পুষ্টি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পুষ্টি সম্পর্কিত তথ্য

পুষ্টি হল পরিবেশ থেকে প্রয়োজনীয় খাদ্যবস্তু আহরন করে খাদ্যবস্তুকে পরিপাক ও শোষণ করা এবং আত্তীকরন দ্বারা দেহের শক্তির চাহিদা পূরণ , রোগ প্রতিরোধ , বৃদ্ধি ও ক্ষয়পূরণ করা ৷ অর্থ্যাৎ দেহ সুস্থ ও সবল রাখার প্রক্রিয়াকে পুষ্টি বলে৷ পুষ্টির ইংরেজি শব্দ (Nutrition)। অপরদিকে খাদ্যের যেসব জৈব অথবা অজৈব উপাদান জীবের জীবনীশক্তির যোগান দেয় , তাদের একসঙ্গে পরিপেষক বা নিউট্রিয়েন্টস (Nutrients) বলে ৷ যেমন :— গ্লুকোজ , খনিজ লবণ , ভিটামিন ইত্যাদি ৷

উদ্ভিদের পুষ্টি[সম্পাদনা]

উদ্ভিদ মাটি ও পরিবেশ থেকে তার স্বাভাবিক বৃদ্ধি , শরীরবৃত্তীয় কাজ ও প্রজননের জন্য যেসব পুষ্টি উপাদান গ্রহণ করে তাই উদ্ভিদ পুষ্টি৷ উদ্ভিদের পুষ্টির উৎস বায়ু মণ্ডল, জলমাটি৷ এর ধরন দুটি,

  • ম্যাক্রোউপাদান :- ৯টি ৷ যথা :- N , K,P,Ca,Mg,C,H,O & S
  • মাইক্রোউপাদান :- ৭টি ৷ যথা :- Zn,Mn,Fe,Mo,B,Cu & Cl

এর অভাবজনিত রোগগুলো হলোঃ ক্লোরোসিস, পাতার শীর্ষ ও কিনারা হলুদ রং ধারণ, ডাইব্যাক, পাতা বিবর্ণ হওয়া, কচি পাতায় ক্লোরোসিস, পাতা বিকৃতি হয়।

প্রাণীর পুষ্টি[সম্পাদনা]

প্রাণী বিভিন্ন উপাদান থেকে পুষ্টি পেয়ে থাকে ৷ আর এই উপাদান গুলো ৬ টি ৷ যথা:- আমিষ, শর্করা, স্নেহ পদার্থ, ভিটামিন, খনিজ লবণপানি। এর অভাবজনিত রোগগুলো হলোঃ গলগন্ড, রাতকানা, রিকেটস, রক্তশূন্যতা

আরোও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

গ্রন্থপঞ্জি[সম্পাদনা]

  • Carpenter, Kenneth J. (১৯৯৪)। Protein and Energy: A Study of Changing Ideas in Nutrition। Cambridge University Press। আইএসবিএন 0521452090 
  • Curley, S., and Mark (1990). The Natural Guide to Good Health, Lafayette, Louisiana, Supreme Publishing
  • Galdston, I. (১৯৬০)। Human Nutrition Historic and Scientific। New York: International Universities Press। 
  • Gratzer, Walter (২০০৬) [২০০৫]। Terrors of the Table: The Curious History of Nutrition। Oxford University Press। আইএসবিএন 0199205639 
  • Mahan, L.K. and Escott-Stump, S. eds. (২০০০)। Krause's Food, Nutrition, and Diet Therapy (10th সংস্করণ)। Philadelphia: W.B. Saunders Harcourt Brace। আইএসবিএন 0-7216-7904-8 
  • Thiollet, J.-P. (২০০১)। Vitamines & minéraux। Paris: Anagramme। 
  • Walter C. Willett and Meir J. Stampfer (জানুয়ারি ২০০৩)। "Rebuilding the Food Pyramid"। Scientific American 288 (1): 64–71। ডিওআই:10.1038/scientificamerican0103-64পিএমআইডি 12506426 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]