বিষয়বস্তুতে চলুন

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শোক দিবস

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
জগন্নাথ হলের ছাদ ধসে নিহতদের স্মরণে নির্মিত স্মৃতিসৌধ

১৯৮৫ সালের ১৫ই অক্টোবর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জগন্নাথ হলের একটি হলরুমের ছাদ ধসে পড়ে ৪০ জন মারা গিয়েছিলে, যে ঘটনার স্মরণে ১৫ অক্টোবর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে শোক দিবস পালন করা হয়।[১]

বিবরণ[সম্পাদনা]

যেই ভবনটির ছাদ ধসে দুর্ঘটনাটি ঘটে সেটিকে ১৯৮৫ সাল পর্যন্ত'পরিষদ ভবন' বা 'অ্যাসেম্বলি হল' বলা হতো। ১০০ বছরেরও বেশি পুরনো অডিটোরিয়ামটি তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তান প্রদেশের পরিষদ ভবন বা সংসদ ভবন ছিল, যা অ্যাসেম্বলি হল বা পরিষদ ভবন হিসেবে পরিচিত ছিল। পরবর্তীতে নতুন প্রাদেশিক ভবন নির্মিত হলে ১৯৬৩ সালে ভবনটি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কাছে হস্তান্তর করা হয়। ১৯৮৫ সালের ১৫ই অক্টোবরের দুর্ঘটনার আগ পর্যন্ত এটি জগন্নাথ হলের টেলিভিশন কক্ষ হিসেবে ব্যবহৃত হতো।

ঘটনার রাতে তুমুল বৃষ্টির মধ্যে পুরনো ভবনটির ছাদ ধসে পড়ে। সে সময় বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট নিম্নচাপ জনিত কারণে রাজধানী ঢাকা মহানগরীর ওপর দিয়ে ঘণ্টায় ১০০ কিলোমিটার বেগে দমকা হাওয়া বয়ে যাচ্ছিল। ভবনটির ছাদ বৃষ্টির পানিতে নরম হয়ে যাওয়ায় আগে থেকেই বৃষ্টির পানি পড়তো। সেই কারণে ভবনে মেরামতের কাজ চলছিল। সে রাতে বিটিভিতে প্রচারিত নাটক 'শুকতারা' দেখার জন্য অনেকে সেখানে গিয়েছিলেন। নাটক শুরু হওয়ার মিনিট পাঁচেকের মধ্যেই দুর্ঘটনাটি ঘটে। সেসময় রুমের ভেতরে আনুমানিক দেড় থেকে দুইশো' মানুষ ছিল বলে ধারণা হয়। তবে পরের দিনে প্রকাশিত পত্র-পত্রিকা এবং ওই ঘটনা নিয়ে বিভিন্ন লেখকের লেখায় উপস্থিত মানুষের সংখ্যা ৩০০-৪০০ ছিল বলেও উল্লেখ করা হয়। তখনকার সংবাদপত্র থেকে জানা যায় যে ঘটনায় তাৎক্ষণিকভাবে ৩৪ জন মারা যায়। পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আরও ৫ জনের মৃত্যু ঘটে। নিহতদের মধ্যে ২৬ জন ছিলেন ছাত্র, ১৩ জন ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মচারী ও অতিথি। এছাড়া আহত হন শতাধিক।[১]

এই দুর্ঘটনায় শোক প্রকাশ করেন তৎকালীন রাষ্ট্রপতি, বিভিন্ন রাজনৈতিক নেতাসহ বিদেশি কূটনীতিকরা শোক জানান। ৩ দিন জাতীয় শোক ঘোষণা করে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত রেখে ১৬ অক্টোবর সারাদেশে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়। এ ঘটনার পর থেকেই দিনটি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শোক দিবস হিসেবে পালিত হয়ে আসছে।[২]

স্মৃতি অক্টোবর[সম্পাদনা]

এই ঘটনায় নিহতদের স্মৃতি রক্ষার্থে পরবর্তী সময়ে সেখানে নির্মিত হয় ‘অক্টোবর স্মৃতি ভবন’। তাদের স্মরণে অক্টোবর ভবনের নিচতলায় একটি ছোট জাদুঘর আছে। সেদিনের ব্যবহৃত টিভি রাখা আছে জাদুঘরে। মৃত্যুবরণ করা বেশ কয়েকজনের ছবিও আছে সেখানে। এ ছাড়া ভবনটির সামনে নিহতদের স্মরণে তাদের নাম সংবলিত 'স্মৃতি অক্টোবর' একটি নামফলক স্থাপন করা হয়েছে।[২]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "'অক্টোবর ট্রাজেডি' - ৩৫ বছর আগে যে রাতে ধসে পড়ে জগন্নাথ হলের ভবন"BBC News বাংলা। সংগ্রহের তারিখ ২০২২-১০-২১ 
  2. "ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শোক দিবস"দৈনিক কালের কণ্ঠ। ২০১৮-১০-১৪। সংগ্রহের তারিখ ২০২২-১০-২১  অজানা প্যারামিটার |1= উপেক্ষা করা হয়েছে (সাহায্য)