সেনাপতি জেলা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
সেনাপতি জেলা
মণিপুরের জেলা
মণিপুরে সেনাপতির অবস্থান
মণিপুরে সেনাপতির অবস্থান
দেশভারত
রাজ্যমণিপুর
সদরদপ্তরসেনাপতি
সরকার
 • লোকসভা কেন্দ্রআউটার মণিপুর
 • বিধানসভা আসন৬ খন
আয়তন
 • মোট৩,২৭১ বর্গকিমি (১,২৬৩ বর্গমাইল)
জনসংখ্যা (2011)
 • মোট৪,৭৯,১৪৮
 • জনঘনত্ব১৫০/বর্গকিমি (৩৮০/বর্গমাইল)
জনতাত্ত্বিক
 • সাক্ষরতা৭৪.১৩%
 • লিঙ্গানুপাত৯৫৯
যানবাহন নিবন্ধনMN03[১]
প্রধান মহাসড়কNH-39
ওয়েবসাইটদাপ্তরিক ওয়েবসাইট

সেনাপতি জেলা (Pron:/ˌseɪnəˈpʌti/) উত্তর-পূর্ব ভারত-এর মণিপুর রাজ্যের একটি জেলা৷

ভৌগোলিক অবস্থান[সম্পাদনা]

সেনাপতি জেলা ৯৩.২৯° ও ৯৪.১৫° পূর্ব দ্রাঘিমাংশ ও ২৪.৩৭° ও ২৫.৩৭° উত্তর অক্ষাংশে অবস্থিত৷ জেলাটির দক্ষিণে কংপকপি জেলা, পূর্বে উখরুল জেলা, পশ্চিমে তামেংলং জেলা ও উত্তরে নাগাল্যান্ডের কোহিমাফেক জেলা অবস্থিত৷ এই জেলা সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে অনেক উচ্চে অবস্থিত। জেলাটির উষ্ণতা সর্বনিম্ন ৩.৪° সেলসিয়াস থেকে সর্বোচ্চ ৩৪.১° সেলসিয়াস হতে পারে৷

প্রশাসন[সম্পাদনা]

সেনাপতি মণিপুর রাজ্যের চতুর্থ বৃহৎ জেলা৷ এই জেলা উপায়ুক্ত (Deputy Commissioner)র অধীনে পরিচালিত হয়৷

সেনাপতি জেলাটি সাতটি মহকুমায় বিভক্ত:[২]

মহকুমা সদর শহর
মাও-মারাম তাডুবি
পাওমাতা পাওমাতা
পুরুল পুরুল
উইলং উইলং
চিলিভাই-ফাইবুং ফাইবুং
সং সং সং সং
লাইরৌচিং লাইরৌচিং

অর্থনীতি[সম্পাদনা]

কৃষি[সম্পাদনা]

IMS C.P.Arcade ভবন থেকে দেখতে পাওয়া সেনাপতি জেলার ৩৬০ ডিগ্রী দৃশ্য

সেনাপতি জেলার ৬৬.৪৩% ভূমি অরণ্য ও ২০% কৃষিভূমি৷ এই জেলায় উৎপাদন করা মূল শস্যগুলি হল ধান, গোমধান, আলু, বাঁধাকপি ও মাষজাতীয় শস্য৷ জেলাটির অধিকাংশ লোকই কৃষক৷

সেনাপতি, মণিপুর
নতুন কারং

জনসংখ্যা[সম্পাদনা]

সেনাপতি জেলার ধর্মসমূহ
ধর্ম শতকরা
খ্রীস্টান ধর্ম‎
  
৮৯.০৮%
হিন্দু ধর্ম‎
  
৯.১৫%
তথ্য নাই
  
০.৬৩%
বৌদ্ধ ধর্ম‎
  
০.৫০%
ইসলাম ধর্ম‎
  
০.৩৪%
অন্য
  
০.২৬%
শিখ ধর্ম‎
  
০.০৩%
জৈন ধর্ম‎
  
০.০১%

২০১১ সালের জনগণনা অনুসারে সেনাপতি জেলার মোট জনসংখ্যা ৪,৭৯,১৪৮ জন৷[৩] ভারতের মোট ৬৪০ টি জেলার মধ্যে জনসংখ্যার দিক থেকে এই জেলার স্থান ৫৬৫৷[৩] জেলাটির জনবসতির ঘনত্ব প্রতি বর্গ কিলোমিটারে ১০৯ জন৷[৩] ২০০১-২০১১ দশকে জেলাটির জনসংখ্যা বৃদ্ধির হার ২৫.১৬% [৩] সেনাপতি জেলার প্রতি ১০০০ জন পুরুষের বিপরীতে মহিলার সংখ্যা ৯৩৯ জন[৩] ও সাক্ষরতার হার ৭৫%৷[৩]

