সিনান পাশা মসজিদ (ইস্তাম্বুল)

স্থানাঙ্ক: ৪১°০২′৩২″ উত্তর ২৯°০০′২২″ পূর্ব / ৪১.০৪২৩৪৩° উত্তর ২৯.০০৬২৪৫° পূর্ব / 41.042343; 29.006245
উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সিনান পাশা মসজিদ
Sinan Paşa Camii
İstanbul 5153.jpg
সিনান পাশা মসজিদ
ধর্ম
অন্তর্ভুক্তিইসলাম
জেলাবেসিকটাস
প্রদেশইস্তাম্বুল
অবস্থান
অবস্থানইস্তাম্বুল, তুরস্ক
দেশতুরস্ক
সিনান পাশা মসজিদ (ইস্তাম্বুল) ইস্তাম্বুল-এ অবস্থিত
সিনান পাশা মসজিদ (ইস্তাম্বুল)
ইস্তাম্বুলে মসজিদটির অবস্থান
ভৌগোলিক স্থানাঙ্ক৪১°০২′৩২″ উত্তর ২৯°০০′২২″ পূর্ব / ৪১.০৪২৩৪৩° উত্তর ২৯.০০৬২৪৫° পূর্ব / 41.042343; 29.006245
স্থাপত্য
স্থপতিমিমার সিনান
ধরনমসজিদ
স্থাপত্য শৈলীউসমানীয় স্থাপত্য
ভূমি খনন১৫৫৪
সম্পূর্ণ হয়১৫৫৫-৫৬
নির্দিষ্টকরণ
গম্বুজের ব্যাস (বাহিরে)১২.৬ মি (৪১ ফু)
মিনারসমূহ
উপাদানসমূহটালির পালিশ স্তর ও ইট

সিনান পাশা মসজিদ (তুর্কী: Sinan Paşa Camii) তুরস্কের ইস্তাম্বুলের ঘনবসতিপূর্ণ বেসিকটাস জেলায় অবস্থিত একটি উসমানীয় মসজিদ। নৌসেনাপতি সিনান পাশার জন্য উসমানীয় স্থপতি মিমার সিনান মসজিদটি তৈরি করেন। বারবারোসা হাইরেদ্দীন পাশার কবর রাস্তার পরেই অবস্থিত।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

রুস্তম পাশার ছোট ভাই উসমানীয় নৌসেনাপতি সিনান পাশার স্মরণে মসজিদটি নির্মাণ করা হয়েছে। রাজকীয় স্থপতি মিমার সিনান মসজিদটির নকশা করেন। সিনান পাশা ১৫৫৪ সালে মারা যান এবং তার মৃত্যুর পরে মসজিদটির কাজ শুরু হয়। মসজিদের খিলানযুক্ত প্রবেশপথের উপরে সোনার আরবী ভিত্তি শিলালিপিতে ১৫৫৫ সালের নভেম্বর/ডিসেম্বরে মসজিদের কাজ সমাপ্তির সময় উল্লেখ করা আছে। উঠোনের সাদা পাথরের গোলাকার ঝর্ণার চারপাশে খোদাই করা তুর্কি শিলালিপিতে ১৫৫৫-৫৬ সময়কাল লিপিবদ্ধ করা আছে।[১]

স্থাপত্য[সম্পাদনা]

মসজিদটির তিনদিকে মাদ্রাসা দ্বারা বেষ্টন করা আছে। ছাদের ভারবহনে ছোট কলামগুলি আছে এবং শ্রেণিকক্ষের অভাব আছে। উঠোনের মাঝখানে একটি আয়তকার পানীয় জলের ঝর্ণা রয়েছে। মসজিদটি টালির বিকল্প স্তর ও ইটের দ্বারা নির্মিত। মসজিদের উত্তর দিকটিতে প্রথমে দুইটি বারান্দা ছিল ১৭৪৯ সালে পাঁচটি গম্বুজ বিশিষ্ট ভিতরের বারান্দাটি নামাজঘরের অন্তর্ভুক্ত করা হয়। ১২.৬ মিটার (৪১ ফুট) গম্বুজটি দুটি মুক্ত-দণ্ডায়মান ষড়ভুজীয় স্তম্ভসহ ছয়টি খিলানকে অবলম্বনে গঠিত। মূল আঁকা চিত্রণটি আর টিকে নেই। সাধারণ মিনবারটি সাদা পাথরে তৈরি।[২] স্নানঘরটি মূল ভবনের অংশ ছিল যা ১৯৫৭ সালে ভেঙে ফেলা হয়।[১]

১৪৩৭-১৪৪৮ সালে নির্মিত এডির্নের পূর্ববর্তী উচ সেরেফেলি মসজিদের সাথে সিনান পাশা মসজিদের নকশাকে তুলনা করা যায়। উভয় মসজিদে একটি গম্বুজ দুটি মুক্ত-দণ্ডায়মান স্তম্ভসহ ছয়টি খিলানের উপরে অবস্থিত।[১][৩]

চিত্রশালা[সম্পাদনা]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

  • মিমার সিনানের নকশায় জামে মসজিদের তালিকা
  • ইস্তানবুলের মসজিদের তালিকা

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Necipoğlu 2005
  2. Necipoğlu 2005, পৃ. 420-421।
  3. Goodwin 2003

গ্রন্থপঞ্জি[সম্পাদনা]

  • গুডউইন, গডফ্রে (২০০৩)। এ হিস্ট্রি অফ অটোমান আর্কিটেকচার। টেমস এবং হাডসন। আইএসবিএন 978-0-500-27429-3 
  • নিচিপোলহ, গুলরু (২০০৫)। দে এজ অফ সিনানঃ আর্কিটেকচারাল কালচার ইন দি অটোমান ইমপেয়ার। রেকশন বুকস। আইএসবিএন 978-1-86189-253-9 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]