গ্র্যান্ট প্যাটারসন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
গ্র্যান্ট প্যাটারসন
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামগ্র্যান্ট অ্যান্ড্রু প্যাটারসন
জন্ম (1960-06-09) ৯ জুন ১৯৬০ (বয়স ৬০)
সলসবারি, জিম্বাবুয়ে
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনডানহাতি অফ স্পিন
ভূমিকাব্যাটসম্যান
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
ওডিআই অভিষেক
(ক্যাপ )
৯ জুন ১৯৮৩ বনাম অস্ট্রেলিয়া
শেষ ওডিআই২৩ অক্টোবর ১৯৮৭ বনাম নিউজিল্যান্ড
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা ওডিআই এফসি এলএ
ম্যাচ সংখ্যা ১০ ৩৯ ৬৭
রানের সংখ্যা ১২৩ ১৪০৪ ১৫৭৫
ব্যাটিং গড় ১২.৩০ ২১.৯৩ ২৫.৪০
১০০/৫০ -/- -/৬ ১/৭
সর্বোচ্চ রান ২৭ ৯৩ ১২২
বল করেছে - ৯২২০ -
উইকেট - ১২৪ -
বোলিং গড় - ৩৩.৯১ -
ইনিংসে ৫ উইকেট - -
ম্যাচে ১০ উইকেট
সেরা বোলিং - ৫/৯৫ -
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং -/- ১১/– ১৪/–
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো.কম, ২১ অক্টোবর ২০১৯

গ্র্যান্ট অ্যান্ড্রু প্যাটারসন (ইংরেজি: Grant Paterson; জন্ম: ৯ জুন, ১৯৬০) সলসবারিতে জন্মগ্রহণকারী সাবেক জিম্বাবুয়ীয় আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার। জিম্বাবুয়ে ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। ১৯৮৩ থেকে ১৯৮৭ সময়কালে জিম্বাবুয়ের পক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেছেন।

ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর জিম্বাবুয়ীয় ক্রিকেটে ম্যাশোনাল্যান্ড দলের প্রতিনিধিত্ব করেন। দলে তিনি মূলতঃ ডানহাতি ব্যাটসম্যান হিসেবে খেলতেন। এছাড়াও, ডানহাতে অফ স্পিন বোলিংয়ে পারদর্শী ছিলেন গ্র্যান্ট প্যাটারসন

খেলোয়াড়ী জীবন[সম্পাদনা]

১৯৮১-৮২ মৌসুম থেকে ১৯৯৩-৯৪ মৌসুম পর্যন্ত গ্র্যান্ট প্যাটারসনের প্রথম-শ্রেণীর খেলোয়াড়ী জীবন চলমান ছিল।

সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে দশটি একদিনের আন্তর্জাতিকে অংশগ্রহণ করার সুযোগ পেয়েছিলেন গ্র্যান্ট প্যাটারসন। কোন টেস্টে অংশগ্রহণে সুযোগ পাননি। ৯ জুন, ১৯৮৩ তারিখে নটিংহামে অস্ট্রেলিয়া দলের বিপক্ষে একদিনের আন্তর্জাতিকে অভিষেক ঘটে তার। ২৩ অক্টোবর, ১৯৮৭ তারিখে কলকাতায় নিউজিল্যান্ড দলের বিপক্ষে সর্বশেষ ওডিআইয়ে অংশ নেন তিনি। সবগুলো খেলাই ক্রিকেট বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্বের ছিল। ঐ সময়ে জিম্বাবুয়ে দলের টেস্ট খেলার মর্যাদাপ্রাপ্তি ঘটেনি।

ইংল্যান্ডে অনুষ্ঠিত ১৯৮৩ সালের ক্রিকেট বিশ্বকাপের তৃতীয় আসরে জিম্বাবুয়ে দলের সদস্যরূপে অংশ নেন। ৯ জুন, ১৯৮৩ তারিখে নটিংহামে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ওডিআইয়ে প্রথমবারের মতো খেলতে নামেন। আলী শাহ, ডানকান ফ্লেচার, গ্র্যান্ট প্যাটারসন, অ্যান্ডি পাইক্রফট, ডেভিড হটন, জ্যাক হেরন, কেভিন কারেন, ইয়ান বুচার্ট, পিটার রসন, জন ট্রাইকোসভিন্স হগের সাথে একযোগে ওডিআই অভিষেক ঘটে তার।[১]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "prudential world cup, 1983: Scorecard of third ODI, Australia vs Zimababwe"। Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ জুলাই ১৩, ২০১৯ 

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]