ফিজি জাতীয় ফুটবল দল

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
ফিজি
দলের লোগো
ডাকনামবুলা বয়েজ
অ্যাসোসিয়েশনফিজি ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন
কনফেডারেশনওএফসি (ওশেনিয়া)
প্রধান কোচফ্লেমিং সেরিতস্লেভ
অধিনায়করয় কৃষ্ণ
সর্বাধিক ম্যাচএসালা মাসি (৪৯)
শীর্ষ গোলদাতাএসালা মাসি (৩২)
মাঠএএনজেড জাতীয় স্টেডিয়াম
ফিফা কোডFIJ
ওয়েবসাইটwww.fijifootball.com.fj
প্রথম জার্সি
দ্বিতীয় জার্সি
ফিফা র‌্যাঙ্কিং
বর্তমান ১৬৩ অপরিবর্তিত (২৭ মে ২০২১)[১]
সর্বোচ্চ৯৪ (জুলাই ১৯৯৪)
সর্বনিম্ন১৯৯ (জুলাই ২০১৫)
এলো র‌্যাঙ্কিং
বর্তমান ১৫১ হ্রাস(২ জুন ২০২১)[২]
সর্বোচ্চ৭৭ (সেপ্টেম্বর ১৯৯১)
সর্বনিম্ন১৬২ (জুন ২০১৭)
প্রথম আন্তর্জাতিক খেলা
 ফিজি ৪–৬ নিউজিল্যান্ড 
(সুভা, ফিজি; ৭ অক্টোবর ১৯৫১)
বৃহত্তম জয়
 ফিজি ২৪–০ কিরিবাস 
(সুভা, ফিজি; ২৪ আগস্ট ১৯৭৯)
বৃহত্তম পরাজয়
 নিউজিল্যান্ড ১৩–০ ফিজি 
(অকল্যান্ড, নিউজিল্যান্ড; ১৬ আগস্ট ১৯৮১)
ওএফসি নেশন্স কাপ
অংশগ্রহণ৮ (১৯৭৩-এ প্রথম)
সেরা সাফল্যতৃতীয় স্থান (১৯৯৮, ২০০৮

ফিজি জাতীয় ফুটবল দল (ইংরেজি: Fiji national football team) হচ্ছে আন্তর্জাতিক ফুটবলে ফিজির প্রতিনিধিত্বকারী পুরুষদের জাতীয় দল, যার সকল কার্যক্রম ফিজির ফুটবলের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা ফিজি ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হয়।[৩] এই দলটি ১৯৬৪ সাল হতে ফুটবলের সর্বোচ্চ সংস্থা ফিফার এবং ১৯৬৬ সাল হতে তাদের আঞ্চলিক সংস্থা ওশেনিয়া ফুটবল কনফেডারেশনের সদস্য হিসেবে রয়েছে। ১৯৫১ সালের ৭ই অক্টোবর তারিখে, ফিজি প্রথমবারের মতো আন্তর্জাতিক খেলায় অংশগ্রহণ করেছে; ফিজির সুভায় অনুষ্ঠিত উক্ত ম্যাচে ফিজি নিউজিল্যান্ডের কাছে ৬–৪ গোলের ব্যবধানে পরাজিত হয়েছে।

১৫,০০০ ধারণক্ষমতাবিশিষ্ট এএনজেড জাতীয় স্টেডিয়ামে বুলা বয়েজ নামে পরিচিত এই দলটি তাদের সকল হোম ম্যাচ আয়োজন করে থাকে। এই দলের প্রধান কার্যালয় ফিজির রাজধানী সুভায় অবস্থিত। বর্তমানে এই দলের ম্যানেজারের দায়িত্ব পালন করছেন ফ্লেমিং সেরিতস্লেভ এবং অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করছেন এটিকে মোহনবাগানের আক্রমণভাগের খেলোয়াড় রয় কৃষ্ণ

ফিজি এপর্যন্ত একবারও ফিফা বিশ্বকাপে অংশগ্রহণ করতে পারেনি। অন্যদিকে, ওএফসি নেশন্স কাপে ফিজি এপর্যন্ত ৮ বার অংশগ্রহণ করেছে, যার মধ্যে সেরা সাফল্য হচ্ছে ১৯৯৮ এবং ২০০৮ ওএফসি নেশন্স কাপের তৃতীয় স্থান অর্জন করা।

রয় কৃষ্ণ, সিমিওনে তামানিসাও, মালাকাই কাইনিহেওয়ে, এসালা মাসি এবং ওসেয়া ভাকাতালেসাওয়ের মতো খেলোয়াড়গণ ফিজির জার্সি গায়ে মাঠ কাঁপিয়েছেন।

