বিজ্ঞানের দর্শন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

বিজ্ঞানের দর্শন (ইংরেজি: Philosophy of science) বলতে বৈজ্ঞানিক অনুসন্ধান এবং বৈজ্ঞানিক প্রক্রিয়ার উপাদানগুলোকে দর্শনের দৃষ্টিভঙ্গিতে অধ্যয়ন করা বোঝায়। বিজ্ঞানের অনুশীলন এবং লক্ষ্যগুলোর অধিবিদ্যা, জ্ঞানতত্ত্ব এবং নীতিবিদ্যা সংশ্লিষ্ট বিশ্লেষণ জ্ঞানের এই শাখায় প্রাধান্য পায়।[১] সাধারণভাবে বিজ্ঞান নিয়ে আলোচনার পাশাপাশি অনেক দার্শনিক আবার বিজ্ঞানের নির্দিষ্ট শাখাগুলোকেও দর্শনের দৃষ্টিতে বিশ্লেষণ করার প্রয়োজনীয়তা অনুভব করেন যে কারণে পদার্থবিজ্ঞানের দর্শন, জীববিজ্ঞানের দর্শন ইত্যাদি ক্ষেত্রগুলোর জন্ম হয়েছে।

বিজ্ঞানের দার্শনিক আলোচনা বিষয়ে স্বয়ং বিজ্ঞানীদের অবস্থান বেশ দ্বিধাবিভক্ত। একদিকে অনেক বিজ্ঞানী যেমন বিজ্ঞানের দর্শনে অবদান রেখেছেন, অন্যদিকে অনেকে আবার এর সমালোচনা করেছেন এবং বিজ্ঞানের জন্য এর কার্যকারিতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন। যেমন বিখ্যাত মার্কিন পদার্থবিজ্ঞানী রিচার্ড ফাইনম্যান বলেছিলেন, "পাখিদের জন্য পক্ষিবিদ্যার উপযোগীতা যতটুকু বিজ্ঞানের জন্য বিজ্ঞানের দর্শনের উপযোগীতা তার থেকে বেশি নয়"। কিছু দার্শনিক আবার তার এই উক্তির সমালোচনা করেছেন। যেমন অধিবিদ্যা ও জ্ঞানতত্ত্ব নিয়ে গবেষণায় রত মার্কিন দার্শনিক জোনাথন শাফার ফাইনম্যানের বক্তব্য প্রসঙ্গে বলেছেন, পক্ষিবিদ্যা পাখিদের জন্য সত্যিই খুব উপকারী হতো যদি পাখিদের সেই বিদ্যা আয়ত্ত করার ক্ষমতা থাকতো।[২]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Philosophy of science, এনসাইক্লোপিডিয়া ব্রিটানিকা
  2. Craig Callender and Jonathan Schaffer, ফিলোসফি টিভি

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]