সবিরাম উপবাস

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

সবিরাম উপবাস (Intermittent fasting) বলতে এমন এক রনের খাদ্যগ্রহণ ব্যবস্থাকে বোঝানো হয় যেখানে উপবাস এবং উপবাস না করার একটি চক্র বিদ্যমান থাকে। ওজন কমানোর লক্ষ্যে ক্যালরিগ্রহণ সীমাবদ্ধ করার জন্য সবিরাম উপবাস পদ্ধতি অনুসরণ করা যায়।[১]

প্রকারভেদ[সম্পাদনা]

সবিরাম উপবাসের একটি প্রকার হচ্ছে এক দিন অন্তর উপবাস ( Alternate day fasting বা ADF)। এক্ষেত্রে ২৪ ঘণ্টার উপবাস করার পর ২৪ ঘণ্টা উপবাস বন্ধ থাকে।[২] একজন ব্যক্তি ২৩ ঘণ্টা উপবাস করে দিনে একবার খাদ্যগ্রহণ করার নিয়ম অনুসরণ করতে পারেন।[৩]

কিছু ক্ষেত্রে উপবাসে স্বল্প পরিমাণে কম ক্যালরির পানীয় গ্রহণ করা অনুমোদিত, যেমন কফি বা চা। পরিবর্তিত উপবাসে (Modified fasting) উপবাসের দিনে একেবারে না খেয়ে থাকার চেয়ে কম ক্যালরির খাদ্যগ্রহণ (যেমন স্বাভাবিকের ২০ শতাংশ) করা হয়,[২] এতে সবিরাম উপবাসের বেশিরভাগ উপকারিতাই লাভ করা যায়।

আরও সাধারণভাবে, উপবাস ও উপবাসহীন পর্যায়ের বিভিন্ন অনুপাতের উপর ভিত্তি করে বিভিন্ন প্রকারের সবিরাম উপবাস নির্ধারণ করা যায়, যেমন ৫:২ খাদ্যাভাস, যেখানে ব্যক্তি উপবাসের দিনে ৪০০-৫০০ ক্যালরি (নারী) বা ৫০০-৬০০ ক্যালরি (পুরুষ)। খাদ্যগ্রহণের দিন খাদ্যাভাস নিয়মিত হবে।[৪]

গবেষণা[সম্পাদনা]

২০১৪ সালের একটি পর্যালোচনাতে বলা হয় যে, প্রাণীদের উপরে করা গবেষণায় দেখা গেছে যে উপবাসে স্বাস্থ্যের বিভিন্ন দিক, যেমন রক্তচাপ, ইনসুলিন সংবেদনশীলতা এবং প্রদাহ ইত্যাদির উন্নয়ন হয়, সেই সাথে মানসিক চাপকে ভালভাবে সামলানোর জন্য এর মাধ্যমে কোষীয় সংবেদও (cellular response) খাপ খেয়ে যায়। এগুলো নির্দেশ করে, সবিরাম উপবাসের স্বাস্থ্যের উন্নয়ন এবং ক্রনিক রোগকে কমানোর সম্ভাবনাময়তা রয়েছে। কিন্তু মানুষকে নিয়ে করা দীর্ঘমেয়াদী গবেষণায় এরকম কোন ফলাফল পাওয়া যায় নি।

এই পর্যালোচনার উপসংহারে বলা হয় যে শিশু, বয়স্ক এবং প্রয়োজনের চেয়ে কম ওজনের ব্যক্তিদের জন্য সবিরাম উপবাস নিয়ে গবেষণা করা হয় নি। এদের জন্য সবিরাম উপবাস ক্ষতিকর হতে পারে। তারা এও প্রস্তাব করেন, তারা যদি ২৪ ঘণ্টার বেশি সময় ধরে উপবাস করতে চান, তাহলে তার কোন চিকিৎসকের তত্ত্বাবধানে থাকা উচিৎ, কারণ এতে পরিপাকতন্ত্র (gastrointestinal system) ও দৈনন্দিন ছন্দে (circadian rhythm) পরিবর্তন আসতে পারে।

এই পর্যালোচনাতে এও উপসংহার টানা হয় যে, অতিস্থূলতা ছাড়া অন্য কোন সমস্যা যেমন বুড়িয়ে যাওয়া বা অন্যান্য দীর্ঘমেয়াদী রোগাক্রান্ত অবস্থার ক্ষেত্রে স্বাস্থ্যের উপর উপবাসের তেমন কোন ইতবাচক প্রভাব নেই, যদি না এর সাথে ক্যালরিগ্রহণের মোটামুটি সীমিতকরণ এবং উদ্ভিদ-ভিত্তিক খাদ্যাভাস (যেমন ভূমধ্যসাগরীয় খাদ্যাভাস) অনুসরণ করা হয়।[৫]

২০১৪ সালে প্রকাশিত একটি বৈজ্ঞানিক গবেষণার পর্যালোচনা অনুসারে সবিরাম উপবাসের ফলে ওজন কমতে পারে, কিন্তু দৈনিক ক্যালরিগ্রহণ সীমিতকরণের মাধ্যমে সবিরাম উপবাসের চাইতেও আরও বেশি ওজন কমতে পারে।[৬]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Mager, D. E. (১ এপ্রিল ২০০৬)। "Caloric restriction and intermittent fasting alter spectral measures of heart rate and blood pressure variability in rats"। The FASEB Journal20 (6): 631–637। doi:10.1096/fj.05-5263comPMID 16581971 
  2. Varady, K. A. (২০১১)। "Intermittent versus daily calorie restriction: Which diet regimen is more effective for weight loss?"Obesity Reviews12 (7): e593–601। doi:10.1111/j.1467-789X.2011.00873.xPMID 21410865 
  3. Stote, KS; Baer, DJ; Spears, K; Paul, DR; Harris, GK; Rumpler, WV; Strycula, P; Najjar, SS; Ferrucci, L; Ingram, D. K.; Longo, D. L.; Mattson, M. P. (২০০৭)। "A controlled trial of reduced meal frequency without caloric restriction in healthy, normal-weight, middle-aged adults" (PDF)The American Journal of Clinical Nutrition85 (4): 981–8। PMID 17413096পিএমসি 2645638অবাধে প্রবেশযোগ্য 
  4. Fisher, Roxanne (১ জুন ২০১৬)। "What is the 5:2 diet?"। BBC GoodFood, Worldwide। 
  5. Mattson, MP (ফেব্রুয়ারি ৪, ২০১৪)। "Fasting: molecular mechanisms and clinical applications"Cell Metabolism19 (1932–7420): 181–92। doi:10.1016/j.cmet.2013.12.008PMID 24440038পিএমসি 3946160অবাধে প্রবেশযোগ্য 
  6. Barnosky, A. R.; Hoddy, K. K.; Unterman, T. G.; Varady, K. A. (২০১৪)। "Intermittent fasting vs daily calorie restriction for type 2 diabetes prevention: A review of human findings"। Translational Research164 (4): 302–11। doi:10.1016/j.trsl.2014.05.013PMID 24993615