ছত্তিশগড়ি ভাষা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
(ছত্তীসগঢ়ী ভাষা থেকে পুনর্নির্দেশিত)
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
ছত্তিশগড়ি বা ছত্রিশগড়ি ভাষা
छत्तिसगढी़, छति्सगढी़
দেশোদ্ভবভারত
অঞ্চলছত্তিশগড়, মধ্যপ্রদেশ, ঝাড়খণ্ড, ওড়িশা, মহারাষ্ট্র, অন্ধ্রপ্রদেশ
মাতৃভাষী
মুল ছত্তিশগড়ি - ১,৬২,৪৫,১৯০ ও লারিয়া - ৮৯,৮৭৬ (২০১১ জনগণনা)[১]
(কিছুক্ষেত্রে প্রমিত হিন্দিভাষী হিসাবে পরিগণিত)
ইন্দো-ইউরোপীয়
দেবনাগরী লিপি, পুরাকালে ওড়িয়া লিপি
ভাষা কোডসমূহ
আইএসও ৬৩৯-৩দুইয়ের মধ্যে এক:
hne – ছত্তিশগড়ি
sgj – সরগুজিয়া
গ্লোটোলগchha1249[২]
লিঙ্গুয়াস্ফেরা59-AAF-ta

ছত্তিশগড়ি বা ছত্রিশগড়ি (দেবনাগরী: छत्तीसगढ़ी) ভারতের মুলত ছত্তিশগড় রাজ্যে বসবাসকারী প্রায় ১.৭ কোটি লোকের মাতৃৃভাষা, যা ইন্দো-আর্য ভাষাগোষ্ঠীর অন্তর্গত একটি ভাষা৷[৩] এটি পূর্ব হিন্দি ভাষাগুলির একটি এবং মুন্ডাদ্রাবিড় ভাষাগুলির অধিক প্রাধান্যে তৈরী হওয়া একটি স্বতন্ত্র কেন্দ্রীয় ইন্দো-আর্য ভাষা৷[৪]

ছত্তিশগড় রাজ্যটি প্রাচীন ভারতের দক্ষিণ কোশল জনপদের অংশ ছিলো ফলে ছত্তীসগঢ়ী ভাষাটি দক্ষিণ কোশলি নামেও পরিচিত৷ ছত্তীসগঢ়ী ভাষাটি পার্শ্ববর্তী পাহাড়ি আদিবাসী ও জনজাতিদের মধ্যে খলতাহি নামে ও ওড়িয়াদের মধ্যে লারিয়া নামে পরাচিত ছিলো৷[৫][৬] এ ভাষাভাষীর লোক ভারতের ছত্তীসগঢ় সহ পার্শ্ববর্তী মধ্যপ্রদেশ, ওড়িশাঝাড়খণ্ড রাজ্যেও বিস্তৃত৷ ১৯২০ খ্রিষ্টাব্দ থেকে ভারতে হয়ে আসা বিভিন্ন রাজনৈতিক আন্দোলন ছত্তীসগঢ়ী ভাষা ও সংস্কৃৃতিকে অন্যদের থেকে আলাদা ও স্বয়ংসম্পুর্ণ করে তুলেছে৷ ১৫ই কার্তিক ১৪০৭ বঙ্গাব্দে (১ লা নভেম্বর ২০০০ খ্রিষ্টাব্দ) ছত্তিশগড়ি, সরগুজিয়া , গোণ্ডি প্রভৃৃতি ভাষাবহুল ১৬ টি জেলাকে পূর্বতন মধ্যপ্রদেশ রাজ্য পৃথক করে ছত্তিশগড় নাম্নী নতুন রাজ্য গঠন করা হয়৷

ভাষার রূপভেদ[সম্পাদনা]

ভারত সরকারের বিভিন্ন আগ্রাসী মনোভাবের শিকারে ছত্তীসগঢ়ী ভাষা আজ হিন্দি ভাষার উপভাষা, যদিও অন্যান্য বিভিন্ন ভাষাভিত্তিক গবেষণা নিবন্ধে এটি একটি পৃথক ভাষারূপে গণ্য৷

ভৌগোলিক সীমানার ওপর ভিত্তি করে ছত্তীসগঢ়ী ভাষাটির ৫ টি প্রধান উপভাষা পৃথক করা যায়৷

