বিষয়বস্তুতে চলুন

মাধবী মুখোপাধ্যায়

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
মাধবী মুখোপাধ্যায়
১৯৬৪ সালের সত্যজিৎ রায় পরিচালিত চলচ্চিত্র ‘চারুলতা’-তে চারুলতা দাসী চরিত্রের অভিনয়ে মাধবী মুখোপাধ্যায়
জন্ম
মাধুরী মুখোপাধ্যায়

(১৯৪২-০২-১০)১০ ফেব্রুয়ারি ১৯৪২
অন্যান্য নামমাধবী চক্রবর্তী, মাধবী মুখোপাধ্যায়
উল্লেখযোগ্য কর্ম
চারুলতা
দাম্পত্য সঙ্গীনির্মলকুমার চক্রবর্তী
সন্তান২ কন্যা (রিমি ও ঝুমি)

মাধবী মুখোপাধ্যায় (জন্ম: ১০ ফেব্রুয়ারি, ১৯৪২) খ্যাতনামা ভারতীয় বাঙালি অভিনেত্রী। তিনি বাংলা চলচ্চিত্র জগতে অন্যতম সেরা কিছু ছবিতে অভিনয় করেছেন।

মাধবী কলকাতায় জন্মগ্রহণ করেছিলেন। তার প্রথম চলচ্চিত্র অভিনয় ছিল শিশুশিল্পী হিসাবে ১৯৫০ সালে কাঁকনতলা লাইট রেলওয়ে ছবিতে। মাধবীর আসল নাম ছিল মাধুরী। মায়ের নাম লীলা মুখোপাধ্যায়।[১] ১৯৫৬ খ্রিষ্টাব্দে তপন সিংহের টনসিল ছবিতে তিনি প্রথম মুখ্য ভূমিকায় অভিনয় করেন। এরপর ১৯৬০ সালে মৃণাল সেনের বাইশে শ্রাবণ ছবিতে অভিনয় করেন। এই ছবির প্রযোজক বিজয় চট্টোপাধ্যায় তার নতুন নামকরণ করেন মাধবী। এরপর তিনি আরেকজন বিখ্যাত পরিচালক ঋত্বিক ঘটকের সুবর্ণরেখা ছবিতে অভিনয় করেন।

এছাড়াও তিনি সত্যজিৎ রায়ের পরিচালনায় ১৯৬৩ সালে মহানগর ছবিতে অভিনয় করেন। এটা ছিল নারী চরিত্র প্রধান চলচ্চিত্র। এই ছবিতে আরতির ভূমিকায় তার অভিনয় যথেষ্ট সাড়া ফেলেছিল। এরপর তিনি ১৯৬৪ সালে সত্যজিৎ রায়ের পরিচালনায় রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের নষ্টনীড় অবলম্বনে চারুলতা চলচ্চিত্রে অভিনয় করে যথেষ্ট প্রশংসিত হয়েছিলেন। ১৯৬৫ সালে সত্যজিৎ রায়ের পরিচালনায় কাপুরুষ ছবিতে অভিনয় করেন।

মাধবী বাংলা চলচ্চিত্রে নায়িকা এবং পার্শ্বচরিত্রে বহু ছবিতে অভিনয় করেছিলেন। তিনি মঞ্চেও অভিনয় করেছিলেন। আত্মজা নামক একটি চলচ্চিত্র পরিচালনাও করেছিলেন।

চলচ্চিত্র এবং মঞ্চ ছাড়াও টেলিভিশনের অনেক সিরিয়ালে তিনি অভিনয় করেন। সত্যজিৎ রায়, ঋত্বিক ঘটক,মৃণাল সেন তিন বিখ্যাত পরিচালকের ছবিতেই অভিনয় করেছেন মাধবী। উত্তম কুমারের সঙ্গে জুটি বেঁধে 'ছদ্মবেশী' 'শঙ্খবেলা' ইত্যাদি কমার্শিয়াল ছবিও উপহার দিয়েছেন তিনি।৩

ব্যক্তিগত জীবন[সম্পাদনা]

বাংলা চলচ্চিত্রের অভিনেতা নির্মল কুমার মাধবীর স্বামী। তাদের দুই কন্যা সন্তান আছে। কিন্তু তাদের মধ্যকার বৈবাহিক সম্পর্ক বিচ্ছেদে গড়িয়েছে। বলা হয়ে থাকে যে, প্রবাদপ্রতিম চলচ্চিত্র নির্মাতা সত্যজিৎ রায়ের সাথে তার গভীর ভালোবাসার সম্পর্ক ছিল।[২]