সেনাপতি জেলার অধিবাসীরা মূলত মাও নাগা, মারাম, পউমেই, থাংগাল, জেমেই, লিয়াংমেই, রংমেই (কাবুই), তাংকুল, মেইতেই, থাদউ, নেপালী, ভাইফেই, চোথে, চিরু, মারিং ইত্যাদি উপজাতির লোক৷

ভাষা[সম্পাদনা]

এই জেলায় প্রচলিত মূল ভাষাসমূহ হল:

  • মাও ভাষা
  • পওমাই ভাষা
  • রংমেই ভাষা
  • জেমি ভাষা
  • লিয়াংলাদ
    • জেমি ভাষা
    • মারাম ভাষা
    • খোইরাও ভাষা
    • জিমি ভাষা
    • ইনপুই ভাষা
  • আঙ্গামী পশ্চুরী ভাষা
    • চোকরি ভাষা

সংস্কৃতি[সম্পাদনা]

উৎসব[সম্পাদনা]

সেনাপতি জেলায় পালন করা প্রধান উৎসবসমূহ হল:

  • চাগা গী:এই উৎসব ৩০ অক্টোবরের দিন লিয়াংমাই উপজাতির লোকরা পালন করে৷
  • থৌনি: এই উৎসব পওমাই নাগা উপজাতির লোকরা ৫ জানুয়ারির দিন পালন করে৷
  • লাওনি: এই উৎসব পওমাই নাগাদের কৃষির সঙ্গে জড়িত উৎসব৷ সাধারণত জুলাই মাসের শেষদিকে এই উৎসব পালন করা হয়৷
  • চিথুনি: এই উৎসব ডিসেম্বর মাসে মাও নাগা রা ছয় দিনব্যাপী উদযাপন করে৷
  • সালেনি: এই উৎসব কৃষির সঙ্গে জড়িত৷ জুলাই মাসে ধান রোয়ার সময় মাও নাগারা এই উৎসব উদযাপন করে৷
  • পোংঘি: মারাম নাগা লোকরা জুলাই মাসে ধান রোয়ার সময় সাতদিন ধরে এই উৎসব পালন করে৷
  • কাংঘি: এই উৎসব মারাম নাগারা ডিসেম্বর মাসে সাতদিন পর্যন্ত উদযাপন করে৷ পরম্পরাগত মল্লযুদ্ধ এই উৎসবের এক অন্যতম অঙ্গ৷

পর্যটন[সম্পাদনা]

খ্যাতাওবি
  • কওব্রু পর্বত : এই পর্বত মণিপুরের সর্বোচ্চ উচ্চতার পর্বত৷ এই পর্বত মেইটেই লোকদের জনবিশ্বাসে আরাধ্য দেবতা "কোউব্রু" র উপাসনার স্থল৷ এই পর্বতে অনেক সংখ্যক গুহা আছে৷
  • কওব্রু লাইখা : কওব্রু লাইখা মণিপুরের একটি বিখ্যাত শিব মন্দির৷ এই মন্দিরটি ইম্ফল নদীর পাড়ে অবস্থিত৷ শিবরাত্রির দিন এই মন্দিরে অসংখ্য লোকের সমাগম হয়৷
  • কংপকপি: সেনাপতি জেলার দ্বিতীয় বৃহৎ শহর৷ মূল অধিবাসী থাদও কুকী উপজাতিয় লোকগণ৷
  • মাও দ্বার: মণিপুর-নাগাল্যান্ড সীমান্তে অবস্থিত এক পাহাড়িয়া স্থান৷

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "সংরক্ষণাগারভুক্ত অনুলিপি"। ২০ ডিসেম্বর ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৯ ডিসেম্বর ২০১৯ 
  2. Office of the Registrar General of India
  3. "District Census 2011"। Census2011.co.in। ২০১১। সংগ্রহের তারিখ ২০১১-০৯-৩০ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]