কাফি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
পাকিস্তানের সঙ্গীত
Overload Dhol Player.jpg
ধারা
নির্দিষ্ট ফর্ম
ধর্মীয় সঙ্গীত
জাতিগত সঙ্গীত
অন্যান্য সঙ্গীত
গণমাধ্যম ও অনুষ্ঠান
সঙ্গীত পুরস্কারহুম পুরষ্কার
লাক্স স্টাইল পুরষ্কার
নিগার পুরষ্কার
পাকিস্তান মিডিয়া অ্যাওয়ার্ডস
এআরওয়াই ফিল্ম অ্যাওয়ার্ডস
সঙ্গীত তালিকাপাত্রী হাফতানামা
সঙ্গীত উৎসবসমস্ত পাকিস্তান সংগীত সম্মেলন
লাহোর সংগীত সভা
লোক বিরসা মেলা
সঙ্গীত মাধ্যমম্যাগাজিন

টেলিভিশন

ইন্টারনেট

জাতীয়তাবাদী ও দেশাত্মবোধক গান
জাতীয় সঙ্গীতকওমি তারানা
অঞ্চলিক সঙ্গীত
ভারতের সঙ্গীত
A Lady Playing the Tanpura, ca. 1735.jpg
তানপুরা বাদনরত এক নারী, ১৭৩৫ খৃঃ; (রাজস্থান)
ধারা
ঐতিহ্যবাহী
আধুনিক
গণমাধ্যম ও অনুষ্ঠান
সঙ্গীত পুরস্কার
সঙ্গীত উৎসব
সঙ্গীত মাধ্যম
জাতীয়তাবাদী ও দেশাত্মবোধক গান
জাতীয় সঙ্গীতজনগণমন
অঞ্চলিক সঙ্গীত

কাফি এক প্রকারের শাস্ত্রীয় সুফী সঙ্গীত, এর বেশিরভাগই মধ্যে পাঞ্জাবি এবং সিন্ধি ভাষা এবং পাঞ্জাব ভাষা এবং দক্ষিণ এশিয়ার সিন্ধু অঞ্চল থেকে উদ্ভব। কয়েকজন সুপরিচিত কাফি কবি হলেন বাবা ফরিদ, বুলিহ শাহ, শাহ হুসেন, শাহ আবদুল লতিফ ভট্টাই, সচল সরমস্ত এবং খাজা গোলাম ফরিদ। এই কাব্য শৈলীটি দক্ষিণ এশিয়া, বিশেষত পাকিস্তান, বাংলাদেশ এবং ভারত জুড়ে জনপ্রিয় গানের কাফি ঘরানার প্রতি নিজেকে জানান দিয়েছে। বহু বছর ধরে, কাফি কবিতা এবং এর উপস্থাপনা উভয়ই দ্রুত বিকাশের পর্যায়গুলোর অভিজ্ঞতা অর্জন করেছে কারণে বিভিন্ন কবি এবং কণ্ঠশিল্পীরা রূপটিতে তাদের নিজস্ব প্রভাব যুক্ত করেছেন।[১] তারা এটিকে সমৃদ্ধ এবং বৈচিত্র্যময় কাব্যিক রূপ দিয়ে তৈরি করেছেন, তবুও এগুলো সমস্তই মধ্যবর্তী কথোপকথন কেন্দ্রিক থেকে যায়। যেখানে আত্মা ও স্রষ্টা, মুরিদ (শিষ্য) এবং তাঁর মুর্শিদ (মাস্টার) দ্বারা প্রতীকী এবং প্রায়শই প্রেমিক এবং তাঁর প্রিয়জনের বিষয় ফুটিয়ে তোলে।

কাফি শব্দটি আরবি কাফা অর্থ কাফা (সম্প্রদায় বা দল) থেকে উদ্ভূত হয়েছে। রীতিটি আরবী কবিতা ঘরানা থেকে উদ্ভূত বলে মনে করা হয়, কাসিদাহ, একটি মনোরহিম ওড যা সর্বদা গাওয়া হয়, যা আবেশ তৈরির জন্য পুনরাবৃত্তি গাওয়ার জন্য এক বা দুটি লাইন বারবার ব্যবহার করে। কাফি কবিতা সাধারণত লোকজ ও বীরত্বপূর্ণ এবং দুর্দান্ত রোম্যান্টিক কাহিনীগুলোর আশেপাশে কোন ঘটনার থিমযুক্ত হয়। যা প্রায়ই রহস্যময় সত্যের এবং আধ্যাত্মিক আকাঙ্ক্ষার রূপক হিসাবে ব্যবহৃত হয়।[২][৩]

কাফি গায়কী[সম্পাদনা]

