃ বাংলা আকাদেমি, পৃ. ৬)

চর্যাসংগীত পর্যন্ত রিভিউ করে এই বিষয়গুলো তুলে ধরা। —মঈনুল ইসলাম (আলাপ * অবদান) ১৪:০৯, ২৩ নভেম্বর ২০১০ (ইউটিসি)

"বজ্রযান" সম্পর্কে যা ধারণা করেছিলাম, মনে হচ্ছে তা-ই। ওই দুটোই বৌদ্ধ মতবাদ। সেক্ষেত্রে আমি "বজ্রযানী সাধকগণ" ও "সহজযানী সাধকগণ"-টাইপের পরিবর্তন আনলাম নিবন্ধে, যদি আপত্তির গূঢ় কোনো কারণ না থাকে। বকিগুলোর জন্য ধন্যবাদ। ওভাবেই রেখে দিচ্ছি।
আপত্তির কোনো কারণ নেই। --অর্ণব দত্ত (আলাপ) ১৫:৫৯, ২৩ নভেম্বর ২০১০ (ইউটিসি)
আরো কিছুদূর এগিয়ে এবারকার বিষয়গুলো তুলে ধরছি:
  • আমার কাছে মনে হয়েছে: নিবন্ধের মধ্যকার ভাষাগুলো বেশি সাহিত্যিক; সাধারণ্যের কাছে খুব বেশি পরিচিত না। অবশ্য পশ্চিমবঙ্গের সাহিত্যের মতো মনে হয়, কারণ ভারতীয় টিভি চ্যানেলে যেসব বাংলার ব্যবহার দেখি, সেখানে অনেক কঠিন বাংলাও ব্যবহৃত হয়, বাংলাদেশে যা হয় না। আমার মনে হয়, এক্ষেত্রে অবদানকারী, তাঁর পঠিত বইগুলোর ভাষা দ্বারা প্রভাবিত। যাহোক, মনে হচ্ছে (এটা শ্রেফ আমার মনে হওয়া আরকি) নিবন্ধটির ভাষা আরো সরল করা যায়। তাতে নিবন্ধটি আরো প্রাঞ্জল হবে।
মধ্যভাগ বলতে ঠিক কোন অংশটির কথা বলছেন?--অর্ণব দত্ত (আলাপ) ১৬:০৪, ২৩ নভেম্বর ২০১০ (ইউটিসি)
আসলে আমি "মধ্যকার" লিখেছি, "মধ্যভাগ" লিখিনি। :) এর দ্বারা বুঝিয়েছি নিবন্ধটির ভাষাগুলো/নিবন্ধের ভিতরকার ভাষাগুলো..."। —মঈনুল ইসলাম (আলাপ * অবদান) ১৭:০৬, ২৩ নভেম্বর ২০১০ (ইউটিসি)
বইয়ের ভাষাকে আমি অনেক সহজ করে লিখেছি (ভাষাতত্ত্ব অংশটি বাদে)। বইয়ের ভাষা বুঝতে আমাকে পাক্কা একটি বছর সময় ব্যয় করতে হয়েছিল। :-) তবে চর্যাগীতি ধর্মীয় অনুষঙ্গের গান। তাই এখানে আমাকে এমন কিছু শব্দ অবিকৃত রাখতে হয়েছে, যা বৌদ্ধধর্মের (এবং হিন্দুধর্মেও) পারিভাষিক শব্দ হিসেবে আমরা অহরহ ব্যবহার করি। যদি একটু কষ্ট করে কঠিন লাগা অংশগুলি নির্দিষ্ট করেন, তবে সেগুলি সহজতর করা যায় কিনা তা দেখার চেষ্টা করতে পারি। --অর্ণব দত্ত (আলাপ) ১৭:২৯, ২৩ নভেম্বর ২০১০ (ইউটিসি)
  • সাহিত্যমূল্য' অংশে "উত্তুঙ্গ শীর্ষে" শব্দটির মানে কী? এর কি সহজ বাংলা নেই?
ওই লাইনটি এভাবে লেখা যায়। "শবরপাদের একটি পদে দেখা যায় নরনারীর প্রেমের এক অপূর্ব চিত্রণ।" --অর্ণব দত্ত (আলাপ) ১৬:১০, ২৩ নভেম্বর ২০১০ (ইউটিসি)
আমারও সেরকম মত। ধন্যবাদ। —মঈনুল ইসলাম (আলাপ * অবদান) ১৭:০৬, ২৩ নভেম্বর ২০১০ (ইউটিসি)

