আব্দুস সেলিম

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
অধ্যাপক

আব্দুস সেলিম
Abdus Selim 1.jpg
ব্যক্তিগত বিবরণ
জন্ম১৯ সেপ্টেম্বর ১৯৪৫
চুয়াডাঙ্গা, বেঙ্গল প্রেসিডেন্সি, ব্রিটিশ ভারত
(বর্তমান বাংলাদেশ)
জাতীয়তা
পাকিস্তান (১৯৭১ সালের পূর্বে)
বাংলাদেশ
প্রাক্তন শিক্ষার্থীঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়
করাচী বিশ্ববিদ্যালয়
লন্ডন বিশ্ববিদ্যালয়
এক্সিটার বিশ্ববিদ্যালয়
পেশাশিক্ষাবিদ, লেখক এবং অনুবাদক
পুরস্কারবাংলা একাডেমি পুরস্কার (২০১৫)

আব্দুস সেলিম (জন্ম: ১৯ সেপ্টেম্বর ১৯৪৫) বাংলাদেশের শিক্ষাবিদ, লেখক এবং অনুবাদক। অনুবাদ সাহিত্যে অবদানের জন্য তিনি ২০১৫ সালে বাংলা একাডেমি পুরস্কার লাভ করেন।[১][২] তার ইংরেজি অনুবাদে Binodini ইয়েল বিশ্ববিদ্যালয়ে নাট্যকলা বিভাগের পাঠ্যসূচিতে অন্তর্ভুক্ত। তিনি বর্তমানে সেন্ট্রাল উইমেন ইউনিভার্সিটির ইংরেজি ভাষা-সাহিত্য বিভাগের অনুষদ সদস্য।[৩]

প্রাথমিক জীবন[সম্পাদনা]

আব্দুস সেলিম ১৯ সেপ্টেম্বর ১৯৪৫ সালে চুয়াডাঙ্গায় জন্মগ্রহণ করেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে তিনি ইংরেজিতে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর সম্পন্ন করেন। পড়াশুনা করাচী বিশ্ববিদ্যালয়, এক্সিটার বিশ্ববিদ্যালয় এবং লন্ডন বিশ্ববিদ্যালয়ে[৪]

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

আব্দুস সেলিম পেশায় ইংরেজি ভাষা ও ভাষাতত্ত্বের অধ্যাপক। তিনি লিবিয়ার টিচার্স ট্রেনিং কলেজের পাশাপাশি ইংল্যান্ড, যুক্তরাষ্ট্র ও জার্মানিতে শিক্ষকতা করেছেন। নর্থসাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ে তিনি অনুষদ সদস্য ছিলেন। তিনি রামেন্দু মজুমদারের থিয়েটার স্কুলে থিয়েটারের নন্দনতত্ত্ব শেখান । তিনি আন্তর্জাতিক থিয়েটার ইনস্টিটিউটের সহসভাপতি এবং নির্বাহী সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। তার অনূদিত অধিকাংশ নাটকই পরিচালনা করেছেন আতাউর রহমান। তার ইংরেজি অনুবাদে Binodini ইয়েল বিশ্ববিদ্যালয়ে নাট্যকলা বিভাগের পাঠ্যসূচিতে অন্তর্ভুক্ত।[৪]

গ্রন্থ[সম্পাদনা]

আব্দুস সেলিম ইংরেজি থেকে বাংলা এবং বাংলা থেকে ইংরেজিতে অসংখ্য কবিতা, প্রবন্ধ এবং ছোটগল্প অনুবাদ করেছেন। তার উল্লেখযোগ্য প্রকাশিত গ্রন্থের মধ্যে রয়েছে:[৫]

  • ’গ্যালিলিও’
  • ’হিম্মতী মা’
  • ‘গোলমাথা চোখামাথা’

পুরস্কার ও সম্মাননা[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কার বিজয়ী"বাংলাদেশ জাতীয় তথ্য বাতায়ন। ১৯ ডিসেম্বর ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২ জানুয়ারি ২০২২ 
  2. "11 honoured with Bangla Academy awards"দ্য ডেইলি স্টার। ২৮ জানুয়ারি ২০১৬। সংগ্রহের তারিখ ২ জানুয়ারি ২০২২ 
  3. "Faculty Members of the Department of English Language-Literature"cwu.edu.bd। সংগ্রহের তারিখ ২ জানুয়ারি ২০২২ 
  4. "A Scholar's Paeans to a Martyr"দ্য ডেইলি স্টার। ২৬ জানুয়ারি ২০১০। সংগ্রহের তারিখ ২ জানুয়ারি ২০২২ 
  5. Sabira Manir। "Foreign plays in Bangla, Abdus Selim speaks of his passion"দ্য ডেইলি স্টার। সংগ্রহের তারিখ ২ জানুয়ারি ২০২২