সংগীত পরিভাষায়, কাফি বলতে পাঞ্জাবি এবং সিন্ধি ধ্রুপদী সংগীতের ধারাকে বোঝায় যা বুলিহ শাহ এবং শাহ হুসেনের মতো কাফির কবিদের আয়াতকে কাজে লাগায়। কাফি সংগীতটি ভক্তিমূলক সংগীত, যা সাধারণত দক্ষিণ এশিয়ার সূফী আদেশ বা ইসলামের তরীকের সাথে জড়িত থাকে এবং মুরশিদ, আধ্যাত্মিক গাইড হিসাবে একটি নৈবেদ্য হিসাবে একক বা দল বেঁধে দার্ভিশ বা ফকির (ইসলামিক কুশলী) দ্বারা গাওয়া হত।

এটির বিশিষ্টের মধ্যে তীব্র ভক্তিমূলক হিসাবে চিহ্নিত করা হয় এবং যেমন কাওয়ালি ঘরানার মতো যথেষ্ট পরিমাণে পুনরাবৃত্তি হয়। কাওয়ালির মতোই এর পরিবেশনাও প্রায়শই এই অঞ্চলের বিভিন্ন সুফি সাধকের দরগাহে (সমাধিসৌধে) গাওয়া হত। তবে কাওয়ালির বিপরীতে বাদ্যযন্ত্রগুলো খুব সহজ ধরনের হয় এবং এটিতে কেবল একটি হারমোনিয়াম, একটি তবলা, একটি ঝোলক এবং একজন কণ্ঠশিল্পী অন্তর্ভুক্ত থাকে বেশীরভাগ সময়ে। যেহেতু কাফি সংগীতের কেন্দ্রীয় লক্ষ্য হ'ল রহস্যময় গানের সারমর্ম প্রকাশ করা, সেহেতু বাদ্য বাদ দিয়ে শব্দের উপর জোর দেয়া হয়। কারণ কাফি সংগীতের মূল লক্ষ্য রহস্যবাদী গানের মূল কথা জানানো। কেন্দ্রীয় শ্লোকটি প্রায়শই পুনরাবৃত্তি হয়। কাফির গানের কোনও নির্দিষ্ট শৈলী নেই। প্রথাগতভাবে সিন্ধুতে ডারভেইসরা ইয়াখতারোর মতো যন্ত্র ব্যবহার করেছেন, এটি একজাতীয় তারযুক্ত যন্ত্র এবং কাঠের ক্লিপস, চ্যাপারসের মত যন্ত্র ব্যবহার করা যদিও অনেক সমসাময়িক গায়ক তাদের নিজস্ব পছন্দমতো বৈচিত্র চয়ন করেছেন।[২]

কাফি গানের উত্থান[সম্পাদনা]

১৯৩০-এর দশকে এই ফর্মের প্রাথমিক উল্লেখযোগ্য কিছু লোক, যখন ধ্রুপদী গান গাওয়ায় অত্যন্ত জনপ্রিয় হয়ে ওঠে। তাদের মধ্য ছিলেন পাতিয়ালার ঘরানার ওস্তাদ আশিক আলি খান। যিনি তাঁর সিন্ধি কাফীদের উপস্থাপনে ধ্রুপদ রীতি ব্যবহার করেছিলেন এবং সিন্ধি কাফি গানে তাঁর সমসাময়িক, ফিউশন ফর্মটি ব্যবহার করেছেন ওস্তাদ আল্লাদিনো নুনারী।[১]

কাফী বিশ শতকের শেষের দিকে পশ্চিমা দেশগুলোতে উচ্চতর প্রোফাইল অর্জন করেছেন। পাকিস্তানি গায়ক আবিদা পারভীনকে ধন্যবাদ, যিনি কাওয়ালি প্রবীণ নুসরাত ফতেহ আলী খানের মতো, পাশ্চাত্য শ্রোতার সামনে পরিবেশন করেছেন।

হায়দরাবাদ থেকে আসা সানাম মারভি হলেন আরেক গায়ক ও কণ্ঠশিল্পী, কাফি ভিত্তিক সুফি গানে পারফর্ম করেছেন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Tribute: The legendary maestro by Shaikh Aziz, Dawn (newspaper), 05 Jul, 2009.
  2. Kafi South Asian folklore: an encyclopedia : Afghanistan, Bangladesh, India, Nepal, Pakistan, Sri Lanka, by Peter J. Claus, Sarah Diamond, Margaret Ann Mills. Taylor & Francis, 2003.
  3. Kafi Crossing boundaries, by Geeti Sen. Orient Blackswan, 1998. আইএসবিএন ৮১২৫০১৩৪১৫. p. 133.