ক্রিস ট্রিমেন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
(Chris Tremain (cricketer) থেকে পুনর্নির্দেশিত)
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
ক্রিস ট্রিমেন
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামক্রিস্টোফার পিটার ট্রিমেন
জন্ম (1991-08-10) ১০ আগস্ট ১৯৯১ (বয়স ২৯)
ডাব্বো, নিউ সাউথ ওয়েলস, অস্ট্রেলিয়া
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনডানহাতি মিডিয়াম-ফাস্ট
ভূমিকাবোলার
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
ওডিআই অভিষেক
(ক্যাপ ২১৬)
২ অক্টোবর ২০১৬ বনাম দক্ষিণ আফ্রিকা
শেষ ওডিআই১২ অক্টোবর ২০১৬ বনাম দক্ষিণ আফ্রিকা
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছরদল
২০১২ - ২০১৪নিউ সাউথ ওয়েলস (দল নং ২৬)
২০১২ - ২০১৫সিডনি থান্ডার (দল নং ৩৮)
২০১৪ - বর্তমানভিক্টোরিয়া (দল নং ৯৯)
২০১৫ - ২০১৯মেলবোর্ন রেনেগেডস (দল নং ১৪)
২০১৯ - বর্তমানব্রিসবেন হিট (দল নং ১৪)
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা ওডিআই এফসি এলএ টি২০
ম্যাচ সংখ্যা ৩২ ১৪ ২৮
রানের সংখ্যা ২৩ ৪৫৮ ৯৩ ৭০
ব্যাটিং গড় ২৩.০০ ১৪.৩১ ১৮.৬০ ১৪.০০
১০০/৫০ ০/০ ১/০ ০/০ ০/০
সর্বোচ্চ রান ২৩* ১১১ ২৬* ৩৭*
বল করেছে ২৪০ ৫,৪৭৬ ৭৫৬ ৬২৬
উইকেট ১১৪ ২২ ২৫
বোলিং গড় ৩৬.৪২ ২৪.৯২ ৩০.১৮ ৩৩.৫২
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট
সেরা বোলিং ৩/৬৪ ৫/৫২ ৫/২৫ ৩/১৯
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ১/– ৪/– ৩/– ৯/–
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো.কম, ১ জানুয়ারি, ২০১৯

ক্রিস্টোফার পিটার ট্রিমেন (ইংরেজি: Chris Tremain; জন্ম: ১০ আগস্ট, ১৯৯১) নিউ সাউথ ওয়েলসের ডাব্বো এলাকায় জন্মগ্রহণকারী অস্ট্রেলীয় আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার। অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য তিনি। ২০১৬ সাল থেকে অস্ট্রেলিয়ার পক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করে আসছেন।

ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর অস্ট্রেলীয় ক্রিকেটে মেলবোর্ন রেনেগেডস, নিউ সাউথ ওয়েলস, সিডনি থান্ডার ও ভিক্টোরিয়া দলের প্রতিনিধিত্ব করেন। দলে তিনি মূলতঃ ডানহাতি মিডিয়াম-ফাস্ট বোলার হিসেবে খেলছেন। এছাড়াও, ডানহাতে নিচেরসারিতে ব্যাটিং করে থাকেন ক্রিস ট্রিমেন

প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট[সম্পাদনা]

২০১২ সাল থেকে ক্রিস ট্রিমেনের প্রথম-শ্রেণীর খেলোয়াড়ী জীবন চলমান রয়েছে। শেফিল্ড শিল্ডে ভিক্টোরিয়া ও বিগ ব্যাশ লীগে মেলবোর্ন রেনেগেডস দলে খেলছেন তিনি।[১] ফেব্রুয়ারি, ২০১২ সালে নিউ সাউথ ওয়েলসের সদস্যরূপে অভিষেক ঘটে তার। ব্লুজের পক্ষে পাঁচটি শিল্ডের খেলায় ও দুইটি লিস্ট এ খেলায় অংশ নিয়েছিলেন। নিউ সাউথ ওয়েলসের দীর্ঘদেহী ফাস্ট বোলার ক্রিস ট্রিমেন তার খেলোয়াড়ী জীবনের শুরুতে বেশ কম সুযোগ পান।

ফলশ্রুতিতে, সীমান্তবর্তী দক্ষিণ অঞ্চলে চলে যান। ২০১৪ সালে ভিক্টোরিয়ার পথে ধাবিত হন। প্রথম মৌসুমেই ভিক্টোরিয়ার পক্ষে শেফিল্ড শিল্ডে অংশ নিয়ে ১৬ উইকেট পান। পরের গ্রীষ্মে ২১.০৫ গড়ে ৩৬ উইকেট নিয়ে দলের সর্বোচ্চ উইকেটশিকারী হন। এ পর্যায়ে দলকে উপর্যুপরী দ্বিতীয় শিল্ডের শিরোপা জয়ে ভূমিকা রাখেন।

২০১৬ সালে অস্ট্রেলিয়া এ দলের সদস্য হন। মাত্র চারটি একদিনের খেলায় অংশগ্রহণের পরপরই চারদলীয় একদিনের এ সিরিজে অংশ নেন। উপর্যুপরী দুইবার পাঁচ উইকেট লাভ করেন তিনি। এরফলে, খুব শীঘ্রই অস্ট্রেলিয়ার ওডিআই দলে ডাক পড়ে তার।

