জাহমার হ্যামিল্টন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
জাহমার হ্যামিল্টন
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামজাহমার নেভিল হ্যামিল্টন
জন্ম (1990-09-22) ২২ সেপ্টেম্বর ১৯৯০ (বয়স ৩১)
অ্যাঙ্গুইলিয়া
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
ভূমিকাউইকেট-রক্ষক
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
একমাত্র টেস্ট
(ক্যাপ ৩২০)
৩০ আগস্ট ২০১৯ বনাম ভারত
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছরদল
২০০৮ - বর্তমানঅ্যাঙ্গুইলিয়া
২০০৮ - বর্তমানলিওয়ার্ড আইল্যান্ডস
২০১৩অ্যান্টিগুয়া হকবিলস
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা এফসি এলএ টি২০
ম্যাচ সংখ্যা ৭৮ ৪৪ ১১
রানের সংখ্যা ৩৭০৪ ৮৯৭ ৯১
ব্যাটিং গড় ২৭.২৩ ২৩.৬০ ১৫.১৬
১০০/৫০ ৬/২০ ০/১ ০/০
সর্বোচ্চ রান ১৩০* ৭৩ ৩২
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ১৫৭/১২ ৩৩/৭ ৪/২
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো.কম, ৩০ আগস্ট, ২০১৯

জাহমার নেভিল হ্যামিল্টন (ইংরেজি: Jahmar Hamilton; জন্ম: ২২ সেপ্টেম্বর, ১৯৯০) অ্যাঙ্গুইলিয়ায় জন্মগ্রহণকারী ওয়েস্ট ইন্ডিয়ান আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার। ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য তিনি। ২০১০-এর দশকের শেষদিক থেকে ওয়েস্ট ইন্ডিজের পক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করছেন। আগস্ট, ২০১৯ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের পক্ষে তার আন্তর্জাতিক ক্রিকেট অঙ্গনে অভিষেক হয়।[১]

ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর ওয়েস্ট ইন্ডিয়ান ক্রিকেটে অ্যাঙ্গুইলিয়া, অ্যান্টিগুয়া হকসবিলস, লিওয়ার্ড আইল্যান্ডস, সাগিকর হাই পারফরম্যান্স সেন্টার, সেন্ট কিটস ও নেভিস প্যাট্রিয়টস, সেন্ট লুসিয়া জোকস দলের প্রতিনিধিত্ব করেন। দলে তিনি মূলতঃ উইকেট-রক্ষক হিসেবে খেলছেন। এছাড়াও, ডানহাতে নিচেরসারিতে ব্যাটিং করেন জাহমার হ্যামিল্টন

প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট[সম্পাদনা]

২০০৭-০৮ মৌসুমে অ্যান্টিগুয়ায় অনুষ্ঠিত স্ট্যানফোর্ড ২০/২০ টুর্নামেন্টে অ্যাঙ্গুইলিয়া ক্রিকেট দলের সদস্যরূপে গ্রেনাডার বিপক্ষে টুয়েন্টি২০ ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে তার।[১] ২০০৮ সাল থেকে জাহমার হ্যামিল্টনের প্রথম-শ্রেণীর খেলোয়াড়ী জীবন চলমান রয়েছে। ধ্রুপদীশৈলীর উইকেট-রক্ষক-ব্যাটসম্যান হিসেবে দ্বিতীয় খেলোয়াড় হিসেবে ওমরি ব্যাংকের পর ওয়েস্ট ইন্ডিজের পক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে অংশ নেয়ার সুযোগ পেয়েছেন।

১৭ বছর বয়সে ফেব্রুয়ারি, ২০০৮ সালে প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে বার্বাডোসের বিপক্ষে লিওয়ার্ড আইল্যান্ডসের সদস্যরূপে অভিষেক ঘটে।[২] চার বছর পর বার্বাডোসভিত্তিক ওয়েস্ট ইন্ডিজ হাই পারফরম্যান্স সেন্টারে এক বছর মেয়াদী প্রশিক্ষণের জন্যে মনোনীত হন। ২০১৩ সালে বর্তমানে বিলুপ্ত ঘোষিত অ্যান্টিগুয়া হকসবিলসের সদস্যরূপে ক্যারিবীয় প্রিমিয়ার লীগের উদ্বোধনী আসরে খেলার জন্যে মনোনীত হন।[৩] ঐ মৌসুমে তিনি কেবলমাত্র একটি খেলায় অংশ নিয়েছিলেন। পরবর্তী ছয় বছরে আর কোন টি২০ খেলায় অংশ নেননি তিনি।

