ঝারসুগুড়া জেলা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
ঝারসুগুড়া জেলা
ଝାରସୁଗୁଡ଼ା ଜିଲ୍ଲା
ওড়িশার জেলা
ওড়িশায় ঝারসুগুড়ার অবস্থান
ওড়িশায় ঝারসুগুড়ার অবস্থান
দেশভারত
রাজ্যওড়িশা
প্রশাসনিক বিভাগউত্তর ওড়িশা বিভাগ
সদরদপ্তরঝারসুগুড়া
তহশিল
আয়তন
 • মোট২১১৪ কিমি (৮১৬ বর্গমাইল)
জনসংখ্যা (২০১১)
 • মোট৫,৭৯,৫০৫
 • জনঘনত্ব২৭০/কিমি (৭১০/বর্গমাইল)
জনতাত্ত্বিক
 • সাক্ষরতা৭৮.৮৬ শতাংশ
 • লিঙ্গানুপাত৯৫৩
গড় বার্ষিক বৃষ্টিপাত১২৯৬ মিমি
ওয়েবসাইটদাপ্তরিক ওয়েবসাইট

ঝারসুগুড়া জেলা(ওড়িয়া: ଝାରସୁଗୁଡ଼ା ଜିଲ୍ଲା, প্রতিবর্ণী. ঝারসুগুড়া জিল্লা) পূর্ব ভারতে অবস্থিত ওড়িশা রাজ্যের ৩০ টি জেলার একটি জেলা৷ ৬ই পৌষ ১৪০০ বঙ্গাব্দে(২২শে ডিসেম্বর ১৯৯৩ খ্রিষ্টাব্দে) পূর্বতন সম্বলপুর জেলাটি থেকে নতুন জেলা ঝারসুগুড়া গঠিত হয়৷ জেলাটি ওড়িশার দক্ষিণ ওড়িশা বিভাগের অন্তর্গত৷ জেলাটির জেলাসদর ঝারসুগুড়া শহরে অবস্থিত এবং ঝারসুগুড়া মহকুমা নিয়ে গঠিত৷

নামকরণ[সম্পাদনা]

পুর্বতন সম্বলপুর জেলার অন্তর্গত এই অঞ্চলটির নাম ছিলো ঝারগুডা৷ সম্বলপুরের চৌহান রাজবংশের প্রতিষ্ঠাতা বলরাম দেব ঘন জঙ্গলাচ্ছাদিত ব্যাঘ্রসংকুল অঞ্চলটিতে নগরপত্তন করেন৷ ঘন জঙ্গলের উপস্থিতির জন্য ঝারগুডা নামটি এসেছে৷[১] কালক্রমে ঝারগুডা নামটি ঝারসুগুড়া নামে পরিবর্তিত হয়েছে৷ জেলাসদরের নামে জেলাটির নাম রাখা হয়৷

ইতিহাস[সম্পাদনা]

ঐতিহাসিক আন্দোলন[সম্পাদনা]

ভূপ্রকৃৃতি[সম্পাদনা]

অর্থনীতি[সম্পাদনা]

দুর্ভাগ্যবশত এটি ভারতের অন্যতম দারিদ্রপ্রবণ জেলা।

অবস্থান[সম্পাদনা]

জেলাটির উত্তরে ওড়িশা রাজ্যের সুন্দরগড় জেলাজেলাটির উত্তর পূর্বে(ঈশান), পূর্বে, দক্ষিণ পূর্বে(অগ্নি) ও দক্ষিণে ওড়িশা রাজ্যের সম্বলপুর জেলাজেলাটির দক্ষিণ পশ্চিমে(নৈঋত) ওড়িশা রাজ্যের বারগড় জেলাজেলাটির পশ্চিমে ছত্তীসগঢ় রাজ্যের রায়গঢ় জেলাজেলাটির উত্তর পশ্চিমে(বায়ু) ওড়িশা রাজ্যের সুন্দরগড় জেলা[২]

