গোলোকধাম রহস্য

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
গোলোকধাম রহস্য
লেখকসত্যজিৎ রায়
দেশভারত
ভাষাবাংলা
ধারাবাহিকফেলুদা
ধরনগোয়েন্দা উপন্যাস
প্রকাশনার তারিখ
আনন্দ প্রকাশনী

গোলোকধাম রহস্য, সত্যজিৎ রায় রচিত গোয়েন্দা কাহিনী ফেলুদা সিরিজের একটি গল্প।

সংক্ষিপ্তসার[সম্পাদনা]

এই গল্পে একজন বাঙালি বায়কেমিস্ট নিহার রঞ্জন দত্ত এর কাহিনী রয়েছে। প্রতিভাবান নিহার বাবু আমেরিকাতে ক্যান্সার নিয়ে গবেষণা করতেন। সেখানে তার সহকারী ছিলেন সুপ্রকাশ চৌধুরী। কিন্তু লোভের কারণে সুপ্রকাশ নিহার বাবুর পরীক্ষায় বিস্ফোরণ ঘটিয়ে তাকে অন্ধ করে দেন। ফলে নিহার বাবুকে কলকাতায় ফিরে আসতে হয়। অনেকদিন পর ফেলুদা নিহার বাবুর বাড়িতে ডাকাতির কেস নিয়ে যান। এই ঘটনার শেষ দিকে ফেলুদা দেখেন নিহার বাবুর গবেষণার কাগজপত্র এবং সঙ্গে ৩৩ হাজার টাকা চুরি হয়ে গেছে। ওই দিনই নিহার বাবুর দুই ভাড়াটিয়া সুখওয়ানি এবং দস্তুর-এর একজন দস্তুর খুন হন।

পরে দেখা যায় ওই কাগজ-পত্র ও টাকা নিহার বাবুর ব্যক্তিগত সহকারী, বিশ্বস্ত রঞ্জিত বন্দ্যোপাধ্যায় চুরি করেছিলেন এবং দস্তুর খুন হয় নিহার বাবুর দ্বারা। কারণ নিহার বাবু চিনতে পেরেছিলেন যে দস্তুর ছিলেন তার এককালের সহকারী সুপ্রকাশ চৌধুরী। তীব্র প্রতিশোধস্পৃহায় নিহার বাবু এই কাজ করেছিলেন। অন্ধ হলেও দস্তুরকে হত্যা করতে সক্ষম হন। ফেলুদা সেটা জানতে পেরেছে সেটা নিহারবাবু বুঝতে পারেন। তিনি ফেলুদাকে জানান তিনি ক্যানসারের রোগী। এর মাত্র ১৭ দিন পর তিনি মারা যান।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]