২০১৬-১৭ মৌসুমে রিজিওন্যাল ফোর ডে কম্পিটিশনে ৪৬.২৮ গড়ে ৬৪৮ রান তুলে প্রতিযোগিতার তৃতীয় সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক ও লিওয়ার্ড আইল্যান্ডসের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকের মর্যাদাপ্রাপ্ত হন জাহমার হ্যামিল্টন। এছাড়াও, ঐ প্রতিযোগিতায় দলের একমাত্র খেলোয়াড় হিসেবে একাধিক শতরানের ইনিংস খেলেন।[৪] তবে, জাতীয় পর্যায়ে পরিচিতি লাভের জন্যে তাকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত অপেক্ষার প্রহর গুণতে হয়েছিল।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট[সম্পাদনা]

সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে একটিমাত্র টেস্টে অংশগ্রহণ করেছেন জাহমার হ্যামিল্টন। ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ তারিখে কিংস্টনে সফরকারী ভারত দলের বিপক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে তার। এটিই তার একমাত্র টেস্টে অংশগ্রহণ ছিল। এরপর আর তাকে কোন টেস্টে অংশগ্রহণ করতে দেখা যায়নি। এছাড়াও, তাকে কোন ওডিআইয়ে অংশগ্রহণ করার সুযোগ দেয়া হয়নি।

২০১৮ সালে সফররত ইংল্যান্ড লায়ন্স দলের বিপক্ষে দুইটি প্রথম-শ্রেণীর খেলায় দূর্দান্ত খেলেন। ১০০, ২৯ ও ৭৯ রানের ইনিংস খেলেছিলেন তিনি। ফলশ্রুতিতে, নিজ দেশে শ্রীলঙ্কা দলের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজে শেন ডোরিচের সাথে দুইজন উইকেট-রক্ষকের অন্যতম হন। ঐ বছরের শেষদিকে তিনি ভারত ও বাংলাদেশ গমন করেন। কিন্তু, শেন ডোরিচের উপস্থিতিতে তিনি কোন খেলায় অংশগ্রহণের সুযোগ লাভ করতে পারেননি। এক পর্যায়ে ২০১৯ সালে কিংস্টনে ডোরিচের আঘাতপ্রাপ্তি ও শাই হোপকে বাদ দেয়া হলে ভারতের বিপক্ষে তার টেস্ট অভিষেক পর্ব সম্পন্ন হয়।

মে, ২০১৮ সালে সফরকারী শ্রীলঙ্কা দলের বিপক্ষে টেস্ট খেলার জন্যে তাকে ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলের সদস্য করা হয়। তবে, তাকে কোন টেস্টে খেলানো হয়নি।[৫] আগস্ট, ২০১৮ সালে স্বাগতিক ভারতের বিপক্ষে টেস্ট খেলায় তাকে রাখা হয়। এবারও তাকে খেলানো হয়নি।[৬]

বাংলাদেশ গমন[সম্পাদনা]

নভেম্বর, ২০১৮ সালে স্বাগতিক বাংলাদেশের বিপক্ষে খেলার জন্যে তাকে আরও একবার ওয়েস্ট ইন্ডিজের টেস্ট দলে রাখা হয়।[৭] আগস্ট, ২০১৯ সালে সফররত ভারত দলের বিপক্ষে টেস্ট দলে অন্তর্ভুক্ত করা হয়। শেন ডোরিচের গোঁড়ালীর আঘাতের কারণে তাকে স্থলাভিষিক্ত করা হয়।[৮] ৩০ আগস্ট, ২০১৯ তারিখে কিংস্টনে অনুষ্ঠিত সিরিজের দ্বিতীয় টেস্ট তার টেস্ট অভিষেক পর্ব সম্পন্ন হয়।[৯]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Jahmar Hamilton"। ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ৮ মার্চ ২০১৫ 
  2. "Leeward Islands v Barbados, 2008"। ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২৭ মার্চ ২০১৫ 
  3. "Antigua Hawksbills Squad 2013"। ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২৭ মার্চ ২০১৫ 
  4. "Cricket Records | WICB Professional Cricket League Regional 4 Day Tournament, 2016/17 - Leeward Islands | Records | Batting and bowling averages | ESPN Cricinfo"Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৪-২৫ 
  5. "Devon Smith returns to West Indies Test squad after three years"। ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২৫ মে ২০১৮ 
  6. "WINDIES head to India for a full tour"Cricket West Indies। ২৯ আগস্ট ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৯ আগস্ট ২০১৮ 
  7. "Jason Holder ruled out of Bangladesh tour with shoulder injury"International Cricket Council। সংগ্রহের তারিখ ১৪ নভেম্বর ২০১৮ 
  8. "Hamilton in for Jamaica Test, Paul returns"The Antigua Observer। সংগ্রহের তারিখ ৩০ আগস্ট ২০১৯ 
  9. "2nd Test, ICC World Test Championship at Kingston, Aug 30 - Sep 3 2019"ESPN Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ৩০ আগস্ট ২০১৯ 

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]