র‌্যাঙ্কিং[সম্পাদনা]

ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিংয়ে, ১৯৯৪ সালের জুলাই মাসে প্রকাশিত র‌্যাঙ্কিংয়ে ফিজি তাদের ইতিহাসে সর্বপ্রথম সর্বোচ্চ অবস্থান (৯৪তম) অর্জন করে এবং ২০১৫ সালের জুলাই মাসে প্রকাশিত র‌্যাঙ্কিংয়ে তারা ১৯৯তম স্থান অধিকার করে, যা তাদের ইতিহাসে সর্বনিম্ন। অন্যদিকে, বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিংয়ে ফিজির সর্বোচ্চ অবস্থান হচ্ছে ৭৭তম (যা তারা ১৯৯১ সালে অর্জন করেছিল) এবং সর্বনিম্ন অবস্থান হচ্ছে ১৬২। নিম্নে বর্তমানে ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং এবং বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিংয়ে অবস্থান উল্লেখ করা হলো:

ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং
২৭ মে ২০২১ অনুযায়ী ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং[১]
অবস্থান পরিবর্তন দল পয়েন্ট
১৬১ অপরিবর্তিত  তাহিতি ১০১৪.২৭
১৬২ অপরিবর্তিত  বার্বাডোস ১০১০.৯৫
১৬৩ অপরিবর্তিত  ফিজি ৯৯৬.২৭
১৬৪ অপরিবর্তিত  ভানুয়াতু ৯৯৫.৬২
১৬৫ অপরিবর্তিত  গায়ানা ৯৯০.৬৫
বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিং
২ জুন ২০২১ অনুযায়ী বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিং[২]
অবস্থান পরিবর্তন দল পয়েন্ট
১৫০ বৃদ্ধি ১৩  কোমোরোস ১২৩৩
১৫১ হ্রাস  ফিজি ১২৩০
১৫২ বৃদ্ধি  সেন্ট কিট্‌স ও নেভিস ১২২৫
১৫২ হ্রাস  মায়োত ১২২৫

প্রতিযোগিতামূলক তথ্য[সম্পাদনা]

ফিফা বিশ্বকাপ[সম্পাদনা]

ফিফা বিশ্বকাপ বাছাইপর্ব
সাল পর্ব অবস্থান ম্যাচ জয় ড্র হার স্বগো বিগো ম্যাচ জয় ড্র হার স্বগো বিগো
ফিজি কলোনির অংশ হিসেবে ফিজি কলোনির অংশ হিসেবে
উরুগুয়ে ১৯৩০ অংশগ্রহণ করেনি অংশগ্রহণ করেনি
ইতালি ১৯৩৪
ফ্রান্স ১৯৩৮
ব্রাজিল ১৯৫০
সুইজারল্যান্ড ১৯৫৪
সুইডেন ১৯৫৮
চিলি ১৯৬২
ইংল্যান্ড ১৯৬৬
মেক্সিকো ১৯৭০
ফিজি ডোমিনিয়নের অংশ হিসেবে ফিজি ডোমিনিয়নের অংশ হিসেবে
পশ্চিম জার্মানি ১৯৭৪ অংশগ্রহণ করেনি অংশগ্রহণ করেনি
আর্জেন্টিনা ১৯৭৮
স্পেন ১৯৮২ উত্তীর্ণ হয়নি ৩৫
মেক্সিকো ১৯৮৬ অংশগ্রহণ করেনি অংশগ্রহণ করেনি
ফিজির অংশ হিসেবে ফিজির অংশ হিসেবে
ইতালি ১৯৯০ উত্তীর্ণ হয়নি
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ১৯৯৪
ফ্রান্স ১৯৯৮
দক্ষিণ কোরিয়া জাপান ২০০২ ২৭
জার্মানি ২০০৬ ২২ ১৫
দক্ষিণ আফ্রিকা ২০১০ ১০ ৩৩ ১২
ব্রাজিল ২০১৪
রাশিয়া ২০১৮ ১৪
কাতার ২০২২ অনির্ধারিত অনির্ধারিত
মোট ০/২১ ৫১ ১৯ ১০ ২২ ১০৮ ৯৯

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "ফিফা/কোকা-কোলা বিশ্ব র‍্যাঙ্কিং"ফিফা। ২৭ মে ২০২১। সংগ্রহের তারিখ ২৭ মে ২০২১ 
  2. গত এক বছরে এলো রেটিং পরিবর্তন "বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিং"eloratings.net। ২ জুন ২০২১। সংগ্রহের তারিখ ২ জুন ২০২১ 
  3. "Fiji Football Association"fifa.com। সংগ্রহের তারিখ ১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]