উখরুল জেলা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
উখরুল জেলা
তাংখুল জেলা
মণিপুরের জেলা
মণিপুরে উখরুলের অবস্থান
মণিপুরে উখরুলের অবস্থান
দেশভারত
রাজ্যমণিপুর
সদরদপ্তরউখরুল
তহশিলউখরুল, লাংছং-মাইফাই, চিংগাই, জেছামি
সরকার
 • লোকসভা কেন্দ্রআউটার মণিপুর
আয়তন
 • মোট৪৫৪৪ কিমি (১৭৫৪ বর্গমাইল)
জনসংখ্যা (২০১১)
 • মোট১,৮৩,১১৫[১]
জনতাত্ত্বিক
 • সাক্ষরতা৮১.৮৭%
 • লিঙ্গানুপাত১০০০ / ৯৪৮
যানবাহন নিবন্ধনMN
স্থানাঙ্ক২৫°০৭′০০″ উত্তর ৯৪°২২′০০″ পূর্ব / ২৫.১১৬৬৭° উত্তর ৯৪.৩৬৬৬৭° পূর্ব / 25.11667; 94.36667স্থানাঙ্ক: ২৫°০৭′০০″ উত্তর ৯৪°২২′০০″ পূর্ব / ২৫.১১৬৬৭° উত্তর ৯৪.৩৬৬৬৭° পূর্ব / 25.11667; 94.36667
ওয়েবসাইটদাপ্তরিক ওয়েবসাইট

উখরুল (Ukhrul, Pron:/ˈuːkˌɹəl or ˈuːkˌɹʊl/) উত্তর-পূর্ব ভারতের মণিপুর রাজ্যের একটি অন্যতম জেলা। এই জেলাটি মণিপুরের রাজধানী ইম্ফল থেকে ৮৪ কিলোমিটার উত্তর-পূর্ব দিকে অবস্থিত।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

১৯১৯ সালে ব্রিটিশ শাসনের সময় উখরুল জেলাকে এক মহকুমা হিসাবে রাখা হয়েছিল। ১৯৬৯ সালে ভারত সরকার এই জেলাকে 'মণিপুর পূর্ব' জেলা নাম দিয়ে পূর্ণাঙ্গ জেলার মর্যাদা দেয়। ভাষাতত্ত্বের দিক থেকে উখরুলের মূল অধিবাসী তাংখুল নাগারা চীনা-তিব্বতীয় গোষ্ঠীর তিব্বতীয়-বর্মা বিভাগের অন্তর্ভুক্ত। এই সূত্রই তাদের ঐতিহাসিকভাবে উত্তরের চীন এবং তিব্বতীয় মূলের বলে ইংগিত দেয়। তাংখুলদের অন্যতম প্রাচীন মূল চীন জিজিয়াং অঞ্চলের হুয়াংহো এবং য়াংজে নদীর উপত্যকা বলে জানা যায়। জীবন-নির্বাহের সহজ পথের সন্ধানে তাঁরা বিভিন্ন শহরে অভিবাসন করে। এর একটা শাখা এসে দক্ষিণে মায়ানমার যায়। তাংখুলকে ধরে অন্যান্য নাগা জনজাতি মায়ানমার থেকে এসে মণিপুর, নাগাল্যান্ড, অসম এবং অরুণাচল প্রদেশে বসতি স্থাপন করে।

ভৌগোলিক অবস্থান[সম্পাদনা]

উখরুল জেলার অন্তর্গত হুইচু গাঁও
শিরুই লিলি

উখরুল জেলার সদর শহর উখরুল। এই শহরের মোট অধিবাসী ৭৫,০০০ বলে জানা যায়। উখরুল জেলায় অবস্থিত শিরুই কাছং পর্বতে পাওয়া শিরুই লিলি (লিলিয়ান ম্যাকলিনি শিলি), এবং খাংখুই মাংসোর গুহা জেলাটির অন্যতম আকর্ষণ।

প্রশাসন[সম্পাদনা]

