বীজাপুর জেলা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
বীজাপুর জেলা
ছত্তিশগড়ের জেলা
ছত্তিশগড় রাজ্যের মধ্যে বিজাপুর জেলার অবস্থান
ছত্তিশগড় রাজ্যের মধ্যে বিজাপুর জেলার অবস্থান
দেশ India
রাজ্যছত্তিশগড়
Divisionবস্তার
HeadquartersBijapur
তালুক4
আয়তন
 • মোট৬,৫৬২.৪৮ বর্গকিমি (২,৫৩৩.৭৯ বর্গমাইল)
জনসংখ্যা (২০১১)
 • মোট২,৫৫,২৩০
 • জনঘনত্ব৩৯/বর্গকিমি (১০০/বর্গমাইল)
জনমিতি
 • সাক্ষরতা41.58%
সময় অঞ্চলভারতীয় প্রমাণ সময় (ইউটিসি+05:30)
ভারতের জাতীয় সড়কজাতীয় সড়ক-১৬ (ভারত)
গড় বার্ষিক বৃষ্টিপাত1517 mm
ওয়েবসাইটbijapur.gov.in

বীজাপুর জেলা, পূর্বে বীরজাপুর নামে পরিচিত, মধ্য ভারতের ছত্তিসগড় রাজ্যের একটি প্রশাসনিক জেলা। এটি ১১ ই মে, ২০০৭ সালে নির্মিত দুটি নতুন জেলার মধ্যে একটি। ২০১১ সালের জনগণনা অনুসারে, এটি নারায়ণপুরের পরে ছত্তিশগড়ের দ্বিতীয় সর্বনিম্ন জনবহুল জেলা ( ১৮ টির মধ্যে)। ২০১১ সালের জনগণনা অনুসারে এটি ভারতের দ্বিতীয় স্বল্পতম সাক্ষরতার জেলা, যার সাক্ষরতার হার মাত্র ৪১.৫৮%। [১]

বীজাপুর জেলার বর্তমান জেলাশাসক হলেন শ্রী রিতেশ অগ্রওয়াল (আইএএস)। [২]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

বীজাপুর জেলাটি আগে দান্তেওয়াড়া জেলার অন্তর্ভুক্ত ছিল । এটি বর্তমানে নকশাল ক্রিয়াকলাপের রেড করিডোরের একটি অংশ।

ভূগোল[সম্পাদনা]

বীজাপুর জেলাটি ছত্তিশগড়ের দক্ষিণ-পশ্চিম অংশ দখল করে অবস্থিত। জেলার উত্তরে নারায়ণপুর জেলা এবং পূর্বে দান্তেওয়াড়া জেলা , দক্ষিণ-পশ্চিমে তেলেঙ্গানা রাজ্যে, পশ্চিমে মহারাষ্ট্র রাজ্য অবস্থিত। ছত্তিশগড়ের সর্বোচ্চ জলপ্রপাত নাম্বি জলধারা প্রায় ৫৪০ ফুট, বিজাপুর থেকে ৬৪ কিলোমিটার দূরে উসুরের নিকটে অবস্থিত।

জেলার অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ভৌগোলিক বৈশিষ্ট্য ইন্দ্রাবতী নদী জেলার দক্ষিণ অংশে প্রবাহিত। সবচেয়ে উঁচু পাহাড়টি হল বায়লাডিলা বা "বুলকের হাম্প"। এটি ইন্দ্রাবতী নদীর দক্ষিণে অবস্থিত এবং উত্তর-দক্ষিণের দিকে ঝুঁকছে।

এই জেলার ক্ষেত্রফল প্রায় ৬৫৫৫ বর্গকিমি। বিজাপুর শুর জেলার প্রশাসনিক সদর দফতর। [৩] জেলাতে মোট ৬৭৫টি গ্রাম রয়েছে। [৪]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Bijapur District Census 2011"। Census2011.co.in। ২০১১। সংগ্রহের তারিখ ২০১১-১০-১১ 
  2. http://bijapur.gov.in
  3. Srivastava, Dayawanti et al (ed.) (২০১০)। India 2010, A Reference Annual (PDF)। Publications Division, Ministry of Information and Broadcasting, Government of Indiaand। পৃষ্ঠা 1122। আইএসবিএন 978-81-230-1617-7। ২০১০-১২-২৯ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১১-০১-২১ 
  4. "2 new districts formed in Chhattisgarh"। এপ্রিল ২০, ২০১০।