ভ্রুকুটেশ্বর শিবমন্দির

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
ভ্রুকেটেশ্বর শিবমন্দির
ধর্ম
অন্তর্ভুক্তিহিন্দুধর্ম
শ্বরশিব
ভুবনেশ্বরী(সংগী)
অবস্থান
অবস্থানভুবনেশ্বর
রাজ্যওড়িশা
দেশভারত
ভ্রুকুটেশ্বর শিবমন্দির ওড়িশা-এ অবস্থিত
ভ্রুকুটেশ্বর শিবমন্দির
ওড়িশা রাজ্যে অবস্থান
ভৌগোলিক স্থানাঙ্ক২০°১৪′১৮″ উত্তর ৮৫°৫০′০১″ পূর্ব / ২০.২৩৮৩৩° উত্তর ৮৫.৮৩৩৬১° পূর্ব / 20.23833; 85.83361স্থানাঙ্ক: ২০°১৪′১৮″ উত্তর ৮৫°৫০′০১″ পূর্ব / ২০.২৩৮৩৩° উত্তর ৮৫.৮৩৩৬১° পূর্ব / 20.23833; 85.83361
স্থাপত্য
ধরনকলিঙ্গ স্থাপত্যশৈলী
সৃষ্টিকারীযযাতি কেশরী
সম্পূর্ণ হয়১৩ শতক

ভ্রকুকেটেশ্বর শিব মন্দির ভারতের ওড়িশা রাজ্যের ভুবনেশ্বরের পুরাতন শহর যমেশ্বর পাটনায় অবস্থিত।[১] এটা একটি একক গঠনের দেউল ধরনের ভবন। স্থানীয় জনশ্রুতি অনুযায়ী মন্দিরটি কেশরী'দের হাতে নির্মিত হয়।

অবস্থান[সম্পাদনা]

ভ্রুকুটেশ্বর শিব মন্দির ভুবনেশ্বরের পুরাতন শহরে অবস্থিত। লিঙ্গরাজ মন্দির থেকে যমেশ্বর মন্দিরে যাওয়ার পথে বাধেইব্যাংক চকের ডান পাশে এটা পড়ে। মন্দিরটি থেকে তালেশ্বর মন্দির ৪০ মি. পূর্বে, যমেশ্বর মন্দির ৩০ মি. দক্ষিণ-পূর্বে এবং বক্রেশ্বর মন্দির ৩০ মি. পশ্চিমে অবস্থিত।

বর্ণনা[সম্পাদনা]

ভ্রকুটেশ্বর মন্দিরটি উত্তরমুখী। এটা সামনের উঠোন বা বারান্দাহীন একক গঠনের পীধা দেউল। এখানকার পূজিত দেবতা হচ্ছে চক্রীয় যোনিপীঠের উপর শিবলিঙ্গ

মন্দিরটি বর্তমানে সরকারের অধীনে রয়েছে। পূর্ব থেকেই এটা আবাসিক মন্দির তাই স্থানীয় জনগণ সৌধটির দেখাশোনা করে থাকে। ধারণা করা হয় মন্দিরটি ১৩ শতকের শেষভাগে গঙ্গা শাসকদের নির্মিত। এটা কলিঙ্গ স্থাপত্যশৈলীতে নির্মাণ করা হয়। মন্দির চত্ত্বরের দক্ষিণ, পূর্ব ও পশ্চিমে দেয়ালঘেরা এবং উত্তরাংশে একটি প্রাচীন কূয়া আছে। মন্দিরটিতে ৫৩ জন পার্শ্ব দেবতা রয়েছে।

স্থাপত্যশৈলী[সম্পাদনা]

কলিঙ্গশৈলীতে ল্যাটেরাইট দিয়ে মন্দিরটি নির্মাণ করা হয়েছে। মন্দিরটিতে একটি বর্গাকার বিমান রয়েছে যার উচ্চতা ৫.০৩ মি.। এর তিনটি ভাগ আছে। বড় অংশের উচ্চতা ২.০৩ মি. এবং গান্ধি অংশের উচ্চতা ৩.০ মি.। মস্তক অংশটি ভেঙে পড়েছে। দরজার কপাট ১.৭ মি. দৈর্ঘ্য এবং ০.৭০ মি. প্রশস্ত।

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Lesser Known Monuments of Bhubaneswar by Dr. Sadasiba Pradhan

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]