১৯৯৫ সালে আত্মজীবনীমূলক গ্রন্থ আমি মাধবী প্রকাশ করেন।

চলচ্চিত্রের তালিকা[সম্পাদনা]

  • কাঁকনতলা লাইট রেলওয়ে (১৯৫০)
  • টনসিল (১৯৫৬)
  • বাইশে শ্রাবণ (১৯৬০)
  • আজ কাল পরশু (১৯৬১)
  • মহানগর (১৯৬৩)
  • চারুলতা (১৯৬৪)
  • বিনসতী জননী (১৯৬৪)
  • গোধুলি বেলায়ে (১৯৬৪)
  • থানা থেকে আসছি (১৯৬৫)
  • সুবর্ণরেখা (১৯৬৫)
  • ঘুম ভাঙার গান (১৯৬৫)
  • কাপুরুষ (১৯৬৫)
  • জোড়াদিঘির চৌধুরী পরিবার (১৯৬৬)
  • স্বপ্ন নিয়ে (১৯৬৬)
  • শঙ্খবেলা (১৯৬৬)
  • অজানা শপথ (১৯৬৭)
  • খেয়া (১৯৬৭)
  • ছোট্ট জিজ্ঞাসা (১৯৬৭)
  • গড় নাসিমপুর (১৯৬৮)
  • অদ্বিতীয়া (১৯৬৮)
  • দুরন্ত চড়াই (১৯৬৯)
  • সমান্তরাল (১৯৭০)
  • ছদ্মবেশী (১৯৭১)
  • কলকাতা ৭১ (১৯৭১)
  • জীবন রহস্য (১৯৭২)
  • বিরাজ বৌ (১৯৭২)
  • ছিন্নপত্র (১৯৭২)
  • স্ত্রীর পত্র (১৯৭২)
  • বন পলাশীর পদাবলী (১৯৭৩)
  • বিন্দুর ছেলে (১৯৭৩)
  • ফুল সজ্জা (১৯৭৪)
  • অগ্নীশ্বর (১৯৭৫)
  • নতুন সূর্য (১৯৭৫)
  • গণদেবতা (১৯৭৯)
  • বাঞ্ছারামের বাগান (১৯৮০)
  • সাহেব (১৯৮১)
  • মনিকচাঁদ (১৯৮১)
  • সুবর্ণলতা (১৯৮১)
  • প্রফুল্ল (১৯৮২)
  • মাটির স্বর্গ (১৯৮২)
  • চোখ (১৯৮৩)
  • ছোট মা (১৯৮৩)
  • সমাপ্তি (১৯৮৩)
  • যোগ বিয়োগ (১৯৮৪)
  • পুতুলঘর (১৯৮৫)
  • ভালোবাসা ভালোবাসা (১৯৮৫)
  • অনুরাগের ছোঁয়া (১৯৮৬)
  • উত্তর লিপি (১৯৮৬)
  • প্রতিকার (১৯৮৭)
  • হীরের শিকল (১৯৮৮)
  • একটি জীবন (১৯৮৮)
  • অঞ্জলী (১৯৮৮)
  • অঘটন আজও ঘটে (১৯৮৯)
  • চাঁদনীর (১৯৮৯)
  • কড়ি দিয়ে কিনলাম (১৯৮৯)
  • অগ্নি তৃষ্ণা (১৯৮৯)
  • অন্তরের ভালোবাসা (১৯৯১)
  • দান প্রতিদান (১৯৯২)
  • মন মানে না (১৯৯৩)
  • পৃথিবীর শেষ স্টেশন (১৯৯৩)
  • অতিক্রম (১৯৯৫)
  • রঙিন বসন্ত (১৯৯৫)
  • উৎসব (২০০০)
  • মায়ের আদর (২০০২)
  • হিং টিং ছট (২০১০)
  • বাকিটা ব্যক্তিগত (২০১৩)
  • কুসুমিতার গপ্পো (২০১৮)
  • বরুণবাবুর বন্ধু (২০১৯)
  • আবেশ (২০২১)

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

৩. বিশেষ সংখ্যা, আনন্দলোক, ডিসেম্বর ২০১৩ (আনন্দবাজার পত্রিকা প্রকাশন) শতবর্ষে ভারতীয় সিনেমা পৃ: ১৫৮

আরও পড়ুন[সম্পাদনা]

  • Mukherjee, Madhabi. My Life, My Love: An Autobiography. Palo Alto: The Stanford Theatre Foundation, 1999.

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]