শেফিল্ড শিল্ডের পরবর্তী দুই মৌসুমেও আধিপত্য বিস্তারে তৎপরতা দেখান। ২০১৭-১৮ মৌসুমে ৫১ উইকেট পান। ওয়েস্টার্ন অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে খেলায় ১০ উইকেট পান। ঐ মৌসুমের শীতকালে ইংল্যান্ড গমনের সুযোগ আসে। কিন্তু, সফরের পূর্বে অনুশীলনীতে শারীরিক সক্ষমতার মানদণ্ড পূরণ না করায় বাদ পড়েন। ভারতে অস্ট্রেলিয়া এ দলের সফরে বেশ ভালো বোলিং করেন। তাসত্ত্বেও, সংযুক্ত আরব আমিরাতে পাকিস্তানের বিপক্ষে তাকে দলে নেয়া হয়নি।

ভিক্টোরিয়ার সদস্যরূপে ঘরোয়া ক্রিকেটে তৃতীয় শিরোপায় অংশ নেন। মেলবোর্ন রেনেগেডসকেও শিরোপা এনে দেন। ২০১৯ সালে এ দলের সদস্য হিসেবে ইংল্যান্ডে বেশ ভালো খেলা উপহার দেন।

স্বর্ণালী সময়[সম্পাদনা]

মার্চ, ২০১৭ সালে প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে নিজস্ব প্রথম সেঞ্চুরির সন্ধান পান। ২০১৬-১৭ মৌসুমে শেফিল্ড শিল্ডের খেলায় ওয়েস্টার্ন অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে তিনি এ কৃতিত্ব অর্জন করেন।[২] মার্চ, ২০১৮ সালে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া কর্তৃপক্ষ ক্রিস ট্রিমেনকে তাদের বর্ষসেরা শেফিল্ড শিল্ড দলে অন্তর্ভূক্ত করে।[৩] ২০১৭-১৮ মৌসুমের শেফিল্ড শিল্ড প্রতিযোগিতায় দশ খেলায় অংশ নিয়ে ৫১ উইকেট লাভের মাধ্যমে সর্বোচ্চ উইকেটশিকারীতে পরিণত হন।[৪] ঐ মৌসুম শেষে ক্রিকেট ভিক্টোরিয়া কর্তৃপক্ষ তাকে মৌসুমের সেরা শেফিল্ড শিল্ড খেলোয়াড় হিসেবে নামাঙ্কিত করে। এরফলে তিনি বিল লরি পদক লাভ করেন।[৫]

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট[সম্পাদনা]

২০২০ পর্যন্ত চারটিমাত্র ওডিআইয়ে অংশগ্রহণ করেছেন ক্রিস ট্রিমেন। ২ অক্টোবর, ২০১৬ তারিখে জোহেন্সবার্গে স্বাগতিক দক্ষিণ আফ্রিকা দলের বিপক্ষে একদিনের আন্তর্জাতিকে অভিষেক ঘটে তার। ১২ অক্টোবর, ২০১৬ তারিখে কেপ টাউনে একই দলের বিপক্ষে সর্বশেষ ওডিআইয়ে অংশ নেন তিনি। এখনো কোন টেস্টে অংশগ্রহণের সুযোগ হয়নি তার।

সেপ্টেম্বর, ২০১৬ সালে অস্ট্রেলিয়ার ওডিআই দলে তাকে অন্তর্ভূক্ত করা হয়। ২০১৬-১৭ মৌসুমে অস্ট্রেলিয়া দলের সদস্যরূপে দক্ষিণ আফ্রিকা গমন করেন। ঐ সফরে তিনি চারটি ওডিআইয়ে অংশ নিতে পেরেছিলেন।[৬] ২ অক্টোবর, ২০১৬ তারিখে জোহেন্সবার্গে স্বাগতিক দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ওডিআই অভিষেক পর্ব সম্পন্ন হয় ক্রিস ট্রিমেনের।[৭]

নভেম্বর, ২০১৮ সালে সফরকারী ভারত দলের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজে অংশগ্রহণের জন্যে তাকে দলে অন্তর্ভূক্ত করা হয়।[৮] কিন্তু কোন টেস্টে তাকে খেলানো হয়নি।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Chris Tremain"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ১৯ ডিসেম্বর ২০১৪ 
  2. "Tremain's maiden hundred fires Victoria into lead"ESPNcricinfo। ESPN Sports Media। ৯ মার্চ ২০১৭। সংগ্রহের তারিখ ৯ মার্চ ২০১৭ 
  3. "Our Sheffield Shield team of the year"Cricket Australia। সংগ্রহের তারিখ ১৮ মার্চ ২০১৮ 
  4. "Sheffield Shield, 2017/18: Most Wickets"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২৭ মার্চ ২০১৮ 
  5. "Tremain crowned Victoria's best"Sydney Morning Herald। সংগ্রহের তারিখ ২৯ মার্চ ২০১৮ 
  6. "Australia pick three uncapped quicks for SA ODIs"ESPNcricinfo। ESPN Sports Media। ৫ সেপ্টেম্বর ২০১৬। সংগ্রহের তারিখ ৫ সেপ্টেম্বর ২০১৬ 
  7. "Australia tour of South Africa, 2nd ODI: South Africa v Australia at Johannesburg, Oct 2, 2016"ESPNcricinfo। ESPN Sports Media। ২ অক্টোবর ২০১৬। সংগ্রহের তারিখ ২ অক্টোবর ২০১৬ 
  8. "Marcus Harris vaults into Test squad as Matt Renshaw ignored"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২২ নভেম্বর ২০১৮ 

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]