  • কেন্দ্রী ছত্তীসগঢ়ী

এটিই শুদ্ধ ও প্রমিত ছত্তীসগঢ়ী ভাষা, যা মহানদী অববাহিকা অঞ্চলে দেখতে পাওয়া যায়৷ এই উপভাষাটিতে হিন্দি ভাষার প্রভাব অধিক লক্ষ করা যায়৷ বিলাসপুর, দুর্গ, বেমেতারা, রায়পুর, রাজনন্দগাঁও, ধামতরি জেলাগুলিতে এই কথন প্রচলিত৷

  • উত্তি ছত্তীসগঢ়ী

উত্তি ছত্তীসগঢ়ী, যা লারিয়া নামেও পরিচিত, রায়গঢ়, মহাসমুন্দ, গরিয়াবন্দ, রায়পুর জেলাগুলিতে প্রচলিত৷

  • খলতাহি ছত্তীসগঢ়ী

ছত্তীসগঢ়ী ভাষার এই উপভাষাতে মারাঠি ভাষা|মারাঠি শব্দের প্রয়োগ দেখা যায়৷ মধ্যপ্রদেশের বালাঘাট জেলা সহ ছত্তীসগঢ়ের কবীরধাম, বেমেতারা জেলাতে এই কথন প্রচলিত৷

  • ভন্ডার ছত্তীসগঢ়ী

ভন্ডার ছত্তীসগঢ়ী উত্তর ছত্তীসগঢ়ের করিয়া, সুরজপুর, যশপুর, সরগুজা, বলরামপুর জেলা সহ সংলগ্ন ওড়িশাঝাড়খণ্ডে প্রচলিত৷

  • রক্ষহুঁ ছত্তীসগঢ়ী

এই উপভাষাটি মূলত বস্তার বিভাগের জেলাগুলিতে দেখা যায়৷ এইক্ষেত্রে গোণ্ডিহালবি ভাষার প্রভাব লক্ষণীয়৷

ছত্তীসগঢ়ী ভাষা দিবস[সম্পাদনা]

ছত্তীসগঢ়ী ভাষা দিবস বা ছত্তীসগঢ়ী দিবস প্রতি বছর ১১/১২ই অগ্রহায়ণ (২৮শে নভেম্বর) পালিত হয়৷ দিনটিতে সাংস্কৃতিক কর্মকান্ড ও উদযাপন রাজ্য সরকার দ্বারা পরিচালিত হয়৷

অঞ্চল[সম্পাদনা]

ছত্তীসগঢ় ও তৎসংলগ্ন রাজ্যগুলিতে ছত্তীসগঢ়ী ভাষাভাষীর সংখ্যা নিম্নরূপ -

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Statement 1: Abstract of speakers' strength of languages and mother tongues - 2011"www.censusindia.gov.in। Office of the Registrar General & Census Commissioner, India। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০৭-০৭ 
  2. হ্যামারস্ট্রোম, হারাল্ড; ফোরকেল, রবার্ট; হাস্পেলম্যাথ, মার্টিন, সম্পাদকগণ (২০১৭)। "Chhattisgarhi"গ্লোটোলগ ৩.০ (ইংরেজি ভাষায়)। জেনা, জার্মানি: মানব ইতিহাস বিজ্ঞানের জন্য ম্যাক্স প্লাংক ইনস্টিটিউট। 
  3. টেমপ্লেট:E16
    (includes Surgujia)
  4. Pathak, Dewangan, Rijuka, Somesh। "Natural Language Chhattis garhi: A Literature Survey" (PDF)। International Journal of Engineering Trends and Technology (IJETT) – Volume 1 2 N umber 2 - Jun 2014। সংগ্রহের তারিখ ২১ মার্চ ২০১৫ 
  5. Subodh Kapoor (২০০২)। The Indian Encyclopaedia: La Behmen-Maheya। Cosmo Publications। পৃষ্ঠা 4220–। আইএসবিএন 978-81-7755-271-3 
  6. Subodh Kapoor (২০০২)। The Indian Encyclopaedia: India (Central Provinces)-Indology। Cosmo Publications। পৃষ্ঠা 3432–। আইএসবিএন 978-81-7755-268-3