জেলাটির আয়তন ২১১৪ বর্গ কিমি৷ রাজ্যের জেলায়তনভিত্তিক ক্রমাঙ্ক ৩০ টি জেলার মধ্যে তম৷ জেলার আয়তনের অনুপাত ওড়িশা রাজ্যের ১.৩৫%৷

ভাষা[সম্পাদনা]

ঝারসুগুড়া জেলায় প্রচলিত ভাষাসমূহের পাইচিত্র তালিকা নিম্নরূপ -

২০১১ অনুযায়ী ঝারসুগুড়া জেলার ভাষাসমূহ[৩]

  ওড়িয়া (৭০.০৪%)
  হিন্দী (১১.৪৪%)
  কিসান (৬.২৪%)
  মুন্ডারি (২.২২%)
  খারিয়া (১.৮৬%)
  বাংলা (১.২৭%)
  নাগপুরি-সাদরি (১.১১%)
  কুরুখ/ওরাওঁ (০.৬২%)
  তেলুগু (০.৫৫%)
  অন্যান্য (৩.২২%)

এই জেলাতে বসবাসকারী সিংহভাগ ওড়িয়াভাষী সম্বলপুরি/কোশলি ভাষাতে সাবলীল৷

ধর্ম[সম্পাদনা]

জনসংখ্যার উপাত্ত[সম্পাদনা]

মোট জনসংখ্যা ৫০৯৭১৬(২০০১ জনগণনা) ও ৫৭৯৫০৫(২০১১ জনগণনা)৷ রাজ্যে জনসংখ্যাভিত্তিক ক্রমাঙ্ক ৩০ টি জেলার মধ্যে ২৭তম৷ ওড়িশা রাজ্যের ১.৩৮% লোক ঝারসুগুড়া জেলাতে বাস করেন৷ জেলার জনঘনত্ব ২০০১ সালে ২৪১ ছিলো এবং ২০১১ সালে তা বৃদ্ধি পেয়ে ২৭৪ হয়েছে৷ জেলাটির ২০০১-২০১১ সালের মধ্যে জনসংখ্যা বৃৃদ্ধির হার ১৩.৬৯% , যা ১৯৯১-২০১১ সালের ১৫.২৫% বৃদ্ধির হারের থেকে কম৷ জেলাটিতে লিঙ্গানুপাত ২০১১ অনুযায়ী ৯৫৩(সমগ্র) এবং শিশু(০-৬ বৎ) লিঙ্গানুপাত ৯৪৩৷[৪]

নদনদী[সম্পাদনা]

পরিবহন ও যোগাযোগ[সম্পাদনা]

পর্যটন ও দর্শনীয় স্থান[সম্পাদনা]

ঐতিহ্য ও সংস্কৃৃতি[সম্পাদনা]

শিক্ষা[সম্পাদনা]

জেলাটির স্বাক্ষরতা হার ৭০.৫৫%(২০০১) তথা ৭৮.৮৬%(২০১১)৷ পুরুষ স্বাক্ষরতার হার ৮২.০৮%(২০০১) তথা ৮৬.৬১%(২০১১)৷ নারী স্বাক্ষরতার হার ৫৮.৩৬%(২০০১) তথা ৭০.৭৩% (২০১১)৷ জেলাটিতে শিশুর অনুপাত সমগ্র জনসংখ্যার ১১.১৮%৷[৪]

প্রশাসনিক বিভাগ[সম্পাদনা]

সীমান্ত[সম্পাদনা]

বিশিষ্ট ব্যাক্তিবর্গ[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. https://jharsuguda.nic.in/history/
  2. https://www.mapsofindia.com/maps/orissa/tehsil/jharsuguda.html
  3. http://www.censusindia.gov.in/2011census/C-16.html
  4. https://www.census2011.co.in/census/district/395-jharsuguda.html