"ভালো নিবন্ধ" (স্বীকার্য)[সম্পাদনা]

চর্যাপদ নিবন্ধটি নিঃসন্দেহে একটি ভালো নিবন্ধ। যেসকল মাপকাঠিতে মূল্যায়ন করা হয়েছে, সেগুলো হলো:

  • সুলিখিত: অবশ্যই নিবন্ধটি সুলিখিত। ভাষাগত কাঠিন্যটুকু কিছুটা ভাষাতাত্ত্বিক এবং কিছুটা উৎসগত তথ্যের কাঠিন্যের কারণ। তবে যদি সম্ভব হয়, নির্বাচিত নিবন্ধ হবার আগে এই কাঠিন্যটুকু দূর করা গেলে সুন্দর হয়; তবে বর্তমানেও প্রাঞ্জল আছে।
  • হালনাগাদ,‌‌‌ সঠিক এবং যাচাইযোগ্যতা: অফলাইন তথ্যসূত্রের ক্ষেত্রে যাচাই সম্ভব হয়নি। তবে অবদানকারীর উপর এক্ষেত্রে পূর্ণ আস্থা রাখা হয়েছে, যেহেতু তিনি একজন পুরোন উইকিপিডিয়ান।
  • গভীরতা বা ব্যপ্তি: নিঃসন্দেহে এই নিবন্ধটিতে গভীরতা রয়েছে এবং বিস্তারিত লেখা বর্জন করে সংক্ষিপ্তাকারে তুলে ধরা হয়েছে।
  • নিরপেক্ষ: নিরপেক্ষতা লঙ্ঘিত হয়নি।
  • স্থিতিশীল: আমার রিভিউ ছাড়া আর তেমন কোনো সম্পাদনা যুদ্ধ হচ্ছে না।
  • ছবি: প্রাঞ্জলতার জন্য ন্যূনতম ছবিগুলো অবশ্যই আছে এই নিবন্ধটিতে।

সুতরাং এসকল মাপকাঠিতে উত্তীর্ণ হওয়ায় আমি এই নিবন্ধটিকে "ভালো নিবন্ধ" বলে মনে করছি। —মঈনুল ইসলাম (আলাপ * অবদান) ০৭:২৮, ১৬ ডিসেম্বর ২০১০ (ইউটিসি)

নিবন্ধের শুরুতে চর্যাপদ পুঁথির ছবি বিষয়ে[সম্পাদনা]

নিবন্ধের শুরুতেই চর্যাপদ পুঁথির ছবিটি কেমন যেন বেমানান লাগে এর আকারের কারণে। নিবন্ধের শুরুতে যেহেতু বাংলা ভাষা টেমপ্লেট আছে এবং তাতে সবার ওপরেই চর্যাপদ পুঁথির ছবি, তাই আমার মতে এটাকে নিবন্ধের মাঝে কোথা রাখা যেতে পারে। তাতে নিবন্ধটি গঠন দেখতে আরও ভাল হবে। - আলী হায়দার খান তন্ময় (আলাপ) ১৩:৫০, ৩০ নভেম্বর ২০১১ (ইউটিসি)

তন্ময় ভাই, এবার কেমন লাগছে? —মঈনুল ইসলাম (আলাপ * অবদান) ১৫:৪৬, ৩০ নভেম্বর ২০১১ (ইউটিসি)

নির্বাচিত নিবন্ধ[সম্পাদনা]

চর্যাপদ[সম্পাদনা]

মনোনয়নকারী: — User:Jonoikobangali আলাপ অবদান ১৫:২৯, ২০ ডিসেম্বর ২০১০ (ইউটিসি)

মঈনুল ইসলাম ভাই "ভাল নিবন্ধ" হিসেবে মূল্যায়নের সময় এটিকে "সুলিখিত", "সঠিক", "গভীর", "নিরপেক্ষ", "স্থিতিশীল" বলে উল্লেখ করেছেন। আমার প্রস্তাব এটিকে নির্বাচিত নিবন্ধ মর্যাদা দেওয়া হোক। প্রস্তাবক: --অর্ণব দত্ত (আলাপ) ১৫:২৯, ২০ ডিসেম্বর ২০১০ (ইউটিসি)

