ব্যবসায় প্রশাসন ইনস্টিটিউট, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
ব্যবসায় প্রশাসন ইনস্টিটিউট
ব্যবসায় প্রশাসন ইনস্টিটিউট ভবন, ঢাকা
ধরনঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে স্বায়ত্তশাসিত ইনস্টিটিউট
স্থাপিত১৯৬৬
পরিচালকঅধ্যাপক ড. সৈয়দ ফারহাত আনোয়ার
শিক্ষায়তনিক ব্যক্তিবর্গ
৩৫
স্নাতক২৫০
স্নাতকোত্তর২০০
অবস্থান,
শিক্ষাঙ্গনশহুরে, শাহাবাগ
ওয়েবসাইটwww.iba-du.edu

ব্যবসায় প্রশাসন ইনস্টিটিউট ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্তর্ভুক্ত একটি আধা-স্বায়ত্বশাসিত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান । এটি আইবিএ নামেই সুপরিচিত ।[১]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

১৯৬৬ সালে ফোর্ড ফাউন্ডেশন ও ইন্ডিয়ানা বিশ্ববিদ্যালয়, ব্লুমিংটন, যুক্তরাষ্ট্র এর সহযোগিতায় এর যাত্রা শুরু হয়। অধ্যাপক এম. শফিউল্লাহ এই ইন্সটিটিউটের প্রতিষ্ঠাতা-ডিরেক্টর।[১] এম.বি.এ. প্রোগ্রাম চালুর মাধ্যমে এর একাডেমিক কার্যক্রম শুরু হয়। সত্তরের দশকে এম.ফিল. ও পিএইচ.ডি. প্রোগ্রাম চালু হয়। সময়ের চাহিদার সাথে সাথে ১৯৯৩ সালে বি.বি.এ. (স্নাতক) প্রোগ্রাম এর একাডেমিক কার্যক্রম শুরু হয় এবং পরবর্তীতে ২০০৭ সাল হতে এক্সিকিউটিভ এম.বি.এ. প্রোগ্রাম চালু করা হয়।[১]

প্রশাসন[সম্পাদনা]

গভর্নর বোর্ড[সম্পাদনা]

আইবিএটি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়-এর চতুর্থ সংবিধি দ্বারা পরিচালিত এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের নীতি, বিধি ও বিধিবিধানের বিস্তৃত কাঠামোর মধ্যে কাজ করে।

একাডেমিক বোর্ড[সম্পাদনা]

ইনস্টিটিউটের একাডেমিক বোর্ড একাডেমিক প্রোগ্রামগুলি পর্যালোচনা করে। আইবিএর সকল অধ্যাপক এবং সহযোগী অধ্যাপকগণ এই বোর্ডের সদস্য এবং আইবিএর পরিচালক হলেন বোর্ডের চেয়ারম্যান। অন্যান্য সদস্যরা হলেন ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদের ডিন এবং তার নিচের বিভাগগুলির চেয়ারম্যানগণ। এছাড়াও একাডেমিক এবং ব্যবসায়ী সম্প্রদায়ের মনোনীত সদস্যদের অন্তর্ভুক্ত করার বিধান রয়েছে।

সমন্বয় ও উন্নয়ন (সিএন্ডডি) কমিটি[সম্পাদনা]

সমন্বয় ও উন্নয়ন কমিটি এই ইনস্টিটিউটের মোট শীর্ষ শিক্ষকের এক তৃতীয়াংশ নিয়ে গঠিত। কমিটি অন্যান্য বিষয়ের সাথে একাডেমিক এবং গবেষণা কার্যক্রমের ক্ষেত্রে ইনস্টিটিউটের আরও উন্নয়নের পরিকল্পনা এবং শিক্ষক নিয়োগ ও প্রশিক্ষণের জন্য দায়িত্বপ্রাপ্ত।

একাডেমিক কমিটি[সম্পাদনা]

একাডেমিক কমিটি ইনস্টিটিউটের সকল শিক্ষকের সমন্বয়ে গঠিত। কমিটি ইনস্টিটিউটের একাডেমিক কর্মসূচি পরিচালনার দিকনির্দেশনা সরবরাহ করে। যাতে রয়েছে শিক্ষার্থীদের ভর্তি, পাঠ্যক্রম, পরীক্ষা, শিক্ষাদান এবং সহ-পাঠ্যক্রমিক ক্রিয়াকলাপ ইত্যাদির বিষয়ে আলোচনা।

একাডেমিক প্রোগ্রাম[সম্পাদনা]

  • বিবিএ প্রোগ্রাম
  • এমবিএ প্রোগ্রাম
  • পিএইচডি প্রোগ্রাম
  • এমফিল প্রোগ্রাম
  • এক্সিকিউটিভ এমবিএ
  • ব্যবসায় প্রশাসনের ডক্টর(ডিবিএ)

পরিচালন উন্নয়ন কর্মসূচি (এমডিপি)[সম্পাদনা]