উখরুল জেলার মহকুমাসমূহ হচ্ছে:

  • উখরুল
  • লাংছং-মাইফাই
  • চিংগাই
  • জেছামি

যাতায়াত[সম্পাদনা]

জেলাটির সদর শহর উখরুল ১৫০ নং জাতীয় সড়ক ইম্ফলের সাথে সংযুক্ত। এই সড়কই জেছামির মধ্য দিয়ে উখরুলকে কোহিমার সাথে সংযুক্ত করেছে।

জনসংখ্যা[সম্পাদনা]

উখরুল জেলার ধর্মসমূহ
ধর্ম শতকরা
খ্রীষ্টান ধর্ম‎
  
৯৪.৬৩%
হিন্দু ধর্ম‎
  
৪.১০%
ইসলাম ধর্ম‎
  
০.৬১%
বৌদ্ধ ধর্ম‎
  
০.৩৫%
তথ্য নাই
  
০.২০%
শিখ ধর্ম‎
  
০.০৬%
জৈন ধর্ম‎
  
০.০৪%
অন্য
  
০.০২%

২০১১ সালের লোকগণনা অনুসারে উখরুল জেলার জনসংখ্যা ১,৮৩,১১৫ জন।[২] জনসংখ্যার দিক থেকে ভারতের মোট ৬৪০টি জেলার ভিতর এই জেলার স্থান ৫৯৩তম। এই জেলার জনবসতির ঘনত্ব প্রতি বর্গ কিলোমিটারে ৪০ জন।[২] ২০০১-২০১১ দশকে জেলাটির মোট জনসংখ্যা বৃদ্ধির হার ছিল ৩০.০৭%[২] উখরুলের প্রতি ১০০০ জন পুরুষের বিপরীতে মহিলার সংখ্যা ৯৪৮ জন এবং সাক্ষরতার হার ৮১.৮৭%।[২] উখরুলের সংখ্যাগরিষ্ঠ লোক তাংখুল জনজাতির।

ভাষা[সম্পাদনা]

উখরুল জেলাত ব্যবহৃত মূল ভাষাসমূহ হচ্ছে:

  • তাংখুল ভাষা
  • চরবুং ভাষা
  • পশ্চুরি ভাষা
  • তারাও ভাষা

সংস্কৃতি[সম্পাদনা]

উখরুল জেলায় তাংখুলরা বিভিন্ন উৎসব পালন করে। এর ভিতর উল্লেখযোগ্য হচ্ছে বীজ বোনার সময় পালন করা লুইরা উৎসব, ক্ষেতের কাজ থেকে ফসল ফলনের সময় পালন করা মাংখাপ উৎসব, মৃতকে সম্মান জানিয়ে উদযাপন করা থিশম উৎসব এবং ফসল কাটার পর উদযাপন করা থারিও উৎসব।

শিক্ষা[সম্পাদনা]

১৮৯৬ সালে খ্রীষ্টান মিশনারী রেভারেন্ড উইলিয়াম পেটিগ্রিউ উখরুল জেলার প্রথম বিদ্যালয় স্থাপন করেছিলেন। বর্তমান জনসংখ্যার ৯০% শিক্ষিত লোক উখরুল নগর ইম্ফলের পর মণিপুরের শিক্ষা দীক্ষার ক্ষেত্রে অন্যতম অগ্রণী নগর। এই নগরের উল্লেখযোগ্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসমূহ হল সেক্রেড হার্ট উচ্চতর মাধ্যমিক বিদ্যালয়, এলিস খ্রীষ্টিয়ান উচ্চতর মাধ্যমিক বিদ্যালয়, লিটল এঞ্জেল বিদ্যালয়, ব্লেসো মন্টেশ্বরী বিদ্যালয়, পাটকাই একাডেমী ইত্যাদি।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Ukhrul District". OurVillageIndia.com.
  2. "District Census 2011"। Census2011.co.in। ২০১১। সংগ্রহের তারিখ ২০১১-০৯-৩০ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]