যেহেতু ভাল নিবন্ধের জন্য আমি মূল্যায়ন করেছিলাম, তাই নির্বাচিত নিবন্ধস্তরে উন্নীত করতে এবার অন্য আরেকজন অবদানকারীর দৃষ্টির প্রত্যাশা করবো। এতে নিরপেক্ষতা সুনিশ্চিত হবে। —মঈনুল ইসলাম (আলাপ * অবদান) ০৯:৪৭, ৮ এপ্রিল ২০১১ (ইউটিসি)
যেহেতু ভাল নিবন্ধের জন্য আমি মূল্যায়ন করেছিলাম, তাই নির্বাচিত নিবন্ধস্তরে উন্নীত করতে এবার অন্য আরেকজন অবদানকারীর দৃষ্টির প্রত্যাশা করবো। এতে নিরপেক্ষতা সুনিশ্চিত হবে। —মঈনুল ইসলাম (আলাপ * অবদান) ০৯:৪৬, ৮ এপ্রিল ২০১১ (ইউটিসি)
চর্যাপদ নিবন্ধটিকে নির্বাচিত নিবন্ধ মর্যাদা দেওয়ার পক্ষে সুপারিশ করছি৤- ফয়জুল লতিফ চৗধুরী৤ (টিলডা খুঁজে পাওয়া যাচ্ছনা!)
প্রায় ৪ বছর ধরে মতামতের জন্য এটা এখানে পড়ে আছে। এর মাঝে ব্যবহারকারীরা একে নির্বাচিত নিবন্ধ হিসেবে যুক্ত করার জন্য সমর্থন জানিয়েছেন। তবে আমি এই নিবন্ধটি পুরোপুরি পড়েছি এবং ১-২ টি ভুল পেয়েছিলাম এবং তা ঠিক করে দিয়েছি। তাই আমার মনে হয় না এটার আর এভাবে পরে থাকার দরকার আছে। নির্বাচিত নিবন্ধ হওয়ার জন্য যে ৭ টি শর্ত পূরণ করা লাগে তাঁর সব কয়টি-ই এই নিবন্ধে রয়েছে। তাই এই নিবন্ধটিকে নির্বাচিত নিবন্ধ হিসেবে উন্নীত  করা হয়েছে। --প্রত্যয় (স্বাগতম) ১৪:১৩, ৫ আগস্ট ২০১৪ (ইউটিসি)

প্রধান পাতার জন্য সূচনাংশ[সম্পাদনা]

Sketch Kanhapad.jpg

চর্যাপদ বাংলা ভাষার প্রাচীনতম কাব্য তথা সাহিত্য নিদর্শন। নব্য ভারতীয় আর্যভাষারও প্রাচীনতম রচনা এটি। খ্রিস্টীয় দশম থেকে দ্বাদশ শতাব্দীর মধ্যবর্তী সময়ে রচিত এই গীতিপদাবলির রচয়িতারা ছিলেন সহজিয়া বৌদ্ধ সিদ্ধাচার্যগণ। বৌদ্ধ ধর্মের গূঢ় অর্থ সাংকেতিক রূপের আশ্রয়ে ব্যাখ্যার উদ্দেশ্যেই তাঁরা পদগুলি রচনা করেছিলেন। বাংলা সাধন সংগীত শাখাটির সূত্রপাতও হয়েছিলো এই চর্যাপদ থেকেই। এই বিবেচনায় এটি একটি ধর্মগ্রন্থজাতীয় রচনা। একই সঙ্গে সমকালীন বাংলার সামাজিক ও প্রাকৃতিক চিত্রাবলি এই পদগুলিতে উজ্জ্বল। এর সাহিত্যগুণ আজও চিত্তাকর্ষক। ১৯০৭ খ্রিস্টাব্দে মহামহোপাধ্যায় হরপ্রসাদ শাস্ত্রী, নেপালের রাজদরবারের গ্রন্থশালা থেকে চর্যার একটি খণ্ডিত পুঁথি উদ্ধার করেন। পরবর্তীতে আচার্য সুনীতিকুমার চট্টোপাধ্যায় ভাষাতাত্ত্বিক বিশ্লেষণের মাধ্যমে চর্যাপদের সঙ্গে বাংলা ভাষার অনস্বীকার্য যোগসূত্র বৈজ্ঞানিক যুক্তিসহ প্রতিষ্ঠিত করেন। চর্যার কবিগণ সিদ্ধাচার্য নামে পরিচিত; সাধারণত বজ্রযানী ও সহজযানী আচার্যগণই এই নামে অভিহিত হতেন। তিব্বতি ও ভারতীয় কিংবদন্তীতে এঁরাই 'চৌরাশি সিদ্ধা' নামে পরিচিত। তবে এই ৮৪ জন সিদ্ধাচার্য আসলে কারা ছিলেন তা সঠিক জানা যায়নি। আবিষ্কৃত পুঁথিটিতে ৫০টি চর্যায় মোট ২৪ জন সিদ্ধাচার্যের নাম পাওয়া যায়। চর্যার প্রধান কবিগণ হলেন লুইপাদ, কাহ্নপাদ, ভুসুকুপাদ, শবরপাদ প্রমুখ। (বাকি অংশ পড়ুন...)