ইনস্টিটিউটের পরিচালন উন্নয়ন কর্মসূচি বা ম্যানেজমেন্ট ডেভলপমেন্ট প্রোগ্রামটি একক পরিচালক এবং সংস্থাগুলিকে তাদের পরিচালনার উন্নয়নের প্রচেষ্টা বৃদ্ধিতে সহায়তা করার জন্য কাজ করে। প্রোগ্রামের আওতায় সরবরাহিত পরিষেবাগুলির মধ্যে রয়েছে ব্যবস্থাপনা প্রশিক্ষণ, সেমিনার, কর্মশালা এবং কার্যনির্বাহী ফোরাম।   নিম্নলিখিত কোর্সগুলি নিয়মিত এমডিপি দ্বারা প্রদান হয়:

  • এসিবিএ: ব্যবসায় প্রশাসনে উন্নত শংসাপত্র (আইবিএ, ঢাবি এবং আমদিসা, একটি সার্ক স্বীকৃত সংস্থা কর্তৃক ছয় মাসের দীর্ঘ যৌথ প্রোগ্রাম)
  • এএফএনএ: অ-হিসাবরক্ষকদের জন্য অ্যাকাউন্টিং
  • সিবিএসআই: প্রতিযোগিতামূলক ব্যবসায়িক কৌশল এবং উদ্ভাবন
  • এফএনএম: অ-অর্থ পরিচালকদের জন্য অর্থ
  • এইচআরএমসি: মানবসম্পদ পরিচালনা পারদর্শিতা
  • এলসিএমসি: পরিচালনাসংক্রান্ত যোগাযোগে নেতৃত্বের সার্টিফিকেট
  • এমসিএফএম: পরিচালকদের জন্য বিপণন পারদর্শিতা
  • এমএসএসপি: পরিষেবা পেশাদারদের জন্য বিপণন দক্ষতা
  • আরএমসি: সম্পর্ক বিপণন পারদর্শিতা

এমডিপি নিম্নলিখিত বিষয়গুলিতে দু-দিনের সংক্ষিপ্ত কোর্সও প্রদান করে:

  • ক্রেডিট রিস্ক ম্যানেজমেন্ট (সিআরএম)
  • ইন্টিগ্রেটেড মার্কেটিং কমিউনিকেশন (আইএমসি)
  • নেতৃত্ব ও পরিবর্তন পরিচালনা
  • বিক্রয় ও বিক্রয়বিধি উত্কর্ষ
  • সাপ্লাই চেইন ম্যানেজমেন্ট

ক্যাম্পাস[সম্পাদনা]

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসের মধ্যে আইবিএর নিজস্ব প্রাঙ্গণ রয়েছে। চারতলা মূল ভবনে ৬৫,০০০ বর্গফুট (৬,০০০ মি) স্থান রয়েছে। বিভিন্ন চাহিদা মেটাতে ইনস্টিটিউট কিছু বিশেষ কেন্দ্র তৈরি করেছে যেমন ম্যানেজমেন্ট রিসার্চ অ্যান্ড পাবলিকেশনস সেন্টার (সিএমআরপি), আইবিএ কম্পিউটার সেন্টার (আইবিএসিসি), উন্নয়ন ও নীতি গবেষণা কেন্দ্র (ডিপিআরসি), মহিলা শিক্ষা কেন্দ্র (সিডব্লিউএস), উদ্যোক্তা ও ক্ষুদ্র ব্যবসা বিকাশ কেন্দ্র (সিইএসবিডি), আইবিএ কেস ডেভেলপমেন্ট সেন্টার (আইসিডিসি), জনসংখ্যা ব্যবস্থাপনা এবং গবেষণা কেন্দ্র (সিপিএমআর), এবং আইবিএ পরিবেশ উন্নয়ন কেন্দ্র (আইইডিসি)। আইবিএ অনুষদের সদস্যদের মধ্য থেকে নির্বাচিত চেয়ারপারসন প্রতিটি কেন্দ্রের নেতৃত্বে থাকেন।

থাকার ব্যবস্থা[সম্পাদনা]

ঢাকার বাইরে থেকে আগত আইবিএ শিক্ষার্থীরা ক্যাম্পাসের বাইরে গ্রিন রোডে অবস্থিত ছাত্রাবাসে থাকতে পারেন। আইবিএ অনুষদের সদস্যদের দ্বারা নিযুক্ত একজন তত্ত্বাবধায়ক ছাত্রাবাসের কার্যক্রম পরিচালনা করে। আইবিএ অধ্যাপকদের থাকার স্থল একই স্থানের আইবিএ ছাত্রাবাস সংলগ্ন।

উল্লেখযোগ্য শিক্ষক[সম্পাদনা]

উল্লেখযোগ্য প্রাক্তন শিক্ষার্থী[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Institutes and Schools"IBA, Dhaka University 
  2. "Introducing the Directors"Summit Power। ২৪ এপ্রিল ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৯ এপ্রিল ২০১৬ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]