মতামত জানান, এটি নির্ধারণ করা হলে প্রধান পাতার জন্য সক্রিয় করা হবে। --নাসির খান সৈকতআলাপ • ০৯:১৭, ১ সেপ্টেম্বর ২০১৪ (ইউটিসি)

উইকিপিডিয়া:নির্বাচিত নিবন্ধ/৭ নামে এই পাতা নাহিদ ভাই আগেই তৈরী করেছেন। শুধু প্রধান পাতায় সক্রিয় করা হয়নি বলে মনে হচ্ছে। -- বোধিসত্ত্ব (আলাপ) ১১:১৭, ১ সেপ্টেম্বর ২০১৪ (ইউটিসি)
Symbol support vote.svg সমর্থন আমার মতে ঠিক আছে।  – তানভির (আলাপ) ১২:৫৮, ৫ সেপ্টেম্বর ২০১৪ (ইউটিসি)
এখানে যে ছবিটি দেয়া হয়েছে তা না দিয়ে নিবন্ধে যে ছবিটি আছে সেটা দিলে মনে হয় ভালো হবে। এটি ঠিক কিসের ছবি/ছবিতে কি আছে তা কম্পিউটার থেকে বুঝা যায় না, মোবাইলে একই রকম। --আফতাব (আলাপ) ১৪:৪৫, ৫ সেপ্টেম্বর ২০১৪ (ইউটিসি)
আফতাব, নাহিদ ভাইয়ের তৈরী উইকিপিডিয়া:নির্বাচিত নিবন্ধ/৭ পাতাটি দেখতে অনুরোধ করি। -- বোধিসত্ত্ব (আলাপ) ০৮:২২, ৬ সেপ্টেম্বর ২০১৪ (ইউটিসি)
হ্যাঁ, এটিই ব্যবহার করা যায়। যেহেতু এটি একটি চলমান প্রক্রিয়া এজন্য আমাদের এখনই একটি সিদ্ধান্ত নেওয়া দরকার যে (যদি আগে নেওয়া না হয়ে থাকে) আমরা নির্বাচিত বা ভালো নিবন্ধের সারসংক্ষেপ কয় লাইন করে রাখবো। একেকটির জন্য ভিন্ন ভিন্ন রাখলে দৈর্ঘ্য ছোটবড় হয়ে যায়। মানে বলতে চাচ্ছি, সকল ভালো নিবন্ধের সারসংক্ষেপ এত লাইন এবং সকল নির্বাচিত নিবন্ধের সারসংক্ষেপ এত লাইন।--যুদ্ধমন্ত্রী আলাপ ০৮:০১, ৮ সেপ্টেম্বর ২০১৪ (ইউটিসি)
এবং ছবির ক্ষেত্রে আফতাবের সাথে একমত। আমার মতে, যেহেতু বেশ কয়েকজন কবিই এটি রচনা করেছেন তাই নির্দিষ্ট কবির স্কেচ না দিয়ে চর্যাপদের টেক্সট-এর ছবিটা দেওয়াই শ্রেয়।--যুদ্ধমন্ত্রী আলাপ ১১:৫৩, ৮ সেপ্টেম্বর ২০১৪ (ইউটিসি)